X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

আত্মীয়ের বাড়ি যাওয়া হলো না তাদের

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২২

বগুড়ায় বাসের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দুই যাত্রী নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরও চারজন। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা জানিয়েছেন, হতাহতরা একই পরিবারের।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে শহরতলির ঝোপগাড়ী এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের স্থানীয় টিএমএসএস মেডিক্যাল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

নিহতরা হলেন—বগুড়া সদরের শাখারিয়া ইউনিয়নের নামাবালা গ্রামের আবদুর রফিকের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম আনো (৪৫) ও একই গ্রামের আজাহার আলীর স্ত্রী হামিদুন বেগম (৫৫)। আহতরা হলেন—অটোরিকশাচালক রোকন (৩৫), যাত্রী রাখি মনি (১৩), জুঁই (১৬), আজাহার আলী (৬০) ও আবদুর রফিক (৫০)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, একই পরিবারের ছয় সদস্য শুক্রবার সকালে জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে আত্মীয়ের বাড়ি যাচ্ছিলেন। একটি অটো রিকশায় শহরতলির চারমাথায় কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের দিকে রওনা দেন তারা। অটোরিকশা চারমাথার কাছে ঝোপগাড়ি এলাকায় পৌঁছালে ঢাকা থেকে রংপুরগামী একটি অজ্ঞাত বাস সামনে থেকে ধাক্কা দেয়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে চায়। 

বাস নিয়ে চালক পালিয়ে গেলে স্থানীয়রা আহত ছয়জনকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল এবং টিএমএসএস হাসপাতাল ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে শজিমেক হাসপাতালে আনোয়ারা বেগম ও টিএমএসএস হাসপাতালে হামিদুন বেগমের মৃত্যু হয়।

বগুড়ার উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই রহিম উদ্দিন বলেন, দুর্ঘটনার পর চালক বাসটি নিয়ে পালিয়ে গেছে। ঘাতক বাসটি শনাক্ত ও চালককে গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। দুই জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সদর থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পাত্র দেখানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ, ঘটক গ্রেফতার

পাত্র দেখানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ, ঘটক গ্রেফতার

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, নিহত ২

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, নিহত ২

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

গরুকে ধাক্কা দেওয়ার জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ১

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৩৪

সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে সিএনজিচালিত অটোরিকশা দিয়ে গরুকে ধাক্কা দেওয়ার জেরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে লালু মিয়া (৪৫) নামে একজন নিহত হয়েছেন। রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে উপজেলার জয়কলস গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। লালু মিয়া ওই গ্রামের মৃত খুরশিদ মিয়ার ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার দুপুরে জয়কলস গ্রামের আমির আলীর ছেলে হেলাল মিয়া প্রতিবেশী শহীদ মিয়ার গরুকে সিএনজিচালিত অটোরিকশা দিয়ে ধাক্কা দেন। এতে শহীদ মিয়া ও আবুল লেইছের লোকজনের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। আজ সকালে বিষয়টি মীমাংসার জন্য গ্রামবাসীর উদ্যোগে জয়কলস পয়েন্টে উভয়পক্ষের লোকজন নিয়ে সালিশ বৈঠকে বসেন। এ সময় উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে লিলু মিয়া গুরুতর আহত হন। আহত হন উভয়পক্ষের অন্তত নয় জন।

আহতদের সুনামগঞ্জ আড়াইশ শয্যা হাসাপাতালের চিকিৎসা দেওয়া হয়। গুরুতর আহত লিলুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বিকালে তার মৃত্যু হয়েছে।

আহতরা হলেন- জয়কলস গ্রামের আবুল লেইছ পক্ষের মৃত নোয়াজ আলীর ছেলে আমির আলী (৫৫), আমির আলীর ছেলে হেলাল মিয়া (৩৫), রইছ উদ্দিনের ছেলে ছালে আহমদ ও সাইদ আহমদ (২২), একই গ্রামের শহীদ মিয়ার পক্ষের হোসেন আহমদের ছেলে সৈয়দুর রহমান (২৮)। 

শান্তিগঞ্জ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক আলাউদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। 

শান্তিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মোক্তাদির হোসেন জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যালে হচ্ছে ‘শ্রীমঙ্গলের চা পাতা’

কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যালে হচ্ছে ‘শ্রীমঙ্গলের চা পাতা’

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, নিহত ২

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, নিহত ২

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১৮

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গাদের শীর্ষস্থানীয় নেতা মো. মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিল তার পরিবারের সদস্যরা। মুহিবুল্লাহর পরিবারসহ ৯ পরিবারকে অন্যত্র একটি সেন্টারে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তবে ইতোমধ্যে তারা বাংলাদেশ-মিয়ানমার ছাড়া ছাড়া অন্য কোনও দেশে (থার্ড কান্ট্রি) আশ্রয়ের আবেদন করেছেন। জাতিসংঘ এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার মাধ্যমে সম্প্রতি সংশ্লিষ্টদের কাছে এই আবেদন করেছেন তারা। তবে তারা কোন দেশে যাচ্ছেন যা যেতে চান—সে বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি।

মুহিবুল্লাহর পরিবার ছাড়াও আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) অন্যতম সদস্য মোহাম্মদ নওখিমসহ সংগঠনের কিছু সদস্য এবং মুহিবুল্লাহর ঘনিষ্ঠসহ মোট ১১টি পরিবার বাংলাদেশ-মিয়ানমারের বাইরে অন্য কোনও দেশের আশ্রয় নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছেন।

এ বিষয়ে রবিবার (১৭ অক্টোবর) শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) শাহ রেজওয়ান হায়াত বলেন, আমাদের কাছে মুহিবুল্লাহর পরিবার কোনও আবেদন করেনি। তাছাড়া বিষয়টি আমাদের এখতিয়ারের বাইরে। তবে যদি তারা কোনও দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেখানে যেতে চায় সেক্ষেত্রে সেদেশের সঙ্গে সকল প্রক্রিয়া শেষে কাগজপত্রগুলো পররাষ্ট্র দফতর থেকে আমাদের কাছে আসবে। তারপরই বলা সম্ভব, তারা অন্য কোনও দেশে যাচ্ছেন কিনা।

এদিকে মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করার পর থেকে তার ছোট ভাই হাবিব উল্লাহ, স্ত্রী নাসিমা খাতুনসহ অন্যান্য আত্মীয়স্বজনদের অপরিচিত নম্বর থেকে মোবাইলে টেক্সট ও ভয়েজ মেসেজ পাঠিয়ে প্রতিনিয়ত হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অপরদিকে পুলিশ বলছে, এসব হুমকির ঘটনা কেন এবং কারা ঘটাচ্ছে তা নিয়েও কাজ করছেন মামলাটির তদন্তকারীরা।

মুহিবুল্লাহর পরিবার ও এআরএসপিএইচ সংগঠনে নেতারা জানান, মুহিবুল্লাহ হত্যার পর তারা সবাই ক্যাম্পের খুব ভয়ভীতির মধ্য ছিলেন। এরপর তারা নিরাপত্তার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। এরপরও মুহিবুল্লাহর পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার তাদের ক্যাম্প থেকে সরিয়ে অন্য একটি জায়গায় নেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যেই মুহিবুল্লাহ পরিবার, আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) সংগঠনের কিছু সদস্যসহ মোট ১১টি পরিবার বাংলাদেশ-মিয়ানমার ছাড়া ছাড়া অন্য কোনও দেশে বসতি স্থাপন করতে চেয়ে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার এবং যুক্তরাষ্ট্র বরাবর আবেদন করেন। আবেদনে তারা যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া বা কানাডা নাম উল্লেখ করেছেন। এসব বিষয়ে আলোচনায় লিড করছেন এআরএসপিএইচ-এর অন্যতম সদস্য মোহাম্মদ নওখিম। তবে এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

তবে মুহিবুল্লাহর ভাগনে এবং আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস (এআরএসপিএইচ)-এর মুখপাত্র রশিদ উল্লাহ বলেন, জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে দুই দফায় ১১টি পরিবার থার্ড কান্ট্রি যেতে চেয়ে ত্রাণ শরণার্থী ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার এবং যুক্তরাষ্ট্রে আবেদন করেছি। তার মধ্য আমরা তিন দেশের কথা উল্লেখ করেছি। এসব দেশের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হচ্ছে। তবে এখনও কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। তাছাড়া ইতোমধ্য আমাদের ক্যাম্প থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সেখানে আমরা ক্যাম্প থেকে ভালো আছি।

‘থার্ড কান্ট্রি’-তে  যাবার বিষয়টি আমাদের জানা নেই উল্লেখ করে ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার নাঈমুল হক বলেন, মুহিবুল্লাহর পরিবারসহ কয়েকজনকে ক্যাম্পের ভেতরে একটি সেন্টারে সরিয়ে রাখা হয়েছে। বিষয়টি এমন-না যে, নিরাপত্তাজনিত কারণে তাদের সরিয়ে রাখা হয়েছে। মূলত মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল থেকে তাদের সরিয়ে রাখা হয়। যেহেতু ‘ক্রাইম সিন’ এলাকায় লোকজন যাওয়া আসা নিষিদ্ধ। তাদের সেখানে আমরা পূর্ণ-নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছি।

/এমআর/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যালে হচ্ছে ‘শ্রীমঙ্গলের চা পাতা’

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০৯

নিম্নমানের চা পাতার সঙ্গে কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে ‘শ্রীমঙ্গলের বিখ্যাত চা পাতা’ তৈরি করা হচ্ছে। এই চা পাতা কিনে ঠকছেন দেশ-বিদেশ থেকে আসা পর্যটকরা। এতে বিপাকে পড়েছেন প্রকৃত চা ব্যবসায়ীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শ্রীমঙ্গল উপজেলায় একটি চক্র চা গাছের পরিত্যক্ত শুকনো পাতা, অন্যান্য গাছের পাতা, কাঠের গুঁড়া ও চা কারখানার ময়লা সংগ্রহ করে। এসব উপকরণের সঙ্গে কেমিক্যাল মিশিয়ে বিষাক্ত চা পাতা তৈরি করা হয়। ওই চা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

এ অবস্থায় ভেজাল চা পাতার ব্যবসায়ীদের ধরতে শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত সিন্দুরখান ইউনিয়নের ভারতীয় সীমান্তবর্তী ১৯৪৫ পিলার এম সংলগ্ন সিক্কা গ্রামে অভিযান চালান ৫৫ বিজিবির সদস্যরা। অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভেজাল চা পাতা উদ্ধার হয়।

শ্রীমঙ্গল ৫৫-বিজিবির অধিনায়ক এস এন এম সামীউন্নবী চৌধুরী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সীমান্তবর্তী সিক্কা গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে মো. নুরু মিয়া ও মৃত আব্দুল বারীর ছেলে আব্দুর রহিম এবং একই গ্রামের আব্দুল মজিদের বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ পরিত্যক্ত চা পাতা উদ্ধার করা হয়। তারা দীর্ঘদিন ধরে ভেজাল চা পাতা দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করছিলেন। অভিযানের সময় বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে ওই চক্রের সদস্যরা পালিয়ে যান।

৫৫ বিজিবির সহকারী পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পচা পাতা, চা পাতার গুঁড়া ও কয়লার গুঁড়াসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর কেমিক্যাল মিশিয়ে চা পাতা তৈরি করা হয়। এসব চা পাতা হকার ও দেশের বিভিন্ন এলাকার কিছু চা ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করা হচ্ছে।

শ্রীমঙ্গলের ফিনলে টি কোম্পানির পরিবেশক ফাহিম এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারণে স্বনামধন্য কোম্পানির প্যাকেটজাত ফিনলে চাসহ বিভিন্ন চা বাগানের মানসম্মত চা বিক্রি করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। ক্রেতারা ভেজাল চা পাতা কিনে প্রতারিত হওয়ার কারণে দ্বিতীয়বার চা কিনতে দ্বিধা করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুন শ্রীমঙ্গল সেক্টরের নিয়ন্ত্রণাধীন ৫৫ বিজিবির সদস্যরা উপজেলার সিন্দুরখান ইউনিয়নের হামিদপুরের মৃত ছাবু মিয়ার ছেলে ভুটু মিয়ার বাড়িতে ও একই গ্রামের আবু ছায়েদ মিয়ার ছেলে সুহেল মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ছোট-বড় ২৪টি বস্তায় প্রায় ৫০০ কেজি ভেজাল চা ও ২০০ কেজি কাঠের গুঁড়া জব্দ করেছিলেন।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৬

চুয়াডাঙ্গায় ৭৩ বস্তা ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার দত্তাইল এলাকায় একটি দোকানে অভিযান চালিয়ে এসব ভেজাল সার জব্দ করা হয়। এ সময় ওই দোকানি নয়ন আহমেদকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নয়ন দত্তাইল গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে। 

জানা গেছে, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে দত্তাইল বাজারের নয়ন ট্রেডার্সে অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এবং সদর উপজেলা কৃষি বিভাগের যৌথ একটি দল। এ সময় ওই দোকান থেকে ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করা হয়। 

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের চুয়াডাঙ্গা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ জানান, ঝিনাইদহের শৈলকুপা এলাকার জনৈক নাজমুলের কাছ থেকে এসব সার সংগ্রহ করেছেন নয়ন। এগুলো সংরক্ষণের দায়ে দোকান মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভেজাল সার ধ্বংস ও দোকানের সার বিক্রির লাইসেন্স জব্দ করা হয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৪

কুষ্টিয়ায় স্বর্ণ চোরাচালানের মামলায় নির্মল দত্ত (৬৪) নামে একজনকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এই রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত নির্মল দত্ত কুষ্টিয়া শহরের আমলাপাড়া এলাকার মৃত মনিন্দ্র নাথ দত্তের ছেলে। 

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১ মার্চ বিকালে আমলাপাড়া এলাকার নুরুল ইসলাম লেনের বাসায় তল্লাশি করে সোনার বারসহ নির্মল দত্তকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১২। সে সময় তল্লাশি করে র‍্যাব তিনটি বড় ও আটটি ছোট স্বর্ণের বার উদ্ধার করে। উদ্ধার ওই স্বর্ণের ওজন ছিল ৩৮৭ দশমিক ৬৫ গ্রাম। 

এ ঘটনায় কুষ্টিয়া র‍্যাব-১২ বাদি হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেন। পরে মামলার তদন্ত শেষে পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চ অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। আদালত সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ১৭ অক্টোবর রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নির্মল দত্তকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় নির্মল দত্তকে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পাত্র দেখানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ, ঘটক গ্রেফতার

পাত্র দেখানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ, ঘটক গ্রেফতার

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, নিহত ২

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, নিহত ২

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

নির্বাচনি প্রচারণার সময় ইউপির সদস্য প্রার্থীর মৃত্যু

নির্বাচনি প্রচারণার সময় ইউপির সদস্য প্রার্থীর মৃত্যু

টিকার লাইনে দাঁড়ানো নারীর চেইন ছিনতাই, আটক ৫

টিকার লাইনে দাঁড়ানো নারীর চেইন ছিনতাই, আটক ৫

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

সর্বশেষ

সম্প্রীতি বিনষ্টের জন্য ষড়যন্ত্র চলছে: জিএম কাদের

সম্প্রীতি বিনষ্টের জন্য ষড়যন্ত্র চলছে: জিএম কাদের

গরুকে ধাক্কা দেওয়ার জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ১

গরুকে ধাক্কা দেওয়ার জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ১

করোনা টিকা দিতে ৯ কোটি সিরিঞ্জ কিনছে সরকার

করোনা টিকা দিতে ৯ কোটি সিরিঞ্জ কিনছে সরকার

ভারতের আইএসএল থেকে ডাক পেলেন তপু বর্মণ

ভারতের আইএসএল থেকে ডাক পেলেন তপু বর্মণ

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

© 2021 Bangla Tribune