X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘সবাইকে নিয়ে সেই বিপদেই পড়তে হলো’

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪:৩৮

ঠিক দুই সপ্তাহ আগে স্বাস্থ্য অধিদফতর জুলাই মাসকে কঠিন বলে আখ্যায়িত করেছিল। সরকারি এই প্রতিষ্ঠানটি শঙ্কা জানিয়েছিল, স্বাস্থ্যবিধি মানতে উদাসীন হলে দেশে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে। দুই সপ্তাহ পর এসে সেই আশঙ্কাকে সত্যি করে দেশে করোনা মহামারিকালের সবচেয়ে উদ্বেগজনক এবং হতাশার পরিস্থিতি দেখতে হচ্ছে দেশের মানুষকে।  

দেশে করোনার ১৬ মাস চলছে। আর এই সময়ের ভেতরে গত ২৪ ঘণ্টায় দৈনিক রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৬ হাজারের বেশি। একদিনে এত রোগী শনাক্ত এর আগে বাংলাদেশ দেখেনি।

করোনা আক্রান্ত সংকটাপন্ন বা গুরুতর রোগীরা জেলা বা বিভাগীয় শহরে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে আসছে ঢাকায়। রাজধানীর কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর সামনে দিনভর আসে একের পর এক অ্যাম্বুলেন্স।

গত একদিনে নতুন করে শনাক্ত হওয়া ১৬ হাজার ২৩০ জনকে নিয়ে দেশে করোনাতে সরকারি হিসাবে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১২ লাখ ছাড়িয়ে গেলো। দেশে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলেন ১২ লাখ ১০ হাজার ৯৮২ জন। আর এই ১২ লাখ রোগীর মধ্যে লক্ষাধিক শনাক্ত হয়েছেন মাত্র ১০ দিনে। এর আগে গত ১৮ জুলাই দেশে করোনাতে শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা ১১ লাখ ছাড়িয়ে যায়। একদিনে রেকর্ড সংখ্যক রোগী শনাক্তের দিনে দেশে করোনাতে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে আক্রান্ত হয়ে ২৩৭ জন মারা গেছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

গত বছরের ৮ মার্চে দেশে করোনা আক্রান্ত প্রথম রোগী শনাক্ত হন। তারপর গত বছরের জুনের মাঝামাঝি থেকে শুরু হয়ে আগস্ট পর্যন্ত দেশে করোনার রোগীর ঊর্ধ্বগতি ছিল। এরপর শীতের সময়ে সংক্রমণ কমে এসে রোগের নিম্নগামীতা ছিল চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত। এরপর থেকে দেশে করোনার ঊর্ধ্বগামীতা শুরু হয়। তবে পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থায় এসেছে গত দুই মাস ধরে।

করোনা আক্রান্ত সংকটাপন্ন বা গুরুতর রোগীরা জেলা বা বিভাগীয় শহরে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে আসছে ঢাকায়। রাজধানীর কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর সামনে দিনভর আসে একের পর এক অ্যাম্বুলেন্স।

বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ সৃষ্টিকারী ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের দাপটে বাংলাদেশেও দৈনিক রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু বাড়ছে কয়েকগুণ। করোনার ঊর্ধ্বগতিতে চলতি মাসের দুই সপ্তাহ দেশে সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। কিন্তু ঈদুল আজহা উপলক্ষে তা শিথিল করা হয়। আর এই সুযোগে বাস, লঞ্চ, ফেরিতে গাদাগাদি করে ঢাকা ছেড়ে গ্রামমুখী হয়েছে মানুষ। আবার শিথিল লকডাউন শেষে কঠোর লকডাউনের আগে যেভাবে ঢাকা ছেড়েছিল, ঠিক সেভাবেই ফিরেছে তারা। 

কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সদস্যরা সে সময়ে বলছিলেন, শিথিলতার এ নির্দেশনায় তাদের ‘সায়’ ছিল না। তারা বলছেন, সরকারের শিথিল বিধিনিষেধের এ ঘোষণা তাদের পরামর্শের উল্টো চিত্র। এ ছাড়া জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছিল, স্বাস্থ্য অধিদফতর যেখানে বার বার ভিড় এড়িয়ে চলার কথা বলছে; সেখানে সংক্রমণের ‘পিক টাইমে’ এ ধরনের ঘোষণা আমাদের আরও খারাপ অবস্থায় নিয়ে যাবে।

সে আশঙ্কাকে সত্যি করে দেশে ঈদের পর থেকে দৈনিক রোগী শনাক্ত ও মৃত্যুর একের পর এক রেকর্ড দেখতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। আর এতে করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার করা তালিকায় বিশ্বে এখন দিনে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু হচ্ছে যেসব দেশে, সেই তালিকায় অষ্টম অবস্থানে বাংলাদেশ। 

করোনা আক্রান্ত সংকটাপন্ন বা গুরুতর রোগীরা জেলা বা বিভাগীয় শহরে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে আসছে ঢাকায়। রাজধানীর কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর সামনে দিনভর আসে একের পর এক অ্যাম্বুলেন্স।

কঠিন জুলাই

জুলাই নিয়ে শঙ্কার কথা আগেই জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। গত ১৪ জুলাই ঠিক দুই সপ্তাহ আগে জুলাই মাস অত্যন্ত কঠিন মন্তব্য করে অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক রোবেদ আমিন বলেছিলেন, ‘জুনে এক লাখ ১২ হাজার ৭১৮ জন রোগী শনাক্ত করা হয়েছিল, আর জুলাইয়ের ১৪ দিনে আমরা এত রোগী পেয়ে গেছি। এই মাসের আরও ১৬ দিন বাকি আছে। যেহেতু সংক্রমণের মাত্রা এখন অনেক বৃদ্ধি পাচ্ছে, স্বাস্থ্যবিধি ও প্রতিরোধে ব্যবস্থা যদি না নেওয়া হয়, দুই সপ্তাহ পর্যন্ত টানা এভাবে চলতে পারে। আর মৃত্যু তিন সপ্তাহ পর্যন্ত এভাবে চলতে পারে।’

অধ্যাপক রোবেদ আমিনের সে আশঙ্কাকে সত্যি প্রমাণ করে দেশে দৈনিক শনাক্তে রেকর্ড সংখ্যক রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু হচ্ছে বাংলাদেশে। কেবলমাত্র জুলাই মাসে রোগী শনাক্ত হয়েছেন দুই লাখ ৯৭ হাজার ৭২৪ জন আর মোট মৃত্যুর এক চতুর্থাংশ হয়েছে এই মাসে। জুলাইতে মারা গেছেন পাঁচ হাজার ৫১৩ জন।

গত বছর থেকে বিভিন্ন ধরনের ভ্যারিয়েন্ট অব ইন্টারেস্ট ও ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন নিয়ে বাংলাদেশ সংগ্রাম করে যাচ্ছে জানিয়ে অধ্যাপক রোবেদ আমিন বলেছিলেন, ‘আমরা পর্যবেক্ষণ করছি, বর্তমান সময়ের করুণতম পরিস্থিতির উপক্রমে আমরা চলে এসেছি। যেখানে সংক্রমণের মাত্রা ও মৃত্যু ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

করোনা আক্রান্ত সংকটাপন্ন বা গুরুতর রোগীরা জেলা বা বিভাগীয় শহরে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে আসছে ঢাকায়। রাজধানীর কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর সামনে দিনভর আসে একের পর এক অ্যাম্বুলেন্স।

১০ দিনে শনাক্ত ১ লাখ রোগী

দেশে শনাক্ত হওয়া মোট ১২ লাখ ১০ হাজার ৯৮২ জনের মধ্যে সর্বশেষ ১০ দিনে এক লাখ রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ২৩০ জন, ২৭ জুলাই ১৪ হাজার ৯২৫ জন, ২৬ জুলাই ১৫ হাজার ১৯২ জন, ২৫ জুলাই ১১ হাজার ২৯১ জন, ২৪ জুলাই ছয় হাজার ৭৮০ জন, ২৩ জুলাই ছয় হাজার ৩৬৪ জন, ২২ জুলাই তিন হাজার ৬৯৭ জন, ২১ জুলাই সাত হাজার ৬১৪ জন, ২০ জুলাই ১১ হাজার ৫৭৯ জন, ১৯ জুলাই ১৩ হাজার ৩২১ জন আর ১৮ জুলাই শনাক্ত হন ১১ হাজার ৫৭৮ জন।

এই ১৮ জুলাইতে ১১ হাজার ৫৭৮ জনকে নিয়ে সেদিন মোট ১১ লাখ তিন হাজার ৯৮৯ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর।

সরকারি আইসিইউ ফাঁকা মাত্র ৯টি

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য মতে, ঢাকার সরকারি ১৬ হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হয়। এর মধ্যে তিনটি হাসপাতালে সাধারণ শয্যা থাকলেও আইসিইউ নেই। হাসপাতাল তিনটি হচ্ছে— সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতাল, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস ও হাসপাতাল এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস অ্যান্ড ইউরোলজি হাসপাতাল।

বাকি হাসপাতালগুলোর মধ্যে কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালের ২৬ বেড, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের ১০ বেড, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের ১৬ বেড, সরকারি কর্মচারী হাসপাতালের ছয় বেড, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ২০ বেড, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ১০ বেড, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালের ১৫ বেড, টিবি হাসপাতালের চার বেড এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০ বেডের সবগুলোতে রোগী ভর্তি।

আর অন্য হাসপাতালগুলোর মধ্যে মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ২৪ বেডের মধ্যে একটি, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের আট বেডের মধ্যে একটি, জাতীয় বক্ষব্যাধি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের ১০ বেডের মধ্যে তিনটি এবং ডিএনসিসি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ২০৬ বেডের মধ্যে চারটি বেড ফাঁকা রয়েছে।

অর্থাৎ, ঢাকায় করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া ১৬ হাসপাতালের ৩৭৫টি আইসিইউ বেডের মধ্যে রোগী ভর্তি আছেন ৩৬৬ জন, ফাঁকা রয়েছে মাত্র ৯টি বেড।

অপরদিকে, বেসরকারি ২৮ হাসপাতালের ৪২৭টি আইসিইউ বেডের মধ্যে ফাঁকা রয়েছে মাত্র ৮৪টি। সারাদেশে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া সরকারি ও বেসরকারি ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর ৭৯৩টি আইসিইউ বেডের ফাঁকা বেডের সংখ্যা ১০০টিরও কম। অধিদফতর জানাচ্ছে, আইসিইউ বেড সবমিলিয়ে ফাঁকা রয়েছে মাত্র ৯৩টি বেড।

করোনা আক্রান্ত সংকটাপন্ন বা গুরুতর রোগীরা জেলা বা বিভাগীয় শহরে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে আসছে ঢাকায়। রাজধানীর কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর সামনে দিনভর আসে একের পর এক অ্যাম্বুলেন্স।

সবাইকে নিয়ে সেই বিপদেই পড়তে হলো

অধ্যাপক রোবেদ আমিন জানিয়েছিলেন, ‘হাসপাতালে যদি আর নতুন রোগীকে জায়গা দেওয়া না যায়, তাহলে আমরা সবাই বিপদে পড়ে যাবো’। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ না করতে পারলে হাসপাতাল বাড়িয়েও লাভ হবে না বলেও বাংলা ট্রিবিউনকে একাধিকবার জানিয়েছেন তিনি।

তার সেই কথার প্রতিফলন হচ্ছে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কণ্ঠে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্যমতে, ঢাকাতে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে নির্ধারিত বেড রয়েছে ১৬৯টি, কিন্তু সেখানে রোগী ভর্তি আছেন ১৭১ জন। বেডের অতিরিক্ত দুই জন ভর্তি আছেন। একইভাবে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে বেড রয়েছে ২৭৫টি, সেখানে ভর্তি আছেন ৩৬১ জন। বেডের অতিরিক্ত রোগী ভর্তি আছেন ৮৬ জন। আর সারাদেশে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া ১৪টি হাসপাতালে নির্ধারিত বেডের চেয়ে অতিরিক্ত রোগী ভর্তি রয়েছেন।

‘বেড বাড়িয়েও লাভ হচ্ছে না’ মন্তব্য করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. খলিলুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) তার হাসপাতালে ১০০ বেড বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, এর আগে কয়েক ধাপে ১০০, ২০০, ৩০০ বাড়িয়েছিলাম। এখন ৪ শ’ করা হলো।

আগামী কয়েকদিনের ৫ শ’ বেড করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ঈদের পরে যেভাবে রোগী আসতেছে… ১০০ বেড বাড়ানোর পরেও সেগুলো ভরে যাচ্ছে।

গতকাল ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৬২ জন জানিয়ে তিনি বলেন, একটা হাসপাতালে ৬২ জন ভর্তি হওয়া তো যাতা কথা নয়! আর এভাবে যদি বাড়তে থাকে তাহলে কত বেড বাড়ানো যাবে? আমাদেরতো একটা লিমিটেশনস আছে মন্তব্য করে খলিলুর রহমান বলেন, এত সংক্রমণ যদি চলতে থাকে তাহলে সত্যি কথা বলতে হাসপাতালে জায়গা দেওয়া যাবে না। আমাদের আসলে সবাইকে মিলে সেই বিপদেই পড়তে হলো।

বেড ফাঁকা নাই। আইসিইউ, সাধারণ বেড- কিছুই ফাঁকা নেই বলেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক।

এটাই হওয়ার কথা ছিল মন্তব্য করে ব্রিগেডিয়ার নাজমুল বলেন, কোনও হাসপাতালেই বেড ফাঁকা থাকার কথা না, পুরো ঢাকা শহর হাসপাতাল বানাতে হবে। সবাই মিলে আমরা আসলে বিপদেই পড়লাম। 

ছবি: নাসিরুল ইসলাম

/জেএ/এনএইচ/

সম্পর্কিত

টানা দুই দিন করোনায় মৃত্যুহীন বরিশাল 

টানা দুই দিন করোনায় মৃত্যুহীন বরিশাল 

মাস বাকি আরও ৭ দিন, ডেঙ্গু রোগী ছাড়ালো সাড়ে ছয় হাজার 

মাস বাকি আরও ৭ দিন, ডেঙ্গু রোগী ছাড়ালো সাড়ে ছয় হাজার 

‘করোনা নিয়ে আরও কাজ হলে গবেষণার ক্ষেত্রটা বাড়বে’

‘করোনা নিয়ে আরও কাজ হলে গবেষণার ক্ষেত্রটা বাড়বে’

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০০

বাংলাদেশ পুলিশের নামের সঙ্গে মিল রেখে ওয়েবসাইট ও ইমেইল আইডি খুলে একটি সাইবার অপরাধী চক্র বিভিন্ন ব্যক্তি ও ট্রাভেল এজেন্সির মালিকদের মেইল করেছে। ইমেইলে জানানো হয়েছে, ওই এজেন্সির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলার নথি নামানোর জন্য একটি ওয়েব লিংকও দেওয়া হয় মেইলে।

পুলিশ ও প্রযুক্তিবিদরা বলছেন, মূলত কম্পিউটার বা ডিভাইস হ্যাক করার জন্য চক্রটি এমন মেইল করছে। লিংকে প্রবেশ করলেই কম্পিউটার বা ডিভাইস হ্যাক হয়ে যাবে। ব্যক্তিগত তথ্য চলে যাবে সাইবার অপরাধীর কাছে। আর সেই তথ্য নিয়ে করা হবে ব্ল্যাকমেইল।

ভুক্তোভোগীরা বিষয়টি পুলিশকে জানালে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ সবাইকে সতর্ক করে।

ভুক্তোভোগীদের একজন নির্মল চন্দ্র বৈরাগী। তিনি একটি ট্রাভেল এজেন্সির মালিক। তার প্রতিষ্ঠানের নাম সাদিয়া ট্রাভেলস।

তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গত ১৪ সেপ্টেম্বর আমার কাছে মেইলটি আসে। আমি সিআইডির পরিচিত এক অফিসারকে জানাই। এরপর আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলি। জানতে পারি এটি ভুয়া। এরপর পল্টন থানায় জিডি করি।’

নির্মল চন্দ্র আরও বলেন, ‘আমাদের ফকিরাপুল, পল্টন এলাকার সব ট্রাভেল এজেন্সির কাছেই এরকম মেইল এসেছে। আমরা পরে বুঝতে পেরেছি এটি একটি চক্রের কাজ। তবে আমি লিংকে ক্লিক করিনি। আগেই পুলিশের সঙ্গে কথা বলেছি।’

১৪ সেপ্টেম্বর রাত ৯টা ২৬ মিনিটে [email protected] ই-মেইল আইডি থেকে নিজেদের বাংলাদেশ পুলিশ দাবি করে এক ব্যক্তির কাছে মেইল আসে। মেইলে ওই ব্যক্তিকে জানানো হয়-

‘১৮৯৮ সালের ৫ নং আইনের ৫ নং তফশিলের ফৌজদারি কার্যবিধির ৬৮ ধারা অনুযায়ী আপনাকে জানানো যাচ্ছে যে আপনার বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন ২০১৯ অনুযায়ী ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নম্বর- gd202176823। আপনার মামলার কপি ডাউনলোড করতে ভিজিট করুন policebd.com/gr_case.php যেহেতু আপনার বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন ২০১৯-এর ১৪ ধারার অপরাধের অভিযোগ আসিয়াছে, সেহেতু উহার উত্তর প্রদানের জন্য আপনি আসামি ২৮/০৯/২০২১ তারিখ স্বয়ং অথবা উকিলের মাধ্যমে আমার সম্মুক্ষে হাজির হইবেন। ইহার যেন অন্যথা না হয়। যেহেতু আপনার ইমেইল ঠিকানা মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে সেহেতু অদ্য ২০২১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর তারিখে আপনাকে ইমেইল ও রেজিস্টার্ড ডাক মারফতে আপনার প্রতি জারিকৃত পরোয়ানার বিষয় অবগত করা হলো।’

তাসমিয়া সুলতানা/ ম্যাজিস্ট্রেট/ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২৮তম আদালত/ ঢাকা।’

সরকারি ওয়েবসাইটের ডোমেইনের শেষে থাকে .gov.bd। কিন্তু যে ওয়েবসাইটের লিংক দেওয়া হয়েছে সেটি .com ডোমেইন-এর। মেইলে পাঠানো লিংকে গেলে সেটা রি-ডিরেক্ট হয়ে আবার বাংলাদেশ পুলিশের ওয়েবসাইটেই চলে যাচ্ছে।

ডোমেইনটির তথ্য যাচাই করে দেখা গেছে, গত ১২ সেপ্টেম্বর ওটা কেনা হয়েছিল। ১৪ সেপ্টেম্বর থেকেই সবাইকে মেইল করা হয় ওটা থেকে।

আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ইমেইলে যে কথিত মামলার নম্বর দেওয়া হয়েছে, বাংলাদেশের জিআর বা সিআর মামলার নম্বর এমন হয় না। মেইলে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তাসমিয়া সুলতানার ২৮তম আদালতের নাম উল্লেখ করা হলেও এই নামে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে কোনও বিচারকও নেই।

মেইলে পাঠানো লিংকে কথিত মামলা নম্বর দিলে একটি জিপ ফাইল ডাউনলোড হবে। ওতেই থাকে ভাইরাস। একে বলে ফিশিং লিংক অ্যাপ্লিকেশন। এটি অটো ইনস্টল হলে ট্রাভেল এজেন্সির টিকেটিং সিস্টেম বা অন্য কোনও সিস্টেমের নিয়ন্ত্রণ হ্যাকারদের হাতে চলে যাবে।

প্রযুক্তিবিদ তানভীর হাসান জোহা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এসব ফিশিং লিংক দিয়ে ট্রাভেল এজেন্সির তথ্য ও কম্পিউটারের ডাটা হ্যাক করার চেষ্টা করেছিল হ্যাকাররা।’

তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বে ক্রেডিট কার্ড দিয়ে ডোমেইন কেনা হয়। ক্রেডিট কার্ড ট্র্যাকিং করলেই বেরিয়ে আসবে এটা কাদের কাজ।’

এ বিষয়ে ডিএমপির সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশনও সবাইকে সতর্ক করে জানিয়েছে, ‘মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশ যদি [email protected] থেকে পেয়ে থাকেন এবং লিংকে যাওয়ার পর যদি policebd.com সাইটটি রিডিরেক্ট করে (এক সাইট থেকে অন্য সাইটে যাওয়া) তবে অবশ্যই কোনও অ্যাটাচমেন্ট ডাউনলোড করবেন না। এটি মূলত একটি ম্যালওয়্যার যা কম্পিউটারের ফাইল নষ্ট করে দিতে পারে।’

সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন আরও জানায়, সিটি সাইবার ক্রাইম ডিভিশন ওই ম্যালওয়্যার সংশ্লিষ্ট অভিযোগ তদন্ত করছে। এরকম ইমেইল কেউ পেয়ে থাকলে তা ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগকে জানাতে অনুরোধ করেছে সংস্থাটি।

এমন ইমেইল পেলে যা করবেন

যে সব চিঠি সন্দেহজনক ইমেইল থেকে আসবে এবং কোনও অ্যাটাচমেন্ট ডাউনলোড করতে বলবে, সেগুলো এড়িয়ে যাওয়া উচিৎ।

আদালতের আদেশ কখনও পুলিশের নামে কোনও ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে না। এটা আদালত থেকেই ইস্যু করা হয়।

policebd.com-এর সঙ্গে বাংলাদেশ পুলিশের কোনও সম্পর্ক নেই। এটি মূলত একটি বেটিং ওয়েবসাইট, যেখান থেকে ম্যালওয়্যার অসংখ্য ভিকটিম-এর মেশিনে এ প্রবেশ করানো হচ্ছে।

/এফএ/এমএস/

সম্পর্কিত

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

শুক্রবারে শপথ, শনিবারে ডাকাতি

শুক্রবারে শপথ, শনিবারে ডাকাতি

ঘুমধুম সীমান্তে দেড় লাখ পিস ইয়াবা জব্দ

ঘুমধুম সীমান্তে দেড় লাখ পিস ইয়াবা জব্দ

ঢাবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

ঢাবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০০

আংটি ছাড়া ছেলেদের জন্য সকল প্রকার অলঙ্কার নিষিদ্ধ। তবে আংটির মধ্যে শুধু রুপার আংটি ব্যবহার করতে পারবে। এক্ষেত্রে শর্ত হলো-আংটিতে রুপার পরিমাণ সোয়া চার গ্রামের কম হতে হবে। রাসুল (সা.)-এর হাদিস- আবদুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) বলেন, ‘রাসুল (সা.) এক ব্যক্তিকে স্বর্ণের আংটি পরা দেখে তার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেন। লোকটি দেখে তা খুলে ফেললো। এরপর সে লোহার আংটি বানাল। আল্লাহর রাসুল বললেন, এটা তো আরও খারাপ, এটা জাহান্নামিদের অলঙ্কার। তখন ওই ব্যক্তি সেটিও খুলে ফেললো এবং একটি রূপার আংটি বানাল। মহানবী (সা.) তখন নিরব থাকলেন।’ (মুসনাদে আহমাদ, হাদিস: ৬৫১৮)।

আবু দাউদ শরিফের এক হাদিসে এসেছে-‘এক ব্যক্তি জিজ্ঞাসা করল, হে আল্লাহর রাসুল! তবে আমি কীসের আংটি বানাবো? তিনি বললেন, রুপার আংটি বানাও। কিন্তু এক মিসকাল (সোয়া চার গ্রাম) পূর্ণ করো না।’

তথ্যসূত্র: কিতাবুল আসার ২/৭২৬, ফাতাওয়া কাজী খান ৩/৪১৩, হেদায়া ৪/৪৪১, ফাতাওয়া রহীমিয়া ১০/১৫৮, ইমদাদুল আহকাম ৪/৩৫৮

লেখক: শিক্ষক, মারকাযুদ দিরাসাহ আল ইসলামিয়্যাহ ঢাকা।

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবি বেসরকারি শিক্ষকদের

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবি বেসরকারি শিক্ষকদের

কেরানীগঞ্জে হেরোইনসহ গ্রেফতার ২

কেরানীগঞ্জে হেরোইনসহ গ্রেফতার ২

প্রত্যেকটি খালের পাড়ে ওয়াকওয়ে হবে: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

প্রত্যেকটি খালের পাড়ে ওয়াকওয়ে হবে: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

একটি হাত ব্যাগ ও সৌদি আরব প্রবাসীর কান্না-হাসি

একটি হাত ব্যাগ ও সৌদি আরব প্রবাসীর কান্না-হাসি

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৪

ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণ পদকপ্রাপ্ত ও জাতীয় জুডো দলের খেলোয়াড় প্রিয়াংকা আক্তারের (১৯) মৃত্যু হয়েছে। রাজধানীর গ্রিন রোডের গ্রিন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে তার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার দিকে প্রিয়াংকা মারা যান বলে নিশ্চিত করেন কলাবাগান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিতোষ চন্দ্র পাল।

ওসি বলেন, অপারেশনের পর আনেস্থেসিয়ার সময় কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে বিকেএসপির সাবেক জুডো খেলোয়াড় মারা গেছেন বলে জানতে পেরেছি। ভিক্টিমের পরিবারের সঙ্গে কথা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আ ফ ম আসাদুজ্জামানের নেতৃতে একটি টিম কাজ করছে।

আ ফ ম আসাদুজ্জামান বলেন, চিকিৎসক বলছেন, বৃহস্পতিবার প্রিয়াংকা আক্তার হাসপাতালে ভর্তি হন। শুক্রবার সন্ধ্যায় তার হাতে একটি অপারেশন হয়। অপারেশনের পরে তার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় এবং এরপর তিনি মারা যান। চিকিৎসকেরা দাবি করছেন, তাদের চেষ্টার ত্রুটি ছিল না। তবে ভুক্তভোগী পরিবার থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ এ বিষয়ে তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেবে।

জুডোর জাতীয় দলের কোচ আবু বকর সিদ্দিক বলেন, প্রিয়াংকা আক্তার ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণ পদকপ্রাপ্ত একজন খেলোয়াড়। তার বাম হাতের একটি আঙ্গুল বাঁকা থাকার কারণে বৃহস্পতিবার অপারেশনের জন্য গ্রিন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি হয়। আজ অপারেশন থিয়েটারে ঢোকানোর পর চিকিৎসকেরা বের হয়ে বলেছিলো রোগীর অবস্থা খারাপ।

তিনি বলেন, চিকিৎসকেরা আমাদের জানিয়েছেন, রোগীকে আনেস্থেসিয়া দেওয়া হয়েছিল। হয়তো আনেস্থেসিয়ার মাত্রা বেশি ছিল এ কারণে রোগী সহ্য করতে না পেরে স্ট্রোক করে মারা যান। কিন্তু হাতের আঙ্গুলের ছোট্ট একটি নরমাল অপারেশনের জন্য কীভাবে রোগী মারা যায়?

অভিযোগের বিষয়ে গ্রিন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের অ্যাসিস্টেন্ট ম্যানেজার মো. ইকরাম হোসেন বলেন, অপারেশনটি করেন বাংলাদেশের একজন স্বনামধন্য চিকিৎসক। হাতের আঙ্গুলের ছোট্ট একটি অপারেশনটি ছিল। এ অপারেশন করার আগে রোগীর ফিটনেসসহ যাবতীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। অপারেশনের আধাঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা পরে রোগীর কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়।

/আরটি/এমএস/

সম্পর্কিত

শুক্রবারে শপথ, শনিবারে ডাকাতি

শুক্রবারে শপথ, শনিবারে ডাকাতি

ঘুমধুম সীমান্তে দেড় লাখ পিস ইয়াবা জব্দ

ঘুমধুম সীমান্তে দেড় লাখ পিস ইয়াবা জব্দ

আইস আসছে মিয়ানমার হয়ে, কারবারে বিদেশফেরত উচ্চ শিক্ষিতরা

আইস আসছে মিয়ানমার হয়ে, কারবারে বিদেশফেরত উচ্চ শিক্ষিতরা

আদাবরে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে যুবক আহত

আদাবরে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে যুবক আহত

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষ, ট্রায়াল আজ

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০৫

অবশেষে সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসীদের জন্য ঢাকার বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। ২২ সেপ্টেম্বর ৬টি প্রতিষ্ঠান হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু করে। তাদের অবকাঠামো তৈরিতে সহায়তা করেছে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর। এদিকে আজ শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ল্যাবের ট্রায়াল অনুষ্ঠিত হবে। কোনও ত্রুটি না থাকলে ল্যাবগুলো ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, ল্যাবের অবকাঠামোর কাজ বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যেই শেষ হয়েছে। শুক্রবার ৬টি প্রতিষ্ঠান যন্ত্রপাতি বসানোর কাজ সম্পন্ন করেছে। ল্যাবের গুণগত মান মনিটরিং করতে আইইডিসিআর’র সিনিয়র সায়েন্টিফিক অফিসার ডা. শারমিন সুলতানার নেতৃত্বে ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। এ ছাড়া কার্যক্রম মনিটরিংয়ের জন্য গঠিত এই কমিটি আজ ল্যাব পরিদর্শন করবে। কমিটির সদস্যরা ল্যাবে কোনও ত্রুটি না পেলে সেটা ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত হবে। এরপর যেকোনও সময় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ এয়ারলাইন্সগুলোর ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিতে পারবে।

প্রায় তিন মাস ফ্লাইটে নিষেধাজ্ঞার পর গেলো ৪ আগস্ট বাংলাদেশসহ ছয় দেশের যাত্রীদের ট্রানজিট সুবিধা চালু করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। তবে দেশটিতে প্রবেশের জন্য শর্ত দেওয়া হয়, ফ্লাইট ছাড়ার ৬ ঘণ্টার মধ্যে বিমানবন্দরে র‌্যাপিড পিসিআর পদ্ধতিতে করোনা পরীক্ষা করে নেগেটিভ রিপোর্ট থাকতে হবে।

এরপর প্রায় দেড় মাস ল্যাব স্থাপন নিয়ে নানা জটিলতা দেখা দেয়। বিমানবন্দরের পার্কিং ভবনের ছাদে ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হলেও অনুমোদন পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর আপত্তি ছিল। এই সংকট নিরসনে ২১ সেপ্টেম্বর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বিমানবন্দরে আসেন। তখন টার্মিনালের ভেতরে নতুন স্থান নির্ধারণ করে দ্রুত কাজ শুরুর নির্দেশ দেন তারা। টার্মিনাল ভবনের দ্বিতীয় তলার উত্তর পাশে যাত্রীদের করোনা পরীক্ষার স্যাম্পল নেওয়া হবে। আর নিচতলায় ল্যাবে হবে পরীক্ষা।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকালে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ল্যাব স্থাপনের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, ল্যাব কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, রাতের মধ্যে তারা রেডি হয়ে যাবে। এরপরই এয়ারলাইন্স ফ্লাইট চালু করবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিমানবন্দরে ল্যাব পরিদর্শন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ সময় তিনি জানান, শনিবারের মধ্যেই পিসিআর ল্যাব থেকে পরীক্ষা করা সম্ভব হবে।

প্রসঙ্গত, ১৫ সেপ্টেম্বর সাতটি প্রতিষ্ঠানকে বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার আরটি-পিসিআর ল্যাব বসাতে অনুমোদন দেয় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়। এরমধ্যে জয়নুল হক সিকদার ওমেন্স মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল এই কাজ থেকে সরে আসে। বাকি প্রতিষ্ঠানগুলো হলো, স্টেমজ হেলথ কেয়ার (বিডি) লিমিটেড ঢাকা, সিএসবিএফ হেলথ সেন্টার, এএমজেড হাসপাতাল লিমিটেড, আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, গুলশান ক্লিনিক লিমিটেড ও ডিএমএফআর মলিকুলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক।

/সিএ/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস চালুর পরামর্শ

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস চালুর পরামর্শ

জমি পেলেই ডিএনসিসির বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প শুরু

জমি পেলেই ডিএনসিসির বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প শুরু

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস চালুর পরামর্শ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৫৯

দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শর্ত সাপেক্ষে চালু রাখার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের পরিচালক ওমর ফারুক স্বাক্ষরিত চিঠি দেশের সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।  

ওই চিঠিতে বলা হয়, সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে; শর্ত সাপেক্ষে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল ও সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্তক্রমে নিজ ব্যবস্থাপনায় যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সশরীরে সরাসরি ক্লাস, পরীক্ষা ইত্যাদিসহ শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখতে পারবে।

শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করার শর্তে বলা হয়, শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করা যাবে— শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা ইতোমধ্যে কমপক্ষে এক ডোজ ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন অথবা ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্রসহ জাতীয় সুরক্ষাসেবা ওয়েব পোর্টাল অথবা অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধন করে থাকলে।

শর্তে আরও বলা হয়, ইউজিসির (২) ১৮ বছর বা তদূর্ধ্ব শিক্ষার্থী যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই; তারা জন্ম নিবন্ধন সনদের বার্থ ওয়েবলিংকে ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য প্রাথমিক নিবন্ধন এবং পরবর্তীতে জাতীয় সুরক্ষাসেবা ওয়েব পোর্টালে টিকা গ্রহণের জন্য নিবন্ধন করে থাকলে- ক্লাসে অংশগ্রহণ করতে পারবে। 

/এসএমএ/এনএইচ/

সম্পর্কিত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবি বেসরকারি শিক্ষকদের

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবি বেসরকারি শিক্ষকদের

ঠাকুরগাঁওয়ের সেই প্রাথমিকে রবিবার থেকে চলবে দুই শ্রেণির ক্লাস 

ঠাকুরগাঁওয়ের সেই প্রাথমিকে রবিবার থেকে চলবে দুই শ্রেণির ক্লাস 

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

টানা দুই দিন করোনায় মৃত্যুহীন বরিশাল 

টানা দুই দিন করোনায় মৃত্যুহীন বরিশাল 

মাস বাকি আরও ৭ দিন, ডেঙ্গু রোগী ছাড়ালো সাড়ে ছয় হাজার 

মাস বাকি আরও ৭ দিন, ডেঙ্গু রোগী ছাড়ালো সাড়ে ছয় হাজার 

‘করোনা নিয়ে আরও কাজ হলে গবেষণার ক্ষেত্রটা বাড়বে’

সাক্ষাৎকারে ড. ফেরদৌসী কাদরী ‘করোনা নিয়ে আরও কাজ হলে গবেষণার ক্ষেত্রটা বাড়বে’

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

৫ দিনের মধ্যে বড় পরিসরে টিকাদান কর্মসূচি

৫ দিনের মধ্যে বড় পরিসরে টিকাদান কর্মসূচি

অনূর্ধ ১০ বছর বয়সী ডেঙ্গু রোগীই প্রায় ২৫ শতাংশ

অনূর্ধ ১০ বছর বয়সী ডেঙ্গু রোগীই প্রায় ২৫ শতাংশ

করোনায় মৃত ২৪ জনের ১৪ জন নারী

করোনায় মৃত ২৪ জনের ১৪ জন নারী

বিমানবন্দরে ল্যাবের অবকাঠামোর কাজ শেষ হবে আজ

বিমানবন্দরে ল্যাবের অবকাঠামোর কাজ শেষ হবে আজ

দেশে এলো সিনোফার্মের আরও ৫০ লাখ টিকা

দেশে এলো সিনোফার্মের আরও ৫০ লাখ টিকা

সর্বশেষ

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

চলে গেলেন কমলা ভাসিন

চলে গেলেন কমলা ভাসিন

© 2021 Bangla Tribune