X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

ক্ষমা চাইলেন সেই জার্মান সাংবাদিক

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ০৪:৩৮
image

গত সপ্তাহের প্রবল বন্যায় কবলিত একটি গ্রামে রিপোর্টিংয়ের সময় পোশাকে লাগা কাঁদার গন্ধ শুঁকার সময় ভিডিওতে ধরা পড়ার পর ক্ষমা চেয়েছেন এক জার্মান উপস্থাপক। ওই শহর থেকে পরিষ্কার কাপড়ে রিপোর্টিংয়ের জন্য লজ্জা পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন সুসানা ওহেলান (৩৯) নামের এই সাংবাদিক। সম্প্রচারমাধ্যম আরটিএল জানিয়েছে, ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে পড়ার পর স্টান্ডার্ড ভঙ্গ করায় এই সাংবাদিককে বরখাস্ত করা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত সপ্তাহে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিপাতে জার্মানির নর্থ রাইন-ওয়েস্টফালিয়ার ব্যাড মানস্ট্রিফিলে ভয়াবহ বন্যায় বহু বাড়িঘর বিধ্বস্ত এবং অনেকে নিহত হয়। ওই এলাকায় রিপোর্টিংয়ে যান সুসানা ওহেলান। তিনি দাবি করেছেন, গত সোমবার আরটিএল এর গুড মর্নিং জার্মানি অনুষ্ঠান ধারণের আগে উদ্ধার তৎপরতায় সহায়তা করেছেন। তবে সরাসরি সম্প্রচারে যাওয়ার আগে পোশাকে লেগে যাওয়া কাঁদায় বিরক্ত হয়ে গন্ধ শোঁকেন তিনি। সুসেলান ওহেলান জানিয়েছেন কোনও চিন্তা ছাড়াই এই কাজ করে তিনি লজ্জিত।

পোশাকে লাগা কাঁদা হাতে লেগে যাওয়ার পর তা নিয়ে বিরক্ত হতে দেখে এক প্রত্যক্ষদর্শী ভিডিও ধারণ করেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিওটি প্রকাশ করার পর তা দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়।

নিজের কর্মকাণ্ডের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করে এক বিবৃতিতে সুসান ওহেলান বলেছেন তার মাধ্যমে এটা ঘটা উচিত হয়নি। আরটিএল জানিয়েছে, ভিডিওটি মনোযোগ আকর্ষণ করার পর ওহেলানকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আর কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা তা এখনও জানায়নি সম্প্রচারমাধ্যমটি।

গত কয়েক দশকের মধ্যে জার্মানিতে ভয়াবহ বন্যায় ১৭০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষতি হয়েছে শত শত কোটি ডলারের। উদ্ধার তৎপরতা এখনও চললেও নিখোঁজ রয়েছে আরও বহু মানুষ। ভয়াবহ এই বন্যার জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করেছেন ইউরোপীয় নেতারা। জার্মানি ছাড়াও নেদারল্যান্ডস, লুক্সেমবার্গ এবং সুইজারল্যান্ডেও বন্যা হয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

জার্মানির নির্বাচন: চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে কারা

জার্মানির নির্বাচন: চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে কারা

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

চীনা ফোন ফেলে দিন: লিথুনিয়া

চীনা ফোন ফেলে দিন: লিথুনিয়া

‘তালেবান শো’ কোনও কাজে আসবে না: জার্মানি

‘তালেবান শো’ কোনও কাজে আসবে না: জার্মানি

মঙ্গল গ্রহে ভূমিকম্প, কাঁপলো দেড় ঘণ্টা

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৫

শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর। অতীতের মতো মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা’র ইনসাইট ল্যান্ডার রোবট লাল গ্রহের খালি ধূলো সমভূমিতে নীরবে বসেছিল। কিন্তু এক সময় তা কাঁপতে শুরু করে। এই কম্পন স্থায়ী হয় প্রায় দেড় ঘণ্টা।

রোবটটি নিজেরে সিসমোটিারের সাহায্যে এই কম্পনের তথ্য পাঠায় পৃথিবীতে। আর নাসার বিজ্ঞানীরা বুজতে পারেন এতদিন তারা যে ঘটনার জন্য অপেক্ষা করছিলেন তা ঘটে গেছে: একটি বড় ভূমিকম্প।

রোবটের পাঠানো তথ্য অনুসারে, এই ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৪ দশমিক ২। ২০১৮ সালের নভেম্বরে মঙ্গল গ্রহে ইনসাইট ল্যান্ডারকে পাঠানোর পর থেকেই এমন একটি ভূমিকম্প পর্যালোচনার অপেক্ষায় ছিলেন নাসার বিজ্ঞানীরা।

সম্প্রতি আরও দুটি বড় ভূমিকম্প হয়েছে। ২৫ আগস্ট রোবটি দুটি ভূমিকম্পের সংকেত পাঠায়। একটি ছিল ৪ দশমিক ২ মাত্রার এবং অপরটি ৪ দশমিক ১ মাত্রার

এর আগে রোবটের সবচেয়ে বড় ভূমিকম্পের খবর পাঠানো ছিল ২০১৯ সালে। সেটি ছিল ৩ দশমিক ৭ মাত্রার।

ইনসাইট ল্যান্ডারের প্রিন্সিপাল ইনভেস্টিগেটর ব্রুস ব্যানার্ড এপ্রিলে বলেছিলেন, মনে হচ্ছে আমাদের প্রত্যাশার চেয়ে মঙ্গল গ্রহে ছোট ভূমিকম্পের তুলনায় বড় ভূমিকম্পের সংখ্যা কম।এটি কিছু মাত্রায় রহস্যময়।  

কিন্তু শনিবারের ভূমিকম্পটি ছিল ৩.৭ মাত্রার চেয়ে পাঁচগুণ বেশি শক্তিশালী।

ইনসাইট ল্যান্ডার এখন পর্যন্ত মঙ্গল গ্রহে সাত শতাধিক ভূমিকম্প শনাক্ত করেছে। এতে করে করে গ্রহটির অভ্যন্তরীণ কাঠামো সম্পর্কে তথ্য পাওয়া গেছে। বিজ্ঞানীরা জানতে পেরেছেন, যতটা ভাবা হয়েছিল তার চেয়ে মঙ্গল পৃষ্ঠের পুরুত্ব অনেক কম। পৃথিবীর চেয়ে ভিন্ন কিন্তু চাঁদের পৃষ্ঠের অনেক কাছাকাছি। এছাড়া অনেক জায়গায় ভাঙাচোড়া আছে। ফলে পৃথিবীর ভূমিকম্পের চেয়ে সেখানে স্থায়িত্ব বেশি।  সূত্র: বিজনেস ইনসাইডার

/এএ/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘ অধিবেশনে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত ব্রাজিলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জাতিসংঘ অধিবেশনে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত ব্রাজিলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

উন্নয়নশীল দেশগুলোকে আরও ৫০ কোটি ডোজ টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

উন্নয়নশীল দেশগুলোকে আরও ৫০ কোটি ডোজ টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

নষ্ট হওয়ার পথে ২৪ কোটি ডোজ টিকা

নষ্ট হওয়ার পথে ২৪ কোটি ডোজ টিকা

২-৬ মাসের ব্যবধানে বুস্টার ডোজে বাড়ে কার্যকারিতা: জনসন অ্যান্ড জনসন

২-৬ মাসের ব্যবধানে বুস্টার ডোজে বাড়ে কার্যকারিতা: জনসন অ্যান্ড জনসন

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৩০

আফগানিস্তানের দখল নেওয়ার পর কয়েকটি ঘটনায় নিজেদের যোদ্ধাদের অসদাচরণের তীব্র তিরস্কার করেছে তালেবান। গোষ্ঠীটির সিনিয়র নেতা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ ইয়াকুব এক অডিও বার্তায় বলেছেন, অপব্যবহার মেনে নেওয়া হবে না। শুক্রবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এখবর জানিয়েছে।

অডিও বার্তায় ইয়াকুব দাবি করেছেন, তালেবান ইউনিটে কিছু দুষ্কৃত ও কুখ্যাত সাবেক সেনাকে যোগদানের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। যারা বিভিন্ন সময় সহিংস নিপীড়ন চালাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা এদেরকে বাহিনীর বাইরে রাখার নির্দেশ দিচ্ছি। অন্যথায় আপনাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আমাদের বাহিনীতে এমন লোকজনকে চাই না।

ইয়াকুব স্বীকার করেছেন, অনুমোদন ছাড়া কয়েকটি বিচ্ছিন্ন হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। তবে বলেছেন, এমন পদক্ষেপ সহ্য করা হবে না।

তালেবান নেতা বলেন, আপনারা সবাই অবগত আছেন যে, আফগানিস্তানে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করায় কোনও মুজাহিদের প্রতিশোধ নেওয়ার অধিকার নেই।

অডিও বার্তায় তালেবান নেতা টহল টিমের সদস্যদের এখতিয়ার বহির্ভুত কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, তাদের যেখানে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সেখানেই থাকা উচিত।

তার কথায়, সবাই মোবাইল ফোন ব্যবহার করে গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে ছবি তুলছেন, এটি অনুমোদন যোগ্য না। এমন ঘুরে বেড়ানোর ছবি ও ভিডিও এই জগতে কোনও কাজে আসবে না এবং পরকালেও না।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

শর্ত মানলে শান্তি আলোচনায় রাজি উত্তর কোরিয়া: কিমের বোন

শর্ত মানলে শান্তি আলোচনায় রাজি উত্তর কোরিয়া: কিমের বোন

‘নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তালেবানের’

‘নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তালেবানের’

শর্ত মানলে শান্তি আলোচনায় রাজি উত্তর কোরিয়া: কিমের বোন

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩৮

উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের প্রভাবশালী বোন কিম ইয়ো-জং বলেছেন, দক্ষিণ কোরিয়া যদি কোনও উসকানিমূলক পদক্ষেপ না নেয় তাহলে তারা আবার শান্তি আলোচনা শুরু করতে রাজি। এমন সময় তিনি একথা বললেন যখন উপদ্বীপে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কোরীয় যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক অবসানের জন্য ডাক দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া।

সম্প্রতি জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে কোরীয় যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক অবসান ঘটানোর আহ্বান জানান। তার এই ভাষণের  পর হঠাৎ জারি করা এক বিবৃতিতে কিম ইয়ো-জং একে ‘প্রশংসনীয় পরিকল্পনা’ বলে উল্লেখ করেছেন।

বিবৃতিতে কিমের বোন বলেন, উত্তর কোরিয়ার ব্যাপারে সিউলে সরকার যদি কঠোর শত্রুতামূলক অবস্থান পরিত্যাগ করে- তাহলে দুই কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্কোন্নয়ন নিয়ে পিয়ংইয়ং সরকারের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে।

তার বিবৃতিতে অনেকগুলো শর্ত রয়েছে বলে বিবিসি’র খবরে উল্লেখ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কোরিয়ার যুদ্ধটি শেষ হয়েছিল ১৯৫৩ সালে। কিন্তু তা ঘটেছিল একটা যুদ্ধবিরতির মাধ্যমে। দুই দেশের মধ্যে কোনও শান্তি চুক্তি হয়নি। ফলে দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হয়নি। সূত্র: বিবিসি

/এএ/

সম্পর্কিত

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

‘নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তালেবানের’

‘নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তালেবানের’

ক্রিপ্টোকারেন্সি নিষিদ্ধ করলো চীন

ক্রিপ্টোকারেন্সি নিষিদ্ধ করলো চীন

মডেলের চুল কাটায় ভুল, ২ কোটি রুপি জরিমানা

মডেলের চুল কাটায় ভুল, ২ কোটি রুপি জরিমানা

‘নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তালেবানের’

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৫২

আফগানিস্তানের এক শীর্ষস্থানীয় মানবাধিকারকর্মী বলেছেন, যদি তালেবান অর্থনৈতিক ধস ও কূটনৈতিক বিচ্ছিন্নতা এড়াতে চায় তাহলে আফগান নারীদের দাবি মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই তাদের। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে একথা বলেছেন প্রবীন অ্যাক্টিভিস্ট মাহবুবা সিরাজ।

৭৩ বছর বয়সী এই অ্যাক্টিভিস্ট মাহবুবা সিরাজ গত মাসে তালেবান কাবুল দখলের পরও দেশ ছাড়েননি। বাড়িতে থেকে তিনি তালেবানের মিশ্র বার্তাগুলো পর্যবেক্ষণ করছেন। চেষ্টা করছেন দেশের নারীদের অধিকারের ক্ষেত্রে সামনে কী অপেক্ষা করছে।

মাহবুবা সিরাজ বলেন, এটি সবার জন্য দুঃস্বপ্নে পরিণত হচ্ছে।

তালেবান শাসনে ক্রমাগত নারীদের স্বাধীনতা কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। মেয়েদের মাধ্যমিক স্কুলে ফিরতে না দেওয়া, কর্মজীবী নারীদের ঘরে থাকতে বলা এবং কেবল পুরুষদের নিয়ে সরকার গঠন করা হয়েছে। তারা বলছে, এটি সাময়িক। কিন্তু অনেকেই এটিকে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি হিসেবে দেখছেন।

এই অ্যাক্টিভিস্ট বলেন, প্রথমবারও তালেবান একই অজুহাতের কথা বলেছে। তারা বলেছিল, অপেক্ষা কর, আমরা সবকিছু ঠিক করে ফেলব। আমরা ছয় বছর অপেক্ষা করেছি। কিন্তু সেই দিন আর আসেনি। আফগানিস্তানের নারীরা তালেবানকে এক বিন্দু বিশ্বাস করে না।

তিনি জানান, অনেক নারী সংশয় ও গুরুতর চাপে রয়েছেন। বাড়ি থেকে বের হতে ও তালেবানের হয়রানির মুখোমুখি হতে অনেকে আতঙ্কিত। তবে তিনি আশাবাদী যে, ক্ষমতায় থাকতে হলে তালেবানকে কিছুটা সমন্বয় করতে হবে।

তার কথায়, এখন ৯০ দশকের আফগানিস্তান নেই। এই আফগানিস্তান অনেক ভিন্ন। আমি সত্যিই বিশ্বাস করি পরিবর্তন হবে। এছাড়া উপায় নেই। তালেবানকে এটা অনুধাবন করা উচিত। সূত্র: এএফপি

/এএ/

সম্পর্কিত

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

শর্ত মানলে শান্তি আলোচনায় রাজি উত্তর কোরিয়া: কিমের বোন

শর্ত মানলে শান্তি আলোচনায় রাজি উত্তর কোরিয়া: কিমের বোন

গ্রামের সব নারীদের কাপড় ধোয়ার শর্তে যৌন নিপীড়কের জামিন

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৪৮

বিহারের একটি আদালত যৌন নিপীড়নে অভিযুক্ত এক যুবককে ছয় মাস বিনামূল্যে তার গ্রামের সব নারীদের কাপড় ধোয়া ও ইস্ত্রি করার শর্তে জামিন দিয়েছে। শুক্রবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হান্স ইন্ডিয়া এখবর জানিয়েছে।

রাজধানী পাটনা থেকে ১৮০ কিলোমিটার দূরে মুধবানী জেলার অতিরিক্ত জেলা বিচালক অভিনাশ কুমার জামিনের আদেশে বলেছেন, অভিযুক্ত লালন কুমার সফি (২০)-কে গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান, সরপঞ্জ বা সরকারি কোনও কর্মকর্তার কাছ থেকে বিনামূল্যে ছয় মাস নারীদের কাপড় ধোয়া ও ইস্ত্রি করার কাজ করার সনদপত্র আদালতে দাখিল করতে।

মঙ্গলবার দেওয়া আদেশে বিচারক বলেন, গ্রামের সব নারীদের কাপড় সংগ্রহ, ধোয়া ও ইস্ত্রি করার কাজ বিনামূল্যে ছয় মাস করার শর্তে লালনের জামিন মঞ্জুর করা হলো। এটি নারীদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে তাকে সহযোগিতা করবে।

বিচারক আরও বলেছেন, ধোয়া ও ইস্ত্রি শেষে কাপড় ফেরত দিতে তাকে বাড়ি বাড়ি যেতে হবে।

খবরে বলা হয়েছে, আদালতের এই আদেশের কপি পঞ্চায়েতে পাঠানো হয়েছে। যাতে করে নির্বাচিত ওই ব্যক্তি লালনের ওপর নজর রাখেন সে যেনও কোনও পেশাদার ধোপার সহযোগিতা নিতে না পারে।

/এএ/

সম্পর্কিত

মডেলের চুল কাটায় ভুল, ২ কোটি রুপি জরিমানা

মডেলের চুল কাটায় ভুল, ২ কোটি রুপি জরিমানা

দিল্লির আদালতে গোলাগুলি, ৩ গ্যাংস্টার নিহত

দিল্লির আদালতে গোলাগুলি, ৩ গ্যাংস্টার নিহত

ইলিশ রফতানি: বাংলাদেশের শর্তকে অবাস্তব বললো ভারত

ইলিশ রফতানি: বাংলাদেশের শর্তকে অবাস্তব বললো ভারত

ভারতে ৯ মাস ধরে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ২৮ জন আটক

ভারতে ৯ মাস ধরে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ২৮ জন আটক

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জার্মানির নির্বাচন: চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে কারা

জার্মানির নির্বাচন: চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে কারা

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

চীনা ফোন ফেলে দিন: লিথুনিয়া

চীনা ফোন ফেলে দিন: লিথুনিয়া

‘তালেবান শো’ কোনও কাজে আসবে না: জার্মানি

‘তালেবান শো’ কোনও কাজে আসবে না: জার্মানি

নষ্ট হওয়ার পথে ২৪ কোটি ডোজ টিকা

নষ্ট হওয়ার পথে ২৪ কোটি ডোজ টিকা

তালেবানের সঙ্গে বৈঠক রাশিয়ার

তালেবানের সঙ্গে বৈঠক রাশিয়ার

ছয় সন্তান থাকার কথা স্বীকার করলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

ছয় সন্তান থাকার কথা স্বীকার করলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

সাবমেরিন বিতর্কের পর একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার মোদি-ম্যাক্রোঁর

সাবমেরিন বিতর্কের পর একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার মোদি-ম্যাক্রোঁর

'সতর্ক বার্তা', পারমাণবিক সাবমেরিন ইস্যুতে ফ্রান্সের পাশে জার্মানি

'সতর্ক বার্তা', পারমাণবিক সাবমেরিন ইস্যুতে ফ্রান্সের পাশে জার্মানি

সর্বশেষ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে বেড়েছে মৃত্যু  

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে বেড়েছে মৃত্যু  

বিকল ট্রাকে পিকআপভ্যানের ধাক্কায় নিহত ৩

বিকল ট্রাকে পিকআপভ্যানের ধাক্কায় নিহত ৩

গবেষণায় চুরি ঠেকাতে শাবিতে কর্মশালা

গবেষণায় চুরি ঠেকাতে শাবিতে কর্মশালা

ছয় শিক্ষক ও ১৩ শিক্ষার্থী আক্রান্ত, চালু থাকবে বিদ্যালয়

ছয় শিক্ষক ও ১৩ শিক্ষার্থী আক্রান্ত, চালু থাকবে বিদ্যালয়

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

© 2021 Bangla Tribune