X
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

রেইনট্রিতে শিক্ষার্থী ধর্ষণ

রাষ্ট্রপক্ষের দাবি যাবজ্জীবন, খালাস চায় আসামিপক্ষ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৫:১৮

রাজধানীর বনানীতে রেইনট্রি হোটেলে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদসহ পাঁচজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ। অপরদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবীরা খালাস দাবি করেন।

ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক কামরুন্নাহারের আদালতে গত ১২ আগস্ট মামলাটির রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু ঐদিন আদালতের বিচারক ছুটিতে থাকার কারণে মামলার রায় ঘোষণার জন্য আগামী ২৭ অক্টোবর দিন ধার্য রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর আফরোজা ফারহানা আহমেদ (অরেঞ্জ) জানান, গত ১২ অক্টোবর আলোচিত এই মামলাটির রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু বিচারক ছুটিতে থাকায় সেদিন রায় ঘোষণা হয়নি। আশা করছি আমরা সুবিচার পাবো। আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে রাষ্ট্রপক্ষ সক্ষম হয়েছে। যেহেতু মামলাটি ২০২০ সালের সংশোধনের আগে করা হয়েছে, সেহেতু সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে যাবজ্জীবনের বিধান রয়েছে। তাই আমরা এই রায়ে আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা (যাবজ্জীবন) প্রত্যাশা করছি।

তিনি আরও জানান, রায় হয়তো আরও আগেই হতো। কিন্তু করোনার কারণে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় কার্যক্রম স্থগিত ছিল। সাক্ষীরা সময়মতো আদালতে না আসায় মামলার কার্যক্রম কিছুটা বিলম্বিত হয়েছে। রায়ের ঘোষণার দিনে আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা প্রত্যাশা করছি।

আসামি নাঈম আশরাফের আইনজীবী এবিএম খায়রুল ইসলাম লিটনের দাবি, ‘রাষ্ট্রপক্ষ আসামিদের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি। ঘটনার দিন ধর্ষণের ঘটনাই তো ঘটেনি। কাগজে-কলমে ধর্ষণ আছে, বাস্তবে কোনও ঘটনা নেই। আসামিদের ভয়ভীতি, মারধর করে স্বীকারোক্তি আদায় করেছে। আমরা আসামিদের নিরপরাধ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। আশা করছি তারা খালাস পাবেন। ন্যায়বিচার পাবেন।’

এদিকে অন্য আসামিদের পক্ষের আইনজীবী হেমায়েত উদ্দিন মোল্লা দাবি করেন, আসামিদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সত্য নয়। কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। আমরা আসামিদের নিরপরাধ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। আশা করছি, তারা খালাস পাবে।

এর আগে গত ৩ অক্টোবর মামলাটির উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানি শেষ হয়। এরপর আদালত রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন।

সাফাত ছাড়া অপর আসামিরা হলেন-সাফাতের বন্ধু নাঈম আশরাফ ওরফে এইচএম হালিম, সাদমান সাকিফ, দেহরক্ষী রহমত আলী ও গাড়িচালক বিল্লাল হোসেন।

২২ আগস্ট একই আদালতে আসামিরা আত্মপক্ষ সমর্থনে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। মামলাটিতে চার্জশিটভুক্ত ৪৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ২২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ৬ মে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়। ওই বছর ৭ জুন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের (ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার) পরিদর্শক ইসমত আরা এমি আদালতে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০১৭ সালের ১৩ জুলাই আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়,২০১৭ সালের ২৮ মার্চ রাত ৯টা থেকে পরদিন সকাল ১০টা পর্যন্ত আসামিরা মামলার বাদী এবং তার বান্ধবী ও বন্ধুকে আটকে রাখে। অস্ত্র দেখিয়ে ভয়-ভীতি প্রদর্শন ও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। পরে বাদী ও তার বান্ধবীকে জোর করে একটি কক্ষে নিয়ে যায় আসামিরা। সেখানে বাদীকে সাফাত আহমেদ ও তার বান্ধবীকে নাঈম আশরাফ একাধিকবার ধর্ষণ করে।

অভিযোগে আরও বলা হয়, আসামি সাদমান সাকিফকে দুই বছর ধরে চেনেন মামলার বাদী। তার মাধ্যমেই ওই ঘটনার ১০-১৫ দিন আগে সাফাতের সঙ্গে দুই শিক্ষার্থীর পরিচয় হয়। পরে সাফাত তার জন্মদিনের অনুষ্ঠানের কথা বলে ওই দুজনকে আমন্ত্রণ জানালে তারা সম্মত হন। আমন্ত্রণ জানাতে গিয়ে তাদের বলা হয়েছিল, বড় একটি অনুষ্ঠান হবে, অনেক লোকজন থাকবে। ঘটনার রাতে সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল ও দেহরক্ষী তাদের দুজনকে বনানীর ২৭ নম্বর রোডে অবস্থিত হোটেল রেইনট্রিতে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে তারা অন্য কোনও লোকজন দেখতে পাননি। কোনও অনুষ্ঠানের আয়োজন না দেখে তারা চলে যেতে চাইলেও আসামিরা তাদের গাড়ির চাবি শাহরিয়ারের কাছ থেকে নিয়ে নেয়। তাকে মারধর করে। পরে বাদী ও তার বান্ধবীকে হোটেলের একটি রুমে নিয়ে ধর্ষণ করে। এসময় সাফাত তার গাড়িচালককে ধর্ষণের ঘটনার ভিডিও ধারণ করতে বলেন। বাদীকে নাঈম আশরাফ মারধরও করেন।

/এমআর/এমএস/

সম্পর্কিত

মোহাম্মদপুরে বাসা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মোহাম্মদপুরে বাসা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রযোজক রাজকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

প্রযোজক রাজকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

ডিসেম্বর থেকে শারীরিক উপস্থিতিতে চলবে সুপ্রিম কোর্টের বিচার

ডিসেম্বর থেকে শারীরিক উপস্থিতিতে চলবে সুপ্রিম কোর্টের বিচার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

মোহাম্মদপুরে বাসা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মোহাম্মদপুরে বাসা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রযোজক রাজকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

প্রযোজক রাজকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

ডিসেম্বর থেকে শারীরিক উপস্থিতিতে চলবে সুপ্রিম কোর্টের বিচার

ডিসেম্বর থেকে শারীরিক উপস্থিতিতে চলবে সুপ্রিম কোর্টের বিচার

জিকে শামীমের মা আয়েশা আক্তারকে ৮ সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

জিকে শামীমের মা আয়েশা আক্তারকে ৮ সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

শুকুর আলীর মৃত্যুদণ্ডের রায় স্থগিত রাখলেন আপিল বিভাগ

শুকুর আলীর মৃত্যুদণ্ডের রায় স্থগিত রাখলেন আপিল বিভাগ

পরীক্ষার ফল বদলে দেওয়ার ভরসা দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিতো তারা

পরীক্ষার ফল বদলে দেওয়ার ভরসা দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিতো তারা

বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের জেরে গলা কেটে হত্যা করা হয় জোনাকিকে

বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের জেরে গলা কেটে হত্যা করা হয় জোনাকিকে

‘আশা করেছিলাম ছেলে হত্যা মামলার রায় আজ হয়ে যাবে’

‘আশা করেছিলাম ছেলে হত্যা মামলার রায় আজ হয়ে যাবে’

উচ্চ আদালতের বিচারকদের ভ্রমণ ভাতা বাড়লো

উচ্চ আদালতের বিচারকদের ভ্রমণ ভাতা বাড়লো

সর্বশেষ

ই-রিটার্ন ফাইলিং মডেল তৈরি করেছে এনবিআর

ই-রিটার্ন ফাইলিং মডেল তৈরি করেছে এনবিআর

মানুষের কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করবো: নজরুল ইসলাম ঋতু

মানুষের কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করবো: নজরুল ইসলাম ঋতু

গুচ্ছগ্রাম বাস্তবায়নের সক্ষমতা যাচাই ভূমি মন্ত্রণালয়ের

গুচ্ছগ্রাম বাস্তবায়নের সক্ষমতা যাচাই ভূমি মন্ত্রণালয়ের

৩৫ হাজার বোতল ফেনসিডিল, ১০০ কেজি গাঁজা ধ্বংস করলো বিজিবি

৩৫ হাজার বোতল ফেনসিডিল, ১০০ কেজি গাঁজা ধ্বংস করলো বিজিবি

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সাভারের ট্যানারি

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সাভারের ট্যানারি

© 2021 Bangla Tribune