X
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪
১০ বৈশাখ ১৪৩১

‘সেমিনার বাবার’ বিদায়ে মিষ্টি বিতরণ

বরিশাল প্রতিনিধি
০৭ নভেম্বর ২০২৩, ০৩:১৯আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০২৩, ০৩:১৯

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) উপাচার্য ড. প্রফেসর ছাদেকুল আরেফিনের বিদায়ে মিষ্টি বিতরণ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা বিভিন্ন ধরনের প্লেকার্ড ব্যবহার করেন। সোমবার (৬ নভেম্বর) দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত সহস্রাধিক শিক্ষার্থীর মাঝে এ মিষ্টি বিতরণ করা হয়। উপাচার্য ছাদেকুল আরেফিনের চার বছরের নির্ধারিত সময় এদিন শেষ হয়।

প্লেকার্ডে লেখা ছিল–বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় চার বছর পিছিয়ে গেলো, মেরুদণ্ডহীন ভিসির মুক্তি দিবস উপলক্ষে মিষ্টি বিতরণ এবং উপাচার্যকে ‘সেমিনার বাবা’ বলে অবহিত করা হয়।

মিষ্টি বিতরণকারী মার্কেটিং বিভাগের কাজী মাসরুল, ব্যবস্থাপনা বিভাগের ইরাজ রাব্বানী ও মার্কেটিং বিভাগের মো. সালাউদ্দিন বলেন, উপাচার্য চার বছর কর্মরত ছিলেন। ওই সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের জন্য সামান্যতম কাজ করেননি। শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে কোনও ধরনের দাবি উত্থাপন করা হলে তিনি তা অগ্রাহ্য করতেন। প্রয়োজনে অন্য শিক্ষার্থীদের দিয়ে তাদেরকে হেনস্তা করাতেন। এ ধরনের অনেক অভিযোগ রয়েছে তাদের কাছে।

উপাচার্য ববি‘র উন্নয়নে বাজেট আনতে ব্যর্থ হন। যেখানে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতি বছর কোটি কোটি টাকার বাজেট এনে শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি একাত্বতা প্রকাশ করে, সেখানে তিনি সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছেন। তার চার বছর চাকরি জীবনে সামান্যতম উন্নয়ন হয়নি। তার কর্মকাণ্ড সেমিনারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল।

শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম তার আমলে দুই বছর পিছিয়েছে। তার কারণে শিক্ষার্থীদের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ওই সকল ঘটনায় ৮টি মামলায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থীকে আসামি করায় তাদের শিক্ষা জীবন সংকটে পড়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি ও সাবেক প্রক্টর আব্দুল কাইউম বলেন, শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকদের সঙ্গে তিনি যা করেছেন সে জবাব চাইতে গিয়েছিলাম। কিন্তু বিষয়টি টের পেয়ে রাতের আঁধারে তিনি বাসা ছেড়ে পালিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, চার বছরে তিনি বহু অনৈতিক কর্মকাণ্ড করেছেন। বিশেষ করে তার অনুসারী না হওয়ায় স্কলারশিপ পেলেও শিক্ষকদের ছুটি দিতেন না। এমনকি তার অনুসারী ছাড়া কাউকে পদোন্নতি পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। ছয়জন ডিন রয়েছেন। তাদের মধ্যে তার অনুসারী দুই ডিনের জন্য ২টি কক্ষ থাকলেও বাকিরা বাহিরে ঘুরে ঘুরে সময় কাটাতেন। তাদের কোনও কক্ষ দেওয়া হয়নি। আর তার আমলে উন্নয়ন বলতে একটি গ্যারেজ নির্মাণ এবং তিন কক্ষ বিশিষ্ট একটি স্কুল ভবন। এছাড়া আর কোনও উন্নয়ন তিনি করতে পারেননি বলে অভিযোগ করেন এ শিক্ষক নেতা।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আরিফ হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, অতি উৎসাহী হয়ে কিছু শিক্ষার্থী মিষ্টি বিতরণ করেছেন। এটা একটা ফালতু জিনিস বলে অবহিত করেন তিনি।

ট্রেজারার ড. মো. বদরুদোজ্জা ভুইয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় তিনি তার পূর্ব কর্মস্থল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পদে যোগদান করেছেন। মিষ্টি বিতরণ বিষয়ে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা তাদের মনোভাব ব্যক্ত করেছে। এখানে আমি কোনও মন্তব্য করবো না।

/আরআইজে/
সম্পর্কিত
ববি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জাকির, সম্পাদক ইমদাদুল
শিক্ষার্থীদের আত্মহত্যা রোধে চালু হচ্ছে কাউন্সেলিং দফতর
নাজিরপুরে নৌকার কর্মীকে কুপিয়ে জখম করেছে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা
সর্বশেষ খবর
১০ জন নিয়েও কৃত্রিম আলোয় ইয়ংমেন্সের উৎসব
১০ জন নিয়েও কৃত্রিম আলোয় ইয়ংমেন্সের উৎসব
পোড়া রোগীদের যন্ত্রণা বাড়াচ্ছে তাপপ্রবাহ
পোড়া রোগীদের যন্ত্রণা বাড়াচ্ছে তাপপ্রবাহ
নিখোঁজের ২৫ দিন পর ছাত্রলীগ নেতার মরদেহ উদ্ধার
নিখোঁজের ২৫ দিন পর ছাত্রলীগ নেতার মরদেহ উদ্ধার
যুক্তরাষ্ট্র বড় শক্তি, তাদের পরোয়া করতে হয়: শ্রম প্রতিমন্ত্রী
যুক্তরাষ্ট্র বড় শক্তি, তাদের পরোয়া করতে হয়: শ্রম প্রতিমন্ত্রী
সর্বাধিক পঠিত
মিশা-ডিপজলদের শপথ শেষে রচিত হলো ‘কলঙ্কিত’ অধ্যায়!
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিমিশা-ডিপজলদের শপথ শেষে রচিত হলো ‘কলঙ্কিত’ অধ্যায়!
আজকের আবহাওয়া: তাপমাত্রা আরও বাড়ার আভাস
আজকের আবহাওয়া: তাপমাত্রা আরও বাড়ার আভাস
ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে যা জানালেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান
ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে যা জানালেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান
সকাল থেকে চট্টগ্রামে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন না ডাক্তাররা, রোগীদের দুর্ভোগ
সকাল থেকে চট্টগ্রামে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন না ডাক্তাররা, রোগীদের দুর্ভোগ
৭ দফা আবেদন করেও প্রশাসনের সহায়তা পায়নি মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট
৭ দফা আবেদন করেও প্রশাসনের সহায়তা পায়নি মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট