X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বেড়েই চলেছে এলপিজি ও অটোগ্যাসের দাম, বিইআরসির নতুন দাম ঘোষণা

আপডেট : ৩১ আগস্ট ২০২১, ১২:৫১

বেড়েই চলেছে এলপিজির দাম। বেসরকারি পর্যায়ে এলপিজির দাম প্রতিকেজি ৮৬ টাকা ৭ পয়সা ধরে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম মূল্য সংযোজন করসহ  (মূসক) ১০৩৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। একই সাথে বাড়ছে অটোগ্যাসের দামও। অটোগ্যাসের দাম প্রতি লিটার ৫০.৫৬  টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা ১ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হবে।

আগস্ট মাসে বেসরকারি পর্যায়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ৯৯৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়। এর আগে জুলাই মাসে ছিল ৮৯১ টাকা এবং জুন মাসে ছিল ৮৪২ টাকা। এদিকে প্রতি লিটার অটোগ্যাস আগস্টে ছিল ৪৮ টাকা ৭১ পয়সা, জুলাইয়ে ছিল ৪৪ টাকা।

সে হিসেবে ১২ কেজি এলপিজি সিলিন্ডারের দাম বেড়েছে ৪০ টাকা ও অটোগ্যাসের দাম লিটার প্রতি বেড়েছে ২.৩৯ টাকা।

আজ মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে ভোক্তা পর্যায়ে এলপিজির দামের এই আদেশ দেয় বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। এসময় বিইআরসি’র চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল, কমিশনের সদস্য মোহাম্মদ আবু ফারুক, মকবুল-ই এলাহী, বজলুর রহমান, কামরুজ্জামান, সচিব রুবিনা ফেরদৌসীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এর বাইরে ৫.৫, ১২.৫, ১৫, ১৬, ১৮, ২০, ২৫, ৩০, ৩৩, ৩৫ ও ৪৫ কেজি এলপিজির দামও বিইআরসি আদেশে পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে।

তবে সরকারি পর্যায়ে সাড়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম আগের মতোই ৫৯১ টাকা থাকবে। যেহেতু এই দামের সঙ্গে সৌদি সিপির কোনও সম্পর্ক নেই। যা কমিশনের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

এদিকে আবাসিক এ শিল্পে কেন্দ্রীয়ভাবে এলপিজির ব্যবহার শুরু হয়েছে। নতুন পদ্ধতিতে একসঙ্গে বাসা বা কারখানার নিচে বা পাশে বড় সিলিন্ডার থেকে এলপি গ্যাস ব্যবহার করা হচ্ছে। এই সিলিন্ডার থেকে পাইপলাইনের মাধ্যমে বাসায় বাসায় বা কারখানায় সরবরাহ করা হচ্ছে গ্যাস। এটির দামও কমিশন পুনর্নির্ধারণ করে।

রেটিকুলেটেড সিস্টেমে সরবরাহ করা এলপিজির দাম ভোক্তা পর্যায়ে মূসক ছাড়া প্রতিকেজি ৭৮ টাকা ৩১ পয়সা এবং মূসকসহ ৮৩ টাকা ৭৭ পয়সা অথবা লিটার হিসাবে প্রতি লিটার মূসক ছাড়া ০ দশমিক ১৭৪০ টাকা এবং মূসকসহ প্রতি লিটার ০ দশমিক ১৮৬১ টাকা পুনর্নির্ধারণ করেছে কমিশন।

বিইআরসি’র চেয়ারম্যান জানান, বিইআরসি আইনের অনুচ্ছেদ ক অনুযায়ী আগস্ট মাসে সৌদি আরামকো কর্তৃক প্রোপেন ও বিউটেনের ঘোষিত সৌদি সিপির দাম যথাক্রমে প্রতি মেট্রিক টন ৬৬০ ডলার এবং ৬৫৫ ডলার হয়েছে। এ অনুযায়ী আগস্ট মাসে প্রোপেন ও বিউটেনের মিশ্রণ অনুপাত ৩৫:৬৫ বিবেচনায় প্রোপেন ও বিউটেনের গড় সৌদি সিপি প্রতি মেট্রিক টন ৬৫৬.৭৫ ডলার বিবেচনা করে এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।

এর আগের মাসে প্রোপেন ও বিউটেনের ঘোষিত সৌদি সিপি যথাক্রমে প্রতি মেট্রিক টন ৬২০ ডলার এবং ৬২০ ডলার অনুযায়ী প্রোপেন ও বিউটেনের মিশ্রণ অনুপাত ৩৫:৬৫ বিবেচনায় প্রোপেন ও বিউটেনের গড় সৌদি সিপি প্রতি মেট্রিক টন ৬২০ ডলার বিবেচনা করে এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, গত ১২ এপ্রিল প্রথমবারের মতো এলপিজির দাম নির্ধারণের ঘোষণা দেয় কমিশন। সাধারণত সৌদি সিপি (কন্ট্রাক্ট প্রাইস) অনুযায়ী দেশে এলপিজির দাম নির্ধারিত হয়। প্রতি মাসের শেষে যখন সৌদি সিপির দাম পরিবর্তন হয়, তখন এলপিজির দাম পরিবর্তনের বিষয়ে নতুন করে আদেশ দেয় কমিশন।

বিইআরসি’র চেয়ারম্যান বলেন, দাম পুনঃনির্ধারণ করা হলেও গত ১২ এপ্রিল এলপিজির সংক্রান্ত অন্যান্য যেসব আদেশ কমিশন দিয়েছিল তা অপরিবর্তিত থাকবে।

/এসএনএস/এমএস/

সম্পর্কিত

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে অনুকরণীয় নেতা পেতাম: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে অনুকরণীয় নেতা পেতাম: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

পিক আওয়ারের চার ঘণ্টাই বিদ্যুৎ থাকে না রংপুরে!

পিক আওয়ারের চার ঘণ্টাই বিদ্যুৎ থাকে না রংপুরে!

কমিশনের নির্ধারিত এলপিজির দাম কার্যকর করবে কে?

কমিশনের নির্ধারিত এলপিজির দাম কার্যকর করবে কে?

বাংলাদেশকে ২০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩৭

দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন খাতে ২০ কোটি ডলার ঋণ সহায়তা দেবে বিশ্বব্যাংক। করোনা মহামারির সংকটে দেশের অর্থনীতিতে ঝেঁকে বসা স্থবিরতা কাটিয়ে উঠতে এই সহায়তা পাওয়া যাচ্ছে। এ বিষয়ে বুধবার (২৭ অক্টোবর) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন ও বিশ্বব্যাংকের আবাসিক প্রতিনিধি মার্সি টেম্বন একটি চুক্তিতে সই করেন।

বিশ্বব্যাংক ঢাকা অফিস সূত্রে জানা যায়, তাদের এই ঋণ পাঁচ বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ৩০ বছরে পরিশোধযোগ্য। ঋণের সুদের হার ১ দশমিক ২৪ শতাংশ। এর সার্ভিস চার্জ শূন্য দশমিক ৭৫ শতাংশ এবং অনুত্তোলিত অর্থের ওপর সর্বোচ্চ কমিটমেন্ট চার্জ শূন্য দশমিক ৫০ শতাংশ।

জানা গেছে, রিকভারি অ্যান্ড অ্যাডভান্সডমেন্ট অব ইনফরমাল সেক্টর এমপ্লয়মেন্ট’ প্রকল্পের আওতায় ঋণ সহায়তা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের আওতাধীন পল্লীকর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

/এসআই/জেএইচ/

সম্পর্কিত

বিশ্বব্যাংককে ঢাকার জন্য ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প গ্রহণের আহ্বান জানালেন অর্থমন্ত্রী

বিশ্বব্যাংককে ঢাকার জন্য ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প গ্রহণের আহ্বান জানালেন অর্থমন্ত্রী

বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্যেও সুসম্পর্ক চায় রাশিয়া

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৪৮

বাংলাদেশের সঙ্গে সুসম্পর্কের প্রতিফলন দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যেও দেখতে চায় রাশিয়া। বুধবার (২৬ অক্টোবর) এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে এ আগ্রহ প্রকাশ করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ভিকেন্টিয়েভিচ মানতস্কি। সাক্ষাতে বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যে অর্থনৈতিক অগ্রগতি, কোভিড পরিস্থিতি, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের সম্প্রসারণ সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনা হয়।

এসময়  উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, সহ-সভাপতি  মো. আমিন হেলালী এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহফুজুল হক।

রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার মানতস্কি বলেন, রাশিয়া ও বাংলাদেশের মধ্যে ঐতিহাসিকভাবে সুসম্পর্ক বিদ্যমান। রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে বাংলাদেশের উন্নয়ন যাত্রায় সহযোগী হতে পেরে রাশিয়া গর্বিত। তবে  দেশের বাণিজ্যিক সম্ভাবনার পুরোটা এখনও কাজে লাগানো যায়নি। এ সম্পর্ককে উন্নত করতে চায় দেশটি।

আগামী নভেম্বরে রাশিয়ার একজন বাণিজ্য প্রতিনিধি বাংলাদেশ সফর করার কথা রয়েছে। সে সময় এফবিসিসিআইয়ের সঙ্গে একটি বাণিজ্য সভা আয়োজনের আশ্বাস দেন রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার মানতস্কি।

এ সময় এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, রাশিয়ার সঙ্গে সরাসরি ব্যাংকিং সম্পর্ক না থাকা ও এলসি খোলার সুবিধা না থাকায় দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়ছে না। তিনি বলেন, রাশিয়ার বিশাল বাজারে তৈরি পোশাক ছাড়াও হালকা প্রকৌশল পণ্য, প্লাস্টিক, ওষুধ, হিমায়িত খাদ্য-পণ্যসহ অসংখ্য পণ্য রফতানি করতে পারে বাংলাদেশ।

জানা গেছে, ১৯৮৭ সালের ডিসেম্বরে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের সঙ্গে সহযোগিতা চুক্তি সই করেছিল এফবিসিসিআই। পরে ২০০৬ সালে দি চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি অব রাশিয়ান ফেডারেশন এবং ২০১৯ এ ইউনিয়ন অব মস্কো চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে সহযোগিতা চুক্তি সই করে এফবিসিসিআই। অনেক দিন আগের করা এসব চুক্তিগুলোকে পর্যালোচনা করে যুগোপযোগী করতে একমত হন এফবিসিসিআই সভাপতি ও রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত। শিগগিরই দেশটির দূতাবাসে এ সংক্রান্ত তথ্য ও খসড়া পাঠাবে এফবিসিসিআই।

সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে রাশিয়ার বার্ষিক বাণিজ্যিক সম্মেলন সেইন্ট পিটার্সবার্গ ইন্টারন্যাশনাল ইকোনমিক ফোরামে বাংলাদেশের বাণিজ্য প্রতিনিধি দল পাঠানোর ব্যাপারে কথা বলেন এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি মো. হাবীব উল্লাহ ডন।

/জিএম/এমআর/

সম্পর্কিত

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

বুধবার এফবিসিসিআই’র সভাপতির দায়িত্ব নিচ্ছেন জসিম উদ্দিন

বুধবার এফবিসিসিআই’র সভাপতির দায়িত্ব নিচ্ছেন জসিম উদ্দিন

এফবিসিসিআই’র আইকন টাওয়ারের উদ্বোধন

এফবিসিসিআই’র আইকন টাওয়ারের উদ্বোধন

এফবিসিসিআই’র নতুন সভাপতি জসিম উদ্দিন

এফবিসিসিআই’র নতুন সভাপতি জসিম উদ্দিন

বেস্ট রিটেইল অ্যাওয়ার্ড পেলো ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:২১

বেস্ট রিটেইল অ্যাওয়ার্ড পেলো ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড। স্যামসাং মোবাইল ফোন ও ইলেকট্রনিক্স পণ্য বিপণনে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেছে বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম (বিবিএফ)।

গত শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) বিবিএফ আয়োজিত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে ফেয়ার ইলেকট্রনিক্সকে ইলেকট্রনিক্স ক্যাটাগরিতে বেস্ট রিটেইল অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। বুধবার (২৭ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্স।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, ২০২০ সালের করোনা মহামারি এবং লকডাউনের প্রভাবে প্রতিযোগী ব্র্যান্ডগুলোর বিপরীতে পরিবর্তনগুলোকে মানিয়ে নিয়ে ডিজিটাল এবং সোশাল মিডিয়াতে শক্তিশালী উপস্থিতিসহ অনলাইনে স্থানান্তরিত হয়ে গ্রাহক সেবায় কাজ করে সফলতা অর্জন করে ফেয়ার গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড।

প্রতিষ্ঠানটি আরও জানায়, করোনা মহামারি ও একটানা লকডাউন ২০২০ সালে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে যে দূরূহ পরিস্থিতি সৃষ্ট করে, সাফল্যের সাথে তা মোকাবিলা করে অবিস্মরণীয় সাফল্য ছিনিয়ে আনে ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স। পরিবর্তিত পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ও সোশাল মিডিয়ায় উপস্থিতি শক্তিশালী করে। অফলাইনের পাশাপাশি অনলাইনে বিপণন ব্যবস্থা জোরদার করে। বিতরণ ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন এনে সরাসরি কারখানা থেকে পণ্য পৌঁছে দেয় গ্রাহকের দোরগোড়ায়। দক্ষ কারিগরি কর্মীরা বিক্রয়োত্তর সেবা নিয়ে মাইক্রোবাস ও মোটর বাইকযোগে হাজির হন গ্রাহকের ঠিকানায়। ফলে ফেয়ার ইলেকট্রনিক্সের বিক্রয় প্রবৃদ্ধি ২০১৮-১৯ সালের ৮১ শতাংশ থেকে বেড়ে ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১৫৭ শতাংশে এবং ২০২০-২১ অর্থবছরে ১৬৬ শতাংশে দাঁড়ায়। প্রতিযোগী ব্র্যান্ডগুলোকে পেছনে ফেলে গ্রাহকের সাথে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে তোলে ফেয়ার গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড।

২০১৭ সালে মাত্র ৩০টি স্যামস্যাং স্মার্ট প্লাজা দিয়ে শুরু হয়েছিলো ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স। ছয় গুণ বেড়ে ২০২১ সালে এর সংখ্যা দাঁড়ায় ২০০টিতে। বর্তমানে ফেয়ার ইলেকট্রনিক্সে কাজ করছে প্রায় ২ হাজার ২৫০ জন।

ফেয়ার গ্রুপের চেয়ারম্যান রুহুল আলম আল মাহবুব বলেন, এ অর্জন আমাদের সবার। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা, মহামারিকালে ভোক্তাদের দোরগোড়ায় পণ্য পৌঁছে দেওয়া এবং গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করার মাধ্যমে ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স এই অসামান্য কৃতিত্ব অর্জন করেছে।

ফেয়ার গ্রুপের চিফ মার্কেটিং অফিসার মো. মেসবাহ উদ্দীন বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে আমরা অনলাইন এবং অফলাইনে বিপণন কার্যক্রমের ওপর সমান গুরুত্ব দিচ্ছি।  ডিজিটালাইজেশনের পথে খুব দ্রুত অগ্রসর হচ্ছি। গ্রাহকরা শীঘ্রই এর আরও সুফল ভোগ করবেন।

/এসও/এমএস/

সম্পর্কিত

সৌদি খেজুর ও ভিয়েতনামের নারিকেল চাষে মিলবে ব্যাংক ঋণ

সৌদি খেজুর ও ভিয়েতনামের নারিকেল চাষে মিলবে ব্যাংক ঋণ

টানা সাতদিন পর ঘুরে দাঁড়ালো শেয়ার বাজার

টানা সাতদিন পর ঘুরে দাঁড়ালো শেয়ার বাজার

‘ধোঁয়াহীন-দূষণমুক্ত রান্না ব্যবস্থা চালুর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে’

‘ধোঁয়াহীন-দূষণমুক্ত রান্না ব্যবস্থা চালুর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে’

শেয়ার বাজারে হঠাৎ ক্রেতা কম

শেয়ার বাজারে হঠাৎ ক্রেতা কম

৫ নভেম্বর পর্যন্ত ভারতে ইলিশ রফতানি

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২৩

আগামী ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ভারতে ইলিশ রফতানির সুযোগ পাবেন দেশের ইলিশ রফতানিকারকরা। এর আগে গত ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ডিম ছাড়ার সুযোগ দিতে মা ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছিল সরকার। এ সময় পর্যন্ত সারা দেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় নিষিদ্ধ ছিল। এ কারণে  অনুমতিপ্রাপ্ত  রফতানিকারকরা তখন ইলিশ সরবরাহ করতে পারেননি। এই বিবেচনায় সরকার ইলিশ রফতানির সুযোগ ৫ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব (রফতানি-২) তানিয়া ইসলামের সই করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, দুর্গাপূজা উপলক্ষে ১১৫টি প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেকটিকে ৪০ টন করে ইলিশ রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়। তবে প্রধান প্রজনন মৌসুম ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত সারা দেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় নিষিদ্ধ করে প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। ফলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ওই প্রতিষ্ঠানগুলো অনুমোদন পাওয়া ইলিশ রফতানি সম্পন্ন করতে পারেনি।

এই বিবেচনায় অনুমোদন পাওয়া অবশিষ্ট ইলিশ রফতানি আগামী ৫ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর অনুমতি দিয়েছে সরকার। এ ক্ষেত্রে ইলিশ রফতানির সব শর্ত আগের মতোই অপরিবর্তিত থাকবে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে গত ২০ ও ২২ সেপ্টেম্বর দুই দফায় ৪ হাজার ৬০০ টন ইলিশ মাছ ১১৫টি প্রতিষ্ঠানকে ভারতে রফতানির অনুমতি দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

 

/এসআই/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কার পাচ্ছে ২৩ প্রতিষ্ঠান

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কার পাচ্ছে ২৩ প্রতিষ্ঠান

আরও ৯০ হাজার টন সার কেনার সিদ্ধান্ত

আরও ৯০ হাজার টন সার কেনার সিদ্ধান্ত

বকেয়া ঋণের তথ্য পাঠানোর নিয়মে পরিবর্তন

বকেয়া ঋণের তথ্য পাঠানোর নিয়মে পরিবর্তন

প্রতিমাসে জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয়ের ক্ষমতা চায় বিপিসি

প্রতিমাসে জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয়ের ক্ষমতা চায় বিপিসি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কার পাচ্ছে ২৩ প্রতিষ্ঠান

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৬

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কার-২০২০-এর জন্য সাতটি শাখায় মনোনীত হয়েছে দেশের ২৩টি শিল্প প্রতিষ্ঠান। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আগামীকাল (২৮ অক্টোবর) এগুলোর প্রতিনিধিদের হাতে সম্মাননা তুলে দেওয়া হবে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) রাজধানীর মতিঝিলে অবস্থিত শিল্প মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা।

এ বছর বৃহৎ শাখায় স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, জজ ভূঞা টেক্সটাইল মিলস, আদুরি অ্যাপারেলস লিমিটেড এবং ইউনিভার্সাল জিন্স লিমিটেড পুরস্কার পেয়েছে। মাঝারি শিল্প শাখায় পুরস্কৃত হয়েছে অকো-টেক্স লিমিটেড, ফরচুন সুজ লিমিটেড, রহিম আফরোজ রিনিউঅ্যাবল এনার্জি লিমিটেড এবং মাধবদী ডাইং ফিনিশিং মিলস লিমিটেড।

ক্ষুদ্রশিল্প শাখায় পুরস্কার পাচ্ছে আমান প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রি, এসআর হ্যান্ডিক্যাফটস এবং আলীম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। অতিক্ষুদ্র বা মাইক্রো ইন্ডাস্ট্রির জন্য পুরস্কারের তালিকায় রয়েছে মেসার্স কারুকলা, ট্রিম টেক্স বাংলাদেশ এবং জনতা ইঞ্জিনিয়ারিং। হাইটেক শিল্পের পুরস্কারের জন্য মনোনীত প্রতিষ্ঠান তিনটি হলো, সার্ভিস ইঞ্জিন লিমিটেড, সুপারস্টার ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড এবং মীর টেলিকম লিমিটেড।

হস্ত ও কারুশিল্প শাখায় পুরস্কার পেয়েছে ক্লাসিকাল হ্যান্ডমেড প্রোডাক্ট বিডি, আয়োজন এবং সোনারগাঁ নকশিকাঁথা মহিলা উন্নয়ন সংস্থা। কুটিরশিল্প শাখায় পুরস্কৃত হয়েছে কুমিল্লা আর্ট অ্যান্ড ক্রাফটস, রংমেলা নারী কল্যাণ সংস্থা এবং অগ্রজ।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, প্রথম পুরস্কার হিসেবে ৩ লাখ টাকা ও ২৫ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট, দ্বিতীয় পুরস্কার হিসেবে ২ লাখ টাকা ও ২০ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট এবং তৃতীয় পুরস্কার হিসেবে ১ লাখ টাকা ও ১৫ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট পাবে প্রতিটি প্রতিষ্ঠান। ১৮ ক্যারেট মানের স্বর্ণ দিয়ে বানানো ক্রেস্টগুলো আণবিক শক্তি কমিশন কর্তৃক স্বর্ণের মান যাচাই করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে রাখা হয়েছে। এছাড়া পুরস্কারপ্রাপ্ত সব প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননাপত্র দেওয়া হবে।

শিল্পমন্ত্রী উল্লেখ করেন, বেসরকারি খাতে শিল্প স্থাপন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং বিনিয়োগে উৎসাহ দিতে পুরস্কারটির প্রবর্তন করা হয়েছে। তার আশা, আলোকিত শিল্প উদ্যোক্তাদের পণ্য বহুমুখীকরণ, আমদানিবিকল্প পণ্য উৎপাদন ও শিল্প খাতে সৃজনশীলতার বিকাশে উৎসাহিত করবে এই সম্মাননা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কারের জন্য শিল্প উদ্যোক্তা কিংবা শিল্প প্রতিষ্ঠান মনোনয়নে কয়েকটি নির্দিষ্ট যোগ্যতা ও শর্তপূরণ আবশ্যক। এরমধ্যে রয়েছে, শিল্প উদ্যোক্তা অথবা শিল্প প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে স্থাপিত হতে হবে, শিল্প খাতে আবেদনকারী শিল্পপতি কিংবা উদ্যোক্তার সামগ্রিক অবদান সন্তোষজনক হওয়া চাই, দেশের গুরুত্বপূর্ণ চাহিদা পূরণ কিংবা আমদানিবিকল্প বা রফতানিমুখী পণ্য উৎপাদন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কার্যকর অবদান রাখতে হবে এবং নিয়মিত কর পরিশোধ করা বাধ্যতামূলক।

এছাড়া ফৌজদারি অপরাধের জন্য কোনও ট্রাইব্যুনাল বা আদালত কর্তৃক ছয় মাস বা ততধিক সময়ের জন্য কোনও উদ্যোক্তা কিংবা শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালিক দণ্ডিত হলে এবং দণ্ডভোগের পর ন্যূনতম দুই বছর সময় না পেরোলে কিংবা তার বিরুদ্ধে কোনও ট্রাইব্যুনাল বা আদালতে কোনও মামলা চলমান থাকলে সেই শিল্প উদ্যোক্তা কিংবা শিল্প প্রতিষ্ঠান মনোনয়নের জন্য যোগ্য বিবেচিত হয় না।

এছাড়া ঋণখেলাপি, সরকারি বিলখেলাপি, করখেলাপি, অর্থপাচারকারী, সরকারি জায়গায় অবৈধ দখলদার ও পরিবেশ দূষণকারী শিল্প উদ্যোক্তা কিংবা শিল্প প্রতিষ্ঠান এই সম্মানজনক পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবে না। উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করার লক্ষ্যে কোনও প্রতিষ্ঠান একবার পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলে একই শাখায় পরবর্তী তিন বছরের জন্য আবেদন বিবেচনা করা হয় না।

/এসআই/জেএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

৫ নভেম্বর পর্যন্ত ভারতে ইলিশ রফতানি

৫ নভেম্বর পর্যন্ত ভারতে ইলিশ রফতানি

আরও ৯০ হাজার টন সার কেনার সিদ্ধান্ত

আরও ৯০ হাজার টন সার কেনার সিদ্ধান্ত

বকেয়া ঋণের তথ্য পাঠানোর নিয়মে পরিবর্তন

বকেয়া ঋণের তথ্য পাঠানোর নিয়মে পরিবর্তন

প্রতিমাসে জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয়ের ক্ষমতা চায় বিপিসি

প্রতিমাসে জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয়ের ক্ষমতা চায় বিপিসি

সম্পর্কিত

খুঁটির বদলে গাছ ও বাঁশে বিদ্যুতের লাইন

খুঁটির বদলে গাছ ও বাঁশে বিদ্যুতের লাইন

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে অনুকরণীয় নেতা পেতাম: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে অনুকরণীয় নেতা পেতাম: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

পিক আওয়ারের চার ঘণ্টাই বিদ্যুৎ থাকে না রংপুরে!

পিক আওয়ারের চার ঘণ্টাই বিদ্যুৎ থাকে না রংপুরে!

কমিশনের নির্ধারিত এলপিজির দাম কার্যকর করবে কে?

কমিশনের নির্ধারিত এলপিজির দাম কার্যকর করবে কে?

এলপিজির দাম এত বাড়লো কেন?

এলপিজির দাম এত বাড়লো কেন?

এলপিজির দর নিয়ে ভোগান্তি কি শেষ হবে না?

এলপিজির দর নিয়ে ভোগান্তি কি শেষ হবে না?

এলপিজির মূল্য নির্ধারণ নিয়ে আইনি জটিলতায় বিইআরসি

এলপিজির মূল্য নির্ধারণ নিয়ে আইনি জটিলতায় বিইআরসি

সর্বশেষ

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

‘চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না’ 

‘চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না’ 

প্রেমিকাকে হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা করে মনির: র‌্যাব

প্রেমিকাকে হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা করে মনির: র‌্যাব

‘চোখ খুইল্লা লা’ স্লোগান দিয়ে নৌকার গণসংযোগে হামলার অভিযোগ

‘চোখ খুইল্লা লা’ স্লোগান দিয়ে নৌকার গণসংযোগে হামলার অভিযোগ

পুলিশ সুপারকে ডিআইজি পরিচয়ে ফোন দিয়ে ধরা

পুলিশ সুপারকে ডিআইজি পরিচয়ে ফোন দিয়ে ধরা

‘সিনহা হত্যা মামলার আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছিল’

‘সিনহা হত্যা মামলার আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছিল’

শপথ নিলেন বাগেরহাটের নবনির্বাচিত ৬৬ ইউপি চেয়ারম্যান

শপথ নিলেন বাগেরহাটের নবনির্বাচিত ৬৬ ইউপি চেয়ারম্যান

চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর: জেলা যুবদল সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩

চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর: জেলা যুবদল সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে অনুকরণীয় নেতা পেতাম: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে অনুকরণীয় নেতা পেতাম: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

পিক আওয়ারের চার ঘণ্টাই বিদ্যুৎ থাকে না রংপুরে!

পিক আওয়ারের চার ঘণ্টাই বিদ্যুৎ থাকে না রংপুরে!

কমিশনের নির্ধারিত এলপিজির দাম কার্যকর করবে কে?

কমিশনের নির্ধারিত এলপিজির দাম কার্যকর করবে কে?

এলপিজির দাম এত বাড়লো কেন?

এলপিজির দাম এত বাড়লো কেন?

© 2021 Bangla Tribune