বন্ধুকে শ্বাসরোধ করে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা, ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

Send
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:৫১, অক্টোবর ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৪, অক্টোবর ২৯, ২০২০

ঠাকুরগাঁওয়ে রেজাউল ইসলাম (২০) নামের এক তরুণকে অপহরণের পর শ্বাসরোধ ও পুড়িয়ে মারার অভিযোগে তার তিন বন্ধুকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আদালত দণ্ডপ্রাপ্তদের দুই জনকে পৃথক ভাবে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং অপরজনকে তিন হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) বিকালে এ রায় দেন ঠাকুরগাঁও অতিরিক্ত দায়রা জজ বি.এম. তারিকুল কবীর।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সুইট আলম নওগাঁ জেলার বারিল্লা উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত আকবর আলী সর্দারের ছেলে, মেকদাদ বিন মাহতাব ওরফে পলাশ দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার দক্ষীণ পলাশবাড়ি গ্রামের মাহতাব উদ্দিন শাহর ছেলে, হাসান জামিল ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গি উপজেলার ভানোর সরকারপাড়া গ্রামের বজির উদ্দিনের ছেলে। এদের মধ্যে হাসান জামিল হাইকোর্টের ভুয়া জামিন দেখিয়ে ছাড়া পেয়ে পলাতক রয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, দণ্ডপ্রাপ্ত সুইট আলম, মেকদাদ বিন মাহতাব ওরফে পলাশ ২০১৫ সালের মার্চের ৪ তারিখে দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দরের বগুড়াতলি বাজার হতে তাদের বন্ধু রেজাউল ইসলামকে মোটরসাইকেলে করে অপহরণ করেন। ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গি উপজেলার ভানোর ইউনিয়নের আরেক বন্ধু হাসান জামিলের বাসায় রেজাউলকে নিয়ে আটকে রাখা হয়। ৫ মার্চ তারা রেজাউলের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি কেড়ে নেয় ও তাকে সরকারপাড়া গ্রামের সলেমানের বাঁশঝাড়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে এবং লাশ পুড়িয়ে বিকৃত করে ওই বাঁশঝাড়েই ফেলে রাখে।

৬ মার্চ স্থানীয়রা বালিয়াডাঙ্গি পুলিশে খবর দিলে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। লাশের চেহারা বোঝা না যাওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতানামা মামলা দায়ের করে। অপরদিকে রেজাউলের পরিবারের লোকজন তাদের সন্তানকে দুই দিন ধরে না পেয়ে দিনাজপুর র‌্যাব-১৩ কে বিষয়টি অবগত করে। র‌্যাব-১৩ এর সদস্যরা মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে রেজাউলের খুনের বিষয়টি উদঘাটন করে।

 

/টিটি/

লাইভ

টপ