X
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪
১০ বৈশাখ ১৪৩১

আদালতে কাঁদলেন মিতুর বাবা, বললেন বাবুলই আমার মেয়েকে হত্যা করিয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
০৯ এপ্রিল ২০২৩, ২৩:৪২আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০২৩, ২৩:৪২

চট্টগ্রামে চাঞ্চল্যকর মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলার সাত বছর পর রবিবার (৯ এপ্রিল) আদালতে বিচারকাজ শুরু হয়েছে। প্রথমদিন সাক্ষ্য দিয়েছেন মিতুর পিতা অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন। সাক্ষ্য দেওয়া শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। এ সময় মেয়ে হত্যার বিচার চেয়ে আদালতের বারান্দায় কেঁদেছেন তিনি।

মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আমার মেয়ে মিতু এমন কী দোষ করেছে, যে কারণে তাকে মেরে ফেলতে হয়েছে। আমার মেয়েকে ভালো না লাগলে ডিভোর্স দিতে পারতো। তারপরও আমার মেয়ে আমার কাছে থাকতো। আমি মেয়ে হত্যার বিচার চাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাবুলই আমার মেয়ে মিতুকে হত্যা করিয়েছে। কারণ বাবুলের সঙ্গে বিদেশি এক এনজিওকর্মীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিষয়টি জেনে গিয়েছিল মিতু। এ কারণে মিতুকে পথের কাঁটা ভেবে বাবুল তার সোর্স মুসাকে দিয়েই হত্যা করিয়েছে।’

এর আগে তৃতীয় অতিরিক্ত চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ জসীম উদ্দিনের আদালতে মিতু হত্যা মামলায় সাক্ষ্য দেন মোশাররফ। সাক্ষ্য দেওয়ার সময়ও তিনি কেঁদেছেন। বারবার মেয়ে হত্যায় জড়িতদের কঠোর এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে মোশাররফ হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘রবিবার আদালতে মিতু হত্যা মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছি। জবানবন্দিতে বলেছি, বাবুলের সঙ্গে কক্সবাজারে কর্মরত বিদেশি এনজিওকর্মী গায়েত্রীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ কারণে বাবুলের পরিকল্পনায় মিতুকে খুন করা হয়েছিল। এসব বিষয় আমি আদালতে তুলে ধরেছি। বাবুল আসামিকে চেনে এবং ঘটনার বিস্তারিত জানে। এরপরও মিতু খুন হওয়ার পর বাবুল মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে জঙ্গিরা মিতুকে খুন করেছে উল্লেখ করে পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেছে। প্রকৃত ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য এমনটি করেছে বাবুল।’   

তিনি আরও বলেন, ‘আজ আদালতে আংশিক জেরা হয়েছে। আগামী ধার্য তারিখে আমি উল্লেখ করবো কেন মামলা করেছি।’

বাবুল আক্তারের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর পিপি মো. আবদুর রশিদ।

সাক্ষ্যগ্রহণের সময় বাবুল আক্তার, আনোয়ার হোসেন, শাহজাহান মিয়া এবং মোতালেব মিয়া প্রকাশ ওয়াসিমকে আদালতে হাজির করা হয়। এ মামলার আসামিদের মধ্যে জামিনে থাকা এহতেশামুল হক ভোলাও আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তবে কালু পলাতক ও মুসা নিখোঁজ রয়েছেন।

বাবুল আক্তারের আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আদালতে মিতু হত্যা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। প্রথমদিন মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন সাক্ষ্য দেন।’

এর আগে ১৩ মার্চ একই আদালত বাবুল আক্তারসহ সাত আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর সিদ্ধান্ত দেন।

২০১৬ সালের ৫ জুন ছেলে আক্তার মাহমুদ মাহিরকে স্কুলবাসে তুলে দিতে গিয়ে চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়ের কাছে খুন হন মাহমুদা খানম মিতু। এ ঘটনায় তার স্বামী বাবুল আক্তার বাদী হয়ে তিন জনকে আসামি করে পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে তদন্ত করে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ। এরপর তদন্তের দায়িত্ব পায় নগর গোয়েন্দা পুলিশ। পরে আদালতের নির্দেশে ২০২০ সালের জানুয়ারিতে মিতু হত্যা মামলা তদন্তের দায়িত্ব পায় পিবিআই। এরপর পাল্টে যায় মিতু হত্যা মামলার গতিপথ। পিবিআইয়ের তদন্তে উঠে আসে বাবুল আক্তারই মিতু হত্যার মূল আসামি।

/এএম/
সম্পর্কিত
মুগদায় উচ্ছেদ অভিযান স্থগিত করলেন হাইকোর্ট
সনদ বাণিজ্য: কারিগরি শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানের স্ত্রী কারাগারে
ওয়ারীতে ‘হিট স্ট্রোকে’ একজনের মৃত্যু
সর্বশেষ খবর
ঢাকা ছেড়েছেন কাতারের আমির
ঢাকা ছেড়েছেন কাতারের আমির
জাহাজেই দেশে ফিরবেন এমভি আবদুল্লাহর ২৩ নাবিক
জাহাজেই দেশে ফিরবেন এমভি আবদুল্লাহর ২৩ নাবিক
তাপপ্রবাহের গেটওয়ে যশোর-চুয়াডাঙ্গা
তাপপ্রবাহের গেটওয়ে যশোর-চুয়াডাঙ্গা
আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয়ের গল্প বাংলাদেশের পর্দায়
আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয়ের গল্প বাংলাদেশের পর্দায়
সর্বাধিক পঠিত
মিশা-ডিপজলদের শপথ শেষে রচিত হলো ‘কলঙ্কিত’ অধ্যায়!
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিমিশা-ডিপজলদের শপথ শেষে রচিত হলো ‘কলঙ্কিত’ অধ্যায়!
আজকের আবহাওয়া: তাপমাত্রা আরও বাড়ার আভাস
আজকের আবহাওয়া: তাপমাত্রা আরও বাড়ার আভাস
ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে যা জানালেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান
ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে যা জানালেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান
সকাল থেকে চট্টগ্রামে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন না ডাক্তাররা, রোগীদের দুর্ভোগ
সকাল থেকে চট্টগ্রামে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন না ডাক্তাররা, রোগীদের দুর্ভোগ
৭ দফা আবেদন করেও প্রশাসনের সহায়তা পায়নি মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট
৭ দফা আবেদন করেও প্রশাসনের সহায়তা পায়নি মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট