‘হারিয়ে যাওয়ার’ পাঁচ বছর পর ভারত থেকে ফিরলেন আমেনা

Send
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:১২, মার্চ ১১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:১৭, মার্চ ১১, ২০২০

প্রায় পাঁচ বছর পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য থেকে ফিরে এসেছেন মানসিক প্রতিবন্ধী নারী আমেনা বেগম (৫৫)। তিনি ঢাকার তেজগাঁও রেলগেট এলাকার মৌলভী মোখলেছুর রহমানের স্ত্রী।

ভারতের ত্রিপুরার আগরতলা বাংলাদেশ হাই কমিশনের সহযোগিতায় বুধবার (১১ মার্চ) দেশে ফেরানো হয় তাকে। স্থলবন্দরের নো-ম্যানস ল্যান্ডে পৌঁছানোর পরপরই আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। মাকে পাঁচ বছর পর ফিরে পেয়ে আপ্লুত হয়ে পড়েন মেয়ে। মেয়েকে দেখেই জড়িয়ে ধরেন মা।

এসময় আগরতলার বাংলাদেশ হাই কমিশনের কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন, আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিনা আক্তার রেইনা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে তারা আমেনা বেগমকে স্বজনদের কাছে তুলে দিয়েছেন।

পরিবার সূত্রে এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জানা গেছে, ২০১৫ সালের আগস্ট মাসে ঢাকা থেকে হারিয়ে যান মানসিক প্রতিবন্ধী আমেনা বেগম। তাকে উদ্ধার করে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বিশালঘর থানা পুলিশ। ২০১৫ সালের ২৪ আগস্ট সেখানকার নরসিংগর মডার্ন সাইকিয়াট্রিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানে চিকিৎসা পেয়ে ধীরে ধীরে সুস্থ হতে থাকেন। এক পর্যায়ে নিজের নাম ঠিকানা বলতে শুরু করেন। পুরোপুরি সুস্থ হওয়ার পর দুই দেশের সরকারের সহযোগিতায় আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য থেকে দেশে ফিরে আসেন আমেনা বেগম।

আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. আব্দুল হান্নান জানান, গত বছর ওই হাসপাতাল থেকেই বাংলাদেশের অপর এক বাকপ্রতিবন্ধী নিখোঁজ নারীকে দেশে আনা হয়। তখন ওই হাসপাতালে আসা সমাজকর্মী খায়রুল আলম আমেনা বেগমের সঙ্গে কথা বলে পরিচয় নিশ্চিত হন। এরপর বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের অবহিত করেন।

আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিনা আক্তার রেইনা জানান, কোনও দেশের নাগরিক হারিয়ে গেলে বা প্রতিবেশী দেশে পাওয়া গেলে তাকে ফিরিয়ে আনার জন্যে রাষ্ট্রের কিছু নিয়ম আছে। তা অনুসরণ করে সরকারিভাবে তাকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

 

 

 

/এএইচ/

লাইভ

টপ