গাজীপুরে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর স্ত্রীর দাফন সম্পন্ন

Send
গাজীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:১৯, জুন ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩২, জুন ২৯, ২০২০

 গাজীপুরে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রীর স্ত্রী লায়লা আরজুমান্দ বানুর জানাজা।

 

 

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী ও গাজীপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হকের স্ত্রী লায়লা আরজুমান্দ বানু করোনায় (৭১) আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন)। সোমবার সকাল পৌনে ৮ টার দিকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তিনি স্বামী, এক ছেলে ও দুই মেয়ে এবং নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

জোহরের নামাজের পর গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কেন্দ্রীয় কবরস্থান সংলগ্ন দারুস সালাম মাদ্রাসা মাঠে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে তাকে ওই কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজায় মরহুমের স্বামী মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ও গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেল, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ও গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম এবং আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

লায়লা আরজুমান্দ বানু

মন্ত্রীর ছেলে এটিএম মাজহারুল হক তুষার তার মায়ের জানাজার নামাজে ইমামতি করেন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ জানান, কয়েকদিন আগে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি ও তার  স্ত্রী লায়লা আরজুমান্দ বানুর (৭১) দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের উপসর্গ দেখা দেয়। নমুনা পরীক্ষায় গত ১২ জুন তাদের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। পরদিন (১৩ জুন) মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও তার স্ত্রী লায়লা আরজুমান্দ বানু ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি হন। হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরে এলেও তার স্ত্রী সুস্থ না হওয়ায় সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে রবিবার তাকে লাইফ সাপোর্ট (কৃত্রিম শ্বাস প্রশ্বাস) দেওয়া হয়। সিএমএইচ-এ চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে লায়লা আরজুমান্দ বানু মারা যান।

লায়লা আরজুমান্দ বানু ১৯৪৯ সালের ৬ জানুয়ারি গাজীপুরের এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম শেখ মোবারক জান এবং মায়ের নাম লাল বানু। তিনি ১৯৭৪ সালের ১৬ এপ্রিল আ ক ম মোজাম্মেল হকের সঙ্গে তিনি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও তার স্ত্রী লায়লা আরজুমান্দ বানু।

এদিকে, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি’র স্ত্রীর মৃত্যুতে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গিয়াসউদ্দিন মিয়া, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.এমএ মান্নান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি, মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, সিমিন হোসেন রিমি এমপি, বেগম শামসুন্নাহার ভুইয়া এমপি, গাজীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আমানত হোসেন খান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রীনা পারভীন ও গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলামসহ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

 

/টিএন/

লাইভ

টপ
X