আ. লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীর বৈঠকে হামলার অভিযোগ

Send
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
প্রকাশিত : ০৯:৫৫, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৪, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনচট্টগ্রাম নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন সরাইপাড়া ওয়ার্ডের ঝর্ণাপাড়া এলাকায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল আমিনের বৈঠকে প্রতিপক্ষের হামলা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের অন্তত ৯ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

নুরুল আমিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিকালে আমার বাসার নিচে কর্মী সমর্থকদের নিয়ে একটা ঘরোয়া বৈঠক করছিলাম। এসময় বর্তমান কাউন্সিলর সাবের আহমদের ছেলের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক হঠাৎ আমাদের বৈঠকে হামলা চালায়। এতে আমাদের ৫ কর্মী সমর্থক আহত হয়েছেন।’

তিনি আরও বলেন,‘ঘটনার পরপরই আমি পুলিশকে জানিয়েছি। এ ঘটনায় মামলা করবো। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করছি।’

অভিযোগ অস্বীকার করে বর্তমান কাউন্সিলর সাবের আহমেদ বলেন, ‘আমার ছেলে ছাত্রলীগের রাজনীতি করে। শুক্রবার আগ্রাবাদে তাদের মিটিং ছিল। মিটিং শেষ করে তারা ঝর্ণাপাড়া এলাকায় ট্রাক থেকে নেমে চা-নাস্তা করার সময় নুরুল আমিনের ছেলেরা ওই দিক দিয়ে যাওয়ার সময় তাদেরকে টার্গেট করে উত্তেজিত স্লোগান দিতে থাকে। এসময় নুরুল আমিনও সেখানে ছিলেন। এ নিয়ে তাকে বিচার দিতে গেলে তার ছেলেরা এদের ওপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষ হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে। পরে মারামারি হয়। এতে আমাদের চার কর্মী সমর্থক আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আমরা মামলা করবো।’

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (পশ্চিম) ফারুকুল হক বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু তার আগেই দুই পক্ষ ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এ ঘটনায় আমরা তাদের মামলা করতে বলেছি। মামলা করার পর ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে।

সরাইপাড়া ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর সাবের আহমেদ এবার আওয়ামী লীগের সমর্থন পাননি। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মহিউদ্দিন সোহেল হত্যা মামলার আসামি হয়ে বিতর্কিত হয়ে পড়ায় দল এবার তাকে সমর্থন দেয়নি। তার পরিবর্তে এবার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক নুরুল আমিনকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়। কিন্তু সাবের আহমেদ বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে তিনি নির্বাচন করছেন।

 

 

 

 

/এসটি/

লাইভ

টপ