X
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪
৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কোনও কোনও স্থানে ধীরগতি

কুমিল্লা প্রতিনিধি
০৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৬:৩২আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৬:৩২

ঈদ উপলক্ষে বাড়ি ফিরছে সারাদেশের মানুষ। দক্ষিণ অঞ্চলের সড়কপথ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কেও বেড়েছে চাপ। ঘরমুখো মানুষের চাপে দেশের দক্ষিণ অঞ্চলকে রাজধানীর সঙ্গে যুক্ত করা এই মহাসড়কের কোথাও যানজট না হলেও ধীরগতি লক্ষণীয়। এই ধীরগতি দাউদকান্দির গৌরীপুর থেকে টোলপ্লাজা পর্যন্ত আট কিলোমিটার এলাকায় বেশি হচ্ছে।

তবে চালক, যাত্রী, হাইওয়ে পুলিশ ও মালিকরা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে মহাসড়কে চাপ বেড়েছে। মধ্যরাত পর্যন্ত পরিবহনের চাপ তীব্র হয়েছে। দক্ষিণের নোয়াখালী, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ফেনী, কুমিল্লা, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ ১০ জেলার মানুষের চাপ সামলাতে হচ্ছে এই মহাসড়ককে।

জানা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে দাউদকান্দি পর্যন্ত শুক্রবার কোনও বড় যানজট নেই। তবে গৌরীপুর থেকে ইলিয়টগঞ্জ পর্যন্ত চট্টগ্রামমুখী লেনে সকালে থেমে থেমে যানজট দেখা গেছে। এ ছাড়াও দুপুরে মহাসড়কের চট্টগ্রামগামী লেনের গৌরীপুর বাস স্ট্যান্ড থেকে দাউদকান্দি সেতু পর্যন্ত আট কিলোমিটার এলাকায় পরিবহনের ধীরগতি দেখা গেছে। কখনও কখনও যানবাহনকে থেমে যেতেও দেখা গেছে। এ ছাড়া বাকি এলাকায় তেমন কোনও যানজটের খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে, মহাসড়কের চৌদ্দগ্রাম বাজার এলাকায় ধীরগতিতে যানবাহন চলাচলের খবর পাওয়া গেছে। নিমসার বাজার, পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলাকার ইউটার্ন, দাউদকান্দির শহিদনগর, চান্দিনা বাজারেও পরিবহন ধীরগতিতে চলছে।

অপরদিকে, কুমিল্লা-নোয়াখালি আঞ্চলিক মহাসড়কের বাগমারা বাজার এলাকায় কয়েক কিলোমিটার যানজটের খবর পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রামমুখী লেনে থেমে থেমে যানজট দেখা গেছে স্থানীয় সূত্র জানায়, জমি অধিগ্রহণে বাধা দেওয়ায় বাগমারা বাজারের কিছু অংশে ফোর লেন করা সম্ভব হয়নি। যে কারণে একপথেই পরিবহন চলছে। তাই এই এলাকায় তীব্র যানজটের আশঙ্কা করছেন যাত্রী ও চালকরা।

বাগমারা বাজারের যানজটের বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী সুনীতি চাকমা বলেন, ‘বাগমারা এলাকার কিছু অংশ নিয়ে মামলা চলছিল। মামলার ঝামেলা শেষ হয়েছে। আমরা নতুন করে ভূমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম শুরু করেছি। এর আগে এই অংশের কাজ করতে দিলে এখন আর এমন যানজট হয়তো হতো না। তবুও আমরাও চেষ্টা করছি যানজট নিরসন করতে। আমি সাধারণ যাত্রী ও চালকদের বলবো, যেহেতু এই বাজারটি অনেক সরু তাই আপনারা বাজার থেকে সামান্য দূরে যাত্রী ওঠানামা করলে যানজট হওয়ার কথা নয়। এ ছাড়াও শৃঙ্খলা থাকলে মানুষের কষ্ট আরও কমে যাবে।’

কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী এশিয়া বাসের যাত্রী রাজিব সাহা বলেন, ‘কোথাও যানজট ছিল না। কিন্তু চট্টগ্রামগামী লেনে ধীরগতি আছে। গৌরীপুর বাস স্ট্যান্ড থেকে টোলপ্লাজা পর্যন্ত এই ধীরগতি অনেক বেশি।’

কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী রয়েল কোচ নামে বাসের চালক ইমরান হোসেন বলেন, ‘ঢাকায় গিয়েছি খালি সড়কে। কিন্তু ঢাকা থেকে বের হওয়া বেশ কঠিন হয়ে পড়েছিল। অনেক যানবাহন। আগের তুলনায় কয়েকগুণ বেশি যানবাহন সড়কে। বিশেষ করে, দাউদকান্দির গৌরীপুর পর্যন্ত ভীষণ ধীরগতি।’

দাউদকান্দির বাসিন্দা তৌহিদুল হাসান বলেন, ‘দাউদকান্দি এলাকায় কোনও জটলা নেই। তবে টোলপ্লাজা এলাকার মুন্সীগঞ্জ অংশে সামান্য জটলা রয়েছে। সেটি টোলপ্লাজার কারণে।’ 

কুমিল্লা বাস মালিক সমিতির কার্যকরী সভাপতি মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম বলেন, ‘মহাসড়কে যানজট নেই। তবে কয়েকগুণ চাপ বেড়েছে। এই চাপ ঈদ পর্যন্ত হয়তো আরও বাড়বে। আমরা হাইওয়ে পুলিশ ও সড়ক বিভাগের সঙ্গে সমন্বয় করছি৷ আশা করি এ বছরও মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন হবে।’

হাইওয়ে কুমিল্লা রিজিয়নের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. খাইরুল আলম বলেন, ‘আমাদের এআই ক্যামেরা আছে। পুলিশ মাঠে কাজ করছে। আমরা সার্বক্ষণিকভাবে মহাসড়কে নজর রাখছি। এখনও কোথাও যানজটের কোনও সম্ভাবনা নেই। দুর্ঘটনা ঘটলে আমাদের তাৎক্ষণিক রেসপন্স টিম আছে, রেকার আছে, অ্যাম্বুরেন্স আছে সর্বোপরি আমাদের হাইওয়ে পুলিশ ২৪ ঘণ্টা মাঠে আছে। সবাই নিয়ম মেনে চললে এবং সবার সহযোগিতা থাকলে ভালো একটা ঈদযাত্রা উপহার দিতে পারবো আমরা।’

সকাল থেকে দাউদকান্দি এলাকার মহাসড়কে আছেন দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরাফাতুল আলম ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জিয়াউর রহমান। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘সকালে উল্টো পথে গাড়ি আসার খবরে পেয়ে পরিদর্শনে এসেছি। এখনও কাজ করছি। যানজট লাগেনি, তবে পরিবহনের চাপে ধীরগতি আছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘উল্টো পথে আসা ও মহাসড়কে অবৈধ পার্কিংসহ বিভিন্ন কারণে সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিয়াউর রহমান ইতোমধ্যে তিন জনকে জরিমানা করে মামলা দিয়েছে। আমরা কাজ করছি। আশা করি যাত্রীদের যাত্রা নির্বিঘ্ন হবে। আর কোথাও অনিয়ম পেলেই তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এমএএ/
সম্পর্কিত
ঈদ ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে: র‌্যাব
মহাসড়কে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে যেসব উদ্যোগ পুলিশের
ঈদযাত্রায় ভোগান্তি কমাতে একগুচ্ছ সিদ্ধান্ত
সর্বশেষ খবর
ঈদে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দিতে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ 
ঈদে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দিতে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ 
মেঘদূতের খাতা খুলেছি ।। আনিকা ইনতিসার  
ঈদসংখ্যামেঘদূতের খাতা খুলেছি ।। আনিকা ইনতিসার  
কোরবানির পশুর হাটে জাল নোট ও প্রতারণা ঠেকাতে ‘ডিজিটাল সেবা’
কোরবানির পশুর হাটে জাল নোট ও প্রতারণা ঠেকাতে ‘ডিজিটাল সেবা’
‘অধিনায়ক দেখে এমন নয় যে প্রতিদিনই ভালো খেলতে হবে’
‘অধিনায়ক দেখে এমন নয় যে প্রতিদিনই ভালো খেলতে হবে’
সর্বাধিক পঠিত
ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি
ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি
অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, আমরা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে সম্মান করি: ডোনাল্ড লু
অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, আমরা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে সম্মান করি: ডোনাল্ড লু
কাঁপছে সেন্টমার্টিন, আকাশে উড়ছে যুদ্ধবিমান
কাঁপছে সেন্টমার্টিন, আকাশে উড়ছে যুদ্ধবিমান
‘কমিশনার ১৭০ কোটি টাকা মাফ করে দেন, এনবিআরের চেয়ারম্যান কোথায়?’
‘কমিশনার ১৭০ কোটি টাকা মাফ করে দেন, এনবিআরের চেয়ারম্যান কোথায়?’
সীমান্তে গুলি চালাতে পারে বিএসএফ, সতর্ক করে বিজিবির মাইকিং
সীমান্তে গুলি চালাতে পারে বিএসএফ, সতর্ক করে বিজিবির মাইকিং