ছেলের অত্যাচারে বাড়ি ছেড়ে অন্যের জমির ঝুপড়ি ঘরে বাবা!

Send
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:০০, জুন ০৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৪০, জুন ০৫, ২০২০

অন্যের জমিতে ঝুপড়ি ঘরে আশ্রয় নিয়েছেন আবজাল গাজী



বৃদ্ধ বাবাকে মেরে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে ছেলে রফিক গাজী। এক সপ্তাহ ধরে সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধ বাবা আবজাল গাজী অন্যের জমিতে ছোট্ট একটি ঝুপড়িতে থাকছেন। খাওয়া-দাওয়া চলছে প্রতিবেশীর বাড়িতে। ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার ৫নং শিমলা-রোকনপুর ইউনিয়নের বড়শিমলা গ্রামে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৪ জুন) আবজাল গাজী কালীগঞ্জ থানায় ছেলের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ (জিডি) করেছেন।

জানা গেছে, আবজাল গাজীর তিন ছেলে ও এক মেয়ে। পাঁচ বছর আগে ছেলেরা তার স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পত্তি লিখে নেয়। মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন কালীগঞ্জ উপজেলার বারোবাজার এলাকায়। মেয়ের বাড়িতেই তার স্ত্রী থাকেন। তিন ছেলে বিদেশে থাকতেন। মেজো ছেলে রবিউল ইসলাম গাজী মারা গেছেন। ছোট ছেলে বাবুল গাজী এখনও বিদেশে আছেন। বড় ছেলে রফিক গাজী প্রায় আট বছর আগে দেশে ফিরেছেন।

আবজাল গাজী বলেন, ‘বড় ছেলে আমাকে খেতে দেয় না, কিছু বললেই শুধু মারে। প্রায়ই আমাকে ধরে মারে। এক সপ্তাহ আগেও সে আমার গালে জোরে চড় মারে। এরপর বাধ্য হয়ে প্রতিবেশীদের পরামর্শে বাড়ি ছেড়ে গ্রামের সম্পর্কে এক বোনের জমিতে একটি চালা তৈরি করে সেখানেই থাকছি। খাওয়া-নাওয়া সেখানেই হচ্ছে।’

ছেলে রফিক গাজীর দাবি, ‘বাবা আমার কথা শোনে না। সে তার মতো করে চলতে চায়। মতের অমিল হওয়ায় সম্প্রতি বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন। তবে জমি লিখে নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, সব জমি অন্যের কাছ থেকে কেনা।’ 

রফিক গাজী
প্রতিবেশী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হযরত আলী বলেন, রফিক চরম অভদ্র এবং অসামাজিক মানুষ। বৃদ্ধ বাবাকে সে প্রায়ই নির্যাতন করে। দিনের পর দিন খেতে দেয় না। এ নিয়ে সামাজিকভাবে অনেকবারই সালিশ হয়েছে। কিন্তু কোনও সমাধান হয়নি। সর্বশেষ ঘটনায় তার সহযোগিতায় আবজাল কালীগঞ্জ থানায় একটি জিডি করেছেন।
কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান মিয়া বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
এ বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার সুবর্ণা রাণী সাহা বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

/এসটি/এমওএফ/

লাইভ

টপ