X
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

গৃহবধূকে বাড়িতে ডেকে ধর্ষণের অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ২১:০৩

পাওনা টাকা তুলে দেওয়ার নামে বাড়িতে ডেকে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বগুড়ার শেরপুরের খামারকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল ওহাবের বিরুদ্ধে। ওই গৃহবধূ শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাতে শেরপুর থানায় চেয়ারম্যানকে আসামি করে মামলা করেছেন।

শেরপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম জানান, শনিবার ভুক্তভোগীর শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

মামলার এজাহার সূত্রে ও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা গেছে, চেয়ারম্যান আবদুল ওহাব ওই ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক। চেয়ারম্যানের আত্মীয় শহিদুল ইসলাম কিছু দিন আগে পার্শ্ববর্তী গাড়িদহ ইউনিয়নের গাড়িদহ গ্রামের ঢাকায় কর্মরত এক গার্মেন্টকর্মীর স্ত্রীর কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ধার নেন। দীর্ঘদিন টাকা ফেরত না দেওয়ায় ওই গৃহবধূ চেয়ারম্যান ওহাবের শরণাপন্ন হন। চেয়ারম্যান টাকা আদায় করে দেওয়ার নামে তাকে শুক্রবার সকালে তার রামচন্দ্রপুর এলাকার ভাড়া বাড়িতে যেতে বলেন।

ওই গৃহবধূ চেয়ারম্যানের বাড়িতে গেলে সেখানে কেউ না থাকায় চেয়ারম্যান তাকে ধর্ষণ করেন। ওই দিন রাতেই গৃহবধূ শেরপুর থানায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন।

ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, খামারকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল ওহাবের বিরুদ্ধে এক গৃহবধূ ধর্ষণ মামলা করেছেন। শনিবার বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে তার শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

তবে ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন চেয়ারম্যান আবদুল ওহাব। তিনি দাবি করেন, তার জনপ্রিয়তা ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতেই প্রতিপক্ষরা ওই নারীকে দিয়ে মিথ্যা মামলা করিয়েছেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বগি লাইনচ্যুত, বিকল্প লাইনে ঢাকায় গেলো সুন্দরবন এক্সপ্রেস

বগি লাইনচ্যুত, বিকল্প লাইনে ঢাকায় গেলো সুন্দরবন এক্সপ্রেস

কিশোর গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ  

কিশোর গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ  

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

৩১ বছরের পুরোনো শতাধিক গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১৭

ঢাকার ধামরাইয়ে একটি বেসরকারি সংস্থার চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সড়কের পাশ থেকে ১৩২টি গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলা বন কর্মকর্তা মোতালেব হোসেন বাদী হয়ে ধামরাই থানায় এই মামলা করেন।

অভিযুক্তরা হলেন—বেসরকারি এনজিও সংস্থার (সজাগ) পরিচালক আব্দুল মতিন (৬২), ম্যানেজার মো. মাসুদুর রহমান মাসুদ (৫০), গাছ ক্রেতা মো. হানিফ আলী বেপারী (৩০) ও সাধু বেপারী (৬০)।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বন বিভাগের অনুমতি ছাড়াই শনিবার সোমভাগ ইউনিয়নের চাপিল এলাকা থেকে নওগাঁও পর্যন্ত তিন কিলোমিটার রাস্তার দুই পাশের ১০৭টি গাছ এবং কুশুরা ইউনিয়নের বান্নাখোলা এলাকা থেকে পথহারা এক কিলোমিটার রাস্তার ২৫টি গাছসহ মোট ১৩২টি গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। পরে সেই গাছ বিক্রি করে দেয় স্থানীয় সজাগ নামের একটি এনজিও। খবর পেয়ে বন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাঁধা দিয়েও গাছ কাটা বন্ধ করতে পারেনি। এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে অতিরিক্ত জনবল নিয়ে সেখান থেকে গাছ কাটার যন্ত্রপাতি উদ্ধার করা হয়।

বন কর্মকর্তা মোতালেব হোসেন বলেন, ১৯৯০ সালে  ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রামের (ডব্লিউএফপি) আওতায় সড়কের পাশে গাছ লাগানো হয়। কিন্তু এ বিষয়ে সজাগ এনজিওর সঙ্গে তাদের কোনও চুক্তি হয়নি। হঠাৎ করেই কোনও অনুমতি না নিয়ে ওই এনজিও তাদের সড়কের ১৩২টি মেহগনি গাছ কেটে নিয়েছে, যেগুলোর বাজারমূল্য প্রায় নয় লাখ ১০ হাজার টাকা। 

এ বিষয়ে কথা বলতে সজাগের পরিচালক আব্দুল মতিনের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করেও পাওয়া যায়নি।

ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আতিকুর রহমান বলেন, গাছ কাটার বিষয়ে মামলা করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

ডায়িং মেশিনের গরম পানিতে ঝলসে ৩ শ্রমিক আহত

ডায়িং মেশিনের গরম পানিতে ঝলসে ৩ শ্রমিক আহত

আট কেজির ঢাই মাছ বিক্রি হলো ২৫ হাজারে

আট কেজির ঢাই মাছ বিক্রি হলো ২৫ হাজারে

পদ্মার ৩৭ কেজির বাগাড় ৪৮ হাজারে বিক্রি

পদ্মার ৩৭ কেজির বাগাড় ৪৮ হাজারে বিক্রি

পদ্মায় কম থাকলেও বাজার ভরে গেছে ‘পদ্মার ইলিশে’

পদ্মায় কম থাকলেও বাজার ভরে গেছে ‘পদ্মার ইলিশে’

বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫৮

বিজয় দিবসে বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শনের ঘটনায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিযুক্ত ১৯ শিক্ষক ও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাসেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি শিক্ষা মন্ত্রণালয় চিঠি দিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ ৭ মাসেও কোনও জবাব দেয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলার ১৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তাসহ ১৯ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠনের পরেও আসামিদের সাময়িক বরখাস্ত না করার অভিযোগ উঠেছে।

আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০১৮ সালের সরকারি চাকরি আইনের ৩৯ (২) ধারা অনুযায়ী কোনও কর্মকর্তা কর্মচারী গ্রেফতার, আটক অথবা তার বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক অভিযোগ গঠনের দিন থেকে আসামিদের বরখাস্ত করতে হবে কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনও পদক্ষেপ নেয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয়ে দিবসের সকালে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের স্বাধীনতা স্মারকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তা বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন করেন। সেই ছবি আবার ফেসবুকে দেন তারা। এ ঘটনার পরেও তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ জাতীয় পতাকা অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেননি। 

এ ঘটনায় রংপুর জেলা প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটি সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উপস্থিত সাধারণ শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অভিযুক্তদের সাক্ষ্যগ্রহণ করে। পরে জাতীয় পতাকা অবমাননার দায়ে ১৯ জন শিক্ষক কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

অভিযুক্তরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের অধ্যাপক আর এম হাফিজুর রহমান, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক পরিমল চন্দ্র বর্মণ, মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ উল হাসান, সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাম প্রসাদ বর্মণ, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রশিদুল ইসলাম, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক শামীম হোসেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক রহমতউল্লাহ, রসায়ন বিভাগের প্রভাষক মোস্তফা কাইয়ুম শারাফাত, ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আবু সায়েদ, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামরুজ্জামান, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সদরুল ইসলাম সরকার, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক প্রদীপ কুমার সরকার, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শাহ জামান, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক মোরশেদ হোসেন, পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক চার্লস ডারউন, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক নুর আলম সিদ্দিক এবং পরিসংখ্যান বিভাগের সেকশন অফিসার (গ্রেড-১) শুভঙ্কর। 

পরে এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মাহমদুল হক ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান বাদী হয়ে নগরীর তাজহাট থানায় জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তদন্ত শেষে পুলিশ ১৯ শিক্ষক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে (স্মারক নম্বর ৬৩ তারিখ ৪/২/২১) উপসচিব নুর-ই আলম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি দেওয়া হয়। চিঠিতে জাতীয় পতাকা বিকৃত করে প্রদর্শনকারী শিক্ষক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসন কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের আলোকে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানতে চাওয়া হয়। তবে সাবেক উপাচার্য কলিম উল্লাহ কোনও ব্যবস্থা নেননি। বরং অভিযুক্তদের বেশ কয়েকজনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করেন বলে মামলার বাদী শিক্ষক মাহমুদুল হক অভিযোগ করেন। 

তিনি আরও অভিযোগ করেন, জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলার প্রধান আসামি তাবিউর রহমানকে সহকারী অধ্যাপক পদ থেকে পদোন্নতী দিয়ে সহযোগী অধ্যাপক করা হয়েছে। শুধু তাই নয় তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষক হাফিজুর রহমান সেলিমকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব দফতরের পরিচালক করা হয়েছে। একইভাবে শিক্ষক মাসুদুল হাসানকে শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক, রাম প্রসাদকে শহীদ মুখতার এলাহী হলের সহকারী প্রভোস্ট, রহমত উল্লাহকে বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী প্রভোস্ট, প্রদীপ কুমার সরকারকে সাইবার সেন্টারের পরিচালক, শাহ জামানকে পরিসংখ্যান বিভাগের প্রধান, ড. রশিদুলকে শহীদ মুখতার এলাহী হলের প্রভোস্টের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এদিকে গত ২১ সেপ্টেম্বর জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলায় রংপুরের মেট্রোপলিটান আমলী আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট আল মেহমুদ মামলার আসামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯ শিক্ষক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ২৩ নভেম্বর সাক্ষ্যগ্রহনের দিন ধার্য করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রফিক হাসনাইন।

তবে আসামিদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের হওয়া এবং অভিযোগপত্র দাখিল এবং অভিযোগ গঠনের পরেও আসামিদের সাময়িক বরখাস্ত না করায় আইনের ব্যত্যয় হয়েছে বলে জানান রংপুরের সিনিয়র আইনজীবী রইছ উদ্দিন বাদশা। 

সরকারি কর্মচারী আইন-২০১৮ সালের ৩৯(২) ধারা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কোনও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ফৌজদারি মামলায় আটক গ্রেফতার হলে অথবা তার বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক অভিযোগ গঠন করা হলে সেই দিন থেকে আসামিকে চাকরি থেকে সাসপেন্ড করার কথা। কিন্তু পাঁচ দিন অতিবাহিত হবার পরেও আসামিদের সাসপেন্ড না করা আইনের প্রতি কর্তৃপক্ষের অবজ্ঞা বলে মনে করছি।

মামলার বাদী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মাহমুদুল হক বলেন, আইন অনুযায়ী আসামিদের সাসপেন্ড করার কথা। আশাকরি, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেবে। 

সার্বিক বিষয় জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান আইন কর্মকর্তা রেহেনা আখতার মনির মোবাইলফোনে একাধিকাবর কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। তাকে এসএমএস করেও কোনও জবাব মেলেনি। 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হাসিবুর রশীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

বগি লাইনচ্যুত, বিকল্প লাইনে ঢাকায় গেলো সুন্দরবন এক্সপ্রেস

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪৭

পাবনার ঈশ্বরদীতে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেসের দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের অদূরে এ ঘটনা ঘটে।

পরে ঈশ্বরদী-রূপপুর প্রকল্পের নতুন রেল রুট দিয়ে ট্রেনটি ঢাকা অভিমুখে যাত্রা করে। এ ঘটনায় পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ের পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) আনোয়ার হোসেনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এ ঘটনায় আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন—পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ে প্রকৌশলী-২ আব্দুর রহিম, পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ে সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী রাজিব বিল্লাহ, পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ে যান্ত্রিক প্রকৌশলী (লোকো) আশিষ কুমার মণ্ডল।

আনোয়ার হোসেন জানান, রবিবার দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের অদূরে লোকোসেড ইয়ার্ডে ইঞ্জিনের দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়। তবে এতে কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। রাত সোয়া ৪টার দিকে ঈশ্বরদী লোকোমোটিভ কারখানা লোকোসেড থেকে রিলিফ ট্রেনের উদ্ধারকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুর্ঘটনাকবলিত বগি উদ্ধার করে। এরপর ভোর ৫টা ৫৫ মিনিটে ঈশ্বরদী-রূপপুর প্রকল্পের নতুন রেল রুট দিয়ে ট্রেনটি ঢাকা অভিমুখে যাত্রা করে। দুর্ঘটনাকবলিত বগি দুটি রেললাইন থেকে সরিয়ে প্রধান রেললাইন সচল করা হয়েছে। রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক রয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র করোনায় আক্রান্ত

রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র করোনায় আক্রান্ত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির তিন শীর্ষ নেতার জামিন

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির তিন শীর্ষ নেতার জামিন

৪ ঘণ্টা পর পাবনা-রাজশাহী রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

৪ ঘণ্টা পর পাবনা-রাজশাহী রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৬

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় আব্দুল মালেক (৪২) নামে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিস্তা ব্যারাজের পাশে দোয়ানী এলাকায় নিজ বাড়ির সামনে তাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।

আব্দুল মালেক গড্ডিমারী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের দোয়ানী এলাকার আব্দুল বারেকের ছেলে। পরিবারের দাবি, জমি সংক্রান্ত মামলার জের ধরেই তাকে হত্যা করা হয়েছে।

লালমনিরহাট সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) তাপস সরকার জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ির সামনে একা বসেছিলেন আব্দুল মালেক। এ সময় পেছন থেকে তাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। সেই সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তাপস সরকার। 

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১৪

লক্ষ্মীপুরে মায়ের বিরুদ্ধে আয়ানুর রহমান আয়ান নামে সাড়ে তিন বছর বয়সী এক শিশুপুত্রকে জবাই করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার দিবাগত রাতে (২৭ সেপ্টেম্বর) সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের পূর্ব চাঁদখালী গ্রামের হাফেজ চেয়ারম্যানের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মা সাবিনা ইয়াসমিনকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন লক্ষ্মীপুর মডেল থানার ওসি জসিম উদ্দিন। তিনি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত মা সাবিনা জানিয়েছেন রাতে মোবাইলফোনে প্রবাসী স্বামী তালাক দেওয়া তিনি শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা করেছেন।

নিহত শিশু সৌদী প্রবাসী আজিমুর রহমানের ছেলে। তাদের বাড়ি সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামে। চাঁদখালী গ্রামের ওই বাড়িতে তারা ভাড়া থাকতো।
 
এদিকে, মায়ের হাতে নির্মমভাবে শিশু হত্যার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

ওই বাড়ির বাসিন্দা রাসেল খাঁ জানান, প্রবাসী স্বামী আজিমুর রহমানের সঙ্গে সাবিনা ইয়াসমিনের মোবাইলফোনে ঝগড়া হয়। রাতে সে শিশুপুত্রকে নিয়ে শুতে যায়। রাত পৌনে ১২টার দিকে সে তার ঘুমন্ত শিশুকে ধারালো বটি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে। ঘরের অন্য লোকজন শব্দ শুনে তার কক্ষে গিয়ে শিশুর লাশ ও তার মাকে রক্তমাখা বটি হাতে দেখতে পায়। পরে বাড়ির লোকজন তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোহাব্বত বলেন, সাবিনা তার শ্বশুর-শাশুড়ি, দেবর ও শিশু সন্তানকে নিয়ে ভাড়া থাকতো। কয়েকদিন আগে সে তার বোনের বাড়িতে চলে যায়। রবিবার সন্ধ্যায় সে আবার ফিরে আসে। রাতেই তার শিশুকে জবাই করে হত্যা করেছে বলে শুনেছি।  

/টিটি/

সম্পর্কিত

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

৭৭ বছর বয়সে ভোটার হলেন সন্তু লারমা

৭৭ বছর বয়সে ভোটার হলেন সন্তু লারমা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বগি লাইনচ্যুত, বিকল্প লাইনে ঢাকায় গেলো সুন্দরবন এক্সপ্রেস

বগি লাইনচ্যুত, বিকল্প লাইনে ঢাকায় গেলো সুন্দরবন এক্সপ্রেস

কিশোর গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ  

কিশোর গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ  

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র করোনায় আক্রান্ত

রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র করোনায় আক্রান্ত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির তিন শীর্ষ নেতার জামিন

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির তিন শীর্ষ নেতার জামিন

৪ ঘণ্টা পর পাবনা-রাজশাহী রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

৪ ঘণ্টা পর পাবনা-রাজশাহী রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

রামেকের করোনা ইউনিটে ২৬ দিনে ১৫০ জনের মৃত্যু

রামেকের করোনা ইউনিটে ২৬ দিনে ১৫০ জনের মৃত্যু

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা, এসএমএস করে ডেকেছিল ‘প্রেমিক’

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা, এসএমএস করে ডেকেছিল ‘প্রেমিক’

কান্ট্রি ম্যানেজার পরিচয়ে চাকরির প্রলোভনে নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ

কান্ট্রি ম্যানেজার পরিচয়ে চাকরির প্রলোভনে নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ

সর্বশেষ

রাসেলের চোটে উদ্বিগ্ন কেকেআর

রাসেলের চোটে উদ্বিগ্ন কেকেআর

৩১ বছরের পুরোনো শতাধিক গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ

৩১ বছরের পুরোনো শতাধিক গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

এসেনসিয়াল ড্রাগসে চাকরি, বয়স ৩০ থেকে ৩৫ বছর

এসেনসিয়াল ড্রাগসে চাকরি, বয়স ৩০ থেকে ৩৫ বছর

© 2021 Bangla Tribune