X
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ প্রয়োজন হতে পারে: ফাইজার

আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০২১, ১৬:৪১

মার্কিন ফার্মা জায়ান্ট ফাইজারের ভাইরোলজিস্টরা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা পেতে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ যথেষ্ট নয়। তারা বলচেন, করোনার চরিত্র বদলের ফলে জিনের গঠন বিন্যাসের এত পরিবর্তন হয়েছে যে এই ভাইরাল স্ট্রেন থেকে রক্ষা পেতে ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ প্রয়োজন হতে পারে। ফাইজার সিইও অ্যালবার্ট বোরলা বলেন, ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ হবে ‘বুস্টার’,যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ শক্তিকে কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেবে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এখবর জানিয়েছে।

ফাইজারের দাবি, প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পর ছয় মাস থেকে এক বছর পরে এই তৃতীয় ডোজ নেওয়াটা খুবই দরকার। এই ডোজেই শরীরে রোগ প্রতিরোধ শক্তি আরও বাড়বে।

করোনাভাইরাস শুরু তে যেমনটা ছিল এখন তার রূপ অনেকটাই পরিবর্তিত। বিশ্বজুড়েই ভাইরোলজিস্টরা বলছেন, সার্স-কভ-২ ভাইরাল স্ট্রেনে মিউটেশন বা জিনের গঠন বিন্যাস খুব দ্রুত বদলে যাচ্ছে। একবারে ২০০ বার জিনের গঠন বদলাতেও দেখেছেন বিজ্ঞানীরা। স্পাইক প্রোটিনে অ্যামাইনো অ্যাসিডের কোডও বদলে যাচ্ছে। তাই ভাইরাল স্ট্রেন দিনে দিনে আরও ছোঁয়াচে, অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছে।

ফাইজারের বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভাইরাসের জিনোম সিকুয়েন্স করে বা জিনের বিন্যাস সাজিয়ে যেমনটা দেখে ভ্যাকসিনের ফর্মুলা তৈরি হয়েছিল, সেই জিনের বিন্যাসই এখন বদলে গেছে। যদিও ভ্যাকসিনে কাজ হবে ঠিকই, কিন্তু সারা বছর সংক্রামক ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হলে শরীরের ইমিউনিটি সেই পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে। এর জন্যই দরকার এই তৃতীয় ডোজ।

সাধারণত, ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ শরীরে ঢুকে ইমিউন কোষগুলোকে (বি-কোষ ও টি-কোষ) সক্রিয় করার চেষ্টা করে। দেহকোষে ভাইরাস প্রতিরোধী সুরক্ষা বলয় তৈরি করার জন্য ইমিউন কোষগুলোকে অ্যাকটিভ করা শুরু করে। দ্বিতীয় ডোজে এই কাজটাই সম্পূর্ণ হয়। বি-কোষ সক্রিয় হয়ে প্লাজমায় অ্যান্টিবডি তৈরি করে। অন্যদিকে, টি-কোষ বা টি-লিম্ফোসাইট কোষ সক্রিয় সংক্রামক কোষগুলোকে নষ্ট করতে শুরু করে। দুই ডোজের পরে যে অ্যান্টিবডি শরীরে তৈরি হয় তা ভাইরাস থেকে সুরক্ষা দেয়।

কিন্তু এই অ্যান্টিবডি কতদিন শরীরে টিকে থাকছে সেটাই হলো আসল প্রশ্ন। বিজ্ঞানীরা কখনও বলছেন, করোনা প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি তিন মাসের বেশি থাকছে না, হুট করে কমে যাচ্ছে। আবার কখনও দাবি করা হচ্ছে, অ্যান্টিবডি কম করেও সাত মাস টিকে থাকছে।

ফাইজারের বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হলো, অ্যান্টিবডির স্থায়িত্বকাল যেহেতু কম তাই দুই ডোজে ভরসা না করে বুস্টার ডোজ দরকার। টিকা নেওয়ার প্রায় এক বছর পরে যদি এই বুস্টার দেওয়া হয়, তাহলে আবারও শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হবে, আরও কয়েকমাস ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা পাওয়া যাবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কোভিড রেসপন্স টিমের প্রধান ডেভিড কেসলারও বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে করোনার সংক্রমণ যেভাবে বাড়ছে তাতে তৃতীয় বুস্টার ডোজ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। খুব তাড়াতাড়ি এই ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে পারে প্রশাসন।

/এএ/

সম্পর্কিত

এই মুহূর্তে ফেসবুকে নিষিদ্ধই থাকছেন ট্রাম্প

এই মুহূর্তে ফেসবুকে নিষিদ্ধই থাকছেন ট্রাম্প

৯০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

৯০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

৫ লাখ ডোজ টিকা আসছে ঈদের আগে

৫ লাখ ডোজ টিকা আসছে ঈদের আগে

শিশুদের জন্য বই প্রকাশ করতে যাচ্ছেন মেগান মার্কেল

শিশুদের জন্য বই প্রকাশ করতে যাচ্ছেন মেগান মার্কেল

‘স্বাস্থ্যবিধি না মানলে করোনা সংক্রমণ কমানো যাবে না’

‘স্বাস্থ্যবিধি না মানলে করোনা সংক্রমণ কমানো যাবে না’

ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ ১২ সপ্তাহ পরেও নেওয়া যাবে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ ১২ সপ্তাহ পরেও নেওয়া যাবে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

ভ্যাকসিন না এলে টাকা ফেরত

ভ্যাকসিন না এলে টাকা ফেরত

টুইটার, ফেসবুকে বার্তা দেওয়ার নতুন কৌশল ট্রাম্পের

টুইটার, ফেসবুকে বার্তা দেওয়ার নতুন কৌশল ট্রাম্পের

দ্বিতীয় ডোজের অনিশ্চয়তায় ১৪ লাখেরও বেশি মানুষ

রেজিস্ট্রেশন সাময়িক বন্ধ দ্বিতীয় ডোজের অনিশ্চয়তায় ১৪ লাখেরও বেশি মানুষ

বিভিন্ন উৎস থেকে টিকা কেনার চেষ্টা সরকারের

বিভিন্ন উৎস থেকে টিকা কেনার চেষ্টা সরকারের

গ্রহাণু ধেয়ে আসলে কী হবে পৃথিবীর?

গ্রহাণু ধেয়ে আসলে কী হবে পৃথিবীর?

সর্বশেষ

জানমালের ক্ষতির আশঙ্কায় রাবি উপাচার্যের জামাতার জিডি

জানমালের ক্ষতির আশঙ্কায় রাবি উপাচার্যের জামাতার জিডি

ঐতিহ্যবাহী এ মসজিদে নামাজ পড়েছিলেন বঙ্গবন্ধু

ঐতিহ্যবাহী এ মসজিদে নামাজ পড়েছিলেন বঙ্গবন্ধু

পরিদর্শককে পিটিয়ে সার্জেন্ট ও টিএসআই ক্লোজড

পরিদর্শককে পিটিয়ে সার্জেন্ট ও টিএসআই ক্লোজড

২০ দিন পর রাজপথে নেমেছে গণপরিবহন

২০ দিন পর রাজপথে নেমেছে গণপরিবহন

ইন্দোনেশিয়ার বিমানবন্দরে করোনা টেস্ট নিয়ে জালিয়াতি

ইন্দোনেশিয়ার বিমানবন্দরে করোনা টেস্ট নিয়ে জালিয়াতি

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৫ কোটি ৫৮ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৫ কোটি ৫৮ লাখ ছাড়িয়েছে

ট্রাকের নিচে পড়ে মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু

ট্রাকের নিচে পড়ে মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু

রাজধানীতে ভিক্ষুক বেড়েছে কয়েক গুণ

রাজধানীতে ভিক্ষুক বেড়েছে কয়েক গুণ

কোন কোন আত্মীয়কে জাকাত দেওয়া যায় না?

কোন কোন আত্মীয়কে জাকাত দেওয়া যায় না?

ট্রাকচাপায় শাবি ছাত্র নিহত

ট্রাকচাপায় শাবি ছাত্র নিহত

স্বস্তির বৃষ্টিতে ফল-ফসলের উপকার

স্বস্তির বৃষ্টিতে ফল-ফসলের উপকার

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে অর্থনীতিবিদ মাহবুবউল্লাহ

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে অর্থনীতিবিদ মাহবুবউল্লাহ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

এই মুহূর্তে ফেসবুকে নিষিদ্ধই থাকছেন ট্রাম্প

এই মুহূর্তে ফেসবুকে নিষিদ্ধই থাকছেন ট্রাম্প

শিশুদের জন্য বই প্রকাশ করতে যাচ্ছেন মেগান মার্কেল

শিশুদের জন্য বই প্রকাশ করতে যাচ্ছেন মেগান মার্কেল

টুইটার, ফেসবুকে বার্তা দেওয়ার নতুন কৌশল ট্রাম্পের

টুইটার, ফেসবুকে বার্তা দেওয়ার নতুন কৌশল ট্রাম্পের

গ্রহাণু ধেয়ে আসলে কী হবে পৃথিবীর?

গ্রহাণু ধেয়ে আসলে কী হবে পৃথিবীর?

মাঝ আকাশে 'মিরাকল বেবির' জন্ম!

মাঝ আকাশে 'মিরাকল বেবির' জন্ম!

বিল গেটস দম্পতির বিচ্ছেদ হলেও অক্ষত থাকছে ফাউন্ডেশন

বিল গেটস দম্পতির বিচ্ছেদ হলেও অক্ষত থাকছে ফাউন্ডেশন

কোভ্যাক্স উদ্যোগে ৫০ কোটি ভ্যাকসিন দেবে মডার্না

কোভ্যাক্স উদ্যোগে ৫০ কোটি ভ্যাকসিন দেবে মডার্না

© 2021 Bangla Tribune