X
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

মিসরীয় বিমানের 'ছিনতাইকারী'কে নিয়ে যা বললেন তার সাবেক স্ত্রী

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০১৬, ২২:৪৬

মিসরীয় বিমান ছিনতাইকারী সাইফ এল-দিনের সাবেক স্ত্রী জানিয়েছেন তার প্রাক্তন স্বামী ছিলেন এক ‘ভয়াবহ ব্যক্তি’ যে কিনা মাদক ব্যবহার করতেন ও পরিবারের সদস্যদের শারিরীক নির্যাতন করতেন। কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, বিমান ছিনতাইয়ের কথা স্বীকার করেছেন সাইফ এল-দিন মুস্তাফা নামের।

সাইফের স্ত্রী মেরিনা পারাশাউ আরও জানিয়েছেন, ৭২ যাত্রীসহ মিসরীয় এয়ারবাস এ৩২০ ছিনতাইয়ের কারণ হিসেবে স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসার কথা জানিয়ে যে প্রতিবেদন এসেছে তা সর্বাংশে ভুল। তিনি আরও জানান, সাইফ তার সঙ্গে কথা বলতে চাননি। বরং পুলিশই তাকে সাইফের কণ্ঠস্বর শনাক্ত করতে বলেছিল।

সাইফ এল-দিন ও মেরিনা পারাশাউয়ের বিয়ের ছবি

সাইফ এল-দিন মুস্তফা আত্মপক্ষ সমর্থন করতে গিয়ে পুলিশকে বলেছেন, ‘যদি কেউ তার স্ত্রী ও সন্তানকে ২৪ বছর ধরে না দেখে থাকার পর তাদের দেখতে চায় এবং মিসর সরকার তা অনুমোদন না করে তবে তার কী করা উচিত?’ তিনি দাবি করেন, সাইপ্রাসে থাকা সাবেক স্ত্রী ও সন্তানদের দেখতেই তিনি এ ধরনের কাজ করেছেন।

বুধবার মুস্তফাকে সাইপ্রাসের আদালতে হাজির করা হয়। এখনও তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা না হলেও ছিনতাই, বিস্ফোরক থাকার মিথ্যে তথ্য, অপহরণ এবং সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডের হুমকি দেওয়া নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এবিসি নিউজের খবরে বলা হয়েছে, অভিযোগ গঠনের উদ্দেশ্যে বুধবার তাকে ৮ দিনের আটকাদেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিন একটি পুলিশ জীপে করে আদালত ত্যাগ করার সময় বিজয়সূচক ‘ভি’ চিহ্ণ দেখান মুস্তফা।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার মিসরের স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় ইজিপ্ট এয়ারের বিমানটি আলেকজান্দ্রিয়া থেকে ৬২ জন আরোহী নিয়ে উড্ডয়ন করে। এর কিছু সময় পরই এটি ছিনতাইয়ের শিকার হয়। পরে বিমানটি সাইপ্রাসে জরুরি অবতরণে বাধ্য করা হয়। পাইলট দাবি করেছেন, ‘ছিনতাইকারী’ তার গায়ে বিস্ফোরক বেল্ট রয়েছে বলে হুমকি দিয়ে বিমানটি সাইপ্রাসে অবতরণ করাতে বাধ্য করেন। বেশ কয়েক ঘণ্টার জিম্মি নাটকের পর মঙ্গলবার বিকেলের দিকে আত্মসমর্পণ করেন মুস্তফা।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান, আল জাজিরা।

/ইউআর/

সম্পর্কিত

গ্রেফতারের সময় মারা গেলেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সমালোচক

গ্রেফতারের সময় মারা গেলেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সমালোচক

আফগানিস্তানে আর সেনা পাঠাবে না তুরস্ক

আফগানিস্তানে আর সেনা পাঠাবে না তুরস্ক

দেশীয় টিকা নেবেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

দেশীয় টিকা নেবেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

পারমাণবিক স্থাপনায় হামলা ঠেকানোর দাবি ইরানের

পারমাণবিক স্থাপনায় হামলা ঠেকানোর দাবি ইরানের

ইরানের রাষ্ট্রীয় দুটি নিউজ ওয়েবসাইট জব্দ করলো যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের রাষ্ট্রীয় দুটি নিউজ ওয়েবসাইট জব্দ করলো যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

প্রথমবারের মতো আমিরাত সফরে যাচ্ছেন ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রথমবারের মতো আমিরাত সফরে যাচ্ছেন ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

দুবাইয়ের সেই রাজকন্যাকে স্পেনে দেখা গেছে

দুবাইয়ের সেই রাজকন্যাকে স্পেনে দেখা গেছে

বাইডেনের সঙ্গে কোনও বৈঠক নয়: ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট

বাইডেনের সঙ্গে কোনও বৈঠক নয়: ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট

আমিরাত সফরে যাচ্ছেন ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আমিরাত সফরে যাচ্ছেন ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সর্বশেষ

করোনা নিয়ন্ত্রণে গোঁজামিল

করোনা নিয়ন্ত্রণে গোঁজামিল

চ্যাম্পিয়নস লিগে অ্যাওয়ে গোল থাকছে না

চ্যাম্পিয়নস লিগে অ্যাওয়ে গোল থাকছে না

রাজধানী ছাড়ার হিড়িক (ফটোস্টোরি)

রাজধানী ছাড়ার হিড়িক (ফটোস্টোরি)

কাজে আসছে না কঠোর বিধিনিষেধ, কুড়িগ্রামে বাড়ছে সংক্রমণ

কাজে আসছে না কঠোর বিধিনিষেধ, কুড়িগ্রামে বাড়ছে সংক্রমণ

ডোপ টেস্টে পজিটিভ হলে সরকারি চাকরি মিলবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ডোপ টেস্টে পজিটিভ হলে সরকারি চাকরি মিলবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ফকিরাপুলে মেস থেকে যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার

ফকিরাপুলে মেস থেকে যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার

একসঙ্গে অর্থহীন ও শিরোনামহীনের দুই সদস্য (ভিডিও)

একসঙ্গে অর্থহীন ও শিরোনামহীনের দুই সদস্য (ভিডিও)

অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়, কিশোর গ্যাংয়ের চার সদস্য গ্রেফতার

অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়, কিশোর গ্যাংয়ের চার সদস্য গ্রেফতার

ধর্ষণের কথা আমলে নেয়নি মা, সৎ বাবাকে পুলিশে দিলো কিশোরী

ধর্ষণের কথা আমলে নেয়নি মা, সৎ বাবাকে পুলিশে দিলো কিশোরী

নজরদারির দুর্বলতায় ছাপাখানায় জাল রেভিনিউ স্টাম্প তৈরি

নজরদারির দুর্বলতায় ছাপাখানায় জাল রেভিনিউ স্টাম্প তৈরি

খুলনায় শনাক্ত ৫০ হাজার ছাড়ানোর দিনে ২৩ মৃত্যু

খুলনায় শনাক্ত ৫০ হাজার ছাড়ানোর দিনে ২৩ মৃত্যু

কাজের কথা বলে পাচারের চেষ্টা, নিয়ে নেওয়া হতো কিডনি

কাজের কথা বলে পাচারের চেষ্টা, নিয়ে নেওয়া হতো কিডনি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গ্রেফতারের সময় মারা গেলেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সমালোচক

গ্রেফতারের সময় মারা গেলেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সমালোচক

আফগানিস্তানে আর সেনা পাঠাবে না তুরস্ক

আফগানিস্তানে আর সেনা পাঠাবে না তুরস্ক

দেশীয় টিকা নেবেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

দেশীয় টিকা নেবেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

পারমাণবিক স্থাপনায় হামলা ঠেকানোর দাবি ইরানের

পারমাণবিক স্থাপনায় হামলা ঠেকানোর দাবি ইরানের

ইরানের রাষ্ট্রীয় দুটি নিউজ ওয়েবসাইট জব্দ করলো যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের রাষ্ট্রীয় দুটি নিউজ ওয়েবসাইট জব্দ করলো যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

প্রথমবারের মতো আমিরাত সফরে যাচ্ছেন ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রথমবারের মতো আমিরাত সফরে যাচ্ছেন ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

দুবাইয়ের সেই রাজকন্যাকে স্পেনে দেখা গেছে

দুবাইয়ের সেই রাজকন্যাকে স্পেনে দেখা গেছে

© 2021 Bangla Tribune