X
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

অতি তীব্র তাপপ্রবাহে পুড়ছে যশোর, জনশূন্য রাস্তাঘাট

যশোর প্রতিনিধি
২০ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:৩০আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:২৩

যশোরে তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পার হয়েছে। অতি তীব্র তাপপ্রবাহে জনশূন্য হয়ে পড়েছে শহরের রাস্তাঘাট। প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না কেউই। যাত্রীর অপেক্ষায় অলস সময় পার করছেন হাতেগোনা যানবাহনের চালকেরা।

শনিবার (২০ এপ্রিল) বিকাল পৌনে তিনটার দিকে যশোর বিমানবন্দর মতিউর রহমান ঘাঁটিস্থ আবহাওয়া অফিস সূত্র জানায়, তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৪২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় বাতাসে আর্দ্রতা ছিল ৩৫ শতাংশ। তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে বলে আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে।

শহরের প্রাণকেন্দ্র দড়াটানা মোড় থেকে শুরু করে সিভিল কোর্টের মোড় হয়ে চাঁচড়া চেকপোস্ট হাইওয়ে পর্যন্ত পুরো আড়াই কিলোমিটার সড়কে শুক্রবার ব্যতীত প্রতিদিনই তীব্র যানজট লেগে থাকে। শহরের প্রবেশপথ এ সড়ক দিয়ে মানুষজন বিভিন্ন অফিস-আদালত, হাসপাতাল ও স্কুল-কলেজে যাতায়াত করে। ফলে মানুষের উপস্থিতি এবং যানবাহনের চলাচল সব থেকে বেশি থাকে সড়কটিতে।

তবে শনিবার সড়কটির চিত্র পুরোটাই ভিন্ন। তীব্র তাপদাহে জনশূন্য হয়ে পড়েছে পুরো সড়কটি। মানুষের উপস্থিতি যেমন কম, তেমনি যানবাহনের উপস্থিতিও ছিল নগণ্য। শুধু মুজিব সড়কই নয়, শহরের বড়বাজারসংলগ্ন দড়াটানা মোড়, বকুলতলা, গরিব শাহ সড়ক, জেল রোডসহ সকল গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো জনশূন্য হয়ে পড়েছে। এ সকল সড়কেও নেই যানবাহনের উপস্থিতি। দু-একটা ইজিবাইক, রিকশা দেখা গেলেও যাত্রীর অপেক্ষায় মোড়ে মোড়ে বসে থাকতে দেখা গেছে চালকদের।

শহরের জিরো পয়েন্টে রাস্তার ওপর রিকশা রেখে জজ কোর্টের প্রাচীরের গায়ে হেলান দিয়ে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন রিকশাচালক জমির হোসেন। তিনি বলেন, ‘বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শহর পুরো ফাঁকা হয়ে গেছে। এত গরমে মানুষ বের হবে কী করে? পেটের দায়ে বের হয়ে যাত্রী পাচ্ছি না। ভাড়ার রিকশা চালাই, মহাজনকে দেওয়ার মতো টাকা এখনও ওঠেনি। নিজের জন্যে তো দূরের কথা।’

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) যশোরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয় ৪১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তার আগের দিন বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) যশোরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ১৭ এপ্রিল ছিল ৪০ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং ১৬ এপ্রিল তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

জানতে চাইলে যশোর মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষক ডা. আলাউদ্দিন আল মামুন বলেন, ‘এই সময়ে ডায়রিয়া, ইনফ্লুয়েঞ্জা, সর্দি-কাশি, পক্স, হিটস্ট্রোক, স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক ইত্যাদি হতে পারে। প্রচণ্ড গরম থেকে মুক্তি পেতে কেউ যেন ডিপ ফ্রিজের পানি পান না করেন। এ সময় প্রচুর পানি, ডাবের পানি, দেশি ফলমূল খাওয়া প্রয়োজন।’ দিনমজুর বিশেষ করে কৃষকরা যেন বেলা ১১টার মধ্যে এবং বিকালে তাপমাত্রা কমলে কাজ করেন সেই পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা।

/কেএইচটি/
সম্পর্কিত
সর্বোচ্চ বৃষ্টি কুতুবদিয়াভারী বৃষ্টিতে বাড়ছে নদীর পানি
বনের ভেতর রিসোর্ট তলিয়ে গেছে, ঘরে ও আশ্রয়কেন্দ্রে ঘুমহীন রাত
বন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেতঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’ দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত
সর্বশেষ খবর
বৃষ্টির পানিতে পড়ে থাকা বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে শ্রমিকের মৃত্যু
বৃষ্টির পানিতে পড়ে থাকা বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে শ্রমিকের মৃত্যু
ঈদে ট্রেনের আগাম টিকিট মিলবে শুধুই অনলাইনে, বিক্রি শুরু ২ জুন
ঈদে ট্রেনের আগাম টিকিট মিলবে শুধুই অনলাইনে, বিক্রি শুরু ২ জুন
এবার ঈদযাত্রায় চলবে ২০ বিশেষ ট্রেন
এবার ঈদযাত্রায় চলবে ২০ বিশেষ ট্রেন
ক্ষতচিহ্নিত হাড়মাংস অথবা নিছকই আত্মজনের কথা
ক্ষতচিহ্নিত হাড়মাংস অথবা নিছকই আত্মজনের কথা
সর্বাধিক পঠিত
সর্বোচ্চ উপকার পেতে কাঠবাদাম কীভাবে খাবেন?
সর্বোচ্চ উপকার পেতে কাঠবাদাম কীভাবে খাবেন?
বৃষ্টি থাকবে মঙ্গলবারও  
বৃষ্টি থাকবে মঙ্গলবারও  
বৃষ্টিতে বাইরে বের হলে ছাতা ছাড়াও এই ৫ জিনিস রাখুন ব্যাগে
বৃষ্টিতে বাইরে বের হলে ছাতা ছাড়াও এই ৫ জিনিস রাখুন ব্যাগে
ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাজউকের উচ্ছেদ অভিযান
ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাজউকের উচ্ছেদ অভিযান
রাবিতে খাবারে সিগারেট: আন্দোলন-ভাঙচুরে জড়িতদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত
রাবিতে খাবারে সিগারেট: আন্দোলন-ভাঙচুরে জড়িতদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত