X
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

সয়াবিন তেলের ভবিষ্যৎ কী?

আপডেট : ২৭ মে ২০২১, ২২:১০

আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন তেলের দাম বাড়ছে ক্রমশ। এর প্রভাবে দেশের অভ্যন্তরীণ বাজারেও বেড়েছে সয়াবিনসহ সব ধরনের ভোজ্যতেলের দাম। গত বছরের এপ্রিলে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি টন অপরিশোধিত সয়াবিনের দাম ছিল ৭০০ ডলার। চলতি এপ্রিলে এসে সেই অপরিশোধিত সয়াবিনের টন দাঁড়িয়েছে ১৪শ’ ৫০ ডলারে। এমন পরিস্থিতিতে দেশীয় বাজারে প্রায় প্রতিদিনই বাড়ছে সয়াবিন তেলের দাম। সরকারের পক্ষ থেকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দর নির্ধারণ করে দিলেও তা বাজারে গিয়ে টিকছে না। এমনটা চলতে থাকলে কোথায় গিয়ে যে দাঁড়াবে সয়াবিন তেলের দাম তা বলা মুশকিল বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। 

এদিকে বাংলাদেশের ভোজ্যতেল পরিশোধনকারী মিলগুলোর মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন আবারও প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১৩ টাকা বাড়ানোর সুপারিশ করে বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের কাছে আবেদন করেছে। ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশন ব্যবসায়ীদের সুপারিশের আবেদনপত্রটি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে, কিন্তু বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এখনও এ বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি।  

সরকারের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের তথ্য অনুযায়ী, রাজধানীর বাজারে এখন প্রতিকেজি খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা দরে। যা এক সপ্তাহ আগেও ছিল ১৩৫ থেকে ১৪৫ টাকা। এছাড়া বোতলজাত সয়াবিন তেল প্রতিলিটার বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ টাকা থেকে ১৪০ টাকা। কোম্পানিভেদে পাঁচ লিটারের বোতল বিক্রি হচ্ছে ৬৬০ টাকা।

এদিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ও বাণিজ্য সচিব জাফর উদ্দিনের নেতৃত্বে করা পর্যবেক্ষণে ব্যবহার্য বিভিন্ন নিত্যপণ্যের সরবরাহ স্বাভাবিক থাকার পাশাপাশি এসব পণ্যের বাজারে মোটামুটি স্থিতিশীল থাকলেও ভোজ্যতেলের দাম খানিকটা বেড়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য অনুবিভাগের দ্রব্যমূল্য পর্যালোচনা ও পূর্বাভাস সেল কর্তৃক নিয়মিত পর্যবেক্ষণ এবং পর্যালোচনার মাধ্যমে দেখা যায়, বিগত এক বছরে বিশেষ করে রমজান মাসে ভোজ্যতেলের বাজার দর এ সময় বেশ খানিকটা বেড়েছে। ২০১৪ সাল থেকে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত ভোজ্যতেলের বাজার মোটামুটি স্থিতিশীল ছিল। জুন, ২০২০-এর পর থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিক ঊর্ধ্বগতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। যেহেতু, ভোজ্যতেল একটি আমদানিনির্ভর পণ্য, সেহেতু ভোজ্যতেলের বাজার দর মূলত নির্ভর করে আন্তর্জাতিক বাজার দরের ওঠানামার ওপর। ভোজ্যতেলের মোট চাহিদার ৯৫ ভাগেরও বেশি আমদানির মাধ্যমে পূরণ করা হয়। তাই সম্প্রতি আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় বাজারেও এর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। তবে, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম যেভাবে বেড়েছে, স্থানীয় বাজারে সেই পরিমাণে বাড়েনি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আরও জানিয়েছে, গত এক বছরের আন্তর্জাতিক বাজার দর পর্যালোচনায় দেখা যায়, এক বছর আগে আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন তেলের দাম যেখানে কেজি প্রতি ৫২ দশমিক ১১ টাকা ছিল, বর্তমানে তার মূল্য ১৩৫ দশমিক ৮৪ টাকা। অর্থাৎ এই সময়ে সয়াবিন তেলের আন্তর্জাতিক মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১৬০ শতাংশ। একই সময়ে স্থানীয় বাজার দর পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এক বছর আগে খোলা সয়াবিন তেলের বাজার দর ছিল ৮৮ থেকে ৯৩ টাকা, কিন্তু বর্তমানে তা ১২০ থেকে ১২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রয় হচ্ছে। অর্থাৎ এই সময়ে স্থানীয় বা  দেশীয় বাজারে মূল্য বৃদ্ধির পরিমাণ প্রায় ৩৫ শতাংশ। 

স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক বাজার দর পর্যালোচনা করে দেখা যায়, আন্তর্জাতিক বাজারে যেখানে ১৬০ শতাংশ মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে, একই সময়ে দেশীয় বাজারে এই মূল্য বৃদ্ধির পরিমাণ প্রায় ৩৫ শতাংশ। পাশাপাশি, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বাজার মনিটরিং টিম সার্বক্ষণিক বাজার মনিটরিং কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত পর্যবেক্ষণ এবং পর্যালোচনার ফলশ্রুতিতে আন্তর্জাতিক বাজার দর যে পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে, স্থানীয় বাজার দর সেই তুলনায় অনেক কম বৃদ্ধি পেয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের পারস্পরিক সহযোগিতামূলক মনোভাবের কারণে বাজার দর এতটা কম রাখা সম্ভব হয়েছে।

এদিকে আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতি জটিলতার মধ্যেও বিশ্বে সয়াবিন তেলের উৎপাদন বেড়েছে। কিন্তু একই সঙ্গে বেড়েছে দাম। বিশ্লেষকরা বলছেন, উৎপাদক দেশগুলো রফতানি বাড়িয়েছে, একই সঙ্গে ডলারের বিপরীতে সয়াবিন তেল উৎপাদনকারী দেশগুলোর মুদ্রা ডলারের তুলনায় শক্তিশালী হওয়ায় নাকি তেলের দাম বেড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালে বিশ্বব্যাপী সয়াবিন তেলের উৎপাদনের পরিমাণ ছিল ৫ কোটি ৮০ লাখ টন। ২০২০ সালে এসে সয়াবিন তেল উৎপাদনকারী বিভিন্ন দেশে সয়াবিন উৎপাদিত হয়েছে ৬ কোটি ১০ লাখ টন। উৎপাদনকারী দেশগুলো সয়াবিনের রফতানি শুল্ক বাড়ানোর কারণেই আন্তর্জাতিক বাজারে এর দাম বেড়েছে। করোনার কারণে সয়াবিন তেলের উপজাত পণ্য সয়ামিলের (সয়াবিন থেকে তৈরি খাবার) চাহিদা কমে যাওয়ার কারণেও বেড়েছে সয়াবিন তেলের দাম।

উল্লেখ্য, বিশ্বে সবচেয়ে বেশি সয়াবিন তেল উৎপাদন করে চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিল। ২০১৯ সালে চীন ১ কোটি ৮০ লাখ টন ও যুক্তরাষ্ট্র ৮০ লাখ টন সয়াবিন তেল উৎপাদন করে, যা বিশ্বের মোট উৎপাদনের প্রায় ৪৫ শতাংশ। বাকিটা উৎপাদন করে ব্রাজিল। মার্কিন বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনডেক্সবক্সের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর থেকেই সয়াবিন থেকে তৈরি প্রাকৃতিক জ্বালানি বায়োডিজেলের উৎপাদন কমে গেছে। এতে বেড়েছে সয়াবিন তেলের উৎপাদন।

জানা গেছে, উৎপাদনকারী দেশগুলোর চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বে উৎপাদিত সয়াবিন তেলের মাত্র ১৮ দশমিক ৬ শতাংশ বা ১ কোটি ২৬ লাখ টন তেল আসে আন্তর্জাতিক বাজারে। বিশ্বে সয়াবিন তেল আমদানিকারক দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয়। সবচেয়ে বেশি তেল আমদানি করে ভারত। এরপরই আছে আলজেরিয়া। এ বছর চীনও আন্তর্জাতিক বাজার থেকে সয়াবিন তেল কিনছে।

সয়াবিন তেলের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক বাজার দর অনুযায়ী সয়াবিন তেলের দাম আগের যেকোনও সময়ের তুলনায় বেশি। ফলে দেশি বাজারেও এর প্রভাব পড়ছে। তবে আগামীতে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমার সম্ভাবনা রয়েছে। এটি যদি হয় তাহলে আমরাও এর সুফল পাবো।

এদিকে ভোজ্যতেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সিটি গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক বিশ্বজিৎ সাহা জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতি বিবেচনায় নিলে বর্তমান দামে সয়াবিন তেল বিক্রি করা সম্ভব নয়। তাই আমরা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছি, যাতে বিদ্যমান দর পুনর্নির্ধারণ করে। তিনি জানান, গত এক বছরের ব্যবধানে আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ। ৭০০ ডলারের সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৪শ’ ৫০ ডলারে। দেশীয় বাজারে কিন্তু সেই হারে দাম বাড়েনি।

 

 

/এফএএন/এমওএফ/

সম্পর্কিত

নিজেরাই  দাম পাঁচ টাকা বাড়িয়ে দিলো

নিজেরাই দাম পাঁচ টাকা বাড়িয়ে দিলো

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

ভোজ্যতেলের দাম আবার বাড়বে কেন?

ভোজ্যতেলের দাম আবার বাড়বে কেন?

আবারও ভোজ্যতেলের দাম বাড়াতে চায় ব্যবসায়ীরা

আবারও ভোজ্যতেলের দাম বাড়াতে চায় ব্যবসায়ীরা

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০৬

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। আগামী ১ অক্টোবর দুবাইয়ে শুরু হতে যাচ্ছে ৬ মাসব্যাপী দুবাই এক্সপো। বাংলাদেশ এতে অংশ নেবে। বাণিজ্যমন্ত্রী  বাংলাদেশ প্যাভেলিয়নের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। এ জন্যই তিনি দুবাই যাচ্ছেন।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ। এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ‘দুবাই ২০২১ এক্সপোতে’ শুধু পণ্যই নয়, এ মেলায় অংশ গ্রহণের ফলে বিশ্ববাসীর কাছে ৫০ বছরের অর্জন তুলে ধরবে বাংলাদেশ।

সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘ছয় মাসব্যাপী এই ওয়ার্ল্ড এক্সপোতে বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতের অর্জন, পণ্য, ধারণা উদ্ভাবন, জাতীয় ব্র্যান্ড, পর্যটন, ইতিহাস এবং  ব্যবসায়িক পরিবেশ প্রচারের মাধ্যমে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করার চেষ্টা করা হবে। অলিম্পিক গেমস, ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপের পরে তৃতীয় বৈশ্বিক ইভেন্ট হিসেবে ওয়ার্ল্ড এক্সপো মূলত বিভিন্ন দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, অগ্রগতি, বাণিজ্য সম্ভাবনা ও সংস্কৃতি বিশ্ববাসীর সামনে উপস্থাপনের সুযোগ হবে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এক্সপো কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ ও বিশ্ব সম্প্রদায়ের জন্য দেশের ইমেজ বৃদ্ধিতে আগামী ৩ ডিসেম্বর ‘ইন্টারন্যাশনাল ডে অব পারসনস উইথ ডিজঅ্যাবিলিটিস’, ১৬ ডিসেম্বর ‘কান্ট্রি ডে’, ২১ ফেব্রুয়ারি ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’, ৮ মার্চ ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’, ১৭ মার্চ ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীর’ অনুষ্ঠান এবং ২৬ মার্চ বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন উপলক্ষে বিশেষ আয়োজন থাকবে। দুবাই ২০২১ এক্সপো আয়োজনের মূল থিম কানেকটিং মাইন্ডস, ক্রিয়েটিং দি ফিউচার  এবং সাব থিম তিনটি অপারচুনিটি, মোবিলিটি এবং সাসটেইনেবিলিটি।’  

বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নের এক্সিবিশন টাইটেল নির্ধারণ করা হয়েছে— ‘ইন্দোমিটেবল বাংলাদেশ: টুয়ার্ডস সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট’। বাংলাদেশের দ্বিতল বিশিষ্ট প্যাভিলিয়নের নিচ তলা প্রদর্শনীর জন্য এবং দ্বিতীয় তলা দাফতরিক,  সেমিনার ও বিজনেস টু বিজনেস সভার কাজে ব্যবহার করা হবে। এই এক্সপোর মাধ্যমে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, অগ্রগতি, সাফল্য এবং বাণিজ্য সম্ভাবনা যথাযথভাবে তুলে ধরা হবে। এজন্য বাংলাদেশের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সমন্বয়  করবে। এ জন্য প্রযোজ্য পণ্য, অডিও-ভিজ্যুয়াল, ডকুমেন্টারি ইত্যাদি প্রদর্শন করা হবে।’

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে ইটালির মিলানে সর্বশেষ ওয়ার্ল্ড এক্সপো অনুষ্ঠিত হয়েছিল। মধ্যপ্রাচ্য, আফ্রিকা এবং দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রথমবারের মতো ‘ওয়ার্ল্ড এক্সপো ২০২১’ এর আয়োজন করছে। কোভিডের কারণে এই এক্সপো আগামী ১ অক্টোবর শুরু হয়ে ২০২২ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত চলবে বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে।

এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাফিজুর রহমান, যুগ্ম সচিব আব্দুর রহিম খান এবং  মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

প্রবাসীরা ২৩ দিনে পাঠালেন ১৩৯ কোটির বেশি ডলার

প্রবাসীরা ২৩ দিনে পাঠালেন ১৩৯ কোটির বেশি ডলার

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

শেয়ার বাজার চাঙা রাখতে আরও কিছু উদ্যোগ বিএসইসির

শেয়ার বাজার চাঙা রাখতে আরও কিছু উদ্যোগ বিএসইসির

অভিযোগ করে ভোক্তারা পেয়েছেন প্রায় সোয়া কোটি টাকা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০১

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের প্রতিষ্ঠার পর দাফতরিকভাবে নিষ্পত্তিকৃত অভিযোগের প্রেক্ষিতে আদায়কৃত জরিমানার ২৫ শতাংশ হিসেবে ৬ হাজার ৯২০ জন অভিযোগকারীকে ১ কোটি ২০ লাখ ২৯ হাজার ৫০২ টাকা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ভোক্তা স্বার্থ সুরক্ষায় নিয়োজিত সর্বোচ্চ ফোরাম জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ২৩তম সভায় এই তথ্য জানানো হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

সূচনা বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট মহামারিকালে ভোক্তা স্বার্থ সুরক্ষা, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, বাজারজাতকরণ ও দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখতে নিরলস কাজ করার জন্য জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সকল স্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীকে ধন্যবাদ জানান এবং কাজের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন।

সভায় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ অনুযায়ী অধিদফতরের গৃহীত কার্যক্রমের প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। এছাড়াও অধিদফতরের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের কার্যাবলীর বিবরণ সম্বলিত বার্ষিক প্রতিবেদন, ২০২০-২০২১ অর্থবছরের এপ্রিল, মে ও জুন ২০২১ পর্যন্ত ১টি ত্রৈমাসিক হিসাব বিবরণী, জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থা গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ইমপ্রুভড নিউট্রিশনের মধ্যে সম্পাদিত সহযোগিতা চুক্তির মেয়াদ বর্ধিতকরণ ও নতুনভাবে সম্পাদনযোগ্য চুক্তির বিষয় এবং ক্যাব কর্তৃক ২০২১-২০২২ অর্থবছরের 'ভোক্তা অধিকার শক্তিশালীকরণ কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য আর্থিক অনুদান প্রদানের বিষয় অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হয়। 

সভায় জানানো হয় যে অধিদফতর প্রতিষ্ঠার পর থেকে ৩১ আগস্ট ২০২১ পর্যন্ত সময়ে ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে বাজার অভিযান পরিচালনা করে ১ লাখ ৭ হাজার ৩৮টি প্রতিষ্ঠানকে দণ্ডিত করে ৭৩ কোটি ৩৯ লাখ ১৩ হাজার ২৪২ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। একই সময়ে দাফতরিকভাবে প্রাপ্ত অভিযোগ নিষ্পত্তি করে ৭ হাজার ১০ টি প্রতিষ্ঠানকে ৪ কোটি ৮৮ লাখ ৬ হাজার ৮ টাকা জরিমানা করা হয়।

২৯ সদস্য বিশিষ্ট পরিষদের সভায় উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ, বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও বীমা ব্যক্তিত্ব জনাব শেখ কবির হোসেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কাজী আকরাম উদ্দীন আহমেদসহ আরও অনেকে। সভাটি সঞ্চালনা করেন পরিষদের সচিব ও জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা।

/এসও/এমআর/

সম্পর্কিত

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

প্রবাসীরা ২৩ দিনে পাঠালেন ১৩৯ কোটির বেশি ডলার

প্রবাসীরা ২৩ দিনে পাঠালেন ১৩৯ কোটির বেশি ডলার

বিইআরসি ছাড়া অন্য কারও এলপিজির দাম নির্ধারণের এখতিয়ার নেই: ক্যাব

বিইআরসি ছাড়া অন্য কারও এলপিজির দাম নির্ধারণের এখতিয়ার নেই: ক্যাব

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫১

জাল নোট চিহ্নিত ও প্রতিরোধের জন্য ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহার নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করে ব্যাংকগুলোর শীর্ষ নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগ।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইট থেকে একশ, দুইশ, পাঁচশ ও এক হাজার টাকার আসল নোট চেনার উপায় সংবলিত পোস্টার ডাউনলোড করে ন্যূনতম ১৮ ইঞ্চি × ১৪.৫ ইঞ্চি সাইজের প্রয়োজনীয় সংখ্যক কপি প্রিন্ট করে গ্রাহকদের দৃষ্টিগোচর যোগ্য স্থানে প্রদর্শন করার জন্য পরামর্শ দেওয়া হলো।

 

/জিএম/আইএ/

সম্পর্কিত

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রবাসীরা ২৩ দিনে পাঠালেন ১৩৯ কোটির বেশি ডলার

প্রবাসীরা ২৩ দিনে পাঠালেন ১৩৯ কোটির বেশি ডলার

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রবাসীরা ২৩ দিনে পাঠালেন ১৩৯ কোটির বেশি ডলার

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৩১

চলতি সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম ২৩ দিনে ১৩৯ কোটি ১৭ লাখ মার্কিন ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগের প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ধারণা এভাবে রেমিট্যান্স এলে সেপ্টেম্বর মাস শেষে প্রবাসী আয় ১৮০ কোটি ডলার পৌঁছাবে।

তথ্য বলছে, চল‌তি সেপ্টেম্বর মাসের ২৩ তারিখ পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন পাঁচ বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ২৮ কোটি ১১ লাখ মার্কিন ডলার। বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ১০৭ কোটি ৪০ লাখ মার্কিন ডলার। বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৬১ লাখ ডলার। দুইটি বিশেষায়িত ব্যাংকের মধ্যে একটিতে এসেছে তিন কোটি মার্কিন ডলার।

চলতি মাসের ২৩ দিনে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে। ব্যাংকটির মাধ্যমে ৩৮ কোটি ১১ লাখ ডলার এসেছে। এরপর ডাচ্–বাংলা ব্যাংকে প্রায় ১৬ কোটি ৫৫ লাখ, অগ্রণী ব্যাংকে ১২ কোটি ১৫ লাখ ও সোনালী ব্যাংকে ৭ কোটি ৬৮ লাখ এবং রূপালী ব্যাংকে এসেছে ৪ কোটি ৮৮ লাখ ডলার প্রবাসী আয়।

এ সময়ে সরকারি বিডিবিএল, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, কমিউনিটি ব্যাংক, বিদেশি ব্যাংক আল-ফালাহ, হাবিব ব্যাংক ও ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তানের মাধ্যমে কোনও রেমিট্যান্স পাঠাননি প্রবাসীরা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সর্বশেষ গেল আগস্ট মাসে দেশে ১৮১ কোটি মা‌র্কিন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। যা আগের মাস জুলাই‌য়ের চেয়ে ৬ কোটি ১৪ লাখ ডলার কম। এছাড়া আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ১৫ কো‌টি ৩৮ লাখ বা প্রায় ৮ শতাংশ কম।

২০২০-২১ অর্থবছরে দুই হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স দেশে আসে। যা আগের অর্থবছরের চেয়ে ৩৬ দশমিক ১০ শতাংশ বেশি। ২০১৯-২০ অর্থবছরে এক হাজার ৮২০ কোটি ডলার বা ১৮ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এক হাজার ৬৪২ কোটি ডলার রেমিট্যান্স আসে দেশে।

২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার।

/জিএম/এমএস/

সম্পর্কিত

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

বিইআরসি ছাড়া অন্য কারও এলপিজির দাম নির্ধারণের এখতিয়ার নেই: ক্যাব

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:০০

আইন অনুযায়ী বিইআরসি ছাড়া আর কারও এলপিজির মূল্য নির্ধারণের এখতিয়ার নেই। ফলে সরকারি এলপিজির দামা নির্ধারণের দায়িত্ব বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনকে (বিপিসি) দেওয়ার কোনও সুযোগ নেই বলে জানিয়েছে কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)।

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)-এর চেয়ারম্যানের কাছে এই বিষয়ে একটি চিটি পাঠিয়েছে ক্যাব। ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির ভুইয়া স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এসব কথা বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ৭ সেপ্টেম্বর জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ থেকে বিইআরসির সচিবের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে এলপি গ্যাস লিমিটেডের  সরবরাহ করা এলপিজির দাম নির্ধারণের বিষয়টি বিইআরসির আওতাবহির্ভূত রাখার কথা বলা হয়েছে।

বিইআরসিকে দেওয়া ক্যাবের চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারি এলপিজি কোম্পানি এলপি গ্যাস লিমিটেডের এলপিজির দাম নির্ধারণ করার দায়িত্ব বিপিসিকে দেওয়া এবং এই চিঠি দিয়ে বিইআরসির এখতিয়ার বহির্ভূত রাখতে বলায় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ বিইআরসি আইনের ২২(খ) উপধারা লঙ্ঘন করেছে। এই আইনের ৪২ ধারা মতে আইন লঙ্ঘনের দায়ে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছে। অন্যদিকে তাতে উচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করা হয়েছে। ফলে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ আদালত অবমাননার দায়ে অভিযুক্ত।

চিঠিতে জ্বালানি বিভাগ চলতি মাসে ৭ সেপ্টেম্বর বিইআরসিকে দেওয়া চিঠি অনতিবিলম্বে বাতিল বা প্রত্যাহার করাসহ ৬টি সুপারিশ করা হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে বিইআরসির আইন সংশোধন করে এলপিজিসহ পেট্রোলিয়াম পণ্যসমূহের দাম নির্ধারণ বিইআরসির এখতিয়ার বহির্ভূত রাখার তৎপরতা বন্ধ করা এবং এই আইন সংশোধন না করা, বিইআরসি আইনের ২২(খ) উপধারা মতে গণশুনানির ভিত্তিতে পেট্রোলিয়াম পণ্যগুলোর দাম নির্ধারণ করার জন্য জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ থেকে বিইআরসিকে জানানো, জ্বালানি খাতের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সংস্থাটির হিসাব নিকাশ কন্ট্রোলার অডিটর জেনারেলের মাধ্যমে অডিট করানো, এলপিজিসিএলের এলপিজির ডিস্ট্রিবিউটর ও রিটেইলার চার্জ গণশুনানির মাধ্যমে নির্ধারণ করা এবং সরকারি এলপিজি স্বল্প দামে বস্তিবাসী ও স্ট্রিট ফুড ভেন্ডরদের মধ্যে বিতরণ করা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, আইন অনুযায়ী বিইআরসি ছাড়া আর কারও পেট্রোলিয়াম জাতীয় পণ্য যেমন, এলপিজির দাম নির্ধারণের এখতিয়ার নেই। জ্বালানি বিভাগ থেকে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে তা আইন বহির্ভূত। অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত বাতিলের আহ্বান জানান তিনি।

/এসএনএস/এমআর/

সম্পর্কিত

বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি আইন বাতিলের দাবি

বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি আইন বাতিলের দাবি

সম্পর্কিত

ময়মনসিংহে সয়াবিনের দাম লিটারে বেড়েছে ৭ টাকা

ময়মনসিংহে সয়াবিনের দাম লিটারে বেড়েছে ৭ টাকা

নিজেরাই  দাম পাঁচ টাকা বাড়িয়ে দিলো

নিজেরাই দাম পাঁচ টাকা বাড়িয়ে দিলো

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

ভোজ্যতেলের দাম আবার বাড়বে কেন?

ভোজ্যতেলের দাম আবার বাড়বে কেন?

আবারও ভোজ্যতেলের দাম বাড়াতে চায় ব্যবসায়ীরা

আবারও ভোজ্যতেলের দাম বাড়াতে চায় ব্যবসায়ীরা

ভোজ্যতেলের দামের লাগাম টানতে নতুন উদ্যোগ

ভোজ্যতেলের দামের লাগাম টানতে নতুন উদ্যোগ

সর্বশেষ

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

লোভনীয় অফারে প্রভাবিত না হওয়ার পরামর্শ

লোভনীয় অফারে প্রভাবিত না হওয়ার পরামর্শ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালকসহ ৩৪ পদে রদবদল

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালকসহ ৩৪ পদে রদবদল

বাংলাদেশের জার্সিতে সাফে খেলা হচ্ছে না কিংসলের

বাংলাদেশের জার্সিতে সাফে খেলা হচ্ছে না কিংসলের

সড়ক চার লেন করা নিয়ে নড়াইলে দুপক্ষের মাঝে উত্তেজনা

সড়ক চার লেন করা নিয়ে নড়াইলে দুপক্ষের মাঝে উত্তেজনা

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

মাঠকর্মী হিসেবে মাদ্রাসা শিক্ষক ও ইমামদের টার্গেট করতেন রাগীব

মাঠকর্মী হিসেবে মাদ্রাসা শিক্ষক ও ইমামদের টার্গেট করতেন রাগীব

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নিজেরাই  দাম পাঁচ টাকা বাড়িয়ে দিলো

নিজেরাই দাম পাঁচ টাকা বাড়িয়ে দিলো

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

ভোজ্যতেলের দাম আবার বাড়বে কেন?

ভোজ্যতেলের দাম আবার বাড়বে কেন?

আবারও ভোজ্যতেলের দাম বাড়াতে চায় ব্যবসায়ীরা

আবারও ভোজ্যতেলের দাম বাড়াতে চায় ব্যবসায়ীরা

ভোজ্যতেলের দামের লাগাম টানতে নতুন উদ্যোগ

ভোজ্যতেলের দামের লাগাম টানতে নতুন উদ্যোগ

© 2021 Bangla Tribune