X
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২
১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

মাকে নিয়ে খুলনা ছাড়লেন মরিয়ম 

খুলনা প্রতিনিধি
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫:০৯আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৮:৩৯

টানা ২৯ দিন নিখোঁজের পর উদ্ধার হওয়া মা রহিমা বেগমকে নিয়ে খুলনা ছেড়েছেন মরিয়ম আক্তার ওরফে মরিয়ম মান্নান। রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে মাকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন তিনি। আর রাত আড়াইটায় তিনি ঢাকা পৌঁছান। সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) মাকে নিয়ে ডাক্তারের কাছে গিয়েছিলেন বলেও জানিয়েছেন মরিয়ম। 

এদিকে খুলনা ছাড়ার বিষয়ে মরিয়ম মান্নান বলেন, রবিবার আদালত থেকে মাকে নিয়ে বের হওয়ার পর বয়রার বাসায় যাই আগে। তারপর মার জন্য খুলনা নিরাপদ মনে হয়নি। তাই রাতেই মাকে নিয়ে ঢাকায় চলে আসি। সঙ্গে ছোট বোন আদুরি ও বড় দুলাভাইকে নিয়ে এসেছি। রাতের বেলা তাই ৩ জন নারীর জন্য বিষয়টি রিস্ক হবে ভেবে বড় দুলাভাইকে নিয়ে এসেছি। আমরা রাতেই নিরাপদে ঢাকার বসুন্ধরার বাসায় পৌঁছাই। 

তিনি আরও বলেন, সোমবার মাকে নিয়ে ডাক্তারের কাছে গিয়েছি। মায়ের চিকিৎসায় জোর দেওয়া হয়েছে।

মরিয়ম এ সময় বলেন, মা ভুল করে থাকলে সংশোধন করবো। আর মায়ের সঙ্গে কোনও অন্যায় হয়ে থাকলে মায়ের পক্ষে লড়বো। ঘটনার তদন্ত হচ্ছে, হোক। আমি মায়ের পাশে আছি। আর এখন মায়ের নিরাপত্তার বিষয়টি আমাদের ভাবতে হচ্ছে। তাই খুলনা থেকে মাকে ঢাকায় নিয়ে এসেছি। 

এরআগে, রবিবার বিকালে রহিমাকে আদালতে হাজির করা হয়। শুনানির পর তাকে নিজ মুচলেকায় মামলার বাদী মেয়ে আদুরির জিম্মায় দেন আদালত। পরে তাকে বয়রা এলাকায় ছোট মেয়ে আদুরির বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।

বাদীপক্ষের আইনজীবী আফরুজ্জামান টুটুল বলেন, ওই নারী আদালতকে তার অপহরণের বিষয়ে বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছেন। সেখানে তিনি উল্লেখ করেন, জমিজমা নিয়ে যাদের সঙ্গে বিরোধ ছিল মূলত তারাই তাকে অপহরণ করে। পরে সেখান থেকে তিনি মুকসুদপুর ও ফরিদপুরে আসেন। মামলায় যাদের নাম রয়েছে তাদের মধ্যে ৪/৫ জন অপহরণের সঙ্গে জড়িত।

এদিকে রহিমার পরিবারের দাবি, গত ২৭ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে পানি আনতে বাড়ি থেকে নিচে নামেন তিনি। একঘণ্টা পার হলেও তিনি বাসায় ফিরে আসেননি। পরে সন্তানরা সেখানে গিয়ে মায়ের ব্যবহৃত স্যান্ডেল, গায়ের ওড়না ও কলস রাস্তার ওপর পড়ে থাকতে দেখেন। রাতে সম্ভাব্য সব স্থানে সন্ধান নেওয়ার পর মাকে পান না তারা। এরপর সন্তানরা সাধারণ ডায়েরির পাশাপাশি কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে দৌলতপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলার তদন্তকালে পুলিশ ও র‌্যাব ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছয় জনকে গ্রেফতার করে। এরা হলেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) প্রধান প্রকৌশল কার্যালয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. গোলাম কিবরিয়া, নিখোঁজ গৃহবধূর দ্বিতীয় স্বামী বেলাল হাওলাদার, দৌলতপুর মহেশ্বরপশা বণিকপাড়া এলাকার মহিউদ্দিন, পলাশ, জুয়েল ও হেলাল শরীফ।

এ অবস্থায় বাদীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ সেপ্টেম্বর আদালত মামলাটির তদন্তভার পিবিআইতে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে নথিপত্র ১৭ সেপ্টেম্বর বুঝে নেয় পিবিআই। এখন এই মামলা তদন্ত করছেন পিবিআই পরিদর্শক আব্দুল মান্নান। ২২ সেপ্টেম্বর রহিমার মেয়ে মরিয়ম আক্তার ওরফে মরিয়ম মান্নান দাবি করেন, তার মায়ের লাশ তিনি পেয়েছেন। তিনি ২৩ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের ফুলপুরে দিনভর অবস্থান নেন এবং ব্যস্ততম সময় অতিবাহিত করেন। একইসঙ্গে সেখানে ১০ সেপ্টেম্বর উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত এক মহিলার লাশকে নিজের মা বলে শনাক্ত করেন। পরে ডিএনএ প্রোফাইল করার জন্য সম্মত হন।

/টিটি/
নৌ শ্রমিকদের কর্মবিরতিতে অচল খুলনা ও নওয়াপাড়া নদী বন্দর
নৌ শ্রমিকদের কর্মবিরতিতে অচল খুলনা ও নওয়াপাড়া নদী বন্দর
সচিবদের যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী
সচিবদের যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী
মেয়র হানিফের জীবন ও কর্ম অনুসরণের আহ্বান রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর
মেয়র হানিফের জীবন ও কর্ম অনুসরণের আহ্বান রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর
চাকরি ছাড়ছেন ডিএনসিসির পাঁচ ভেটেরিনারি কর্মকর্তাই!
চাকরি ছাড়ছেন ডিএনসিসির পাঁচ ভেটেরিনারি কর্মকর্তাই!
সর্বাধিক পঠিত
সরকারি কর্মচারীদের সম্পদের আলাদা হিসাব দিতে হবে না
সরকারি কর্মচারীদের সম্পদের আলাদা হিসাব দিতে হবে না
সুইজারল্যান্ডকে বিশ্বকাপে কখনও হারাতে পারেনি ব্রাজিল
সুইজারল্যান্ডকে বিশ্বকাপে কখনও হারাতে পারেনি ব্রাজিল
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ সোমবার
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ সোমবার
ভারতকে বাদ দিয়ে এ অঞ্চলের দেশগুলোর সঙ্গে বৈঠক চীনের
ভারতকে বাদ দিয়ে এ অঞ্চলের দেশগুলোর সঙ্গে বৈঠক চীনের
বেলজিয়ামকে হারিয়ে দিলো মরক্কো
বেলজিয়ামকে হারিয়ে দিলো মরক্কো