X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

‘পারিবারিক নির্যাতন কমাতে মোটিভেশন চলছে’

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৫৯

১৩ মাসে মিরপুর ডিভিশনের দায়িত্ব পালন করে ১১ বারই ডিএমপিতে শ্রেষ্ঠ ডিসি হয়েছেন উপ-পুলিশ কমিশনার এএসএম মাহাতাব। মিরপুরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) তার সঙ্গে কথা হয় বাংলা ট্রিবিউনের।

বাংলা ট্রিবিউন: সামাজিক কিংবা পারিবারিক নির্যাতন কমাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কেমন ব্যবস্থা নিচ্ছে? বিশেষ করে মিরপুর জোনের পরিস্থিতি কেমন?

এএসএম মাহাতাব: মিরপুরে ৫০ লাখেরও বেশি মানুষ থাকে। ডিএমপির সবচেয়ে বড় বিভাগ এটি। নিম্ন, নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্তের লোকজনও এখানে বেশি। ভাসমান লোকও প্রচুর। তুচ্ছ ঘটনায় সামাজিক এবং পারিবারিক কারণে যেন কারও ক্ষতি না হয় তা নিয়ে ব্যক্তিগতভাবে মোটিভেশনের কাজটি করে আসছি। সম্পর্কের ভাঙন ও এর বিপদ সম্পর্কে পরিবারগুলোকে জানাচ্ছি। পারিবারিক কিংবা সামাজিক নির্যাতনের ঘটনায় অনেকেই আমাদের কাছে আসছেন সহায়তার জন্য। আমরা আমাদের কর্মপরিকল্পনার কিছু সময় এ কাজে রাখি। এতে আমি মনে করি অন্য অপরাধের প্রবণতাও কমে আসবে।

বাংলা ট্রিবিউন: পারিবারিক বা সম্পর্কজনিত অপরাধে নতুন কোনও ট্রেন্ড কি দেখতে পাচ্ছেন?

এএসএম মাহাতাব: বিভিন্ন সময় ধর্ষণের অভিযোগে যারা থানায় মামলা করতে আসেন তাদের অনেকের ঘটনা তদন্তে দেখা যায়, পূর্ব সম্পর্কের জেরে তারা শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়েছিলেন। পরে কোনও কারণে মনোমালিন্য হলে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করতে চাচ্ছেন। এসব আমরা খতিয়ে দেখি। পরিবারের সঙ্গে কথা বলি আবার আইনানুগ ব্যবস্থাও নিই। ইদানিং দেখা যাচ্ছে অর্থ আদায়ের উদ্দেশ্যেও অনেকে নির্যাতনের মামলা দায়েরের চেষ্টা করছে। এ ধরনের সেনসিটিভ বিষয়গুলো এখন সতর্কতার সঙ্গে দেখছি।

বাংলা ট্রিবিউন: মাদকের বিরুদ্ধে অভিযানে কেমন সাফল্য রয়েছে মিরপুরে?

এএসএম মাহাতাব: মাদক তো গোটা দেশে ছড়িয়ে আছে। মিরপুর বিভাগে মাদকের যে ট্রেন্ড তাতে পুরোপুরি নির্মূল করা সম্ভব না হলেও নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। আগের চেয়ে ৪০ থেকে ৪৫ ভাগ মাদক-মামলা বেড়েছে। বড় কয়েকজন কারবারিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বাংলা ট্রিবিউন: সন্ত্রাস-চাঁদাবাজিতে জড়িতদের বিরুদ্ধে কেমন অ্যাকশনে যাচ্ছেন?

এএসএম মাহাতাব: এ সবে জড়িতদের তালিকা আমরা গণমাধ্যমে প্রকাশ করি না। তবে অনেকের তথ্য রয়েছে। তালিকা হালনাগাদ করা হচ্ছে। বিভিন্ন ঘটনা বিশ্লেষণ করে দেখতে পেয়েছি, অনেক ক্ষেত্রে ব্যক্তি স্বার্থে ব্যবহার করা হচ্ছে এই চাঁদাবাজির ঘটনা। কাউকে ফাঁসানো বা বিব্রত করতে কিংবা জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধেও চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা করা হচ্ছে। তদন্ত করে এসব জানতে পেরেছি। আবার ‘বড় সন্ত্রাসী’ পরিচয়ে চাঁদা চাইলে অনেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আসতে চান না। অথচ চাঁদাবাজি বা সন্ত্রাসের প্রশ্নে দ্বিমত বিবেচনা করা হয় না। সবাইকে বলবো- কেউ চাঁদা চাইলে দ্রুত পুলিশের সহায়তা নিন।

বাংলা ট্রিবিউন: রাজধানীতে ঢোকার মুখে মিরপুর বেড়িবাঁধ ও গাবতলীর নিরাপত্তায় কী ধরনের নজরদারি রয়েছে?

এএসএম মাহাতাব: গাবতলী এলাকায় সার্বক্ষণিক তল্লাশি চলে। এই কাজে দারুসসালাম থানা, টেকনিক্যাল পুলিশ বক্স, দারুসসালাম পুলিশ ফাঁড়ি, গাবতলী পুলিশ বক্স-এ দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা নিয়োজিত থাকেন। মিরপুর বেড়িবাঁধে আমাদের বিশেষ নজরদারি রয়েছে। বিশেষ করে রাতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

বাংলা ট্রিবিউন: গাবতলী বাস টার্মিনাল কেন্দ্রিক ভ্রাম্যমাণ ছিনতাই ঠেকাতে কী ব্যবস্থা রাখা হয়েছে?

এএসএম মাহাতাব: এই টার্মিনালের নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত রয়েছেন। মালিক ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে সমন্বয় করে আমাদের কার্যক্রম চলছে। আগের চেয়ে গাবতলী টার্মিনালে চুরি-ছিনতাই কমেছে। সন্ধ্যার পর রাত অবধি যেসব বাস গাবতলী থেকে বিভিন্ন জায়গা ছেড়ে যায়, সেগুলোর যাত্রীদের ভিডিও ধারণ করা হয় মালিক ও পরিবহন শ্রমিক নেতাদের সহায়তায়। এতেও অনেকে অপরাধ করার সাহস পায় না।

বাংলা ট্রিবিউন: থানাগুলোকে জনবান্ধব করার কোনও পরিকল্পনা আছে?

এএসএম মাহাতাব: অনেকেই তো বলে ‘পুলিশ খারাপ’। তথাপি, থানায় প্রতিদিন মামলা হচ্ছে, জিডি হচ্ছে। তবে কেউ কেউ থানাকে নিজের মতো করে ব্যবহার করতে চান। মানবিক, ব্যক্তিগত বা এখতিয়ারের বাইরের কোনও কাজে থানা সম্পৃক্ত হয় না। এটাও অনেকে মানতে চান না। আবার কেউ যদি মিথ্যা মামলা করতে চান আর বিষয়টি যদি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জেনে থাকেন তবে অবশ্যই ওই মামলা তিনি নেবেন না। অনেকে এই ক্ষোভ থেকেও বলেন থানায় মামলা বা জিডি নেয় না। সত্যিকারের ভুক্তভোগীরা ঠিকই থানায় আসেন। পুলিশি সেবাও পেয়ে থাকেন।

বাংলা ট্রিবিউন: ভুইফোঁড় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে নজরদারি রয়েছে কি?

এএসএম মাহাতাব: নামসর্বস্ব কয়েকটি পত্রিকার পরিচয় দিয়ে অনেকেই পুলিশের কাজে ব্যাঘাত ঘটানোর চেষ্টা করেন। বিষয়টি আমাদের নজরে আছে। কিছুদিন আগে পল্লবী থানায় চাঁদাবাজি করতে আসা নামসর্বস্ব একটি পত্রিকার দুই সাংবাদিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ছাড়া মিরপুর সাংবাদিক ক্লাব নামে একটি সংগঠন একজনের জমি দখল করে কার্যালয় নির্মাণ করেছিল। সেটাও আমরা উচ্ছেদ করেছি।

বাংলা ট্রিবিউন: সামাজিক নির্যাতনের ঘটনাগুলো কী কারণে আপনার নজরদারিতে এলো?

এএসএম মাহাতাব: আমি ২০২০ সালের ৯ আগস্ট  মিরপুর বিভাগে জয়েন করি। এখানে জয়েন করার সময় আমি দিনে অন্তত ৪০-৫০টি নারী নির্যাতন বিষয়ক অভিযোগ পেতাম। পরে দেখলাম ৭০ ভাগই স্রেফ ক্ষোভের বশে মামলা করতে আসেন। মামলা না নিলে চলে তদবির। এ সময় ভেবে দেখলাম ঘটনার গুরুত্ব সাপেক্ষে তাৎক্ষণিকভাবে যদি তাদের বোঝাতে পারি তবে অনেক সমস্যার দ্রুত সমাধান হয়ে যায়।

বাংলা ট্রিবিউন: আপনাকে ধন্যবাদ।

এএসএম মাহাতাব: পুলিশের বিভিন্ন বিষয়গুলো তুলে ধরার জন্য বাংলা ট্রিবিউনকেও ধন্যবাদ।

মিরপুরের সাত থানার অপরাধচিত্র

চলতি বছরের ১-১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মিরপুরের ৭টি থানায় যত মামলা হয়েছে—  ২টি হত্যাকাণ্ড, ৮টি ধর্ষণ, নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা ৭টি, ছিনতাইয়ের ২টি, চুরির ১৩টি, মাদকের ১১৩টি, অন্যান্য ঘটনায় ৩১টি। এসব মামলায় ৩১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

/এফএ/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৯

রাজধানীর মিরপুর ও দক্ষিণখানে পৃথক ঘটনায় দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি)ভর্তি করা হয়েছে। এসব ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে সংশ্লিট থানার পুলিশ।

মিরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পারুল খান জানিয়েছেন, মিরপুরের বড়বাগ এলাকায় শিশুটির একটি মা মেসে কাজ করেন। মাঝেমধ্যেই শিশুটিকে সেখানে নিয়ে যান।

গত ১৯ অক্টোবর শিশুটিকে নিয়ে কাজে যান। সেখানে পাশেই হোমিও ওষুধ বিক্রি করেন আব্দুল কাদের (৫৫) নামে এক ব্যক্তি। শিশুটি তাকে নানা বলে ঢাকতো। ওই দিন শিশুটি খেলা করছিল, তখন ওই হোমিও ওষুধ বিক্রেতা তাকে আদর করার নামে যৌন নির্যাতন করে। বিষয়টি তার মা প্রথমে বুঝতে পারেননি। পরে শিশুটির অসুস্থতা বোধ করলে তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে তার মাকে জানায়। পরে তার মা থানায় অভিযোগ করেন।

এসআই বলেন, ‘আমরা শারীরিক পরীক্ষা জন্য ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি)ভর্তি করেছি। অভিযুক্ত আব্দুল কাদেরকে (৫৫) গ্রেফতার করা হয়েছে।

অপর দিকে, দক্ষিণখান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রিজিয়া খাতুন জানিয়েছেন, শনিবার সন্ধ্যার দিকে বাড়ির মালিক মুক্তা বেগম ভাড়াটিয়া কিশোরী (১৫) কে বলেন, একই এলাকার প্রতিবেশী আলামিন (২৫) এর কাছ থেকে একশত টাকা নিয়ে আসো। পরে কিশোরী কিছুই বুঝতে পারেনি, সে পাশেই একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে যায়। সেখানে আলামিন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ চেষ্টা করে, সে বাধা দিতে জোরাজুরি করায় প্রথমে মারধর করে, এক পর্যায় জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। সে সময়ে আলামিনের দুই সহযোগী গেইটে পাহারা দেয়। পরে কিশোরী নিজেই থানায় এসে মামলা করেন।

তিনি বলেন, আমরা অভিযুক্ত আলামিনকে গ্রেফতার করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠিয়েছি। আর ভিকটিম কে শারিরীক পরিক্ষার জন্য ঢামেক হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

/এআইবি/এআরআর/জেজে/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

যুবকের জিহ্বা কর্তন: তরুণীসহ তিন জনের জামিন

যুবকের জিহ্বা কর্তন: তরুণীসহ তিন জনের জামিন

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫০

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে স্কুল ছাত্রসহ তিন জন আহত হয়েছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যার পরে রাজধানীর মিরপুর ও উত্তরা পশ্চিম থানা এলাকায় এসব ঘটনা ঘটেছে। তাদেরকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

আহতরা হচ্ছেন,  মিরপুর সরকারি বেঙ্গল মিডিয়াম উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী আজার উদ্দিন রিয়াদ (১৬) মিরপুরের নুরজাহান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আল আমিন (১৫) এবং উত্তরা পূর্ব থানা এলাকায় আল আমিন (২০) নামে এক টিসার্ট বিক্রেতা।

সত্যতা নিশ্চিত করেন ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মোঃ বাচ্চু মিয়া। তিনি বলেন, আহত তিন জন ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বিষয়গুলি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবহিত করা হয়েছে।

মিরপুরে রবিবার সন্ধ্যা ছয়টায় ক্রিকেট স্টেডিয়াম এর বিপরীত পাশে ন্যাশনাল বাংলা হাই স্কুলের পেছনে রাস্তায় দুইজনকে ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় দুজনকে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় ঢামেক হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

মিরপুর ২ নম্বরের স্থায়ী বাসিন্দা আহত রিয়াদ জানান, বাসার পাশেই কোচিং করতে গিয়েছিল। সেখানে পূর্ব পরিচিত রাহুলের চাচাতো ভাই বখাটে শরিফ (১৭) তার পথরোধ করে, উল্টাপাল্টা কথা বলে এক পর্যায়ে  পিঠে ছুরিকাঘাত করে‌। এলাকার ছোট ভাই আলামিন তাকে বাধা দিতে গেলে তাকেও ডান হাতে এবং পিঠে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

তবে আরেক জন জানিয়েছেন শরিফ মাদক সেবী। সে এর আগেও এরকম ঘটনা ঘটিয়েছে।

অন্য দিকে, উত্তরা পূর্ব থানার জয়নাল মার্কেট এর সামনে ৬নং সেক্টর ১০নং রোডে কামাল হোসেন (২০) এক টি-শার্ট বিক্রেতা ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছে।

রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় দিকে তার বন্ধু শুভ (২২) কামালের কাছ থেকে মোবাইল ফোন চাওয়াকে কেন্দ্র করে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে শুভ ছুরিকাঘাত করে কামালকে। তার পিঠে রক্তাক্ত জখম হয়েছে।

আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে তার অন্য বন্ধুরা।

/এআইবি/এআরআর/জেজে/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

যুবকের জিহ্বা কর্তন: তরুণীসহ তিন জনের জামিন

যুবকের জিহ্বা কর্তন: তরুণীসহ তিন জনের জামিন

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫২

রাজারবাগ পীর ও দরবারের বিরুদ্ধে দুদক, সিআইডি ও সিটিটিসিকে তদন্ত করতে বলা হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগের করা আবেদনের শুনানি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

রবিবার (২৪ অক্টোবর) প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের কার্য তালিকা অনুসারে মামলাটি শুনানির শুরুতে এ ঘটনা ঘটে।

আদালতে পীরদের আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী এম কে রহমান। রিটকারীদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না। তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির।

এদিন মামলাটির শুনানির আগে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমাকে এ মামলা থেকে বাদ দিয়ে রাখেন। বেঞ্চের অপর জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলীর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এ বিষয়ে আদেশ দেবেন।’

এরপর এই মামলার শুনানি হয়। শুনানি শেষে মামলাটির আদেশের জন্য সোমবার (২৫ অক্টোবর) দিন নির্ধারণ করেন আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতির সরে দাঁড়ানোর বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা জানান, প্রধান বিচারপতি চাইলে যেকোনও মামলা থেকেই নিজেকে সরিয়ে নিতে পারেন। মূলত মামলার বিষয়ে বাইরে থেকে কোনও হস্তক্ষেপ কিংবা ব্যক্তিগত কারণে মামলা থেকে বিচারপতিদের সরে দাঁড়ানোর নজির এর আগেও অনেক রয়েছে।

এর আগে গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাজারবাগ দরবার শরিফের সব সম্পদের তথ্য খুঁজতে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক), তাদের জঙ্গি সম্পৃক্ততা আছে কিনা, তা তদন্ত করতে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) এবং উচ্চ আদালতে রিটকারী ৮ জনের বিরুদ্ধে করা হয়রানিমূলক মামলার বিষয়ে তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব আদেশ দেন।

পরে ওই আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন জানানো হয়েছিল। গত ১১ অক্টোবর চেম্বার আদালত হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত না করে আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর দিল্লুরসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী ৮ ব্যক্তির পক্ষে অ্যাডভোকেট শিশির মনির হাইকোর্টে  রিটটি দায়ের করেন।

রিটকারীদের মধ্যে শিশু, নারী, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, মাদ্রাসার শিক্ষক ও ব্যবসায়ী রয়েছেন। তাদের প্রত্যেকে রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর ও তাদের মুরিদদের হয়রানিমূলক মামলার শিকার।

রিট আবেদনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব ও আইজিপিসহ মোট ২০ জনকে বিবাদী করা হয়।

/বিআই/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ এর চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ এর চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত

২০ দিনে দুই হাজারেরও বেশি জেলে গ্রেফতার

২০ দিনে দুই হাজারেরও বেশি জেলে গ্রেফতার

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

রেণু হত্যা মামলা: সাক্ষ্য দিলেন বাদীসহ ৩ জন

রেণু হত্যা মামলা: সাক্ষ্য দিলেন বাদীসহ ৩ জন

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ এর চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩৭

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির উদ্যোগে মুজিববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত ১০০ দিনব্যাপী দেশের সর্ববৃহৎ অনলাইন ভিত্তিক ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) বিকাল ৩টায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটের অডিটোরিয়ামে এই লটিারি অনুষ্ঠিত হয়।

করোনা মহামারি উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আয়োজিত এ লটারি অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য  রাখেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ আয়োজনের সার্বিক বিষয়ের ওপরে উপস্থাপনা প্রদান করেন প্রিয় ডটডটকম-এর প্রধান নির্বাহী জাকারিয়া স্বপন।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন— তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল্লাহ।

২০২০ সালের ১ ডিসেম্বর থেকে ১০ মার্চ ২০২১ পর্যন্ত, ১০০ দিন ধরে চলা এই প্রতিযোগিতার ৬৭ লাখ ৩০ হাজার ৩৭৩টি সঠিক উত্তরের মধ্য থেকে কম্পিউটারাইজড লটারির মাধ্যমে অতিথিরা ১০০ জনকে চূড়ান্ত বিজয়ী হিসেবে নির্বাচন করেন। আশা করা যাচ্ছে যে, পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লটারিতে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করবেন।

অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন— জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির কার্যালয়ের কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ বিশ্বিবিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সহযোগিতায় আয়োজিত এ লটারি অনুষ্ঠানে স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার ছিল তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং বাস্তবায়ন সহযোগী হিসেবে ছিল প্রিয়ডটকম। এছাড়া এই আয়োজনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল দারাজ বাংলাদেশ, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়, ইউনাইটেড গ্রুপ ও টেলিটক বাংলাদেশ। অনুষ্ঠানটি প্রিয়ডটকমের ফেসবুক ও ইউটিউব পেজে সরাসরি  প্রচার করা হয়। খবর: বাসস

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

২০ দিনে দুই হাজারেরও বেশি জেলে গ্রেফতার

২০ দিনে দুই হাজারেরও বেশি জেলে গ্রেফতার

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

রেণু হত্যা মামলা: সাক্ষ্য দিলেন বাদীসহ ৩ জন

রেণু হত্যা মামলা: সাক্ষ্য দিলেন বাদীসহ ৩ জন

ইলিশ সংরক্ষণ

২০ দিনে দুই হাজারেরও বেশি জেলে গ্রেফতার

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৩

ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে গত ২ দিনে অন্তত দুই হাজার ৭০ জন জেলেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। একই সময়ে এক হাজার ৪৫টি মাছ ধরা নৌকা ডুবিয়ে দিয়েছে নৌ-পুলিশ। এ সময় নৌ-পুলিশের পর হামলার ঘটনাও ঘটেছে। এসব ঘটনায় দুই শতাধিক মামলা দায়ের হয়েছে। অভিযানে জব্দ হওয়া ৩০ হাজার কেজি ইলিশ মাছ বিতরণ করা হয়েছে বিভিন্ন এতিমখানায়

গত ৪ অক্টোবর থেকে ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান শুরু হয়। ২ অক্টোবর ছিল অভিযানের ২০তম দিন। এই ২০ দিনে দেশের ইলিশ প্রজনন নদীতে অভিযান চালায় নৌ-পুলিশ।

গ্রেফতার ও হামলা

নিষে অমান্য করে মাছ শিকারের ঘটনায় ২২৯টি মামলা হয়েছে। এরমধ্যে ২২৬টি মামলা মৎস্য আইনে এবং তিনটি পুলিশের পর আক্রম করার মামলা।

অপরদিকে২৪৩টি মোবাইল কোর্টে ৩৭৮ জনকে প্রায় ৩০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ৮৬৮ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে। মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ২৭৫ জনকে

ডুবিয়ে দেয়া হয়েছে সহস্রাধিক নৌকা

২০ দিনে দুই হাজারের বেশি মাছ ধরা নৌকা ও ট্রলার আটক করেছে নৌ-পুলিশ। এরমধ্যে অন্তত এক হাজার ৪৫টি নৌকা ডুবিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। ৪৪৪টি নৌকা নৌ-পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে। দুটি নৌকা মালিকের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে আটক করা ৪২৯টি ট্রলারের মধ্যে ৯০টি নৌ-পুলিশের ফাঁড়িতে রাখা হয়েছে।ধ্বংস করা হয়েছে ৩২৯টি ট্রলার। মালিকের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে ৫টিচারটি ট্রলার নেওয়া হয়েছে মৎস্য অফিসারদের হেফাজতে এবং একটি ট্রলার মুচলেকার মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ৩৬টি ফিশিং বোট মালিকের জিম্মায় ফেরত দেওয়া হয়েছে।

পোড়ানো হয়েছে ৮০ কোটি মিটার জাল

অভিযানে ৮০ কোটি চার লাখ ৩৬ হাজার মিটার বিভিন্ন ধরনের জাল জব্দ করা হয়। এরমধ্যে কারেন্ট জালচায়না চাইসিনথেটিক জালচরঘেরা জালরিং জালবেড়া জালটোনা জালমশারি জাল ও সুতার জাল রয়েছে। সবই পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

নৌ-পুলিশের অতিরিক্ত এসপি সাথী রানী শর্মা জানান, ‘ইলিশ সংরক্ষণে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী নৌ-পুলিশ দেশের নদীগুলোতে কড়া পাহারায় ছিল। যারা আইন অমান্য করে ইলিশ ধরেছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

সাড়ে পাঁচ লাখ জেলে পরিবারকে সহায়তা

ইলিশ আহরণ বন্ধ থাকাকালে এ বছর ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৪৪টি জেলে পরিবারের জন্য ১১ হাজার ১১৮ দশমিক ৮৮ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ সময় পাশের দেশের জেলেরা যাতে দেশের সীমানায় মাছ ধরতে না পারে সেজন্য তৎপর ছিল কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী

উল্লেখ্যইলিশ সংরক্ষণে প্রটেকশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ অ্যাক্ট১৯৫০’-এর অধীনে প্রণীত প্রটেকশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ রুলস১৯৮৫’ অনুযায়ী ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরণপরিবহনমজুত, বাজারজাতকরণক্রয়-বিক্রয় নিষিদ্ধ করে গত ২৬ সেপ্টেম্বর প্রজ্ঞাপন জারি করে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। আইন অমান্যকারী কমপক্ষে ১ ও সর্বোচ্চ ২ বছর সশ্রম কারাদণ্ড অথবা পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবে।

/এফএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ এর চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ এর চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

রেণু হত্যা মামলা: সাক্ষ্য দিলেন বাদীসহ ৩ জন

রেণু হত্যা মামলা: সাক্ষ্য দিলেন বাদীসহ ৩ জন

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

পলাশীতে গাছ থেকে পড়ে রিকশাচালকের মৃত্যু

যুবকের জিহ্বা কর্তন: তরুণীসহ তিন জনের জামিন

যুবকের জিহ্বা কর্তন: তরুণীসহ তিন জনের জামিন

ডিএমপির কেউ দুর্নীতি করলে কঠোর ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

ডিএমপির কেউ দুর্নীতি করলে কঠোর ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

সোশাল মিডিয়া নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ ডিএমপি কমিশনারের

সোশাল মিডিয়া নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ ডিএমপি কমিশনারের

‘ভুয়া’ ভিডিও প্রচার: কলেজশিক্ষক রুমা কারাগারে

‘ভুয়া’ ভিডিও প্রচার: কলেজশিক্ষক রুমা কারাগারে

আগে চাঁদা দাবি, না দিলে ডাকাতি

আগে চাঁদা দাবি, না দিলে ডাকাতি

আবরার হত্যা মামলা: আসামিদের মৃত্যুদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ

আবরার হত্যা মামলা: আসামিদের মৃত্যুদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ

সর্বশেষ

কানাডা উপকূলে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত গ্যাস

কানাডা উপকূলে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত গ্যাস

১০ জন নিয়ে ড্র করলো পিএসজি

১০ জন নিয়ে ড্র করলো পিএসজি

কলম্বিয়ার মাদক মাফিয়া আটক, পাঠানো হবে যুক্তরাষ্ট্রে

কলম্বিয়ার মাদক মাফিয়া আটক, পাঠানো হবে যুক্তরাষ্ট্রে

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

হামলাকারীদের বিরুদ্ধে সরকারের কঠোর ব্যবস্থা সন্তোষজনক: ব্রিটিশ হাইকমিশনার

হামলাকারীদের বিরুদ্ধে সরকারের কঠোর ব্যবস্থা সন্তোষজনক: ব্রিটিশ হাইকমিশনার

© 2021 Bangla Tribune