X
বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ৯ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

সুরক্ষা দেয়াল নির্মাণের এক সপ্তাহে সড়ক ভেঙে খালে

আপডেট : ০৭ জুন ২০২১, ১৫:১৪

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার সদর ইউনিয়নের সুজাপুর আকবর চাপরাশি-চর খোয়াজ তেমুহনী সড়কে সড়ক ও সুরক্ষা দেয়াল নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। দেয়াল নির্মাণ শেষ হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে পাকা সড়ক ভেঙে খালে পড়ে গেছে। এর আগেও গ্রামবাসী ও স্থানীয় সরকার বিভাগের কর্মকর্তারা বাধা দিয়ে কাজের গুণগতমান নিশ্চিত করাতে পারেননি বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য ইমাম হোসেন । রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করে সড়কটি নির্মাণ করায় এমনটি ঘটেছে বলে দাবি এলাকাবাসীর।

স্থানীয় সরকার বিভাগ ও এলাকাবাসী জানায়, স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীনে উপজেলার সুজাপুর আকবর চাপরাশি-চর খোয়াজ তেমুহনী সড়কের ৬২০ মিটার দৈর্ঘ্যের সংযোগ সড়কটির পাকা করার জন্য ৬১ লাখ ৮৩ হাজার ৭০১ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। দরপত্রের মাধ্যমে ফেনীর ভূঞা অ্যান্ড সন্স নামে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পায়। প্রতিষ্ঠানটির মালিক ঠিকাদার করিম হাজারী।

জানা যায়, দরপত্রের শর্তে উল্লেখ ছিল, ভালো মানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে সড়কটির পাকা করতে হবে। এরপর তিনি অলিখিতভাবে স্থানীয় যুবলীগ নেতা জাফর ইকবালের কাছে কাজটি বিক্রি করে দেন। কাজে কিনে নিয়ে সড়কের নির্মাণ কাজ শুরু করে জাফর ইকবাল।

শুরুতে নিন্মমানের তিন নম্বর ইট ব্যবহার করে সড়কের মেকাডমের কাজ করতে লাগলে স্থানীয়রা ক্ষোভে ফুঁসে উঠে। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী একাধিকবার নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা চালায়। পরে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে জাফর ইকবাল তড়িঘড়ি করে নিন্মমানের সামগ্রী দিয়ে নির্মাণ কাজ শেষ করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার এক সপ্তাহ না যেতেই সড়কটি ভেঙে খালে পড়ে গেছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ইমাম হোসেন বলেন, সড়কের নির্মাণ কাজ শুরু করার আগেই ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে দরপত্রের শর্ত মেনে এবং ভালোভাবে কাজ করার জন্য বলেছি। কিন্তু ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করায় মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে সড়কটি ভেঙে খালে চলে গেছে।

স্থানীয় জহির উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি জানান, উপজেলা সদর থেকে অনেক দূর ও গ্রামের সড়ক হওয়ায় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের লোকজন মনে করেছিল স্থানীয়দের চোখ ফাঁকি দিয়ে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে কোনোভাবে সড়কের কাজ শেষ করে দেবে। কেউ কিছু বলার সাহস পাবে না।

তিনি বলেন, কাজের শুরু থেকে স্থানীয়রা প্রতিবাদ করেছে। কোনও লাভ হয়নি। কাজ শেষ করে জাফর ইকবাল সড়কটি স্থানীয় সরকার বিভাগকে বুঝিয়ে দেওয়ার আগে ভেঙে গেছে। তারা বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলীর কাছে অভিযোগ দিয়েছেন।

শাহাদাত হোসেন নামে এক আ.লীগ নেতা জানান, ঠিকাদার নামধারী কিছু অসাধু লোকের কারণে আ.লীগ সরকারের সব অর্জন ম্লান হয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘদিনের অবহেলিত সড়কটি নির্মাণের ফলে গ্রামবাসী ভেবেছিল তাদের দুর্ভোগ লাঘব হবে। কিন্তু সড়কের পাশের মাটি কেটে বিক্রি করে দিয়ে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে সড়কটি নির্মাণ করায় জনদুর্ভোগ আরও বৃদ্ধি পাবে।

এ বিষয়ে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ভূঞা অ্যান্ড সন্সের মালিক করিম হাজারী মোবাইলফোনে বলেন, সড়কটির নির্মাণ কাজ এখনও শেষ হয়নি। কাজ চলমান রয়েছে। নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের বিষয়ে এর আগে গ্রামবাসী কখনও বাধা দেয়নি বলে দাবি করেন তিনি।

স্থানীয় সরকার বিভাগের উপজেলা প্রকৌশলী মনির হোসেন খান বলেন, নির্মাণের এক সপ্তাহের মধ্যে ভেঙে পড়ার বিষয়ে এলাকাবাসীর অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তিনি নতুন জয়েন করেছেন উল্লেখ করে বলেন, নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে সড়ক নির্মাণের অভিযোগ পেয়েছি। আমার আগের প্রকৌশলী ঠিকাদারকে বহুবার সতর্ক করেছে। তবে তিনি আমলে নেননি। ইতোমধ্যে ঠিকাদারকে সংস্কারের জন্য বলা হয়েছে। কাজ ঠিকমতো বুঝিয়ে দেওয়া না হলে বরাদ্দ টাকা কর্তনসহ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি। 

 

/টিটি/ 

সম্পর্কিত

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ আগামী ২৯ জুন

মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ আগামী ২৯ জুন

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

হাতে তৈরি ইনকিউবেটরে অজগরের ২৮ বাচ্চা

হাতে তৈরি ইনকিউবেটরে অজগরের ২৮ বাচ্চা

খুলনা বিভাগে রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যু

খুলনা বিভাগে রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে করোনায় আরও ১৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে করোনায় আরও ১৬ মৃত্যু

নও মুসলিম ফারুক হত্যা বিচার চাইলো ইমাম সমাজ

নও মুসলিম ফারুক হত্যা বিচার চাইলো ইমাম সমাজ

বিভাগের তিন হাসপাতালে ১৩ মৃত্যু, ৮ জনই খুলনার

বিভাগের তিন হাসপাতালে ১৩ মৃত্যু, ৮ জনই খুলনার

‘কবে একটা সেতু হবে, ঘুষ ছাড়া ভাতা পাবো?’

গ্রামবাসীর প্রশ্ন প্রশাসনের উত্তর‘কবে একটা সেতু হবে, ঘুষ ছাড়া ভাতা পাবো?’

চট্টগ্রামে একদিনের ব্যবধানে বেড়েছে মৃত্যু ও শনাক্ত

চট্টগ্রামে একদিনের ব্যবধানে বেড়েছে মৃত্যু ও শনাক্ত

মায়ের বিরুদ্ধে মেয়ের পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা

মায়ের বিরুদ্ধে মেয়ের পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা

সর্বশেষ

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

সমালোচক হয়েও বোর্ডের দায়িত্বে ড্যারেন স্যামি!

সমালোচক হয়েও বোর্ডের দায়িত্বে ড্যারেন স্যামি!

মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ আগামী ২৯ জুন

মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ আগামী ২৯ জুন

ভ্যাকসিন কিনতে ৯৪ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

ভ্যাকসিন কিনতে ৯৪ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

সৃজিতের ছবিতে তাপসী পান্নু

সৃজিতের ছবিতে তাপসী পান্নু

হিলিতে ফের বাড়লো পেঁয়াজের দাম

হিলিতে ফের বাড়লো পেঁয়াজের দাম

কিশোরের পিতৃপরিচয় নিশ্চিত করলো পুলিশ

কিশোরের পিতৃপরিচয় নিশ্চিত করলো পুলিশ

ফেঁসে যাচ্ছেন পরীমণি?

ফেঁসে যাচ্ছেন পরীমণি?

শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে গেলো সাকিবের মোহামেডান

শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে গেলো সাকিবের মোহামেডান

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

ডিউটিভ্যানেই মারা গেলেন পুলিশ কনস্টেবল

ডিউটিভ্যানেই মারা গেলেন পুলিশ কনস্টেবল

ফ্রান্স-পর্তুগাল ম্যাচ কখন, দেখবেন কোথায়  

ফ্রান্স-পর্তুগাল ম্যাচ কখন, দেখবেন কোথায়  

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

হাতে তৈরি ইনকিউবেটরে অজগরের ২৮ বাচ্চা

হাতে তৈরি ইনকিউবেটরে অজগরের ২৮ বাচ্চা

খুলনা বিভাগে রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যু

খুলনা বিভাগে রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে করোনায় আরও ১৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে করোনায় আরও ১৬ মৃত্যু

নও মুসলিম ফারুক হত্যা বিচার চাইলো ইমাম সমাজ

নও মুসলিম ফারুক হত্যা বিচার চাইলো ইমাম সমাজ

বিভাগের তিন হাসপাতালে ১৩ মৃত্যু, ৮ জনই খুলনার

বিভাগের তিন হাসপাতালে ১৩ মৃত্যু, ৮ জনই খুলনার

‘কবে একটা সেতু হবে, ঘুষ ছাড়া ভাতা পাবো?’

গ্রামবাসীর প্রশ্ন প্রশাসনের উত্তর‘কবে একটা সেতু হবে, ঘুষ ছাড়া ভাতা পাবো?’

চট্টগ্রামে একদিনের ব্যবধানে বেড়েছে মৃত্যু ও শনাক্ত

চট্টগ্রামে একদিনের ব্যবধানে বেড়েছে মৃত্যু ও শনাক্ত

© 2021 Bangla Tribune