ঘুষের ৯৩ লাখ টাকাসহ সার্ভেয়ার আটক

Send
কক্সবাজার প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২০:০০, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:১৪, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০

র‍্যাবের অভিযানের জব্দ করা ঘুষের টাকাকক্সবাজারে পৃথক অভিযান চালিয়ে ঘুষের ৯৩ লাখ টাকা উদ্ধারসহ মোহাম্মদ ওয়াসিম (৪৫) নামের এক সার্ভেয়ারকে আটক করেছেন র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব-১৫) সদস্যরা। বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে কক্সবাজার শহরে অভিযান চালিয়ে নিজ বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। আটকৃত সার্ভেয়ার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ভূমি অধিগ্রহণ শাখায় কর্মরত। এসময় নগদ টাকা ছাড়াও বিভিন্ন ব্যাংকের চেক ও নথিপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। র‍্যাবের অভিযানের খবর ছড়িয়ে পড়লে অপর দুই সার্ভেয়ার ফরিদ ও ফেরদৌস পালিয়ে যায়।আটক সার্ভেয়ার

র‍্যাব-১৫ রামু ব্যাটালিয়নের কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মেহেদী হাসান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার বিকালে কক্সবাজার শহরের বাহারছড়া ও তারাবনিয়ারছড়া এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় শহরের তারাবনিয়ারছড়ায় বসবাসরত মোহাম্মদ ওয়াসিমের বাসা থেকে নগদ ছয় লাখ, বাহারছড়া এলাকায় সার্ভেয়ার মোহাম্মদ ফরিদের বাসা থেকে নগদ ৬০ লাখ টাকা ও মোহাম্মদ ফেরদৌসের বাসা থেকে ২৭ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। এঘটনায় সার্ভেয়ার মোহাম্মদ ওয়াসিমকে আটক করা সম্ভব হলেও অপর দুই সার্ভেয়ার ফরিদ ও ফেরদৌস র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। এরা প্রত্যেকেই কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ভূমি অধিগ্রহণ শাখায় কর্মরত।

মেজর মেহেদী হাসান আরও বলেন, ‘কক্সবাজারে মহেশখালী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ সরকারের বেশ কয়েকটি মেগা-প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। এসব উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য সরকারের ভূমি অধিগ্রহণ কার্যক্রমও চলমান। এ ভূমি অধিগ্রহণকে ঘিরে সংঘবদ্ধ একটি চক্র জমির মালিকদের নানাভাবে জিন্মি করে বড় অংকের কমিশন বাণিজ্য করে আসছে। এই পরিস্থিতিতে ভুক্তভোগী বেশ কয়েকজন জমির মালিক র‍্যাবসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এসব অভিযোগের ভিত্তিতে র‍্যাবের একটি দল বুধবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানে ঘুষের ৯৩ লাখের বেশি টাকাসহ উক্ত সার্ভেয়ারকে আটক করা হয়। অভিযানের খবরে অপর দুই জন সার্ভেয়ার পালিয়ে যায়। এসময় বিভিন্ন ব্যাংকের অনুকূলে বেশ কয়েকটি চেক ও নথিপত্রও উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে কক্সবাজার সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’

 

/এফএস/

লাইভ

টপ