নবায়নযোগ্য ও টেকসই শক্তি উৎপাদনে গুরুত্ব দিতে হবে: ইপিআরসি চেয়ারম্যান

Send
শাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:২৩, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:২৫, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০




 সরকারের ভিশন অনুযায়ী ২০২১ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিলের (ইপিআরসি) চেয়ারম্যান সুবীর কিশোর চৌধুরী। তিনি বলেন, বিভিন্ন ধরণের প্রাকৃতিক উপাদান থেকে আমাদের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়। যা এক সময় শেষ হয়ে যেতে পারে। এ জন্য টারবাইনের মাধ্যমে উইন্ড এনার্জির উৎপাদনে আমরা কাজ করছি। পাশাপাশি বায়োগ্যাস প্ল্যান্টকে আরও উন্নত করতেও কাজ চলছে। তবে সবকিছু মিলিয়ে আমাদেরকে নবায়নযোগ্য ও টেকসই শক্তি উৎপাদনে গুরুত্ব দিতে হবে। তাহলে আমরা বিদ্যুতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারবো।

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মিনি অডিটোরিয়ামে আয়োজিত ‘বাংলাদেশের নবায়নযোগ্য শক্তি; সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক সেমিনারে এসব কথা বলেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুবীর কিশোর চৌধুরী আরও বলেন, স্বাধীনতার পর দেশে বিদ্যুৎ খাতে অভাবনীয় পরিবর্তন ঘটেছে। বর্তমানে দেশের ৯৬ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সেবার আওতায় রয়েছে। আশা করি ২০২১ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে।

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আগামীতে আমাদেরকে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। তার মধ্যে বিদ্যুৎ খাত অন্যতম। এজন্য আমাদেরকে বিভিন্ন পরিকল্পনার মাধ্যমে নবায়নযোগ্য শক্তি উৎপাদনে কাজ করতে হবে।

সেমিনারে কি-নোট স্পিকার হিসেবে নবায়নযোগ্য শক্তি উৎপাদনের বর্তমান অবস্থা, সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড পলিমার সায়েন্স বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. আবু ইউসুফ।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম, অ্যাপ্লায়েড সায়েন্সেস অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মুশতাক আহমেদ ও সেন্টার অব এক্সিলেন্সের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আখতারুল ইসলাম।

সেমিনারে মূলপ্রবন্ধের ওপর বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সিইপি বিভাগের অধ্যাপক ইঞ্জি. ড. সালমা আক্তার, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. ইফতি খায়রুল আমিন, রাজশাহী বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. ফারুক হোসেন। এছাড়া সেমিনারে মডারেটর হিসেবে ছিলেন সিইপি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মস্তাবুর রহমান।

উল্লেখ্য, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিলের সহযোগিতায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের কেমিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড পলিমার সায়েন্স (সিইপি) বিভাগের উদ্যোগে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

 

/টিটি/

লাইভ

টপ