সারাদেশে বিজয় দিবস উদযাপন

Send
বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১০:৫০, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:০৪, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯

বিজয় দিবসে খাগড়াছড়ি স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হচ্ছে

সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিজয় দিবস উদযাপন করা হচ্ছে। বিভিন্ন জেলা থেকে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর

ময়মনসিংহ: বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে ময়মনসিংহের কেন্দ্রিয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

সোমবার (১৬ ডিসেম্বর) সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে (৬টা ৩৭ মিনিটে) ৩১ বার তপধ্বণি করা হয়। পরে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পস্তবক দিয়ে শ্রদ্ধা জানান সমাজ কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মো. শরীফ আহমেদ এমপি। এরপর একে একে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, ময়মনসংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র ইকরামুল হক টিটু, বিভাগীয় কমিশনার খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান, রেঞ্জ ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নেতারা।

এছাড়া বিজয় দিবস উপলক্ষে ময়মনসিংহ প্রেসক্লাব, প্রশাসন এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামজিক সংগঠন দিনব্যাপি আলোচনা সভা ও চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতাসহ নানা অনুষ্ঠনের আয়োজন করেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার মধ্যে দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৪৮ তম বিজয় দিবস পালন করা হচ্ছে। বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে শহরের ফারুকী পার্কের পাশে ৩১ বার তোপধ্বনীর মাধ্যমে দিবসটির শুভ সূচনা হয়। পরে শহীদদের বেদীতে জেলা প্রশাসনের পক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাপ্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন ও পুলিশের পক্ষে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন দলের সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকার। এসময় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের পাশপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

ভোলায় স্মৃতিসৌধে পুস্পার্ঘ অর্পণ করা হচ্ছে

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন বলেন, ‘এগিয়ে যাওয়ার বাংলাদেশ। সমৃদ্ধির বাংলাদেশকে আর কেউ দমিয়ে রাখতে পারবে না। নতুন প্রজন্ম চায় উন্নত বাংলাদেশ সেই লক্ষ্যেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান জানান, দেশকে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাসবাদ মুক্ত রাখবো। উন্নত বাংলাদেশের নতুন প্রজন্ম যেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বেড়ে উঠে সেই প্রচেষ্টা গ্রহণ করা হবে।

বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নিয়াজ মুহাম্মদ স্টেডিয়ামে বর্ণাঢ্য কুচকাওয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ডিসপ্লে পদর্শন করে।

খাগড়াছড়ি: নানা আয়োজনে খাগড়াছড়িতে পালিত হচ্ছে মহান বিজয় দিবস। সূর্যদ্বয়ের সঙ্গে সঙ্গে ৩১ বার তোপধ্বানির মধ্য দিয়ে দিবসটির সূচনা হয়। পরে শহরের মাইনী ভ্যালী সংলগ্ন স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন খাগড়াছড়ি জেলার ভারপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও জেলা প্রশাসক প্রতাব চন্দ্র বিশ্বাস। এরপর পুস্পস্তবক অর্পণ করেন উপজাতীয় শরণার্থী বিষয়ক টাক্সফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের জেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার আহমারউজ্জামন ও খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়ন। এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে খাগড়াছড়ি স্টোডিয়ামে কুজকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিজয় দিবস উপলক্ষে শিশু কিশোররা শারীরিক কসরত প্রদর্শন করছে

মানিকগঞ্জ: যথাযথ মর্যাদায় মানিকগঞ্জে বিজয় দিবস পালিত হচ্ছে। ভোর সাতটায় মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিফলকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ সংগঠন, বিএনপির দু গ্রুপ, মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাব ও বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতিসহ সর্বস্তরের মানুষ।

জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস এর নেতৃত্বে জেলা প্রশাসন, পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীমের নেতৃত্বে পুলিশ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার তোবারক হোসেন লুডু শহীদ স্মৃতি স্তম্ভে পুস্প স্তবক অর্পণ করেন। এরপর জেলা শহরে বের হয় বিজয় র‌্যালি। র‌্যালিটিতে নানা শ্রেণি ও পেশার মানুষ অংশ নেয়।

এছাড়াও চট্টগ্রাম, নীলফামারী, পাবনা, নারায়ণগঞ্জ, বরিশাল, ভোলা, শেরপুর, টাঙ্গাইল, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে তোপধ্বনি করাসহ শহীদদের বেদীতে পুস্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করাসহ  কোথাও কোথাও দিবসটি উপলক্ষে বিজয় মিছিল ও র‌্যালি বের করা হয়। হিলিতেও যথাযোগ্য মযাদায় দিবসটি পালন করা হয়।

 

/জেবি/

লাইভ

টপ