X
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

কষ্টে আছেন বাউলশিল্পীরা

আপডেট : ০৬ জুন ২০২১, ১৭:২৬

আমি গান গেয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। আদালতপাড়ায় খোলা আকাশের নিচে গান গেয়ে উপার্জিত অর্থ দিয়ে সংসার চালাতাম। কিন্তু করোনার কারণে দুই বছর ধরে গানের আসর বন্ধ। জীবিকা নির্বাহ করতে পারছি না। পরিবার নিয়ে খেয়ে না খেয়ে দিন কাটছে। আমি কোনো সহায়তা পাইনি।

এভাবেই কষ্টের কথাগুলো বললেন সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার অন্ধ বাউলশিল্পী রিয়াজ উদ্দিন। তিনি বলেন, শুধু আমি নই; জেলার এক হাজার বাউলশিল্পীর অবস্থা একই।

শনিবার (০৫ জুন) বিকেলে জেলা বাউল কল্যাণ সমিতির মতবিনিময় সভায় দিনযাপনের গ্লানির কথা তুলে ধরেন রিয়াজ উদ্দিন। সভায় জেলার ১১ উপজেলার শতাধিক বাউলশিল্পী অংশ নেন।

বাউলশিল্পীরা জানান, জেলার এক হাজার বাউলশিল্পীর মধ্যে ১৮৭ জন সরকারি ভাতা পেয়েছেন। অধিকাংশ শিল্পী ভাতা পাননি। ২০২০ সাল থেকে তাদের আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। কোথাও কোনও ওরস হয় না। বাউল গানের আসর বসে না। শীতকালে সুনামগঞ্জের হাওর এলাকায় শত শত বাউলশিল্পী বিভিন্ন আসরে গান গেয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। কিন্তু পরপর দুটি শীতকাল চলে গেলেও আয়-রোজগারের ব্যবস্থা হয়নি। অনেক কষ্টে দিন কাটছে তাদের।

বাউলশিল্পী বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আমিন বলেন, বাউলদের কোনও জায়গা-জমি নেই। গান গাওয়া ছাড়া অন্য কাজ জানেন না। প্রতি বছর শীতকালে একতারা, দোতারা, ঢোল, বেহালা নিয়ে গান গেয়ে অর্থ উপার্জন করেন। করোনার জন্য এখন আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। এ অবস্থায় বিশেষ প্রকল্প গ্রহণ না করলে বাউল গান ও শিল্পীদের জীবন হুমকির মুখে পড়বে।

প্রবীণ বাউলশিল্পী তছকির আলী বলেন, বাউলশিল্পীরা গানের ওপর নির্ভরশীল। এখন কোথাও গানের আসর বসে না। বাউলরা অসহায় জীবনযাপন করছেন। সরকার যে শিল্পী ভাতা দেয়; তা দিয়ে কিছুই হয় না। খুব কম সংখ্যক শিল্পী ভাতা পান।

বাউলশিল্পী উদাসী মুজিব বলেন, গান ছাড়া আমাদের চলার কোনও পথ নেই। কৃষি ও ব্যবসা-বাণিজ্য নেই। গানের আসর, ওরস মাহফিলে গান গেয়ে সংসার চলতো। এখন সব বন্ধ। তাই বাউলের প্রতি সরকারের বিশেষ নজর দেওয়া প্রয়োজন।

বাউলবিরহী রিপা বলেন, জেলায় ৭০-৮০ জন নারী বাউলশিল্পী রয়েছেন। পুরুষ শিল্পীদের পাশাপাশি তারাও আসরে, ওরসে গান পরিবেশন করে সংসার চালাতেন। তাদের আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। কষ্টে আছেন তারাও।

বাউলশিল্পী লেচু আক্তার বলেন, করোনার সময়ে কতজনকে কতভাবে সহযোগিতা করেছে সরকার। কিন্তু বাউলশিল্পীরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তাদের সহায়তা প্রয়োজন।

সুনামগঞ্জ জেলা বাউল কল্যাণ সমিতির সভাপতি শাহজাহান সিরাজ বলেন, জেলায় এক হাজারের বেশি বাউলশিল্পী রয়েছেন। এদের মধ্যে সরকারি সহযোগিতা পেয়েছেন ২০০ জন। বাকিরা পাননি। পরিবার-পরিজন নিয়ে অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন তারা। বাউলশিল্পীদের জন্য সরকারের বিশেষ প্রকল্প গ্রহণের দাবি জানাই।

সমিতির সহসভাপতি গীতিকার মো. আসাদ আলী আল মাইজভান্ডারি বলেন, সুনামগঞ্জ বাউলের জেলা। এখানে জন্মগ্রহণ করেছেন হাছন রাজা, রাধারমণ দত্ত পুরকায়স্থ, বাউলসম্রাট শাহ আবদুল করিম, দূরবীন শাহসহ অনেক খ্যাতিমান শিল্পী। অনেকটা উত্তরাধিকারসূত্রে সুনামগঞ্জে বাউল গানের চর্চা হয়। এজন্য বাউল সংস্কৃতি রক্ষা করতে সরকারি-বেসরকারিভাবে বাউলদের পৃষ্ঠপোষকতা করতে হবে।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক বাউল আল হেলাল বলেন, অনেক বাউলের থাকার ঘর নেই। আবার অনেকের ঘর তৈরির জায়গা নেই। অন্যের বাড়িতে ঘর তৈরি করে পরিবার-পরিজন নিয়ে বসবাস করেন। বাউলদের সরকারি ঘর দেওয়ার দাবি জানাই।

শহরের কালীবাড়ি এলাকায় পুরাতন শিল্পকলা একাডেমির আব্দুল হাই মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় ভাতাবঞ্চিত বাউলরা ভাতা ও সরকারি ঘরের দাবি জানান।

সুনামগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার আহমেদ মঞ্জুরুল হক চৌধুরী বলেন, বাউলশিল্পীদের জন্য বিশেষ কোনও প্রকল্প নেই। এ পর্যন্ত ১৮৭ জন শিল্পীকে ভাতা দেওয়া হয়েছে। আরও ৭০০ জন শিল্পীকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করা হয়েছে। সরকার যদি বাউলশিল্পীদের জন্য আলাদা কোনও প্রকল্প গ্রহণ করেন, তাহলে অবশ্যই সহযোগিতা পাবেন।

/এএম/

সম্পর্কিত

ঝুমন দাশের জামিনে খুশি পরিবার

ঝুমন দাশের জামিনে খুশি পরিবার

অনির্দিষ্টকালের জন্য সুনামগঞ্জে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ

অনির্দিষ্টকালের জন্য সুনামগঞ্জে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

পরিবারের ৪ সদস্যকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকার ও টাকা লুট

পরিবারের ৪ সদস্যকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকার ও টাকা লুট

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০৯

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে হাইকোর্টে এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শুনানি শেষে বিচারপতি মজিবুর রহমান ও কামরুল ইসলাম হোসেন মোল্লার দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

শাহজাহান শিশিরের আইনজীবী এম কে রহমান বলেন, ‘এ রায়ের ফলে শাহজাহান শিশিরের উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালনে আর কোনও আইনগত বাধা রইলো না।’

এদিকে, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করায় কচুয়ায় নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসব ও আনন্দ বিরাজ করছে।

এর আগে কচুয়া শহীদ স্মৃতি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে কোটি টাকা ব্যয়ে ছয়তলা ভবন নির্মাণে অনিয়মের সূত্র ধরে চাঁদপুরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী নুরে আলমকে মারধরের অভিযোগে মামলা করা হয়। পরে গত ২৩ জুলাই স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তার স্থলে প্যানেল চেয়ারম্যান সুলতানা খানমকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে প্রকৌশলীর মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান। তিন মাস ১২ দিন কারাভোগের পর ওই বছরের ৭ ডিসেম্বর তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিন পেয়ে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান।

এদিকে, গত ১ সেপ্টেম্বর মহানগর দায়রা জজ ঢাকা আদালতে হাজির হয়ে ধানমন্ডি থানায় দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা (আইসিটি) মামলায় স্থায়ী জামিন প্রার্থনা করেন শিশির। ওই আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। বর্তমানে তিনি ঢাকার কেরাণীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন।

এই আইসিটি মামলা থেকেও আদালতের মাধ্যমে শাহজাহান শিশির জামিন পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন বলেও তার আইনজীবী মো. ইব্রাহিম খলিল মজুমদার জানিয়েছেন।

কচুয়া পৌর কাউন্সিলর ও উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি কামাল হোসেন অন্তর বলেন, ‘এ রায়ের মাধ্যমে সত্যের জয় হয়েছে। আমরা উচ্চ আদালতের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

দুই বছরের কাজ চার বছরেও হয়নি, ৩৪টি বিদ্যালয় ভবন নির্মাণে অনিশ্চয়তা

দুই বছরের কাজ চার বছরেও হয়নি, ৩৪টি বিদ্যালয় ভবন নির্মাণে অনিশ্চয়তা

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০৮

যশোরে ‘পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির সময় গণপিটুনিতে’ রবিউল ইসলাম (৪৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে তিনি মারা যান।

নিহত রবিউল চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে। যশোর শহরের পালবাড়ি মোড় এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন।

যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘রবিউল একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ। আজ বিকালে চুড়ামনকাটিতে পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির সময় স্থানীয় লোকজন তাকে পিটুনি দেয়। গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছে রবিউল হৃদরোগী ছিলেন।’

যশোর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক সালাউদ্দিন স্বপন বলেন, ‘রবিউলের শরীরে চাপা আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে ৪টা ২৫ মিনিটের দিকে হাসপাতালে আনা হয়। আনার পর প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যার দিকে মারা যান।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩২

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণ ও উপযুক্ত বিচারের দাবিতে সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টার দিকে টঙ্গীর চেরাগ আলী, স্টেশন রোড, হোসেন মার্কেট, বোর্ডবাজার এলাকায় তারা অবরোধ করেন। বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে প্রায় দুই শতাধিক বিক্ষোভকারীর একটি দল স্লোগান দিতে দিতে টঙ্গী রেলগেট এলাকায় এসে অগ্নিসংযোগ করে। তবে পুলিশের ধাওয়ায় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে সড়ক থেকে সরে যান। বিক্ষোভকারীরা কোন পক্ষের তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণসহ উপযুক্ত বিচারের দাবিতে টঙ্গী স্টেশন রোড ও আশপাশের এলাকায় বিক্ষোভ করেন তারা। একপর্যায়ে টঙ্গী আহসান উল্লাহ মাস্টার উড়াল সেতুর নিচের রেলগেটে বর্জ্য এনে আগুন ধরিয়ে। ঘটনার কিছুক্ষণ পর পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের রেলগেট এলাকা থেকে সরিয়ে দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

টঙ্গী রেল স্টেশনের মাস্টার রাকিবুর রহমান জানান, এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-রাজশাহী রেলপথের ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসব রেলপথের কমপক্ষে আটটি ট্রেনের যাত্রা বিলম্ব ঘটে। পরে পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া করলে কমপক্ষে দেড় ঘণ্টা পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তবে কোনও ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে জাহাঙ্গীর আলমের করা বিতর্কিত মন্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে গত কয়েকদিন ধরে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়ে আলোচনা চলছে।

মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, একটি মহল তার উন্নয়ন কার্যক্রমে ঈর্ষান্বিত হয়ে ফেসবুকে ভিডিও সুপার এডিট করে তাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় করার চেষ্টা করছে। তিনি ওই ভিডিওটির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেবেন বলেও জানান।

/এফআর/

সম্পর্কিত

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০২

দুর্গাপূজা উপলক্ষে দুই হাজার ৮০ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে রফতানির অনুমতি দিয়েছে সরকার। সে লক্ষ্যে বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) ৭৮ মেট্রিক টন ইলিশ দেশটিতে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টা পর্যন্ত সময়ে ২০৯ মেট্রিক টন ইলিশভর্তি ট্রাক বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশের জন্য গেট পাস হয়েছে।

বেনাপোল স্থলবন্দর মৎস্য কোয়ারেন্টিন পরিদর্শক আসওয়াদুল ইসলাম বলেন, ‘দুর্গাপূজা উপলক্ষে এবার ভারতে দুই হাজার ৮০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এসব ইলিশ রফতানির অনুমতি পেয়েছে বাংলাদেশের ৫২টি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ৪০ মেট্রিক টন রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ দ্বিতীয় চালানে ১৭ ট্রাকে ২০৯ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে যাচ্ছে। গতকাল ৭৮ টন ৮৪০ কেজি ইলিশ দেশটিতে যায়। পর্যায়ক্রমে বাকি মাছ আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে ভারতে পৌঁছাবে।’

বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট বিশ্বাস ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী নূরুল আমিন বিশ্বাস বলেন, ‘প্রতি কেজি ইলিশের রফতানি মূল্য ধরা হয়েছে ৮৫০ টাকা। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এ চালান ছাড় করানো হচ্ছে। ইলিশের রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান হলো ৫২টি।’

উল্লেখ্য, দেশে ঘাটতি থাকায় ২০১২ সাল থেকে ভারতে ইলিশ রফতানি বন্ধ করে সরকার। তবে গত বছর দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছিল সরকার।

/এফআর/

সম্পর্কিত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫৭

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় রাজশাহী মহানগর বিএনপির তিন শীর্ষ নেতা রাজশাহী মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গেলে মূল নথি না থাকায় নতুন করে দিন ধার্য করেন বিচারক। বিচারক ইলিয়াস হোসাইন কোর্ট থেকে নথি তলব করে পুনরায় আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর আত্মসমর্পণের আদেশ দেন।

মামলার আসামিপক্ষের আইনজীবী আলী আশরাফ মাসুম জানান, বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক রাসিক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি, সাবেক রাসিক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এবং বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন আদালতে আত্মসর্মপণ করেন।

উল্লেখ্য, গত ২ মার্চ রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বক্তব্য দেওয়ায় বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুসহ তাদের বিরুদ্ধে রাজশাহী জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসকের কাছে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদন করে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ। জেলা প্রশাসক সেটি অনুমোদনের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠান।

গত ১৬ মার্চ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে মামলাটি অনুমোদন হয়ে আসে। ৩১ মার্চ রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুসাব্বিরুল ইসলাম বাদী হয়ে এই মামলা করেন। মামলায় গত ২৬ আগস্ট উচ্চ আদালত থেকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন পান তারা।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ঝুমন দাশের জামিনে খুশি পরিবার

ঝুমন দাশের জামিনে খুশি পরিবার

অনির্দিষ্টকালের জন্য সুনামগঞ্জে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ

অনির্দিষ্টকালের জন্য সুনামগঞ্জে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

পরিবারের ৪ সদস্যকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকার ও টাকা লুট

পরিবারের ৪ সদস্যকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকার ও টাকা লুট

ডেঙ্গুতে মারা গেলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা

ডেঙ্গুতে মারা গেলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা

দেশে দক্ষ জনশক্তির অভাব: পরিকল্পনামন্ত্রী

দেশে দক্ষ জনশক্তির অভাব: পরিকল্পনামন্ত্রী

অটোরিকশায় চড়ে সভায় এলেন ২ মন্ত্রী

অটোরিকশায় চড়ে সভায় এলেন ২ মন্ত্রী

‘হাওর এলাকায় দ্রুত উড়াল সেতু নির্মাণ শুরু হবে’

‘হাওর এলাকায় দ্রুত উড়াল সেতু নির্মাণ শুরু হবে’

যৌন হয়রানির অভিযোগে মেয়রের বিরুদ্ধে নারী কাউন্সিলরের মামলা

যৌন হয়রানির অভিযোগে মেয়রের বিরুদ্ধে নারী কাউন্সিলরের মামলা

রামদা দিয়ে কুপিয়ে আড়াই বছরের শিশুকে হত্যা

রামদা দিয়ে কুপিয়ে আড়াই বছরের শিশুকে হত্যা

সর্বশেষ

গুলশানে তিন ফার্মেসিকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

গুলশানে তিন ফার্মেসিকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং ‘লিভ দ্য গেম’ (ভিডিও)

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং ‘লিভ দ্য গেম’ (ভিডিও)

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

© 2021 Bangla Tribune