X
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

সংবিধানের প্রথম সংশোধনী বিল উত্থাপন

আপডেট : ১২ জুলাই ২০২১, ১৯:০৬

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ১২ জুলাইয়ের ঘটনা।)

১২ জুলাই বৃহস্পতিবার আইনমন্ত্রী মনোরঞ্জন ধর সংবিধান সংশোধনের জন্য জাতীয় সংসদে একটি বিল উত্থাপন করেন। এই বিলটির উদ্দেশ্য হলো গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধ, যুদ্ধাপরাধ ও আন্তর্জাতিক অপরাধের অপরাধীদের বিচারের ব্যবস্থা করার জন্য রাষ্ট্রকে আইন প্রণয়নের ক্ষমতা দেওয়া। সংবিধানের প্রথম সংশোধনী বিলটি সংসদে গৃহীত হলে পাকিস্তানের যুদ্ধবন্দিদের দীর্ঘ প্রতীক্ষিত বিচার অনুষ্ঠানের ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে। বিলটিতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৪৭ অনুচ্ছেদ সংশোধনের প্রস্তাব করা হয়েছে। সংসদ বিলটি অনুমোদন করলে সংবিধান আইন (সংশোধিত) ১৯৭৩ নামে অভিহিত হবে এবং অবিলম্বে তা বলবৎ হবে।

সংবিধানের গুরুত্বপূর্ণ সংশোধন বিলে মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধী, আন্তর্জাতিক অপরাধের অপরাধীদের বিচারের জন্য সংবিধানের ৪৭-এর (২)-এর পরে একটি অংশযুক্ত করা হবে। এবং ৪৭ অনুচ্ছেদের পরে নতুন করে ৪৭ (ক) অনুচ্ছেদের প্রস্তাব করা হয়েছে। সংবিধানের ৪৭ অনুচ্ছেদের সংশোধন- গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৪৭ অনুচ্ছেদ সংশোধনের পরে ৪৭-এ থাকা দুই দফার পরে তৃতীয় দফা যুক্ত হবে। যেখানে বলা হবে, এ সংবিধানে যা বলা হয়েছে তা সত্ত্বেও কোন সশস্ত্র প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্য বা গণহত্যা যুদ্ধাপরাধ মানবতাবিরোধী অপরাধ যুদ্ধাপরাধ এবং আন্তর্জাতিক আইনের অধীন অন্যান্য অপরাধের জন্য আটক করার, ফৌজদারিতে সোপর্দ করার কিংবা দণ্ডদানের বিধান সংবলিত কোনও আইন বা আইনের বিধান এই সংবিধানের কোনও বিধানের সঙ্গে অসামঞ্জস্য বা এই কারণে বাতিল বা বেআইনি বলে গণ্য হবে না কিংবা কখনও বাতিল বা বেআইনি হয়েছে বলে গণ্য হবে না।

২০ জুলাই ভারত-পাকিস্তান কাঙ্ক্ষিত বৈঠক

সরকারি মহল থেকে বলা হয় যে ২৪ জুলাই ইসলামাবাদে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু হবে। ভারত বাংলাদেশ যুক্ত ঘোষণার প্রস্তাব বাস্তবায়নের বিষয়টি ইসলামাবাদ বৈঠকে আলোচনা হবে। বৈঠকে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিবেন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধির বিশেষ দূত পিএন হাকসার ও পাকিস্তান থেকে প্রতিনিধিত্ব করবেন পররাষ্ট্র দফতরের স্টেটমন্ত্রী জনাব আজিজ আহমদ।

আরও ১২৩ আটক বাঙালি ঢাকা আসেন

পাকিস্তান থেকে আরও ১২৩ জন বাঙালির দলটি ঢাকায় এসে পৌঁছায় এইদিনে। জাতিসংঘের চার্টার্ড করা এরিয়ানা আফগান এয়ারলাইন্সের বিমানে করে তারা ঢাকায় আসেন। ঢাকায় এদের আসার মধ্য দিয়ে ফিরে আসাদের মোট বাঙালিদের সংখ্যা দাঁড়াল ২৫০। আরও বেশ কিছু সংখ্যক আটকদের নিয়ে তৃতীয় দলটিও এরইমধ্যে পৌঁছাবে। এই দফায় মোট ৪৬৪ আটক বাঙালিকে আইসিআরসি ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করেছে। প্রথমদিন আসাসহ এই ব্যক্তিদেরও থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা ত্রাণ মন্ত্রণালয় করার কথা জানানো হয়।

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে ইরাকি চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্সের সাক্ষাৎ

এইদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত ইরাকি চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স হাসান আল আম্বারি গণভবনে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাতের পরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, এই সাক্ষাৎকারের উদ্দেশ্য ছিল মূলত বাঙালি জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন। একটি সমাজতান্ত্রিক ও প্রগতিশীল সমাজ গঠনের ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকার ও নেতৃত্বের প্রচেষ্টার প্রশংসা করা। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎকারে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের অধিক প্রাধান্য দেওয়া হয়। বাংলাদেশে কতগুলো সাধারণ বিষয়ে অভিন্ন মনোভাব পোষণ করায় তিনি সন্তোষ প্রকাশও করেন।

সংসদের বাজেট গৃহীত

জাতীয় সংসদের চলতি আর্থিক বছরের জন্য জাতীয় বাজেট অনুমোদন করা হয়। অর্থমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমেদ ১৪ জুন বাজেট পেশ করলে তার ওপর দীর্ঘ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় ১১টি অধিবেশনে ৭২ জন সদস্য অংশগ্রহণ করেন। গত মাসে সংসদ বিভিন্ন খাতে ৮৫ কোটি ৭৬ লক্ষ ১৬ হাজার টাকা স্বল্পকালীন ব্যয় বরাদ্দ দাবি মঞ্জুর করেন। ৯৪৩ কোটি ৩৭ লাখ ৭১ হাজার টাকার ৭৮টি মঞ্জুরি বরাদ্দ দাবি বিবেচনার জন্য গ্রহণ করা হয়

 

/এফএএন/আপ-এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৫

ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর শুরু করেছে সরকার। তাদের দেখভালের বিষয়ে সরকার ও জাতিসংঘের মধ্যে আলোচনা চলছে। একটি সমঝোতায় পৌঁছানোর পর সেখানে দ্রুত কাজ শুরু করবে জাতিসংঘ বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো। তিনি বলেন, ‘সরকারের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।’

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ফরেন সার্ভিস অ্যাকাডেমিতে ডিক্যাব আয়োজিত ‘ডিক্যাব টকে’ তিনি বলেন, ‘ভাসানচর নিয়ে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। গত মার্চে জাতিসংঘের টেকনিক্যাল মিশন তাদের কাজ শেষ করেছে।’

মিয়া সেপ্পো বলেন, ‘ভাসানচর নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতার পর আমরা সেখানে দ্রুত সরকারের সঙ্গে অংশীদারিত্বে কাজ শুরু করবো।’

তিনি বলেন, ‘কক্সবাজারে জাতিসংঘের যে ভূমিকা, তা থেকে ভাসানচরে ভূমিকা ভিন্ন হবে। কারণ, দু’টি জায়গার পরিস্থিতি ভিন্ন।’

রোহিঙ্গা সমস্যার রাজনৈতিক সমাধানের বিষয়ে মিয়া সেপ্পো বলেন, ‘মিয়ানমারের সঙ্গে কীভাবে এই সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হবে, সেটি নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের মধ্যে মতভেদ আছে।’ এটি একই সঙ্গে রাজনৈতিক ও মানবিক সমস্যা। মিয়ানমার ও বাংলাদেশে অনেক লোকের মানবিক সহায়তার দরকার আছে বলে তিনি জানান।

 

/এসএসজেড/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

‘নির্বাচনে কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা জানতে চায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়’

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:২১

বাংলাদেশের আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা সেটি জানতে চেয়েছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ডিক্যাব আয়োজিত ডিক্যাব টকে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘যে কোনও দেশের নির্বাচনের আগে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা সেটি জানতে চায়। আমি নিশ্চিত বাংলাদেশেও এটি হবে।’

মিয়া সেপ্পো জানান, ‘এই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে রয়েছে জাতিসংঘ ও কয়েকটি দেশের রাষ্ট্রদূত।’

জাতিসংঘের এই আবাসিক প্রতিনিধি জানান, ‘বাংলাদেশের কিছু ক্ষেত্রে মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘ উদ্বিগ্ন। এর মধ্যে রয়েছে নারীদের প্রতি সহিংসতা, বৈষম্য বৃদ্ধি।’ এটি একটি বৈশ্বিক সমস্যা বলেও উল্লেখ্য করেন তিনি।

মিয়া সেপ্পো বলেন, ‘আমরা আশা করি সরকার ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন পুনর্বিবেচনা করবে’। এটি নিয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করছেন বলেও উল্লেখ্য করেন তিনি।

/এসএসজেড/এনএইচ/

সম্পর্কিত

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

বিশ্বব্যাংকের বৈশ্বিক উদ্বাস্তু নীতি সমর্থন করে জাতিসংঘ

বিশ্বব্যাংকের বৈশ্বিক উদ্বাস্তু নীতি সমর্থন করে জাতিসংঘ

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

বিশ্বব্যাংকের বৈশ্বিক উদ্বাস্তু নীতি সমর্থন করে জাতিসংঘ

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৪

রোহিঙ্গাসহ অন্যান্য উদ্বাস্তুদের জন্য বিশ্বব্যাংকের বিতর্কিত বৈশ্বিক নীতি সমর্থন করে জাতিসংঘ। শুধু তাইনা ওই উদ্বাস্তু নীতি প্রণয়নে জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা সরাসরি জড়িত বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো।

আজ রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে ডিপ্লোমেটিক করেসপনডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ-ডিক্যাব আয়োজিত ডিক্যাব টকে তিনি বলেন, ‘বৈশ্বিক উদ্বাস্তু নীতির ক্ষেত্রে বিশ্বব্যাংক ও জাতিসংঘ একই মনোভাব পোষণ করে।’

উল্লেখ্য, বিশ্ব ব্যাংকের রিফিউজি পলিসি রিভিউ ফ্রেমওয়ার্কের তিনটি উদ্দেশ্য হলো ‑ উদ্বাস্তু  ও হোস্ট কমিউনিটির জন্য অর্থনৈতিক সুযোগ তৈরি করা, উদ্বাস্তুরা যেদেশে অবস্থান করছে সেই সমাজে অন্তর্ভুক্ত করে নেওয়া অথবা তাদের ফেরত পাঠানো, এবং দেশের সক্ষমতা বৃদ্ধি করা যাতে করে নতুন উদ্বাস্তুদের আশ্রয় দেওয়া সম্ভব হয়।

বিশ্ব ব্যাংকের নীতি বাংলাদেশ প্রত্যাখ্যান করলেও জাতিসংঘ কর্মকর্তা আশা প্রকাশ করে বলেন যে, ‘এই অর্থায়ন কক্সবাজারের রোহিঙ্গাদের জন্য অত্যন্ত দরকারি। বিশ্বব্যাংকের এই অর্থ রোহিঙ্গা ও স্থানীয় জনগণের জন্য দরকারি। আমরা আশা করি, বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে সরকার সংলাপ অব্যাহত রাখবে।’

তিনি জানান, বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মানবিক সহায়তা বজায় রাখার জন্য অর্থায়ন সংগ্রহ করা।

তবে ‘বাংলাদেশ সরকার তাদের অবস্থান পরিষ্কারভাবে ব্যক্ত করেছে কিভাবে তারা রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবিলা করবে।’ বলেও জানান তিনি।

/এসএসজেড/এমএস/

সম্পর্কিত

অস্থিতিশীল আফগানিস্তান নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি: বাংলাদেশ

অস্থিতিশীল আফগানিস্তান নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি: বাংলাদেশ

প্রস্তাব থেকে সরে এসেছে বিশ্বব্যাংক: পররাষ্ট্র সচিব

প্রস্তাব থেকে সরে এসেছে বিশ্বব্যাংক: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে রেখে দেওয়ার প্রস্তাব বিশ্বব্যাংকের

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে রেখে দেওয়ার প্রস্তাব বিশ্বব্যাংকের

জাতিসংঘে দৃষ্টি প্রতিবন্ধিতা নিয়ে বাংলাদেশের রেজুলেশন গৃহীত

জাতিসংঘে দৃষ্টি প্রতিবন্ধিতা নিয়ে বাংলাদেশের রেজুলেশন গৃহীত

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২৯

স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কিনা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা হচ্ছে কিনা, শ্রেণি পাঠদান ঠিকমতো হচ্ছে কিনা, তা যাচাইয়ে কাউকে না জানিয়েই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে যাবেন বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। 

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিদর্শন শেষে এ কথা জানান তিনি।

গত সাত দিনে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কত জানতে চাইলে  শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘কত শতাংশ শিক্ষার্থী আসছে, আমরা তথ্য পাচ্ছি। আমরা শিগগিরই (দুই-একদিনের মধ্যে) সঠিত তথ্য তুলে ধরে ব্রিফ করবো। সেই সংখ্যার দিকে এখন আমি যাচ্ছি না।’

পরিদর্শন করা বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা মাস্ক পরেছে, তারা সবাই বলেছে— হাত সেনিটাইজড করেছে। পরিষ্কারের কাজ সব সময় চলতে থাকবে। এক দিনেই সবটা আশা করতে পারি, তা নয়। তবে সবার চেষ্টা রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর কেউ কেউ খুব ভালো করছেন। কেউ কেউ কোনোদিনই আগে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করেননি, তারাও এখন পরিষ্কার-পচ্ছিন্ন করছেন। অনাভ্যাসের কারণে আমাদের প্রত্যাশার স্তরের হয়তো অনেকে পৌঁছাতে পারছেন না।  তবে এই অভ্যাসগুলো সমাজে বিস্তৃত করতে হবে।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘এখানে জানিয়ে এসেছি। অনেক জায়গায় না জানিয়ে চলে যাবো। গ্রামাঞ্চলের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন অনেক ভালো।’

/এসএমএ/এপিএইচ/  

সম্পর্কিত

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:০৩

হয়রানি-চাঁদাবজি, ট্রাকচালক লিটন হত্যার বিচার, ড্রাইভিং লাইসেন্সে জটিলতা, বর্ধিত আয়কর; নানা সমস্যার বেড়াজালে আটকে আছেন বাংলাদেশের ট্রাক, কাভার্ডভ্যান, লরি, প্রাইম মুভার মালিক ও শ্রমিকরা। দাবি আদায়ে ধর্মঘটের ডাকও দিয়েছেন তারা। কর্মসূচি পালনে তাদের মধ্যে খানিকটা বিভাজন থাকলেও ধর্মঘটের কথা জানে না সরকার।

একেক সংগঠনের নামে ভিন্ন ভিন্ন জোট বেঁধে মালিক-শ্রমিকরা কর্মসূচি পালনের ডাক দিয়েছেন। কেউ ৭২ ঘণ্টার, কেউ ডেকেছেন ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট। কর্মসূচি পালনে সবাই মাঠে নামলেও এক ছাদের তলায় নেই তারা। বিভিন্ন সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে এ তথ্য।

সূত্র জানিয়েছে, ২৭ সেপ্টেম্বর ভোর ৬টা থেকে ১০ দফা দাবিতে ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান, ট্যাংকলরি, প্রাইম মুভার মালিক-শ্রমিক সমন্বয় পরিষদ। আট বিভাগে মানববন্ধন কর্মসূচির পাশাপাশি ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনও করেছে তারা।

২৫ আগস্ট সংগঠনের আহবায়ক রুস্তম আলী খান, সদস্য সচিব তাজুল ইসলাম ও সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আবদুল মান্নান স্বাক্ষরিত ১০ দফা দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে জমা দিয়েছে।

অপরদিকে ১৫ দফা দাবি বাস্তবায়নে সারাদেশে কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ কাভার্ড ভ্যান-ট্রাক-প্রাইম মুভার পণ্য পরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশন। ২১ সেপ্টেম্বর থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মবিরতি চলবে বলে পোস্টার লিফলেট বিতরণ করছে তারা। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রামের কদমতলীর ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশনের জেনারেল সেক্রেটারি ওয়াজি উল্লাহ জানান, ‘১৫ দফা দাবি বাস্তবায়নে আমাদের ২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতি শুরু হবে ২১ সেপ্টেম্বর। দেশের পণ্য পরিবহনের শতকরা ৮৫ ভাগ সড়কপথে হয়। করোনা মহামারিসহ যে কোনও দুর্যোগে আমরা সারাদেশে পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক রাখি। কিন্তু আজ এই খাতের মালিক-শ্রমিকরা চরম অবহেলা ও বঞ্চনার শিকার হচ্ছে।’

তিনি জানান, ‘ঘুষসহ সব ধরনের হয়রানি বন্ধ করতে হবে। নির্দিষ্ট স্থান ছাড়া যত্রতত্র গাড়ির কাগজপত্র চেক করা যাবে না। এ ছাড়া যেসব চালক ভারী মোটরযান চালাচ্ছেন তাদেরকে সহজ শর্তে এবং সরকারি ফি-এর বিনিময়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স দিতে হবে। মোটরযান মালিকদের ওপর আরোপিত অগ্রিম আয়কর বাতিল করতে হবে। আদায় করা বর্ধিত করও ফেরত দিতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সড়ক-মহাসড়কে শ্রমিকদের বিশ্রামের জায়গা নেই। আমাদের আরেকটি দাবি হলো শ্রমিকদের বিশ্রামের ব্যবস্থা করা।’

বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান, ট্যাংকলরি, প্রাইম মুভার মালিক-শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের আহবায়ক রুস্তম আলী খান জানিয়েছেন, ‘গত আগস্টে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে কর্মসূচি ঘোষণা করেছি। সেই অনুযায়ী ৮টি বিভাগে ১০ দফা দাবির সমর্থনে কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ৪৮ ঘণ্টার কর্মবিরতির কর্মসূচি দেওয়া আছে। আরেকটি সংগঠন আগেই ৭২ ঘণ্টার কর্মবিরতির ঘোষণা করেছে। ওদের কর্মসূচির সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক নেই।’

তিনি আরও জানান, ‘আমাদের সংগঠনের ১০ দফা দাবি সম্পর্কে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় অবগত। সরকারের পক্ষে স্বরাষ্ট্র বা সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় ডাকলে আমরা আলোচনায় বসবো।’

এক প্রশ্নের জবাবে রুস্তম আলী জানান, ‘এখন পর্যন্ত সরকার থেকে আলোচনার প্রস্তাব আসেনি। তবে হাতে সময় আছে। আমরা অপেক্ষায় রয়েছি। ১০ দফা বাস্তবায়ন না হলে জেলার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবো।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দুজন অতিরিক্ত সচিব নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, ‘এ বিষয়ে কোনও মন্ত্রণালয়ই অবগত নয়।’

/এফএ/

সম্পর্কিত

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

না জানিয়ে পরিদর্শনে যাবো: শিক্ষামন্ত্রী

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

পণ্য পরিবহনে ধর্মঘটের কর্মসূচি, জানে না মন্ত্রণালয়

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

‘পর্যটনে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

মুক্ত স্বদেশে ফিরে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশিরা

শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে সৌদি আরব গুরুত্ব দিয়ে আসছে: সৌদি বাণিজ্যমন্ত্রী

শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে সৌদি আরব গুরুত্ব দিয়ে আসছে: সৌদি বাণিজ্যমন্ত্রী

‘ই-কমার্সের জন্য নতুন আইন দরকার’

‘ই-কমার্সের জন্য নতুন আইন দরকার’

সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনী বিলে যা ছিল

সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনী বিলে যা ছিল

সর্বশেষ

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

মানুষকে আতঙ্কে রাখতে চাই না: তালেবানের নৈতিকতা পুলিশ প্রধান

রাজারবাগ দরবারের বিষয়ে দুদক, সিটিটিসি ও সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ

রাজারবাগ দরবারের বিষয়ে দুদক, সিটিটিসি ও সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ

হাজার কোটি টাকা ফেরত চান গ্রাহকরা

হাজার কোটি টাকা ফেরত চান গ্রাহকরা

ঢাকার সঙ্গে উত্তর-দক্ষিণবঙ্গের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

ঢাকার সঙ্গে উত্তর-দক্ষিণবঙ্গের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

সাংবাদিক নেতাদের ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদ রিজভীর

সাংবাদিক নেতাদের ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদ রিজভীর

© 2021 Bangla Tribune