X
শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪
১০ শ্রাবণ ১৪৩১

ফোনে ডেকে নিয়ে ১২ ‘বন্ধু’ মিলে তরুণকে হত্যা

যশোর প্রতিনিধি
২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২২:৪৪আপডেট : ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২২:৪৪

যশোর শহরের শংকরপুর এলাকার আকাশ সরদার (২২) হত্যায় জড়িত তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয় আকাশের বন্ধুবেশী ১২ কিশোর-তরুণ।

পূর্ববিরোধের জের ধরে তাকে ডেকে নিয়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয় বলে জানিয়েছে পিবিআই। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে একজন আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ তথ্য দিয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো শংকরপুর এলাকার আব্দুল খালেকের ছেলে সাগর (২০), ছোট আকাশ (১৭) ও আলতাফ হোসেনের ছেলে অনিক হাসান (২৬)।

পিবিআই যশোরের পুলিশ সুপার রেশমা শারমীন জানান, যশোর শহরের শংকরপুর এলাকার তোতা মিয়ার ছেলে আকাশকে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ফোন করে ডেকে নিয়ে যায় বন্ধু সাব্বির। এরপর রাত ১টার দিকে আকাশকে বটতলা বস্তিতে নিয়ে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় আকাশের মা মামলা করেন। পিবিআই এ ঘটনায় ছায়াতদন্ত শুরু করে। সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে শংকরপুর এলাকা থেকে হত্যায় জড়িত সাগরকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তার দেওয়া তথ্যমতে ছোট আকাশ ও অনিককে ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তাদের দেওয়া তথ্যমতে, শংকরপুর এলাকা থেকে ৪টি চাইনিজ কুড়াল, ১টি হাসুয়া ও ১টি কাটারি কুড়াল উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে সাগরকে বৃহস্পতিবার বিকালে আদালতে সোপর্দ করলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। সে জানিয়েছে, পূর্ববিরোধের জের ধরে তারা আকাশকে হত্যা করে। হত্যা মিশনে অংশ নেয় ১২ জন।

পুলিশ সুপার রেশমা শারমীন আরও জানান, হত্যায় জড়িত অন্যদের গ্রেফতার ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত আলামত উদ্ধারের জন্য গ্রেফতারকৃত ছোট আকাশ ও অনিককে নিয়ে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

/কেএইচটি/
সম্পর্কিত
কোটা আন্দোলন ঘিরে নাশকতা: মুন্সীগঞ্জে ৯২ জনের বিরুদ্ধে মামলা
কোটা আন্দোলনে সহিংসতার অভিযোগে নীলফামারীতে চার মামলায় গ্রেফতার ৬২
রাজনীতি থেকে একটা জেনারেশন মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: আদালতে পার্থ
সর্বশেষ খবর
অনতিবিলম্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে: সাধারণ শিক্ষার্থী মঞ্চ
অনতিবিলম্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে: সাধারণ শিক্ষার্থী মঞ্চ
অলিম্পিকে ৪০ বছরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স যেমন ছিল
অলিম্পিকে ৪০ বছরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স যেমন ছিল
জুমার নামাজ ঘিরে বাড়তি সতর্কতা
জুমার নামাজ ঘিরে বাড়তি সতর্কতা
এক দফা আন্দোলন সফলের আহ্বান ছাত্রদলের
এক দফা আন্দোলন সফলের আহ্বান ছাত্রদলের
সর্বাধিক পঠিত
মারা গেলেন ব্যান্ড তারকা শাফিন আহমেদ
মারা গেলেন ব্যান্ড তারকা শাফিন আহমেদ
বাংলাদেশে সাম্প্রতিক অস্থিরতা প্রসঙ্গে যা বলছে ভারত
বাংলাদেশে সাম্প্রতিক অস্থিরতা প্রসঙ্গে যা বলছে ভারত
যা ঘটেছিল নরসিংদী কারাগারে, যেভাবে পালালেন ৮২৬ বন্দি
যা ঘটেছিল নরসিংদী কারাগারে, যেভাবে পালালেন ৮২৬ বন্দি
এখনও আঁতকে ওঠেন যাত্রাবাড়ী, কাজলা ও শনির আখড়ার বাসিন্দারা
এখনও আঁতকে ওঠেন যাত্রাবাড়ী, কাজলা ও শনির আখড়ার বাসিন্দারা
আ.লীগ নেতারা ফেল করেছেন, অফিসে হামলার সময় চেয়ে চেয়ে দেখলেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
আ.লীগ নেতারা ফেল করেছেন, অফিসে হামলার সময় চেয়ে চেয়ে দেখলেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী