X
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৩ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

পানিবন্দি সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:০৯

গত তিনদিনের বৃষ্টিতে সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এতে স্কুল-কলেজগুলোতে পাঠদান কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। বিভিন্ন স্কুল ভবনের দ্বিতীয় তলায়, ছাদে চলছে পাঠদান। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা পানি মাড়িয়ে ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসছেন। এ অবস্থায় প্রতিষ্ঠানের পাশে অন্য কোনও ভবনে পাঠদানের ব্যবস্থা করা যায় কিনা ভাবছে শিক্ষা অফিস।  

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে সাতক্ষীরা সদরের ভোমরা রাশেদা বেগম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ছাপিয়ে পানি উঠেছে শ্রেণিকক্ষে। বিদ্যালয়টির নিচতলা সম্পূর্ণ পানিতে নিমজ্জিত। এ অবস্থায় মাঠের কোমরপানি পার হয়ে শ্রেণিকক্ষে যাওয়া কষ্টকর হয়ে পড়েছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের। সিঁড়ির গোড়া পর্যন্ত পানি ওঠে যাওয়ায় শিক্ষার্থীদের ভবনের দ্বিতীয় তলায় পাঠদান চলছে। এ অবস্থায় অন্যত্র ক্লাস করানোর কথা ভাবছে শিক্ষা অফিস। কিন্তু নিকটস্থ কোনও ভবন না থাকায় সেটিও আপাতত সম্ভব হচ্ছে না।

এদিকে, সাতক্ষীরা শহরে নারীদের উচ্চ শিক্ষার একমাত্র বেসরকারি কলেজ ছফুরননেছা মহিলা কলেজটিও পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। সামান্য একটু বৃষ্টি হলেই কলেজের শ্রেণিকক্ষে জমছে হাঁটু পানি। এই কলেজের সামনে (সাতক্ষীরা-কালিগঞ্জ সড়ক) সড়ক বিভাগের জায়গা অবৈধভাবে দখল করে কিছু ভূমিহীন নামধারী মানুষ পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ করে বসত বাড়ি তোলায় এ অবস্থার সৃষ্টি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

 জেলা শহরের একমাত্র বেসরকারি মহিলা কলেজের এই বেহালদশা যেন দেখবার কেউ নেই। প্রতিষ্ঠানটিতে এইচএসসি থেকে শুরু করে স্নাতক শ্রেণিতে ছাত্রীরা লেখাপড়া করছেন। বৃষ্টির কারণে কলেজ চত্বরে শুধু নয়, শ্রেণিকক্ষের ভেতরেও হাঁটু পানি জমে যায়। এ কারণে বিষাক্ত পোকা-মাকড় ও সাপের উপদ্রব বেড়েছে। 

ছফুরননেছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আশরাফুন নাহার জানান, সামান্য বৃষ্টি হলেই কলেজের ভেতরে হাঁটু পানি জমছে। পানি নিষ্কাশনের সব পথ বন্ধ। শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অন্যদের সাংঘাতিক ভোগান্তি হচ্ছে। অফিসের যাবতীয় কাগজপত্রও নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। জরুরিভাবে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করার দাবি জানান তিনি। 

বহুতল ভবন নির্মাণের জন্য সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট  মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি আরও বলেন, জেলা শহরে নারীদের উচ্চ শিক্ষার জন্য একমাত্র বেসরকারি কলেজ এটি। প্রত্যাশা করছি এই প্রতিষ্ঠানের দিকে সবাই নজর দেবেন।  

হাবিবা খাতুন নামে এক শিক্ষার্থী কলেজের এসব দুর্ভোগ লাঘবে জেলা প্রশাসককে জরুরি পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানান। 

 এদিকে সাতক্ষীরা সদরের মাছখোলা হাইস্কুল, মাছখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পানিতে ডুবে আছে কয়েক মাস। সম্প্রতি স্কুল খুলে দেওয়ার পর পাঠদানে সমস্যা হচ্ছে। স্কুল ভবনের নিচতলায় ক্লাস নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না, দ্বিতীয়তলায় পাঠদান চলছে বলে জানান জেলা শিক্ষা অফিসার এসএম আব্দুল্লাহ আল মামুন।

জেলা সদরের বড়দল প্রাইমারি স্কুলেরও একই অবস্থা। পানিবন্দি স্কুলটিতে পাঠদান কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। পানি নিষ্কাশন না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা রয়েছে ঝুঁকিতে। 

সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নলতা মোবারকনগর বাজার ও তৎসংলগ্ন এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। 

নলতা হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল মোনায়েম বলেন, এক রাতের বৃষ্টিতে আমাদের বিদ্যালয় পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এছাড়া কেবি আহসানিয়া জুনিয়র স্কুল, নলতা শরীফের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও হাট-বাজার ও রাস্তাঘাটও পানিতে তলিয়েছে বলে জানান তিনি। 

তিনি আরও বলেন, পানি নিষ্কাশনের পথ দখল করে মাছের ঘের করার কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে পানিতে নিমজ্জিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা দুরূহ হয়ে পড়েছে। 

শিক্ষক হাবিবুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার ভ্যানে চড়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা পানি পার হয়ে স্কুলের বারান্দায় পৌঁছায়। পানি পার হতে না পেরে অনেকে বাড়ি ফিরে যায়। 

কালিগঞ্জ উপজেলার ভদ্রখালি প্রাইমারি স্কুলের মাঠে হাঁটু পানি। পানি ঢুকেছে শ্রেণিকক্ষেও। ফলে সেখানেও ক্লাস করা অসম্ভব বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

 আশাশুনির প্রতাপনগর ফাজিল মাদ্রাসা, প্রতাপনগর ইউনাইটেড একাডেমি ও কল্যাণপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কুড়িকাহুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুড়িকাহুনিয়া মহিলা মাদ্রাসা, প্রতাপনগর মহিলা মাদ্রাসা, কল্যাণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, প্রতাপনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান পানিতে ডুবে গেছে বলে জানান সাইদুল ইসলাম, মিলন বিশ্বাস, রুহুল আমিনসহ অনেকেই। তারা আরও জানান, স্থানীয় প্রতাপনগর তালতলা জামে মসজিদ, কুড়িকাহুনিয়া পাঞ্জেগানা মসজিদ ও উপজেলাগামী প্রধান সড়ক এবং গড়ইমহল খালের কাঠালতলা রাস্তাটি পানিতে নিমজ্জিত। 

সাতক্ষীরা জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এসএম আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, রবিবার রাতের ভারী বৃষ্টি ও গত দুইদিনের বৃষ্টিতে জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পানিতে তলিয়ে গেছে। জলাবদ্ধতার কারণে কোনও কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস করানো সম্ভব হচ্ছে না। বিকল্প ব্যবস্থায় ক্লাস করা যায় কিনা সে চিন্তাভাবনা চলছে।

 তিনি আরও বলেন, জেলার শ্যামনগরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে খোঁজ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া কালিগঞ্জ, আশাশুনি, দেবহাটা, তালা ও কলারোয়ার নিম্নাঞ্চলের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খোঁজ রাখা হচ্ছে। কালিগঞ্জের কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। পানি নিষ্কাশন না হলে এসব প্রতিষ্ঠানে ক্লাস করা কঠিন। 

জেলা শিক্ষা অফিসার বলেন, সদরের নুনগোলা মাদ্রাসা, মাছখোলা হাইস্কুল, নেহালপুর হাইস্কুলসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খোঁজ নেওয়া হয়েছে। শুধু হাইস্কুল নয় মাদ্রাসা ও প্রাইমারি স্কুলও জলাবদ্ধতার শিকার হয়েছে। সেখানেও পাঠদান চালু রাখা কঠিন হয়ে পড়েছে বলে জানান তিনি।  

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করে কারাগারে সাংবাদিক

ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করে কারাগারে সাংবাদিক

নিখোঁজের ৮ দিন পর ধানক্ষেতে মিললো ইজিবাইক চালকের লাশ

নিখোঁজের ৮ দিন পর ধানক্ষেতে মিললো ইজিবাইক চালকের লাশ

চট্টগ্রামে দল গোছাচ্ছে আ.লীগ ও বিএনপি, চাঙা তৃণমূল

চট্টগ্রামে দল গোছাচ্ছে আ.লীগ ও বিএনপি, চাঙা তৃণমূল

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪৪

টাঙ্গাইলের সখীপুরে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে একটি সড়ক পাকা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কাজ শেষ হওয়ার ১০ দিনের মাথায় উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং। এমন দায়সারা কাজ করায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বানিয়ারসিট বাজার-দেবরাজ সড়কে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে আইআরআইডিপি প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলার বানিয়ারসিট বাজার থেকে দেবরাজ সড়কের এক কিলোমিটার কাঁচা সড়ক পাকা করার কাজ পায় প্রাইম ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। পাকাকরণের সময় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করেছে। 

বিটুমিন ছাড়া সড়ক পাকা করায় হাত দিয়ে টান দিলেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং। এখনও প্রায় ৫০ মিটার সড়ক পাকাকরণের বাকি রয়েছে। নির্মাণের সময় স্থানীয়রা বাধা দিলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন বিভিন্নভাবে হুমকি দেয়। পরে স্থানীয়দের কার্পেটিং উঠানোর ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় সমালোচনা। এরপর বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মহলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এরই মধ্যে কাজ সমাপ্তি ঘোষণা করেন ঠিকাদার।

নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে সড়ক পাকা করা হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের

কালিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মন্ডল বলেন, ‘১০ দিন আগে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ শেষ করেছে। পাকাকরণের কাজটি অত্যন্ত নিম্নমানের। এজন্য হাত দিয়ে টান দিলেই কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। নিম্নমানের কাজ করে ঠিকাদার উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করেছেন। এই ঠিকাদারকে দিয়ে আর কোথাও যেন কাজ করা না হয়।’  

স্থানীয় বাসিন্দা আবু হানিফ বলেন, ‘এক কিলোমিটার সড়কের ৫০ মিটার রেখেই কাজটি শেষ করা হয়েছে। এখন কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজটি করা হয়েছে। কাজের সময় অনেকে বাধা দিলেও ঠিকাদার শোনেননি। আমরা সড়কটি পুনরায় সংস্কারের দাবি জানাই।’

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী মিজানুর রহমান বলেন, ‘নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজটি করা হয়নি। কার্পেটিংয়ের কাজ করার পর শক্ত হতে কিছু সময় লাগে। কয়েকজন লোক বিভিন্ন জায়গায় কাঠ দিয়ে নতুন সড়কের কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলেছেন। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে কাজটি নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু আমি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হওয়ায় কাজটি শুরু করতে সময় লেগেছে। সম্প্রতি কাজটি শেষ করেছি। যেসব জায়গায় সমস্যা হয়েছে, সেসব জায়গায় ঠিক করে দেওয়া হবে।’

স্থানীয়দের দাবি, বিটুমিন ছাড়া সড়ক পাকা করায় হাত দিয়ে টান দিলেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং

উপজেলা এলজিইডি কার্যালয়ের প্রকৌশলী এসএম হাসান ইবনে মিজান বলেন, ‘নিম্নমাণের কাজের বিষয়টি স্থানীয়রা আমাদের জানাতে পারতেন। কিন্তু তারা ধারালো কিছু দিয়ে কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলেছেন। এটি তারা ঠিক করেননি। সড়কের কাজ নিম্নমানের হয়নি। নিম্নমানের অভিযোগ শোনার পরপরই কর্তৃপক্ষ পাথর ও বিটুমিনসহ অন্যান্য জিনিস পাঠিয়েছেন। যেসব জায়গায় সমস্যা আছে, সেসব জায়গায় নতুন করে কার্পেটিংয়ের কাজ করা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রায় ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে আইআরআইডিপি প্রকল্পে কাজটি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এএম/

সম্পর্কিত

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

আশুলিয়ায় ছেলের হাতে বাবা খুন

আশুলিয়ায় ছেলের হাতে বাবা খুন

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪৩

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রয়েছে। পাইকারিতে (ট্রাকসেল) কেজিপ্রতি ১ থেকে ২ টাকা কমেছে দাম। একদিন আগেও বন্দরে প্রতি কেজি পেঁয়াজ প্রকারভেদে ৩৬ থেকে ৩৮ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। বর্তমানে তা কমে ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। 

এদিকে পেঁয়াজের ক্রেতা সংকটের কারণে বিক্রি না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন আমদানিকারকরা। আবার দাম কমায় খুশি বন্দরে আসা পাইকাররা।

হিলি বন্দরে পেঁয়াজ কিনতে আসা আইয়ুব আলী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, দুর্গাপূজার বন্ধের পর পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ১২ টাকার বেশি কমেছে। এতে আমাদের মতো পাইকারদের সুবিধা হয়েছে। কিন্তু পূজার বন্ধের আগে আমরা যেসব স্থানে সরবরাহ করেছি, সেখানে এখনও পর্যাপ্ত পেঁয়াজ রয়েছে। এ কারণে পার্টিরা পেঁয়াজ এখন কম দামে বিক্রি করায় লোকসানের মুখে পড়েছেন।

পেঁয়াজের দাম কমায় খুশি বন্দরে আসা পাইকাররা

ব্যবসায়ী মিরাজুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম বলেন, হঠাৎ করে বাজারে দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কমে যাওয়ায় দাম ঊর্ধ্বমুখী হয়ে যায়। একইভাবে ভারতে অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় সরবরাহ কমে দাম বাড়ে। এতে দেশের চাহিদা মেটাতে বাড়তি দামে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। ফলে দেশের বাজারে পেয়াজের দাম বাড়তে থাকে।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পূজার ছয় দিন বন্ধ শেষে ১৭ অক্টোবর থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পুনরায় পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার বন্দর দিয়ে ১৩টি ট্রাকে ৩৫৫ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়। পেঁয়াজ যেহেতু কাঁচামাল, তাই দ্রুত খালাস করে আমদানিকারকদের কাছে সরবরাহ করতে বন্দর কর্তৃপক্ষ সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

র‌্যাব সদস্য পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতেন এনামুল 

র‌্যাব সদস্য পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতেন এনামুল 

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪১

কৃষকের উৎপাদিত ফসল সংরক্ষণের জন্য আরও সাইলো নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি একনেকে ৩০টি সাইলো নির্মাণের অনুমতি পাওয়া গেছে। ২০৩০ সালের মধ্যে খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ মেট্রিক টনে উন্নীত হবে।’

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) দুপু‌রে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ‘দেশের বিভিন্ন স্থানে বসবাসরত দরিদ্র, অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী এবং দুর্যোগপ্রবণ এলাকার জনগোষ্ঠীর নিরাপদ খাদ্য সংরক্ষণের জন্য হাউজহোল্ড সাইলো সরবরাহ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় উপকারভোগীদের মধ্যে হাউজহোল্ড সাইলো বিতরণ করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দুই শ’ সাইলো নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। আধুনিক এ সাইলোগুলো হবে পাঁচ হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতার। কৃষকের ভেজা ধান সংগ্রহ করে এখানে প্রক্রিয়াজাত করা হবে। এতে নায্য মূল্য নিশ্চিত হবে।’

তিনি জানান, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে আগামী ছয় মাসের মধ্যে স্মার্ট কার্ড প্রবর্তন করা হবে। এটি বাস্তবায়ন হলে খাদ্য সহায়তা বিতরণে আরও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত হবে।

জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন– সংসদ সদস্য এ এম নাঈমুর রহমান, মমতাজ বেগম। এছাড়াও খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক শেখ মুজিবর রহমান, অতিরিক্ত সচিব খুরশিদ ইকবাল রেজভী, পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানিয়া সুলতানা, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান খান জানু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন সুলতানা প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

উল্লেখ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এ প্রকল্পের আওতায় দেশের আট বিভাগের ২৩ জেলার ৫৫টি উপজেলায় সর্বমোট তিন লাখ পারিবারিক সাইলো বিতরণ করা হবে। মানিকগঞ্জ জেলার তিনটি উপজেলায় মোট ১৩ হাজার পারিবারিক সাইলো পর্যায়ক্রমে বিতরণ করা হবে। এর মধ্যে শিবালয় উপজেলায় পাঁচ হাজার, দৌলতপুর উপজেলায় চার হাজার এবং হরিরামপুরে চার হাজার পারিবারিক সাইলো বিতরণ করা হবে। দুর্যোগকালে প্রতিটি পারিবারিক সাইলাতে ৪০ কেজি ধান অথবা ৫৬ কেজি চাল অথবা ৭০ লিটার পানি সংরক্ষণ করা যাবে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

আশুলিয়ায় ছেলের হাতে বাবা খুন

আশুলিয়ায় ছেলের হাতে বাবা খুন

প্রণোদনা পেতে শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের নার্সদের বিক্ষোভ

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৮

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মারা যাওয়া স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য প্রণোদনা ঘোষণা করেছিল সরকার। তবে এ প্রণোদনা পাননি বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা আক্রান্ত ৪২৬ ও মৃত দুই নার্স। সরকার ঘোষিত এ প্রণোদনা পেতে মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হাসপাতালের পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেন তারা।

এ সময় তারা নানা স্লোগান দেন। পরে হাসপাতালের পরিচালকের কাছে দাবি-দাওয়া পেশ করেন এবং অবিলম্বে তা পূরণের আহ্বান জানান।

হাসপাতালের সেবা তত্ত্বাবধায়ক সেলিনা আক্তার জানান, বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রায় ৭০০ নার্স করোনা ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করেন। দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে ৪২৬ জন নার্স করোনায় আক্রান্ত হন। এর মধ্যে দুই জনের মৃত্যু হয়। হাসপাতাল পরিচালক এ বিষয়ে সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন হয়নি। অথচ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে এ প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে বলে তারা জানতে পেরেছেন।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. এ কে এম সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘ইতোপূর্বে চিকিৎসক থেকে শুরু করে নার্সদের করোনাকালীন প্রণোদনা দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট দফতরে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আশা করছি, দ্রুত সময়ের মধ্যে পাওয়া যাবে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

টানা বৃষ্টিতে ডুবেছে বরিশাল নগরী

টানা বৃষ্টিতে ডুবেছে বরিশাল নগরী

জেলেদের হামলায় মেঘনায় নিখোঁজ কোস্টগার্ড সদস্য

জেলেদের হামলায় মেঘনায় নিখোঁজ কোস্টগার্ড সদস্য

ড্রেনে কাগজের বক্সে মিললো নবজাতকের লাশ

ড্রেনে কাগজের বক্সে মিললো নবজাতকের লাশ

চায়ের দোকান থেকে মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়লো আগুন

চায়ের দোকান থেকে মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়লো আগুন

রেললাইন থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৫৫

ফেনীতে রেললাইন থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির (৪২) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের ফতেহপুর এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

ফেনী জিআরপি পুলিশের ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে মরদেহটি উদ্ধারের পরে সেটি ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠাই। ধারণা করা হচ্ছে, পাহাড়িকা ট্রেনের ধাক্কায় তার মৃত্যু হয়েছে।’

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু

ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ-স্বাধীনতাবিরোধীরা এক ও অভিন্ন: শিক্ষামন্ত্রী

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ-স্বাধীনতাবিরোধীরা এক ও অভিন্ন: শিক্ষামন্ত্রী

চট্টগ্রামে দল গোছাচ্ছে আ.লীগ ও বিএনপি, চাঙা তৃণমূল

চট্টগ্রামে দল গোছাচ্ছে আ.লীগ ও বিএনপি, চাঙা তৃণমূল

নির্মাণসামগ্রীর দখলে সড়ক, নগরবাসীর দুর্ভোগ

নির্মাণসামগ্রীর দখলে সড়ক, নগরবাসীর দুর্ভোগ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করে কারাগারে সাংবাদিক

ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করে কারাগারে সাংবাদিক

নিখোঁজের ৮ দিন পর ধানক্ষেতে মিললো ইজিবাইক চালকের লাশ

নিখোঁজের ৮ দিন পর ধানক্ষেতে মিললো ইজিবাইক চালকের লাশ

চট্টগ্রামে দল গোছাচ্ছে আ.লীগ ও বিএনপি, চাঙা তৃণমূল

চট্টগ্রামে দল গোছাচ্ছে আ.লীগ ও বিএনপি, চাঙা তৃণমূল

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

যশোর বোর্ডের আড়াই কোটি টাকার সর্বশেষ গন্তব্য খুঁজছে দুদক

যশোর বোর্ডের আড়াই কোটি টাকার সর্বশেষ গন্তব্য খুঁজছে দুদক

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

বাড়ি ফেরা হলো না মোটরসাইকেলের ২ আরোহীর 

বাড়ি ফেরা হলো না মোটরসাইকেলের ২ আরোহীর 

অটোরিকশায় এসে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা

অটোরিকশায় এসে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা

আড়াই কোটি টাকা আত্মসাৎ: যশোর বোর্ডের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

আড়াই কোটি টাকা আত্মসাৎ: যশোর বোর্ডের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

গাছে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ 

গাছে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ 

সর্বশেষ

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

সব সম্প্রদায়ের ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে: ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি

সব সম্প্রদায়ের ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে: ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

ইসরায়েল উপকূলে মিললো ক্রুসেডারদের তলোয়ার

ইসরায়েল উপকূলে মিললো ক্রুসেডারদের তলোয়ার

© 2021 Bangla Tribune