ভাণ্ডারিয়ায় জ্বর-সর্দিতে স্কুলছাত্রের মৃত্যু, কোয়ারেন্টিনে পুরো গ্রাম

Send
পিরোজপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:৫০, মার্চ ৩১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:০৬, মার্চ ৩১, ২০২০




পিরোজপুরপিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার দক্ষিণ ধাওয়া গ্রামে মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) দুপুরে সবুজ (১৮) নামে এক স্কুলছাত্র মারা গেছে। পরিবারের সদস্যরা জানান, সবুজ হাওলাদার চার দিন ধরে জ্বর-সর্দি-কাশি ও গলা ব্যথায় ভুগছিল। সে ধাওয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ-পূর্ব ধাওয়া গ্রামের আ. আজিজ হাওলাদারের ছেলে। সবুজ এ বছর দক্ষিণ ধাওয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে।

এদিকে এই মৃত্যুর ঘটনায় উপজেলা প্রশাসন সবুজ ও তার আশপাশের বাড়ির লোকদের লকডাউন এবং ওই গ্রামকে কোয়ারেন্টিন ঘোষণা করেছে।

পরিবারের বরাত দিয়ে ধাওয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান টুলু জানান, সবুজ চারদিন ধরে জ্বর-সর্দি-কাশি ও গলা ব্যথায় ভুগছিল। সকালে মোবাইল ফোনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার পরিবারের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলা হয়। তবে তারা ছেলেটিকে বাড়িতে রেখেই চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

ভাণ্ডারিয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম বলেন, সবুজের মৃত্যু সংবাদ পেয়ে আমি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাজমুল আলম ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এইচ এম জহিরুল ইসলামসহ উপজেলা প্রশাসনের একটি দল সবুজের বাড়িতে যাই।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাজমুল আলম বলেন, সবুজের বাড়ি ও তার আশপাশের বাড়ির লোকদের লকডাউন করে ওই গ্রামকে কোয়ারেন্টিন ঘোষণা করা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এইচ এম জহিরুল ইসলাম জানান, সবুজ করোনা সংক্রমণে মারা গেছে কিনা জানতে নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে।

ভাণ্ডারিয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম জানান, লকডাউন এলাকার ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকা মানুষের খাবারের দায়িত্ব তিনি নিয়েছেন।

/টিটি/এমওএফ/

লাইভ

টপ