X
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ভোলায় ৩৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বাঁধে ধস

ভোলা প্রতিনিধি
০৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ২২:২১আপডেট : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ২২:২১

মেঘনা নদীর তীব্র স্রোতের আঘাতে ভোলা সদর উপজেলার উত্তর মেঘনার তীর রক্ষায় ৩৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ইলিশা-রাজাপুর রক্ষা প্রকল্পের ব্লক বাঁধের দুটি স্থান আবারও ধসে পড়েছে। এতে বাঁধ ভেঙে লোকালয়ে পানি ঢুকে পড়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। এর আগে বাঁধ নির্মাণের সময় আরও দুটি স্থানে ব্লক ধসে পড়েছিল।

শনিবার (০৯ সেপ্টেম্বর) সরেজমিনে দেখা গেছে, সদর উপজেলার ইলিশা ইউনিয়নে ভোলা-লক্ষ্মীপুর ফেরি ও লঞ্চঘাটের দক্ষিণে মেঘনা নদীর তীর সংরক্ষণ বাঁধের দুটি স্থানের ৭৫ মিটারের ব্লক ধসে গেছে। গত বুধবার থেকে ব্লক ধসে পড়তে শুরু করে। বুধবার বিকালে পাউবোর ঠিকাদারের শ্রমিকরা জিও টেক্সটাইল বস্তায় বালু ভরার কাজ শুরু করেন। তবে ধস রক্ষা করা না গেলে ব্লক বাঁধের পাশে মাটির বাঁধে আঘাত হানার শঙ্কা রয়েছে। আর মাটির বাঁধ ধসে গেলে ভোলা শহরে পানি ঢুকবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উজানের পানি নামাসহ মেঘনা উত্তাল হয়ে যাওয়ায় বাঁধের ওই অংশগুলো ধসে গেছে। যে দুটি স্থানে ধস শুরু হয়েছে, সেখানে প্রতিদিন শত শত দর্শনার্থী বেড়াতে আসেন। এ ছাড়া বাঁধের পাশে অর্ধশতাধিক দোকানপাট রয়েছে। এর কিছুটা দূরে রয়েছে জংশন বাজার, পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র, অস্থায়ী নৌ থানা ও কয়েকটি ভবন। হঠাৎ বাঁধ ধসে পড়ায় আতঙ্কিত স্থানীয়রা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী কলিমুল্লাহ বলেন, ‘বালুভর্তি জিও ব্যাগ না ফেলে জরুরি ভিত্তিতে সিসি ব্লক বসানো দরকার। তাহলে ভাঙন থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে। না হয় মাটির বাঁধ ভেঙে ভোলা শহরে পানি ঢুকবে।’

আতঙ্কের কথা জানিয়ে আরেক ব্যবসায়ী পারভেজ হোসেন বলেন, ‘বাঁধের পাশে অর্ধশতাধিক দোকানপাট রয়েছে। তীররক্ষা বাঁধে ধস দেখা দেওয়ায় আমরা আতঙ্কে আছি। দ্রুত ভাঙনরোধ করা না গেলে ভোলাকে ভাঙনের কবল থেকে রক্ষা করা সম্ভব হবে না। তাই জরুরি ভিত্তিতে টেকসই বাঁধ নির্মাণ করতে হবে।’

তবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ধস ঠেকাতে ইতোমধ্যে জরুরি ভিত্তিতে বালুভর্তি জিও টেক্সটাইল বস্তা ফেলা শুরু হয়েছে। শুক্রবার পর্যন্ত দুই হাজার ৫২টি বস্তা ফেলা হয়েছে। এ ছাড়া শনিবার সকাল থেকে ধসে যাওয়া স্থানগুলোর জরিপ শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

ভোলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হাসানুজ্জামান বলেন, ‘বাঁধের দুটি স্থানে ধস দেখা দিয়েছে। পাহাড়ি ঢলের পানি যখন সাগরে নামে, তখন ভোলার মেঘনা নদীতে তীব্র স্রোত শুরু হয়। মেঘনা নদীর মধ্যে কয়েকটি চর রয়েছে, যার কারণে ইলিশা ফেরিঘাটের সামনে দুটি নদীর (ইলিশা ও মেঘনা) পাঁচটি মোহনা হয়েছে। সেখানে সারা বছর নদী অশান্ত থাকে। বর্ষার শেষ সময়ে ওই এলাকায় তীব্র স্রোত হওয়ায় ভাঙন ভয়ঙ্কর রূপ নেয়। এ বছরও ভয়ঙ্কর রূপ নেওয়ায় ব্লক বাঁধের দুটি স্থান ধসে গেছে।’

ধসরোধে ইতোমধ্যে দুই হাজার ৫২টি জিও টেক্সটাইল বস্তা ফেলা হয়েছে জানিয়ে হাসানুজ্জামান বলেন, ‘বাঁধে ধসের খবর পেয়ে ঢাকা থেকে প্রতিনিধি দল এসেছে। শনিবার সকাল থেকে বাঁধ জরিপের কাজ শুরু করেছে প্রতিনিধি দল। জরিপ শেষ হলে বোঝা যাবে, বালুভর্তি জিও টেক্সটাইল বস্তা ফেলে ধস ঠেকানো যাবে কিনা। যদি এতে ঠেকানো না যায়, তখন সিসি ব্লক বসানোর কাজ করা হবে।’

হাসানুজ্জামান আরও বলেন, ‘ভোলা নদী ভাঙনপ্রবণ জেলা। ভাঙন ঠেকাতে প্রতিনিয়ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি আমরা। ইলিশা-রাজাপুরসহ উত্তর ভোলার রাজাপুর ও পূর্ব-ইলিশা ইউনিয়নের তীর সংরক্ষণ বাঁধ এবং বন্যা ও জলোচ্ছ্বাস নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণে ৩৩৫ কোটি টাকা খরচ হয়েছে। যেকোনো উপায়ে এটি রক্ষার চেষ্টার চালিয়ে যাচ্ছি আমরা।’

/এএম/
সম্পর্কিত
‘২০৫০ সালের মধ্যে বরেন্দ্র অঞ্চল মরুভূমিতে পরিণত হবে’
জলবায়ু শরণার্থীযাদের কাছে নাম আছে ধাম নাই
নদীশাসন ও চ্যানেল ঠিক করা ব্যয়বহুল কাজ: সারোয়ার মাহমুদ
সর্বশেষ খবর
সরকারি চাকরিতে কত পদ খালি জানালেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী
সরকারি চাকরিতে কত পদ খালি জানালেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী
এলো ‘পঞ্চায়েত’র নতুন সিজন, যা বলছেন সমালোচকরা
এলো ‘পঞ্চায়েত’র নতুন সিজন, যা বলছেন সমালোচকরা
ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে মারা যাওয়া ৩০টি হরিণ উদ্ধার
ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে মারা যাওয়া ৩০টি হরিণ উদ্ধার
ইসরায়েলকে এখনও সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র   
রাফাহ শহরে হামলাইসরায়েলকে এখনও সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র  
সর্বাধিক পঠিত
সর্বোচ্চ উপকার পেতে কাঠবাদাম কীভাবে খাবেন?
সর্বোচ্চ উপকার পেতে কাঠবাদাম কীভাবে খাবেন?
এবারও ধরাছোঁয়ার বাইরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটি
এবারও ধরাছোঁয়ার বাইরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটি
বৃষ্টি থাকবে মঙ্গলবারও  
বৃষ্টি থাকবে মঙ্গলবারও  
ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাজউকের উচ্ছেদ অভিযান
ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাজউকের উচ্ছেদ অভিযান
রাবিতে খাবারে সিগারেট: আন্দোলন-ভাঙচুরে জড়িতদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত
রাবিতে খাবারে সিগারেট: আন্দোলন-ভাঙচুরে জড়িতদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত