X
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

অবৈধ পদোন্নতির হিড়িক স্বাস্থ্য অধিদফতরে

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২০

স্বাস্থ্য অধিদফতরে নন-মেডিক্যাল কর্মচারী ও স্বাস্থ্য সহকারীদের অবৈধভাবে পদোন্নতি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে তদন্তও করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, বিধি ও নিয়ম মেনেই পদোন্নতি হয়েছে।

১৯৮৫ ও ২০১৮ সালের স্বাস্থ্য বিভাগীয় নন-মেডিক্যাল কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী স্বাস্থ্য সহকারী পদ থেকে পদোন্নতি পেয়ে পরিসংখ্যানবিদ, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর, উচ্চমান সহকারী ও হিসাবরক্ষক হওয়ার সুযোগ নেই। স্বাস্থ্য সহকারী থেকে শুধু সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সিনিয়র স্বাস্থ্য পরিদর্শক, এমটি ইপিআই হওয়া যায়। কিন্তু স্বাস্থ্য সহকারী থেকে অনেকেই নিয়ম বহির্ভূতভাবে পদোন্নতি নিয়েছেন। জানাজানির পর তদন্তও করেছে অধিদফতর। তারপরও ফাঁকফোঁকর দিয়ে পদোন্নতি হয়েছে ঠিকই।

২০১৩ সালের আগস্টে পটুয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসের প্রধান সহকারী নজরুল ইসলাম কীভাবে স্বাস্থ্য সহকারী থেকে ক্যাশিয়ার ও পরে প্রধান সহকারী হয়েছেন তা তদন্ত করে স্বাস্থ্য অধিদফতর। তার পদোন্নতি বাতিল করে মূলপদ স্বাস্থ্য সহকারী পদে রাখার আদেশ দেওয়া হয়। এমনকি তার পদোন্নতির জন্য যদি সরকারের কোনও আর্থিক ক্ষতি হয়ে থাকে তা সিভিল সার্জনকে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে ইস্যুকৃত আদেশে আদায়ের নির্দেশ দেওয়া হয়।

এমন আরও অনেকেই জালিয়াতি করে পদোন্নতি ও পদায়ন নিয়েছেন। তারা অবৈধভাবে বেতন বৃদ্ধির চাপও দিয়ছেন। এ বিষয়ে হিসাব নিয়ন্ত্রকের অফিস থেকে ২০১১ সালে স্বাস্থ্য অধিদফতরকে চিঠিও দেওয়া হয়। পরে অধিদফতরের তৎকালীন পরিচালক (অর্থ) ডা. মো. সাইদুর রহমান ভূঁইয়া তার প্রশাসনকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠি দেন।

অবৈধ পদোন্নতি পেলেন যারা
অবৈধভাবে পদোন্নতি নেওয়া এসব ব্যক্তিদের একটি তালিকা বাংলা ট্রিবিউনের কাছে এসে পৌঁছেছে। তালিকা ধরে অনুসন্ধান করে দেখা গেছে, সাইদুর রহমান নামের এক স্বাস্থ্য সহকারীকে হিসাবরক্ষক পদে পদোন্নতি দিয়ে পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ২০২০ সালের ১১ নভেম্বর পদায়ন করা হয়েছে। একইভাবে আব্দুল কুদ্দুস নামের এক স্বাস্থ্য সহকারীকে জালিয়াতি করে হিসাবরক্ষক পদে পদোন্নতি করা হয়েছে। ২০২১ সালের ২৫ জানুয়ারি তাকে পুনরায় প্রধান সহকারী পদে পিরোজপুর সিভিল সার্জনে বদলি করা হয়।

একই আদেশে স্টোর কিপার আক্তারুজ্জামানকে হিসাবরক্ষক করা হয়। নিয়ম থাকলেও তাদের পদোন্নতিতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বরিশাল বিভাগের পরিচালকের কোনও মতামত নেওয়া হয়নি।

২০২১ সালের ৫ মে পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওয়ার্ড বয়কে হিসাবরক্ষক, ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হিসাবরক্ষক আল আমিনকে প্রধান সহকারী, বরগুনার আমতলীর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হিসাবরক্ষক শহিদুল ইসলাম মন্টুকে প্রধান সহকারী, পটুয়াখালীর দশমিনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অফিস সহকারী আশরাফুলকে হিসাবরক্ষক, বরিশালের বিভাগীয় পরিচালক ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে লতিফা আক্তারকে অফিস সহকারী পদে গত ১৮ মে পদায়ন করা হয়। কিন্তু ঢাকার স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রধান কার্যালয় বরিশাল পরিচালকের আদেশটি বাতিল করে। জান্নাতুল ফেরদৌস নামের অপর এক নারীকে ওই পদে পদায়ন করা হয়।

এসব পদোন্নতিতেও বরিশাল বিভাগীয় পরিচালকের মতামত নেওয়া হয়নি। অথচ তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের বদলি, পেনশন ও পদোন্নতি বিধি অনুযায় বিভাগীয় পরিচালক সম্পন্ন করার কথা। স্থানীয় প্রশাসনকে না জানিয়ে অবৈধভাবে প্রধান কার্যালয় থেকে এগুলো করা হয়েছে।

এরশাদের হাতে যত কলকাঠি 
এসব অবৈধ পদোন্নতির সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রশাসন বিভাগের একটি চক্র জড়িত বলে জানা গেছে। অভিযোগ রয়েছে, অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. শেখ মো. হাসান ইমামের ব্যক্তিগত অফিস সহকারী আহসান সাইদ এরশাদ এসব পদোন্নতিতে ‘সহায়তা’ করেন। এই কর্মচারী নিজেও ছিলেন স্বাস্থ্য সহকারী। অবৈধভাবে পদোন্নতি নিয়ে হয়েছেন ব্যক্তিগত অফিস সহকারী।

এরশাদের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য অধিদফতর, দুর্নীতি দমন কমিশন ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে। অবৈধ পদোন্নতি, বদলি এবং ভুয়া ভাউচার দিয়ে বিল আদায় এমনকি গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসা ভাতা আত্মসাতের অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে। 

২০০৪ সালের জুলাইয়ে এরশাদ স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগ দেন। ২০০৮ সালে বেতন আগের পদের থাকবে এমন শর্তে পরিসংখ্যানবিদ হিসেবে পদোন্নতি নেন। একইভাবে ২০১৪ সালে অফিস সহকারী হিসেবে পদোন্নতি নেন। পরে হন উচ্চমান সহকারী। ২০২০ সালে পুনরায় পদোন্নতি নিয়ে হিসাবরক্ষক বনে যান। এরপর ২০২০ সালের অক্টোবরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. শেখ মো. হাসান ইমামের ব্যক্তিগত অফিস সহকারী হিসেবে প্রেষণে আসেন এরশাদ। অভিযোগ রয়েছে, স্বাস্থ্য অধিদফতরের সদর দফতরে এসে নিজেই এখন বাকিদের অবৈধ পদোন্নতির বন্দোবস্ত করে দিচ্ছেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনে করা এক অভিযোগে দেখা গেছে, এরশাদ এসব পদোন্নতির বিনিময়ে তিন থেকে চার লাখ টাকা ঘুষ নিয়ে থাকেন। পরিচালকের (প্রশাসন) ব্যক্তিগত সহকারী হওয়াতে সারাদেশে তার শক্ত সিন্ডিকেট আছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ডা. শেখ মো. হাসান ইমামের ব্যক্তিগত অফিস সহকারী আহসান সাইদ এরশাদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমার কোনও সিন্ডিকেট নেই। আমি নিজে এখানে এসেছি কয়েকমাস হলো। আমাকে নিয়োগ বোর্ড পদোন্নতি দিয়েছে। আমি একা নই। সারাদেশে এমন অন্তত দুই হাজার কর্মচারী রয়েছে, যারা আগের বেতনের শর্তে পদোন্নতি পেয়েছে।’

কী প্রক্রিয়ায় এসব পদোন্নতি দেওয়া হয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদফতরে জনবলের সংকট ছিল, তখন এসব পদোন্নতি হয়েছে। যারা পদোন্নতি দেয় তারা জানে, আমি জানি না।’

কেউ অবসরে, কেউ বহাল
স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাওয়া নথিতে দেখা গেছে, অবৈধ পদোন্নতি পাওয়া অনেকে এরমধ্যে অবসরে গেছেন। অনেকে বিভিন্ন হাসপাতাল ও দফতরে কর্মরত। এদের মধ্যে শ্যামলী ২৫০ শয্যা বক্ষব্যাধি হাসপাতালের হিসাবরক্ষক রেজাউল করিম স্বাস্থ্য সহকারী থেকে হিসাবরক্ষক পদে আছেন। বরগুনার আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হিসাবরক্ষক শহিদুল ইসলাম জুনিয়র মেকানিক থেকে পদোন্নতি নিয়েছেন। ডিএনসিসি কোভিড হাসপাতালের প্রধান সহকারী মাতুব্বর আবুল কালাম আজাদ স্বাস্থ্য সহকারী থেকে পদোন্নতি নিয়েছেন। এসব পদোন্নতি অবৈধ হলেও তারা এখনও পদে বহাল।

অবৈধভাবে স্বাস্থ্য সহকারী থেকে পটুয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসের মহসিন হিসাবরক্ষক হয়েছেন। পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজের হিসাবরক্ষক সাইদুর রহমান স্বাস্থ্য সহকারী থেকে পদোন্নতি পেয়েছেন। একই প্রতিষ্ঠানের নজরুল ইসলাম হয়েছেন প্রশাসনিক কর্মকর্তা।

২০১৩ সালের ৫ মে ও ২২ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে দেশের সকল বিভাগীয় পরিচালকদের স্বাস্থ্য সহকারী বা অন্য কোনও মাঠকর্মীকে ১৯৮৫ সালের নিয়োগবিধি বহির্ভূতভাবে অফিস সহকারী, ক্যাশিয়ার, হিসাবরক্ষক, স্টোরকিপার পদে পদোন্নতি না দেওয়ার জন্য কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়। তারপরও এদের পদোন্নতি ঠেকানো যায়নি।

এসব পদোন্নতির নথি, আদেশ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, সবাই আগের বেতনের শর্তে পদোন্নতি নিয়েছেন। পদোন্নতির পর তারা প্রেষণে বিভিন্ন লোভনীয় দফতরে তদবির করে যোগ দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদফতরে অতিরিক্ত মহাপরিচালক নাসিমা সুলতানা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘নিয়োগ বিধি মেনেই সকল পদোন্নতি ও পদায়ন হয়। এর ব্যত্যয় হওয়ার কথা নয়।’

/এফএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

ডেঙ্গু: হাসপাতালে ভর্তি ২৬ শতাংশই ১১-২০ বছরের

ডেঙ্গু: হাসপাতালে ভর্তি ২৬ শতাংশই ১১-২০ বছরের

২৯ জেলায় শনাক্ত নেই

২৯ জেলায় শনাক্ত নেই

শতকোটি টাকার তালগাছগুলো কোথায়?

শতকোটি টাকার তালগাছগুলো কোথায়?

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার, গ্রেফতার ৩

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২৩:১২

সম্প্রতি পূজামণ্ডপের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচারের অভিযোগ ফেনী থেকে ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ফেনী থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতরা হলো- আহনাফ তৌসিফ মাহবুব লাবিব (২৩), আব্দুস সালাম জুনায়েদ (১৮), ফয়সাল আহমেদ আল আমিন (১৮)। সাম্প্রতিক সময়ে ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উদ্দেশে নাশকতা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন উস্কানিমূলক এবং অপব্যাখ্যা মূলক কনটেন্ট ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে ‌‌।

/আরটি/এমআর/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র রুখে দিতে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির আহ্বান

সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র রুখে দিতে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির আহ্বান

তিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

তিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

আইস ও অস্ত্রসহ আটক দু’জন ৯ দিনের রিমান্ডে

আইস ও অস্ত্রসহ আটক দু’জন ৯ দিনের রিমান্ডে

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল প্রকাশ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৬

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল প্রকাশ প্রকাশ করেছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। রবিবার (১৭ অক্টোবর) ফল প্রকাশ করা হয়। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় মোট উত্তীর্ণ হন ১৮ হাজার ৫৫০ জন প্রার্থী।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এনটিআরসিএ’র ২০১৯ সালের ১৫ ও ১৬ নভেম্বরের ষোড়শ শিক্ষক নিবন্ধন লিখিত পরীক্ষায় ২২ হাজার ৩৯৮ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হন। উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্যে স্কুল-২ পর্যায়ের ১ হাজার ৮০ জন, স্কুল পর্যায়ের ১৫ হাজার ২৪০ জন এবং কলেজ পর্যায়ের ৩ হাজার ৮১১ জনসহ মোট ২০ হাজার ১৩১ জন প্রার্থী মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেন। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের চূড়ান্ত ফলাফল রবিবার (১৭ অক্টোবর)  প্রকাশ করা হয়।

স্কুল-২ পর্যায়ে ৯৯৬ জন, স্কুল পর্যায়ে ১৪ হাজার ৪৬ জন এবং কলেজ পর্যায়ে ৩ হাজার ৫০৮ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। চূড়ান্তভাবে সর্বমোট ১৮ হাজার ৫৫০ জন প্রার্থী ষোড়শ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। সার্বিক পাসের হার ৯২ দশমিক ১৫ শতাংশ।

প্রার্থীরা পরীক্ষার ফলাফল http://ntrca.gov.bd এবং http://ntrca.teletalk.com.bd ওয়েবসাইট থেকে রাত ১০টার পর জানতে পারবেন। তাছাড়াও টেলিটক বিডি লিমিটেড কৃতকার্য প্রার্থীদের ফলাফল এসএমএস (SMS) এর মাধ্যমে জানিয়ে দেবে।

/এসএমএ/এমআর/

সম্পর্কিত

প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না

প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না

ডিনেটের সঙ্গে ইউল্যাবের সমঝোতা স্মারক সই

ডিনেটের সঙ্গে ইউল্যাবের সমঝোতা স্মারক সই

উপজেলা শিক্ষা অফিসার সমিতির সভাপতি মঈনুল, মহাসচিব নাছিমা

উপজেলা শিক্ষা অফিসার সমিতির সভাপতি মঈনুল, মহাসচিব নাছিমা

মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র রুখে দিতে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির আহ্বান

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:১১

অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যেকোনও সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র রুখে দিতে সারাদেশের আইনজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি। রবিবার (১৭ অক্টোবর) সংগঠনটির সহ-সভাপতি মুহাম্মদ শফিক উল্ল্যা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ বিষয়ে অনুরোধ করা হয়। একইসঙ্গে পূজামণ্ডপে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তিনি। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছে, কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল তাদের অপ-রাজনীতির উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার হীনমানসে এবং শান্তি-শৃঙ্খলা বিনষ্টের লক্ষ্যে সাম্প্রদায়িক কার্যক্রমের মাধ্যমে দেশে আবহমানকাল ধরে থাকা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের এসব ঘৃণ্য কার্যকলাপের কারণে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নেতাদের বক্তব্য, ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও পারস্পরিক উৎসবে অংশগ্রহণ বাঙালির চিরায়ত ঐতিহ্য। তাই স্বাধীনতার চেতনায় গড়ে ওঠা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যেকোনও সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে সারাদেশের আইনজীবীরা রুখে দাঁড়াবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।’

সাম্প্রদায়িক কার্যকলাপে জড়িত অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি।

/বিআই/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার, গ্রেফতার ৩

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার, গ্রেফতার ৩

তিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

তিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

আইস ও অস্ত্রসহ আটক দু’জন ৯ দিনের রিমান্ডে

আইস ও অস্ত্রসহ আটক দু’জন ৯ দিনের রিমান্ডে

প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৪

কেন্দ্রীয়ভাবে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) এবং ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না। মূল্যায়নের মাধ্যমে ফলাফল দেওয়া হবে।  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এমন প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে অনুমোদিত সারাংশ রবিবার (১৭ অক্টোবর) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পৌঁছেছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মহাপরিচালক বলেন, ‘মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাবের সারাংশ পাঠানো হয়েছিল, প্রধানমন্ত্রী ওই সারাংশে অনুমোদন দিয়েছেন।’ তিনি বলেন, প্রস্তাবে বলা হয়েছিল—মূল্যায়নের মাধ্যমে প্রাথমিকের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ফলাফল দেওয়া হবে। একইভাবে প্রাথমিকের অন্যান্য শ্রেণির ক্ষেত্রেও মূল্যায়নের মাধ্যমে ফলাফল দেওয়া হবে।’

বিদ্যালয়ে বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, ‘আমরা প্রস্তাবে মূল্যায়ন শব্দটি রেখেছি। করোনার সংক্রমণ বেড়ে গেলে বিকল্প মূল্যায়নের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফলাফল দেবে। আর করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে ও ঝুঁকি তৈরির কোনও সম্ভাবনা না থাকলে, বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। নিজ নিজ বিদ্যালয়ে বার্ষিক পরীক্ষা নিয়ে ফলাফল দেওয়া হবে এবং শিক্ষার্থীদের পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করা হবে।’ তিনি বলেন, ‘এবার ইবতেদায়ি সমাপনীও হবে না। তারা আমাদের প্রস্তাবের সঙ্গে সংযুক্ত রয়েছে।’ 

এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছিলেন, প্রাথমিকের সমাপনী (পিইসি), জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা কেন্দ্রীয়ভাবে হবে না। বার্ষিক মূল্যায়নের মতো শ্রেণি মূল্যায়ন করা হবে। আর শ্রেণি মূল্যায়নের ফল অনুযায়ী, বোর্ডের সনদ পাবেন জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার্থীরা। আর বিদ্যালয় থেকে সনদ পাবে পিইসি পরীক্ষার্থীরা।

শিক্ষামন্ত্রী ওইদিন আরও বলেছিলেন, আমরা যেটি করতে চাইছি—সব শ্রেণির শ্রেণি সমাপনী মূল্যায়ন, যেটি চলছে। চলমান অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন চলছে। অষ্টম শ্রেণিরও সমাপনী মূল্যায়ন হবে। সেখানে সামষ্টিক পরীক্ষা হবে—কিছুটা অ্যাসাইনমেন্ট যেটা হচ্ছে, সেটা দিয়ে হবে। আমরা আশা করছি, সনদ এটি দিয়ে দিতে পারবো। তাদের সনদ তো একটা দিতে হবে। অষ্টম শ্রেণির পর অনেকের হয়তো পড়াশোনার সুযোগ হয় না। সেটা আমরা বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক করবো। শিক্ষার্থীরা আগের মতো বোর্ডের সনদ পাবে।’

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, নিজ নিজ বিদ্যালয়ে প্রাথমিকের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করে পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করা হবে। করোনার এই পরিস্থিতিতে সংক্রমণের বিস্তার রোধে কেন্দ্রীয়ভাবে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে না। তবে শিক্ষার্থীরা আগের মতোই সনদ পাবে।’

পিইসি, জেএসসি ও জেডিসি সেরকমভাবে হবে না। তবে ক্লাস সমাপনী মূল্যায়ন—অন্যান্য শ্রেণির মতো হচ্ছে এবং হবে।

প্রসঙ্গত, প্রতি বছর কেন্দ্রীয়ভাবে পিইসি, জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতো। কেন্দ্রীয়ভাবে অনুষ্ঠিত এই পরীক্ষা পাবলিক পরীক্ষা হিসেবে পরিচিত। কারণ, এই পরীক্ষার সনদ দেওয়া হতো বোর্ড থেকে।

করোনার কারণে ২০২০ সালের পিইসি, জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ (ক্লাস প্রশোমন) করা হয়েছে। এবার কেন্দ্রীয়ভাবে পরীক্ষা না নেওয়া হলেও বার্ষিক মূল্যায়ন করা হবে নিজ নিজ বিদ্যালয়ে। বিদ্যালয়ের মূল্যায়নের ভিত্তিতে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার্থীরা বোর্ড সনদ পাবে। তবে পিইসি পরীক্ষার্থীরা বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণিতে উত্তীর্ণের সনদ পাবে।’

 

/এসএমএ/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল প্রকাশ

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল প্রকাশ

ডিনেটের সঙ্গে ইউল্যাবের সমঝোতা স্মারক সই

ডিনেটের সঙ্গে ইউল্যাবের সমঝোতা স্মারক সই

তিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

তিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

ডিনেটের সঙ্গে ইউল্যাবের সমঝোতা স্মারক সই

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩৩

শিক্ষার্থীদের কাজের সুযোগ বাড়াতে ডিনেটের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করেছে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস অব বাংলাদেশ (ইউল্যাব)। রবিবার (১৭ অক্টোবর) মোহাম্মদপুরে ইউল্যাবের স্থায়ী ক্যাম্পাসে উভয় পক্ষের মধ্যে এই স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. সামসাদ মর্তূজা এবং ডিনেটের নির্বাহী পরিচালক এম. শাহাদাত হোসেন এতে স্বাক্ষর করেন। 

ডিনেট একটি সামাজিক উদ্যোগ যা সামাজিক প্রভাব তৈরি করতে এবং প্রতিষ্ঠানগুলোর সক্ষমতা ও উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির জন্য গ্রামীণ ও শহুরে পরিবেশে নারী, শিশু ও যুবকদের জন্য উদ্ভাবনী পণ্য ও পরিষেবার ডিজাইন করে। 

ডিনেটের নিয়মিত ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে ইউল্যাব ও ডিনেটের মধ্যে অনবোর্ড ইন্টার্নস-এর বিষয়টি সমঝোতা স্মারকে উল্লেখ করা হয়েছে। 

উভয়পক্ষই শিক্ষার্থীদের একাডেমিক প্রোগ্রামের ফাইনাল টার্মে ইউল্যাবের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের ডিনেটে ইন্টার্ন হিসেবে নিয়োগ করতে চায়। ইন্টার্নশিপ করার জন্য শিক্ষার্থীরা একাডেমিক ক্রেডিটও পাবে।

ইউল্যাব বোর্ড অব ট্রাস্টিজের বিশেষ উপদেষ্টা অধ্যাপক ইমরান রহমান, ইউল্যাবের রেজিস্ট্রার লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফয়জুল ইসলাম (অব.), ইউল্যাবের ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড ক্যারিয়ার সার্ভিস অফিসের পরিচালক আবু হেনা এম রাসেলের উপস্থিতিতে এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইউল্যাব কমিউনিকেশনস অফিসের সহকারী অধ্যাপক ও উপদেষ্টা মুহাম্মদ ফয়সল চৌধুরী, ডিনেটের পিপল অ্যান্ড কালচার অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন প্রধান সৈয়দ মাজেদুর রহমান, ডিনেটের পিপল অ্যান্ড কালচার ম্যানেজার ফারজানা আহমেদ এবং অন্যান্য কর্মকর্তারা।

/এমপি/

সম্পর্কিত

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল প্রকাশ

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল প্রকাশ

প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না

প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না

উপজেলা শিক্ষা অফিসার সমিতির সভাপতি মঈনুল, মহাসচিব নাছিমা

উপজেলা শিক্ষা অফিসার সমিতির সভাপতি মঈনুল, মহাসচিব নাছিমা

মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

ডেঙ্গু: হাসপাতালে ভর্তি ২৬ শতাংশই ১১-২০ বছরের

ডেঙ্গু: হাসপাতালে ভর্তি ২৬ শতাংশই ১১-২০ বছরের

২৯ জেলায় শনাক্ত নেই

২৯ জেলায় শনাক্ত নেই

শতকোটি টাকার তালগাছগুলো কোথায়?

শতকোটি টাকার তালগাছগুলো কোথায়?

টিকায় ভালো পরিকল্পনার ঘাটতি আছে: অধ্যাপক ডা. বে-নজির

টিকায় ভালো পরিকল্পনার ঘাটতি আছে: অধ্যাপক ডা. বে-নজির

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

৬২ জেলায় শনাক্ত এক অঙ্কের ঘরে

৬২ জেলায় শনাক্ত এক অঙ্কের ঘরে

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

ডেঙ্গু: ১ থেকে ২০ বছর বয়সী রোগী বেশি

ডেঙ্গু: ১ থেকে ২০ বছর বয়সী রোগী বেশি

সর্বশেষ

আমেরিকান মিশনারি অপহরণে হাইতির গ্যাং জড়িত: কর্মকর্তা

আমেরিকান মিশনারি অপহরণে হাইতির গ্যাং জড়িত: কর্মকর্তা

প্রাণঘাতী বন্যায় ভারতে বহু মানুষ নিখোঁজ

প্রাণঘাতী বন্যায় ভারতে বহু মানুষ নিখোঁজ

ফাতির নৈপুণ্যে পিছিয়ে পড়েও বার্সেলোনার দুর্দান্ত জয়

ফাতির নৈপুণ্যে পিছিয়ে পড়েও বার্সেলোনার দুর্দান্ত জয়

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

© 2021 Bangla Tribune