X
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

নাইজেরিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৫৩

আপডেট : ১৩ জুন ২০২১, ০১:০২

নাইজেরিয়ার জামফারা রাজ্যে হামলা চালিয়ে অর্ধশতাধিক মানুষকে হত্যা করেছে বন্দুকধারীরা। হামলাকারীরা মোটরসাইকেলে করে উত্তরাঞ্চলীয় বেশ কয়েকটি গ্রামে এ হত্যাকাণ্ড চালায়। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম শনিবার তাদের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, অস্ত্রধারীরা বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার জুরমি জেলার কাদাওয়া, কাউয়াতা, মাদুবাসহ বেশ কয়েকটি গ্রামে তাণ্ডব চালায়। তারা ডাকাত দলের সদস্য বলে ধারণা করছে প্রশাসন। সংখ্যায়ও অনেকে ছিলো।

ফরাসি বার্তাসংস্থা এফপি জানিয়েছে, দলটি স্থানীয় বাসিন্দাদের পাশাপাশি জমিতে থাকা কৃষকদেরকেও গুলি করে হত্যা করে। হামলা থেকে বাঁচতে যারা পালিয়ে যাচ্ছিল তাদের ধাওয়া করতে থাকে।

জামফারা পুলিশের মুখপাত্র মোহাম্মদ শেহহু বলেন, শুক্রবার ১৪টি মৃতদেহ উদ্ধার করে রাজ্যের রাজধানী গুসাও-এ নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও আরও ৩৯ জনের মরদেহ শনাক্ত করে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

শেষকৃত্যে অংশ নিয়ে মুসা আরজিকা বলেন ‘ নিহতদের শেষকৃত্যে অংশ নেওয়া বেশ বিপজ্জনক ছিলো। কারণ দস্যুরা পাশের জুরমি বনে অবস্থান নেওয়ায় যে কোন সময় আবারও হামলা করতে পারতো’।

নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিম এবং সেন্ট্রাল নাইজেরিয়ায় সাম্প্রতিক বছরে এ ধরনের হামলার ঘটনা আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে। স্কুল শিক্ষার্থীদের অপহরণ, গবাদি পশু চুরি, লুটপাট, বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ করে থাকে দুষ্কৃতকারীরা। গত এক দশকে নিরাপত্তা বাহিনীর সদসদ্যসহ প্রায় ৩০ হাজার মানুষকে হত্যা করেছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছেন প্রায় ২০ লাখ মানুষ।

/এলকে/

সম্পর্কিত

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

নাইজেরিয়ায় ভয়াবহ ডাকাত হামলায় বহু হতাহত

নাইজেরিয়ায় ভয়াবহ ডাকাত হামলায় বহু হতাহত

হাইতির প্রেসিডেন্টের রক্ত বৃথা যেতে দেবো না: মার্টিন

হাইতির প্রেসিডেন্টের রক্ত বৃথা যেতে দেবো না: মার্টিন

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২১:৫৮
image

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেছেন ইরানের পারমাণবিক চুক্তিতে ওয়াশিংটনের ফেরা নিয়ে অনির্দিষ্টকাল আলোচনা চলতে পারে না। তবে আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত রয়েছে ওয়াশিংটন। বৃহস্পতিবার কুয়েত সফরের সময় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা কূটনীতির প্রতি প্রতিশ্রুতিশীল কিন্তু এই প্রক্রিয়া অনির্দিষ্টকাল চলতে পারে না।’ কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়া ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ইরানের একটি পারমাণবিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়। ওই চুক্তির শর্ত অনুযায়ী, তেহরান তার ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ কমিয়ে আনার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক পরিদর্শকদের পারমাণবিক প্রকল্প এলাকায় প্রবেশ করতে দেবে বলে একমত হয়েছিল। এর বিনিময়ে তেহরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞাগুলো প্রত্যাহার করা হয়। ওই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ওবামা আমলে। তবে যুক্তরাষ্ট্রে ক্ষমতার পালাবদলের পর এ ইস্যুতে কঠোর অবস্থানে যান তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি ইরানকে নতুন একটি চুক্তিতে আসার জন্য আলোচনা করতে চাপ দেন। একইসঙ্গে এই চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নিয়ে ট্রাম্প ইরানের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করেন।

জো বাইডেন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেওয়ার পর এই বছরের এপ্রিল থেকে ওই চুক্তিতে ফিরতে ভিয়েনায় আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানসহ চুক্তিতে থাকা বাকি পক্ষগুলোর সঙ্গে আলোচনা চলছে। তবে এই আলোচনায় কোনও অগ্রগতি না হওয়ায় খানিক হতাশ হয়ে পড়েছে ওয়াশিংটন কর্তৃপক্ষ। কুয়েত সফরের সময় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেন, ‘আমরা দেখতে চাই ইরান ভিয়েনায় আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত রয়েছে। বল ইরানের কোর্টে রয়েছে।’

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সরকার বারবারই বলেছেন চুক্তিতে ফেরার আগে ওয়াশিংটনকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে প্রথম পদক্ষেপ নিতে হবে। তবে ইরানের নতুন নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি আগামী মাসে দায়িত্ব নেওয়ার আগে কোনও চুক্তির সম্ভাবনা খুবই কম। রাইসি অতি রক্ষণশীল হলেও পারমাণবিক আলোচনার প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন।

/জেজে/

সম্পর্কিত

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

ভূমিকম্পের পর আলাস্কা-হাওয়াইতে সুনামির সতর্কতা

ভূমিকম্পের পর আলাস্কা-হাওয়াইতে সুনামির সতর্কতা

আফগানিস্তান নিয়ে চীনের আগ্রহ ইতিবাচক: যুক্তরাষ্ট্র

আফগানিস্তান নিয়ে চীনের আগ্রহ ইতিবাচক: যুক্তরাষ্ট্র

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২১:৪৩

সংক্রমণ বৃদ্ধির পাশাপাশি জান্তা বিরোধী বিক্ষোভসহ নানা কারণে মিয়ানমার কোভিডের ‘সুপার স্প্রেডার’ রাষ্ট্রে পরিণত হতে পারে। এ অবস্থায় দেশটিতে অবিলম্বে যুদ্ধবিরতি কার্যকর করতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে আহ্বান জানিয়েছেন সংস্থাটির বিশেষ দূত টম অ্যান্ড্রুজ।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশেটিতে করোনার সংক্রমণ হু হু করে বাড়ছে, এমন খবর দিচ্ছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়র্টাসহ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ থেকেই সংক্রমণ আরও ছড়াচ্ছে।

খবরে বলা হয়েছে, মিয়ানমারে রাজনৈতিক সংকটের ফলে দেখা দিয়েছে অর্থনৈতিক মন্দা। প্রয়োজনের তুলনায় স্বল্প পরিসরে চলছে ভ্যাকসিন কার্যক্রম। কিন্তু করোনার পরীক্ষা কার্যক্রমেও ধসে নেমেছে। একইসঙ্গে হাসপাতালগুলোতে আছে চিকিৎসকের সংকট।

এ বিষয়ে জাতিসংঘের বিশেষ দূত জানান, সেনা সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা দায়িত্ব পালন বন্ধ রেখেছেন। সরকারের সহিংস কর্মকাণ্ড ও গ্রেপ্তারের হুমকির কারণে তারা গোপনে ব্যক্তিগতভাবে রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন। তবে কিন্তু এটি সামান্য।

টম অ্যান্ড্রুজ বলেন, মিয়ানমারজুড়ে বিভিন্ন শহরে অক্সিজেন, মেডিকেল সরঞ্জাম ও ওষুধের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। বাড়ির সামনে হলুদ ও সাদা পতাকা ঝুলিয়ে রাখছে অনেকে। এর অর্থ, তাদের খাবার অথবা ওষুধের প্রয়োজন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমজুড়ে সাহায্যের জন্যে হাহাকার চলছে। সরকারের বিরুদ্ধে অক্সিজেনের সংকট তৈরি করার অভিযোগ তুলেছেন বাসিন্দরা।

তার মতে, দেশটির প্রকৃত পরিস্থিতি কেমন তার সঠিক তথ্য পাওয়া কঠিন। সামরিক শাসনের কারণে খবর পাওয়া জটিল। এমনকি করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার কেমন তার সঠিক পরিসংখ্যানও নেই। ফলে রাজনৈতিক ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ভয়াবহ সংকটের পথে রয়েছে মিয়ানমার। তিনি আশঙ্কা করছেন, সুপার-স্প্রেডার রাষ্ট্রে পরিণত হলে এই অঞ্চলে আরও বেশি দুর্ভোগ সৃষ্টি হতে পারে। 

এদিকে জান্তা সরকার বলছে, গত পহেলা জুন থেকে দেশটিতে সাড়ে চার হাজারের বেশি মানুষ করোনায় মারা গেছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

করোনা টিকার মিশ্র ডোজ নিয়ে গবেষণায় সুখবর

করোনা টিকার মিশ্র ডোজ নিয়ে গবেষণায় সুখবর

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২১:০০
image

ইরাকের রাজধানী বাগদাদের সুরক্ষিত গ্রিন জোনে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরে এই হামলা চালানো হয়। তবে এতে কেউ হতাহত বা কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, ইরাকি প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-খাদিমি ওয়াশিংটন সফর থেকে ফেরার দিনেই এই হামলার ঘটনা ঘটলো।

গত সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে হোয়াইট হাউজে সাক্ষাৎ করেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-খাদিমি। ওই বৈঠকে ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বাইডেন।

গত কয়েক মাস ধরে নিয়মিতভাবে ইরাকে মার্কিন স্বার্থে হামলা অব্যাহত রয়েছে। এসব হামলার জন্য ইরান সমর্থিত বিভিন্ন গোষ্ঠীকে দায়ী করে আসছে নিরাপত্তা সংস্থাগুলো। তবে আল-খাদেমির ওয়াশিংটন সফরের আগে এসব হামলার পরিমাণ কমে আসে।

ইরাকের এক ঊর্ধ্বতস নিরাপত্তা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার চালানো হামলায় রকেট দুইটি বাগদাদের পূর্বাঞ্চলের শিয়া অধ্যুষিত একটি এলাকা থেকে ছোড়া হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে মনে হচ্ছে এগুলো যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস লক্ষ্য করে ছোড়া হয়েছিল, তবে ‘টার্গেটে’ পৌঁছাতে পারেনি। একটি রকেট গ্রিন জোনের ভেতরের পার্কিং লটে আঘাত হেনেছে, অন্যটি পড়েছে কাছাকাছি একটি খালি জায়গায়।

এই মাসের শুরুতে ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন কূটনীতিক ও বাহিনীর সদস্যদের ওপর তিন দফা রকেট ও ড্রোন হামলা হয়। এর মধ্যে এক হামলায় একটি বিমান ঘাঁটিতে ১৪টি রকেট আছড়ে পড়ে দুই মার্কিন সেনা আহতও হয়।

কোনো গোষ্ঠী বৃহস্পতিবারের হামলার দায় স্বীকার না করলেও ইরান সমর্থিত গোষ্ঠী এ রকেট হামলার পেছনে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২০:১৭
image

কাতারে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আইনসভার নির্বাচন। দেশটির আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি এই সংক্রান্ত একটি আইনের অনুমোদন দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার তার কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, আগামী অক্টোবরে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নতুন অনুমোদিত আইন অনুযায়ী ৪৫ সদস্যের শুরা কাউন্সিলের ৩০ সদস্য নির্বাচিত হবেন। বাকি এক তৃতীয়াংশ সদস্য মনোনীত করা অব্যাহত রাখবেন দেশটির আমির। মনোনীত ও নির্বাচিত সদস্যদের অধিকার ও দায়িত্ব একই থাকবে। তারা সরকারের সাধারণ নীতি ও বাজেট অনুমোদন করবেন। এছাড়াও নির্বাহী কর্তৃপক্ষের উপর তাদের নিয়ন্ত্রণ থাকবে।

কাতারের শুরা কাউন্সিলের সদস্যরা জনগণ সংক্রান্ত ইস্যুতে প্রস্তাব সরকারকে দিতে পারবে। কাতারের আমিরের কার্যালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, শুরা কাউন্সিলের নির্বাচন নাগরিকদের অংশগ্রহণ নিশ্চিতের লক্ষ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।

কাতারের প্রধানমন্ত্রী শেখ খালিদ বিন খলিফা আল থানি জানিয়েছেন, পুরো দেশকে ৩০টি নির্বাচনি জেলায় ভাগ করা হবে। প্রতিটি জেলা থেকে একজন করে প্রতিনিধি নির্বাচিত হবেন।

নতুন আইন অনুযায়ী ১৮ বছরের বেশি বয়সী কাতারের সব নাগরিক ভোট দিতে পারবেন। তবে যেসব নাগরিকের দাদার জন্ম কাতারে হয়নি তারা ভোট দিতে পারবেন না। প্রার্থীকে অবশ্যই কাতারি বংশোদ্ভূত এবং অন্তত ৩০ বছর বয়সী হতে হবে।

কাতারে এখনই মিউনিসিপ্যাল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। তবে দেশটিতে সব রাজনৈতিক দল নিষিদ্ধ। ২০০৩ সালে গণভোটের মাধ্যমে অনুমোদিত হয় দেশটির নতুন সংবিধান।

/জেজে/

সম্পর্কিত

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

ইসরায়েলি কাস্টডিতে ফিলিস্তিনিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

ইসরায়েলি কাস্টডিতে ফিলিস্তিনিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

বিমানবন্দরেই করোনার বিশাল হাসপাতাল

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২০:১৭

সংকট কাটিয়ে উঠতে বিমানবন্দরের গুদাম ঘরকে বিশাল হাসপাতালে পরিণত করেছে থাইল্যান্ড। রাজধানীর একটি বিমানবন্দরের গুদাম হাউজে ১৮শ’ শয্যার অস্থায়ী হাসপাতাল গড়ে নজির স্থাপন করেছে দেশটি। বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

করোনার ধাক্কায় থমকে গেছে থাইল্যান্ডের জনজীবন। অনেকেই থাইল্যান্ডকে করোনার কেন্দ্রবিন্দু বলছে। ডেল্টার প্রকোপসহ স্থানীয় ভ্যারিয়েন্টেও আক্রান্ত হচ্ছেন বহু মানুষ। হাসপাতালগুলোতে রোগীদের তিল ধারণের ঠাঁই নেই। বেডের জন্য এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে ছুটছেন আক্রান্তরা। ভেঙে পড়েছে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা।

করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চাপ সামাল দিতে ব্যাংককের ডন মুয়াং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আঠারশো শয্যার একটি ফিল্ড হাসপাতাল গড়ে তুলেছে সরকার। এতে পর্যাপ্ত রোগী সেবা পাবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

হাসপাতালের পরিচালক রেইনথং নান্না জানান, ফিল্ড হাসপাতাল একসঙ্গে অনেক রোগী চিকিৎসা নিতে পারবেন। যেসব রোগীর অবস্থা স্থিতিশীল তাদের এখানে চিকিৎসা দেওয়া হবে। যাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক তাদের অন্য হাসপাতালে স্থানান্তর করা হবে।

থাইল্যান্ডে টিকা সংকটের কারণে মাত্র ৫ শতাংশ মানুষকে পুরোপুরি ভ্যাকসিনের আওতায় আনা গেছে। ফলে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনা কঠিন হয়ে পড়ছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৪ হাজার মানুষ কোভিডে মারা গেছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

করোনার আঁতুড়ঘর চীনেই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রকোপ

করোনার আঁতুড়ঘর চীনেই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রকোপ

করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

সর্বশেষ

বিনা দোষে মিনুর কারাভোগ, কুলসুম ও তার সহযোগী রিমান্ডে 

বিনা দোষে মিনুর কারাভোগ, কুলসুম ও তার সহযোগী রিমান্ডে 

জেলের বড়শিতে বিশাল বোয়াল

জেলের বড়শিতে বিশাল বোয়াল

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

লকডাউনে মায়ের চেহলাম আয়োজন করায় ছেলেকে জরিমানা

লকডাউনে মায়ের চেহলাম আয়োজন করায় ছেলেকে জরিমানা

ফেরি ‘শাহজালাল’ দুর্ঘটনার অনুসন্ধানে চার সদস্যের কমিটি

ফেরি ‘শাহজালাল’ দুর্ঘটনার অনুসন্ধানে চার সদস্যের কমিটি

অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে নীতিমালা প্রণয়নের আহ্বান

অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে নীতিমালা প্রণয়নের আহ্বান

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অবৈধ মজুতদারদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হবে: খাদ্যমন্ত্রী

অবৈধ মজুতদারদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হবে: খাদ্যমন্ত্রী

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

নাইজেরিয়ায় ভয়াবহ ডাকাত হামলায় বহু হতাহত

নাইজেরিয়ায় ভয়াবহ ডাকাত হামলায় বহু হতাহত

হাইতির প্রেসিডেন্টের রক্ত বৃথা যেতে দেবো না: মার্টিন

হাইতির প্রেসিডেন্টের রক্ত বৃথা যেতে দেবো না: মার্টিন

নাইজেরিয়ার স্কুলে হামলা চালিয়ে ১৫০ শিক্ষার্থীকে অপহরণ

নাইজেরিয়ার স্কুলে হামলা চালিয়ে ১৫০ শিক্ষার্থীকে অপহরণ

আল-আকসায় ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি বাহিনীর তাণ্ডব

আল-আকসায় ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি বাহিনীর তাণ্ডব

বোকো হারাম নেতা মারা গেছেন: প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপ

বোকো হারাম নেতা মারা গেছেন: প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপ

নাইজেরিয়ায় শতাধিক শিক্ষার্থীকে অপহরণ

নাইজেরিয়ায় শতাধিক শিক্ষার্থীকে অপহরণ

নাইজেরিয়ায় নৌকাডুবির ঘটনায় ৪৫ জনের মরদেহ উদ্ধার

নাইজেরিয়ায় নৌকাডুবির ঘটনায় ৪৫ জনের মরদেহ উদ্ধার

© 2021 Bangla Tribune