X
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারের গড়িমসির ব্যাখ্যা তলব

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৫২

আদালতের আদেশ যথাসময়ে না পাঠানোয় হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে ব্যাখ্যা তলব করেছেন হাইকোর্ট। আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার মো. গোলাম রব্বানীকে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দাখিল করতে বলা হয়েছে।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে লিখিত আদেশ দেন।

আদালতে রিটকারীর অ্যাডভোকেট সৈয়দ নাসরিন শুনানিতে ছিলেন।

এর আগে গত ১৪ জুন কক্সবাজার সদরের বাঁকখালী নদীর তীরবর্তী উত্তর মুহুরিপাড়ার প্রায় ৬০ একর জমি অবৈধভাবে দখল ও ভরাটের অভিযোগের বিষয়ে বিচারিক অনুসন্ধান করতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। কক্সবাজারের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে ৬০ দিনের মধ্যে অনুসন্ধান করে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়। একইসঙ্গে ভরাট কার্যক্রমের ওপর স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) পক্ষে করা এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. মুজিবর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

আদালতের এই আদেশ কক্সবাজারের চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে কমিউনিকেট করতে হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারকে বলা হয়। কিন্তু হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার যথাসময়ে আদালতের আদেশ প্রেরণ না করায় হাইকোর্ট তাকে ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দিলেন।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১৪ মার্চ একটি জাতীয় দৈনিকে ‘কক্সবাজার অবৈধভাবে ভরাট হচ্ছে ৬০ একর ফসলি জমি, জমির মালিকরা অসহায়, প্রশাসন নীরব’ শীর্ষক প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে এ রিট করে আইন ও সালিশ কেন্দ্র-আসক। প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, কক্সবাজার সদরের বাঁকখালী নদীর তীরবর্তী উত্তর মুহুরিপাড়ার তিন ফসলি প্রায় ৬০ একর উর্বর জমি ভরাট করে ফেলা হচ্ছে। দুই কিলোমিটার দূরত্বে গড়ে ওঠা রেলস্টেশনকে কেন্দ্র করে বাণিজ্যিক চিন্তায় আবাসন প্রকল্প গড়তেই আইন উপেক্ষা করে রাত-দিনে এসব জমি ভরাট করছে ভূমিদস্যু চক্র।

/বিআই/এমএস/

সম্পর্কিত

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

রাজধানীতে প্রতিদিন ৬ শতাধিক যানবাহনে মামলা, বেশিরভাগই মোটরসাইকেলে

রাজধানীতে প্রতিদিন ৬ শতাধিক যানবাহনে মামলা, বেশিরভাগই মোটরসাইকেলে

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার অপরাধী যে দলেরই হোক, বিচার হবে: আইনমন্ত্রী

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩২

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় অপরাধী ছাত্রলীগ হোক বা যে দলেরই হোক না কেন, তার বিচার হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

রবিবার (২৪ অক্টোবর) বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে (জাতি) এক প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব মন্তব্য করেন।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় এক ছাত্রলীগ নেতার নাম আসার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে আনিসুল হক বলেন, ছাত্রলীগ বা অন্য লীগ বা অন্য দল... এসব না। যারা অপরাধ করবে তাদের বিচার হবে। সে যেই দলেরই হোক, যে গোষ্ঠীরই হোক, যে জাতিরই হোক। অপরাধী কিন্তু অপরাধীই, তার বিচার হবে।

‘আওয়ামী লীগ অবশ্যই অসম্প্রাদায়িক রাজনীতিতে বিশ্বাস করে’ উল্লেখ করে আইনমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের মানুষকেও সে দীক্ষায় দীক্ষিত করেছেন বলে জনগণ সাম্প্রদায়িক রাজনীতির দিকে ঝুঁকে না। সেক্ষেত্রে কেউ যদি ব্যক্তিস্বার্থে অন্যায় করে সেটাও অন্যায় এবং তাকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।

এদিকে আজ রবিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রতিক সময়ের সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। এ সংক্রান্ত একটি মামলার শুনানিতে নিজের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে তিনি প্রতিক্রিয়াটি দেখিয়েছেন। 

/বিআই/ইউএস/

সম্পর্কিত

‘ইসি গঠনে আইনের প্রয়োজন আছে, তবে এই নির্বাচনের আগে সুযোগ নেই’

‘ইসি গঠনে আইনের প্রয়োজন আছে, তবে এই নির্বাচনের আগে সুযোগ নেই’

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা: রাজারবাগীদের হুঁশিয়ার করলেন আইনমন্ত্রী

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা: রাজারবাগীদের হুঁশিয়ার করলেন আইনমন্ত্রী

খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে মতামত দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়

খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে মতামত দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়

খালেদাকে বিদেশ যেতে হলে জেলে গিয়ে আবেদন করতে হবে: আইনমন্ত্রী

খালেদাকে বিদেশ যেতে হলে জেলে গিয়ে আবেদন করতে হবে: আইনমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পরও নদী রক্ষা হচ্ছে না, ‘জলবায়ু ধর্মঘটে’ প্রশ্ন

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৪০

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন সময়েই নদী দখল মুক্ত করার নির্দেশনা দিয়েছেন। অথচ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানই নদী দখল ও দূষণে যুক্ত হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন পরিবেশবাদীরা। আন্তর্জাতিক জলবায়ু কর্মদিবস দিবস-২০২১- এ  এই ‘দ্বান্দ্বিকতা’ থেকে মুক্তি চেয়ে ‘জলবায়ু ধর্মঘট’ করেছে পরিবেশবাদী সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) এবং ওয়াটার কিপার'স বাংলাদেশ।

রবিবার (২৪ অক্টোবর) সকাল ১১টায় 'নদী ও জলাশয় বাঁচানোর দাবিতে মানবপ্রাচীর' ব্যানারে রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে এই ‘ধর্মঘট কর্মসূচি’ পালন করে সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। 

কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন  বাপার যুগ্ম সম্পাদক ও নদী রক্ষা জোটের আহ্বায়ক শারমিন মোর্শেদ। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘আমাদের এই ঢাকাকে আমরা সেই আগের ঢাকায় দেখতে চাই। যে ঢাকায় স্বচ্ছ নদী প্রবাহিত হতো, ছিল সবুজের সমারোহ; যা পরিবেশ দূষণের ফলে নিঃশেষ প্রায়।  

প্রধানমন্ত্রী বারবার বলার পরও কেন নদী মুক্ত হচ্ছে না- এমন প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বারবার নদী অবমুক্ত করার জন্য কমিশন গঠন করছেন, টাস্ক ফোর্স গঠন করছেন; অথচ সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো, এমনকি খোদ ওয়াটার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডই নদী দখলের কাজের সাথে যুক্ত হয়ে যাচ্ছে, নদী দূষণ করার কাজে যুক্ত হচ্ছে। এই দ্বান্দ্বিকতার মুক্তি আমরা চাই। প্রধানমন্ত্রীর নদী রক্ষা কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে আমাদের সকলকে আসতে হবে এবং ওনার সরকারকে আরও বলিষ্ঠ যায়গায় আসতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ কেন মানা হচ্ছে না- সেটিও আমার প্রশ্ন।’

ধর্মঘটে যুব বাপার সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট রাওমান স্মিতা মূল বক্তব্য পাঠ করেন।  বক্তব্য পাঠকালে তিনি বলেন, ‘প্রতিনিয়ত মানুষের পরিবেশ বিরুদ্ধ নানা কর্মকারের কারণে প্রাকৃতিক উৎপাদিকা শক্তির ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে এবং সামগ্রিকভাবে পরিবেশ বিপর্যয় ঘটছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে দেশের নদী, জলাশয়, জীববৈচিত্র্য এবং পরিবেশের বিপর্যয় আরও তরান্বিত হচ্ছে। আমরা এতদিন জলবায়ু পরিবর্তন ও দূষণের জন্য শুধুই উন্নত দেশগুলোকে দায়ী করেছি; কিন্তু বর্তমানে শুধু উন্নত দেশের মধ্যে এই দূষণ সীমাবদ্ধ নেই। বরং উন্নত, অনুন্নত ও স্বল্পোন্নত, সবাই দূষণের প্রতিযোগিতায় সমানতালে মেতে উঠেছে। এ দূষণ এখনই বন্ধ না করলে আগামী দিনে বাংলাদেশ এবং গোটা পৃথিবী অস্তিত্ব সংকটে পড়বে। 

অসাধু রাজনীতিবিদ ও আমলাদের অতি উৎসাহের কারণে দুষণ হচ্ছে বলে উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, দেশের এক শ্রেণির অসাধু রাজনীতিবিদ ও আমলার অতি উৎসাহের কারণে এধরনের ঘৃণিত কাজগুলো সংগঠিত হচ্ছে। নদী সংক্রান্ত আদালতের নির্দেশনা যথাযথভাবে না মেনে ভুলভাবে নদীর সীমানা চিহ্নিত করে নদীর জায়গায় ওয়াকওয়ে নির্মাণ করে বিস্তীর্ণ অঞ্চল, নদীর পাড় ও ঢাল দখল করে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা সমূহকে বৈধতা দেওয়ার অগ্রহণযোগ্য পদক্ষেপের মাধ্যমে নদীগুলোকে খালে পরিণত করা হচ্ছে। সর্বোপরি অপরিকল্পিত এবং অনিয়ন্ত্রিত বালি উত্তোলনের পাশাপাশি অবৈজ্ঞানিকভাবে খনন বাংলাদেশের নদীগুলোর মৃত্যু নিশ্চিত করছে।

এসময় তিনি বাপা ও ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশের পক্ষ থেকে নদী ও জলাশয় রক্ষায় আট দফা দাবি পেশ করা হয়। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য দাবিগুলো হলো- নদী সংক্রান্ত  হাইকোর্টের ২০০৯ ও সুপ্রিমকোর্টের ২০২০ সালের রায়ের সকল নির্দেশনা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে। জরুরি ভিত্তিতে বুড়িগঙ্গাসহ দেশের সকল নদীতে সঠিকভাবে সীমানা নির্ধারণ, বেদখলকৃত নদীর জমি উদ্ধার ও দখল, সম্পূর্ণভাবে উচ্ছেদ ও নদীর জায়গা নদীকে ফিরিয়ে দিতে হবে। 

নদীতে সকল প্রকার দূষণ বন্ধ করার দাবি করে আরও বলা হয়, নদী থেকে অপরিকল্পিতভাবে সম্পদ আহরণ বন্ধ করতে হবে। নদীর জন্য ধ্বংসাত্মক অবৈজ্ঞানিক খননকাজ বন্ধ করতে হবে। জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনকে কার্যকর ও সক্রিয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে গঠন করতে হবে।

/ইউএস/

সম্পর্কিত

রাতে নদীতে ইলিশ ধরে কারা?

রাতে নদীতে ইলিশ ধরে কারা?

বুড়িগঙ্গা নিয়ে এখনও স্বপ্ন দেখেন তারা

বুড়িগঙ্গা নিয়ে এখনও স্বপ্ন দেখেন তারা

নদী রক্ষায় পৃথক মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি

নদী রক্ষায় পৃথক মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৩:১৭

ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রমাণ পাওয়া সংক্রান্ত পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করা হয়েছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি এসএম মজিবুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে প্রতিবেদনটি দাখিল করা হয়।

আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। প্রতিবেদনে নাম ওঠা অন্য আসামিরা হলেন খালিদ মাহমুদ ভূঁইয়া, এনামুল হক আরমান, রাজীব হোসেন রানা, জামাল ভাটারা, মোমিনুল হক সাঈদ ও শাজাহান বাবলু।

এর আগে বিদেশে অর্থপাচারে জড়িতদের খুঁজে বের করতে নির্দেশ দেয় হাইকোর্টের একই বেঞ্চ। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৭ অক্টোবর পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) কর্তৃক প্রতিবেদনটি হাইকোর্টে আসে। প্রতিবেদন বলা হয়েছে, বিপুল পরিমাণ পাচার হওয়া অর্থ উদ্ধারে কাজ করছে মানি লন্ডারিং ও সন্ত্রাসী অর্থায়ন প্রতিরোধে গঠিত বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)। 

/বিআই/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

রাজধানীতে বাহনের চাপে সড়কে যানজট

রাজধানীতে বাহনের চাপে সড়কে যানজট

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৩:০৫

দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রতিক সময়ের সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। রবিবার (২৪ অক্টোবর) এ সংক্রান্ত একটি মামলার শুনানিতে নিজের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে তিনি প্রতিক্রিয়াটি দেখিয়েছেন। 

সাম্প্রদায়িক হামলা মামলায় ভুয়া অভিযোগ বিবেচনায় আসামিদের ছেড়ে দিলে কী অবস্থা দাঁড়াবে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রধান বিচারপতি। তিনি বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে এ ধরনের আসামিদের জামিন দিলে সমাজে নেতিবাচক বার্তা ছড়াবে।’

এ সময় ফরিদপুরের সালথায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় হাসান মেম্বারের জামিন স্থগিত করেন আপিল বিভাগ। মামলাটির শুনানিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত। 

/বিআই/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

রাজধানীতে বাহনের চাপে সড়কে যানজট

রাজধানীতে বাহনের চাপে সড়কে যানজট

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

রাজধানীতে বাহনের চাপে সড়কে যানজট

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:০৭

রাজধানী ঢাকায় ঘর থেকে বের হলেই সড়কে আটকে থাকার ভোগান্তি যেন নিয়মিত হয়ে পড়েছে। প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে অলিগলি পর্যন্ত যানজট লেগে আছে। এতে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগে পড়েন নগরবাসী। রবিবার (২৪ অক্টোবর) নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

আজ সকালে রাজারবাগ, ফকিরেরপুল, কাকরাইল, দৈনিক বাংলা, বাংলা মোটর, কাওরান বাজার, এফডিসি মোড়, হাতিরঝিল, মগবাজার, শাহবাগ, ফার্মগেট, বিজয় স্মরণীসহ বিভিন্ন এলাকায় তীব্র যানজট লক্ষণীয়। প্রতিটি ট্রাফিক সিগন্যালে কয়েক মিনিট অপেক্ষা করতে হচ্ছে। যানজট নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা। সড়কে অনেকক্ষণ আটকে থাকায় বিরক্তি প্রকাশ করেছেন সাধারণ যাত্রীরা।

তেজগাঁওয়ে এফডিসি মোড়ে মোটরসাইকেল নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন পাঠাও চালক সিরাজ উদ্দিন। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আজ মোড়ে মোড়ে অন্যান্য দিনের তুলনায় যানজট একটু বেশি। প্রতিটি সিগন্যালে ৫-১০ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে।’

রবিবার (২৪ অক্টোবর) রাজধানীর একটি সড়ক থেকে তোলা (ছবি: সাজ্জাদ হোসেন)

মিরপুর থেকে আগারগাঁও এবং মহাখালী হয়ে গুলশান-১ নম্বর পর্যন্ত এসেছে আলিফ বাস। পরিবহনটির সহকারী (হেলপার) রাজ্জাক হোসেনের মন্তব্য, ‘রাস্তায় গতি নিয়ে গাড়ি চালানো যাচ্ছে না। সবখানে যানজট লেগে আছে। খুব ধীরগতিতে চলাচল করতে হচ্ছে। প্রতিটি সড়কে প্রাইভেটকারের সংখ্যাই বেশি।’

তরঙ্গ পরিবহনের চালক গিয়াস উদ্দিনের কথায়, ‘যে পথ অতিক্রম করতে ১৫ মিনিট লাগে, সেখানে আজ লাগছে ৩০ মিনিট। মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকারসহ সব গাড়ি উবার-পাঠাও হিসেবে রাস্তায় নেমে পড়েছে। আগে এসব গাড়ি অবসরে পার্কিংয়ে থাকতো। যে কারণে যানজট বাড়ছে। তাছাড়া মেট্রোরেলসহ উন্নয়ন কাজের খোঁড়াখুঁড়ি তো আছেই।’

/এসএস/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

রাজধানীতে প্রতিদিন ৬ শতাধিক যানবাহনে মামলা, বেশিরভাগই মোটরসাইকেলে

রাজধানীতে প্রতিদিন ৬ শতাধিক যানবাহনে মামলা, বেশিরভাগই মোটরসাইকেলে

চট্টগ্রাম-রংপুর ছাড়া সবখানে আবহাওয়া শুষ্ক থাকার সম্ভাবনা

চট্টগ্রাম-রংপুর ছাড়া সবখানে আবহাওয়া শুষ্ক থাকার সম্ভাবনা

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

সম্রাটসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

শ্যামলীতে মোটরসাইকেল শোরুমে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৬

রাজধানীতে প্রতিদিন ৬ শতাধিক যানবাহনে মামলা, বেশিরভাগই মোটরসাইকেলে

রাজধানীতে প্রতিদিন ৬ শতাধিক যানবাহনে মামলা, বেশিরভাগই মোটরসাইকেলে

ফেসবুকের ‘ভুয়া খবরেই’ দেশের সব সাম্প্রদায়িক হামলা

ফেসবুকের ‘ভুয়া খবরেই’ দেশের সব সাম্প্রদায়িক হামলা

সৌদিতে বাংলাদেশির কারাদণ্ড: আইনজীবী নিয়োগে টাকা দিচ্ছে কল্যাণ বোর্ড

সৌদিতে বাংলাদেশির কারাদণ্ড: আইনজীবী নিয়োগে টাকা দিচ্ছে কল্যাণ বোর্ড

বাসের কনডাক্টর থেকে ৫০ কোটি টাকার মালিক

বাসের কনডাক্টর থেকে ৫০ কোটি টাকার মালিক

রাজধানীর সবুজবাগে স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার

রাজধানীর সবুজবাগে স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার

সেন্টমার্টিন থেকে ৩২ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

সেন্টমার্টিন থেকে ৩২ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

সর্বশেষ

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

উপাসনালয়ে সিসি ক্যামেরা বাধ্যতামূলক করার দাবি

উপাসনালয়ে সিসি ক্যামেরা বাধ্যতামূলক করার দাবি

আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে ‘বিশ্বকাপ সেরা’ হওয়ার অপেক্ষায় সাকিব

আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে ‘বিশ্বকাপ সেরা’ হওয়ার অপেক্ষায় সাকিব

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার অপরাধী যে দলেরই হোক, বিচার হবে: আইনমন্ত্রী

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার অপরাধী যে দলেরই হোক, বিচার হবে: আইনমন্ত্রী

ইরানের গভর্নরকে কষে চড়

ইরানের গভর্নরকে কষে চড়

© 2021 Bangla Tribune