X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

চট্টগ্রামে বেড়েছে মৃত্যু ও সংক্রমণ 

আপডেট : ১৮ জুন ২০২১, ০৯:৫১

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু এবং সংক্রমণ দুটোই বেড়েছে। করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় চার জন মারা গেছেন। একই সময়ে চট্টগ্রামে আরও ২২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫৫ হাজার ৬৮৮জন। অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৬৫৪ জন।

সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ১১টি ল্যাবে এক হাজার ১৫১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ২২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়। নতুন করোনা আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ১৩৪ জন চট্টগ্রাম নগরীর, বাকি ৮৮জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দ।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিবেদনে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৪২টি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৪৭০টি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩৮টি এবং চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ১৭৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে চবি ল্যাবে ৫২ জন, বিআইটিআইডি ল্যাবে ৬০ জন, চমেক ল্যাবে ১৪ জন এবং সিভাসু ল্যাবে ৩০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ৪৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

অন্যদিকে বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাব ৫৬টি নমুনা পরীক্ষা করে আট জন, শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ১৪৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ১১ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২৪টি নমুনা পরীক্ষা করে সাত জন, মেডিক্যাল সেন্টার হাসপাতাল ল্যাবে ১৪টি নমুনা পরীক্ষা করে চার জন এবং এপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে ২৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এছাড়া কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ১৯টি নমুনা পরীক্ষা করে দুই জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

/টিটি/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:৪৬

ভারত থেকে আসা ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন (এলএমও) সিরাজগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছানোর পর থেকেই খালাসের কাজ চলছে। এর মধ্যে একটি ট্যাংকলরি ২০ টন তরল অক্সিজেন নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।

রবিবার (২৫ জুলাই) বিকাল পৌনে ৪টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্যাংকলরিটি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অবস্থিত সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। বাকিগুলো পর্যায়ক্রমে অক্সিজেন নিয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন লিন্ডের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও প্রশাসন বিভাগের ব্যবস্থাপক সুফিয়া আক্তার ওহাব। 

এর আগে ভারতের ঝাড়খণ্ড প্রদেশের জামশেদপুর টাটানগর থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে আমদানি করা ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন শনিবার (২৪ জুলাই) রাত ১০টার দিকে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। বেনাপোল বন্দরে আমদানি সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে ১০টি কনটেইনারবাহী অক্সিজেন এক্সপ্রেস রওনা দেয়। আজ সকাল ৭টায় ঈশ্বরদী স্টেশন হয়ে বেলা পৌনে ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায়।

বাকিগুলো পর্যায়ক্রমে অক্সিজেন নিয়ে যাবে

এ সময় সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ, সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. রাম পদ রায়, লিন্ডের সুফিয়া আক্তার ওহাব, গ্যাস বিভাগের বিক্রয় ও বিপণন শাখার মহা ব্যবস্থাপক নুরুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোসাদ্দেক হোসেন, স্টেশন মাস্টার মো. ইসমাইল হোসেনসহ সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন, রেলওয়ে ও রেলওয়ে পুলিশ, পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগ ছাড়াও অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। 

সুফিয়া আক্তার ওহাব বলেন, আমরা ভালোভাবে ২০০ টন অক্সিজেন নিয়ে এসে এই অবধি পৌঁছেছি। সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসনসহ সবাই আন্তরিক সহযোগিতা করেছেন। এছাড়া লিন্ডে চেষ্টা করছে করোনাকালীন অক্সিজেনের যে চাহিদা বেড়েছে তা যতটুকু সম্ভব জোগান দিতে। 

নুরুর রহমান জানান, যেহেতু প্রতিটি ট্যাংকলরিতে ২০ টন করে মোট ২০০ টন তরল অক্সিজেন লোড হয়ে ঢাকায় যাবে, সেক্ষেত্রে অক্সিজেনবাহী প্রতিটি ট্যাংকলরি লোড হতে দুই ঘণ্টার মতো সময় লাগার কথা। তবে চাপ কম থাকায় প্রায় চার ঘণ্টার মতো সময় লাগছে। যেহেতু দুইটার বেশি একসঙ্গে লোড করা যাচ্ছে না, সেক্ষেত্রে সম্পূর্ণ অক্সিজেন আনলোড করতে পর্যায়ক্রমে পাঁচ বারে অন্তত ২০ ঘণ্টা সময় লাগবে।

রাজিব দেবনাথ বলেন, স্টেশনের সামনের দিকে জায়গা কম থাকায় আমরা একসঙ্গে দুইটার বেশি ট্যাংকলরিতে লোড করতে পারছি না। তাই ১০টি ট্যাংকলরিতে লোড করতে অনেক সময় লাগবে। যদি অক্সিজেনবাহী ট্রেনের বাল্ব বক্স (অক্সিজেন আনলোড মেশিন) স্টেশনের সামনে না হয়ে উল্টো দিকে থাকতো, তাহলে একসঙ্গে সবগুলোই লোড করা সম্ভব হতো। 

সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন রাম পদ রায় বলেন, এটা আমাদের করোনাকালীন চিকিৎসা সেবায় অক্সিজেনের যে সংকট তা অনেকাংশেই লাঘব করবে। এইবার আসা শুরু হলো, এখন পর্যায়ক্রমে ভারত থেকে অক্সিজেন আসতেই থাকবে। এছাড়া এখান থেকে ঢাকায় নেওয়ার পরে সারাদেশের চাহিদা অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিভাগ বণ্টন করবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা। 

জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ বলেন, করোনার এই ক্রান্তিলগ্নে ২০০ টন অক্সিজেন দেশে আসাটা আমাদের অনেক বড় অর্জন। যেহেতু এবারই ট্রেনযোগে ও সিরাজগঞ্জে প্রথম ভারত থেকে আসা অক্সিজেন খালাস হলো, তাই এখান থেকে আবার লোড ট্যাংকারে করে ঢাকাতে যাবে। পরবর্তীতে আমরা ঊর্ধ্বতন কতৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে দেখবো, এটা সরাসরি ঢাকায় নেওয়া যায় কি-না। তাহলে আরও সময় বাচবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:৪৪

ভোলায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে তাড়াহুড়া করে ফেরিতে উঠতে গিয়ে নৌ পুলিশ ও কোস্টগার্ড সদস্যদের ধাওয়ায় তিন যাত্রী নদীতে পড়ে যান। পরে তারা সাঁতরে পাড়ে উঠতে সক্ষম হন। রবিবার (২৫ জুলাই) সকালে ইলিশা ঘাটের কলমীলতা ফেরিতে ওঠার সময় এ ঘটনা ঘটে। ফেরিটি ভোলার ইলিশা থেকে লক্ষ্মীপুরের মজুচৌধুরী হাট ঘাট রুটে চলাচল করে। সেখান থেকে যাত্রীরা ঢাকা, কুমিল্লা, নোয়াখালী চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায় যাতায়াত করেন।

নদীতে পড়ে যাওয়া তিন যাত্রীদের একজন রুবেল হোসেনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তিনি একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরি করেন। দুই দিনের ছুটি নিয়ে বাড়িতে এসেছিলেন। রবিবারের মধ্যে ঢাকায় পৌঁছাতে না পারলে তার চাকরিটা থাকবে না। জরুরি ভিত্তিতে ঢাকা যাওয়ার জন্য রওনা দিয়েছিলেন। কোস্টগার্ডের ধাওয়া ও যাত্রীদের চাপে তিনি নদীতে পড়ে যান। এতে তার প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র ভিজে গেছে।

ভোলা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবু আবদুল্লাহ খান বলেন, ‘লকডাউনের মধ্যে ইলিশা ফেরিঘাটে সকাল থেকেই যাত্রীদের চাপ ছিল। তাদের বুঝিয়ে বাড়ি ফেরানোর চেষ্টা করছি। ঘাটে ফেরি আসার এক পর্যায়ে যাত্রীরা আমাদের বাধা অতিক্রম করে ফেরিতে উঠতে যান। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের গতিরোধ করলে যাত্রীদের চাপে ঘাটের গ্যাংওয়ে থেকে তিন জন নদীতে পড়ে যান। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করা হয়।’

ভোলার জেলা প্রশাসক মো. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেন, ‘ভোলার ফেরি ও লঞ্চঘাটে আমাদের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একটি টিম, র‌্যাব, কোস্টগার্ড, নৌ পুলিশ ও জেলা পুলিশ সদস্যরা অবস্থান করছেন। বিদেশগামী যাত্রী ও জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ফেরিতে উঠতে দেওয়া হচ্ছে না। পাশাপাশি বিআইডব্লিউটিএ’র দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে বলা হয়েছে। তারাও যাত্রী পারাপারে কঠোর অবস্থানে আছেন।’

ইলিশা নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ জালাল বলেন, ‘কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনে আজ রবিবার ভোলা-লক্ষ্মীপুর রুটের ইলিশা ফেরিঘাটে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলাগামী যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় ছিল। ইলিশা ফেরিঘাটে আসা যাত্রীদের আমরা বুঝিয়ে বাড়ি ফেরত পাঠানোর জন্য চেষ্টা করছি। কিন্তু অনেক যাত্রী আমাদের বাধা উপেক্ষা করে ফেরিতে ওঠার চেষ্টা করছেন।’

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

পাথর শ্রমিকদের জালে ২৮ কেজির বাঘাইড়

পাথর শ্রমিকদের জালে ২৮ কেজির বাঘাইড়

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:২৮

বরিশালের আগৈলঝাড়ার বাগধা ইউনিয়নের খাজুরিয়া গ্রামে বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় কনের মাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখে বিয়ের আসর থেকে পালিয়ে যান বর, মেয়ের বাবা ও বরযাত্রী। 

করোনা সংক্রমণরোধে সরকারঘোষিত কঠোর লকডাউনে বিধিনিষেধ অমান্য করে রবিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় এ জরিমানা করা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীর (১৪) সঙ্গে কোটালীপাড়া উপজেলার কালারবাড়ি গ্রামের কবির খানের ছেলে জাহিদুল ইসলামের (২৫) বিয়ের আয়োজন চলছিল। ইউএনও হাজির হতেই সব পণ্ড হয়ে যায়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবুল হাশেম বলেন, দুপুরে বরযাত্রীরা কনের বাড়িতে যান। খবর পেয়ে কনের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বর, মেয়ের বাবা এবং বরযাত্রীরা দৌড়ে পালান। পরে সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করে বাল্যবিয়ের আয়োজন করার অপরাধে মেয়ের মাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিয়ে দেবে না মর্মে মুচলেকা দেন কনের মা।

/এএম/

সম্পর্কিত

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

মাছটি বিক্রি হলো সাড়ে ৪ লাখ টাকায়

মাছটি বিক্রি হলো সাড়ে ৪ লাখ টাকায়

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:১৯

চট্টগ্রামে করোনায় বয়স্কদের মৃত্যুর হার বাড়ছে। মৃতদের অধিকাংশের বয়স ৬০ বছরের বেশি। এই পর্যন্ত চট্টগ্রামে গড়ে ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে থাকা ৫৫ দশমিক ২৫ শতাংশ করোনা রোগী মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি।

এদিকে চট্টগ্রামে বয়স্করা বেশি মারা গেলেও করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে যুবকরা। ২১ থেকে ৪০ বছর বয়সীরাই বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। মোট আক্রান্তের ৪৩ দশমিক ৩৭ শতাংশ এই বয়সী।

সেখ ফজলে রাব্বি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে যুবকদের আক্রান্তের হার বেশি। মোট আক্রান্তের ২৩ দশমিক ১৪ শতাংশের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর। এর পরই রয়েছে ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সীরা। মোট আক্রান্তের ২০ দশমিক ২৩ শতাংশ এই বয়সী। অন্যদিকে মৃতদের মধ্যে ৬১ বছর থেকে তার বেশি যাদের বয়স, তারা সবচেয়ে বেশি মারা গেছেন। মোট মৃতদের ৫৫ দশমিক ২৫ শতাংশ ৬০ বছরের বেশি বয়সী।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামে আক্রান্তদের মধ্যে শূন্য থেকে ১০ বছর বসয়ী রয়েছেন দুই হাজার ৫৩ জন, যা মোট আক্রান্তের দুই দশমিক ৭২ শতাংশ। ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী পাঁচ হাজার ৭৭৫ জন, যা মোট আক্রান্তের সাত দশমিক ৬৬ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সীদের সংখ্যা ১৫ হাজার ২৫০ জন, যা মোট আক্রান্তের ২০ দশমিক ২৩ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী ১৭ হাজার ৪৪৬ জন, যা মোট আক্রান্তের ২৩ দশমিক ১৪ শতাংশ। ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী ১৩ হাজার ২৩১ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৭ দশমিক ৫৫ শতাংশ। ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী ১১ হাজার ১৭৩ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৪ দশমিক ৮২ শতাংশ। ৬১ বছরের ঊর্ধ্বে আক্রান্ত ১০ হাজার ৪৩৫ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৩ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

এদিকে মৃতদের মধ্যে শূন্য থেকে ১০ বছর বয়সী চার জন, যা মোট আক্রান্তের দশমিক ৪৫ শতাংশ। ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী নয় জন, যা মোট আক্রান্তের এক দশমিক ০২ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী ১৭ জন, যা মোট আক্রান্তের এক দশমিক ৮০ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী ৪২ জন, যা মোট আক্রান্তের চার দশমিক ৭৪ শতাংশ। ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী ১১৬ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৩ দশমিক ১০ শতাংশ। ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী ২০৮ জন, যা মোট আক্রান্তের ২৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ। ৬১ বছরের ঊর্ধ্বে মারা গেছেন ৪৮৯ জন, যা মোট আক্রান্তের ৫৫ দশমিক ২৫ শতাংশ।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:০৮

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি উপজেলার সুটিয়াকাঠি ইউনিয়নের বাররা গ্রামে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। স্বরূপকাঠী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবীর মোহাম্মদ হোসেন জানান, রবিবার (২৫ জুলাই) কিশোরীর বাবা হান্নান মিয়া ছয় জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন। এর পরেই পুলিশের কয়েকটি টিম বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুই জনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতার আসামিরা হলো– আসামি উজ্জ্বল হোসেন (১৯) ও মকবুল হোসেন (২০)।

ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বাবার অভিযোগ, তার বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ১৫ বছরের মেয়েকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে প্রতিবেশী আসামিরা বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়। বর্তমানে মেয়েটি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটি জড়িত ছয় জনের নাম বলেছে।

স্বরূপকাঠী থানার ওসি বলেন, ‘ওসি তদন্তসহ থানার সব অফিসারদের নিয়ে গোটা এলাকায় চিরুনি অভিযান চালানো হয়েছে। এ সময় দুই জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই। আসামিদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষণের শিকার কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পিরোজপুর সিভিল সার্জন অফিসে পাঠানো হয়েছে।’

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, অপমানে মাদ্রাসাছাত্রীর আত্মহত্যা!

সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, অপমানে মাদ্রাসাছাত্রীর আত্মহত্যা!

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

সর্বশেষ

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

স্টিক দিয়ে মাথায় মেরে বসলেন আর্জেন্টিনার এক খেলোয়াড়!

অলিম্পিক হকিস্টিক দিয়ে মাথায় মেরে বসলেন আর্জেন্টিনার এক খেলোয়াড়!

করোনায় মারা গেছেন নির্বাচন কর্মকর্তা ইসরাইল হোসেন

করোনায় মারা গেছেন নির্বাচন কর্মকর্তা ইসরাইল হোসেন

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

মৃত্যু বেড়ে ২২৮, শনাক্ত ১১ হাজার ২৯১

মৃত্যু বেড়ে ২২৮, শনাক্ত ১১ হাজার ২৯১

নাসুমকে তিন ছক্কা মারা চাকাভাকে ফেরালেন সৌম্য 

নাসুমকে তিন ছক্কা মারা চাকাভাকে ফেরালেন সৌম্য 

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

চিকিৎসকসহ ৮৮৯০ স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

চিকিৎসকসহ ৮৮৯০ স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

কওমি মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা টিকা পাবেন কবে?

কওমি মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা টিকা পাবেন কবে?

শ্রেষ্ঠত্ব আর থাকছে না মারের

অলিম্পিক টেনিসশ্রেষ্ঠত্ব আর থাকছে না মারের

সাইফউদ্দিন উইকেট নিলেও জিম্বাবুয়ের আগ্রাসী ব্যাটিং

সাইফউদ্দিন উইকেট নিলেও জিম্বাবুয়ের আগ্রাসী ব্যাটিং

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

রংপুরে প্রথম ত্বীন চাষ, সাত মাসে লাখ টাকা আয়

রংপুরে প্রথম ত্বীন চাষ, সাত মাসে লাখ টাকা আয়

© 2021 Bangla Tribune