X
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪
৬ বৈশাখ ১৪৩১

৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা: অভিযুক্ত কিশোর চাচাতো ভাইয়ের স্বীকারোক্তি

বগুড়া প্রতিনিধি
২৫ জানুয়ারি ২০২৪, ০৭:৪৪আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২৪, ০৭:৫৭

বগুড়ার শিবগঞ্জে প্লে শ্রেণির এক শিশু শিক্ষার্থীকে হত্যারহস্য উন্মোচিত হয়েছে। ধর্ষণের পর জানাজানির ভয়ে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে আপন চাচাতো ভাই (১৫)। গুম করতে লাশ বস্তায় ভরে ঘরের কোনে লুকিয়ে রাখে। এ কাজে তার বাবা-মা সহযোগিতা করেন। ওই কিশোর মঙ্গলবার বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল মোমিনের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবাবন্দি দিয়েছে।

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) বগুড়ার শিবগঞ্জ থানার ওসি আবদুর রউফ এ তথ্য দিয়েছেন।

পুলিশ জানায়, নিহত শিশুটি স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্টেন স্কুলে প্লে শ্রেণিতে পড়তো। গত শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) জুমার নামাজের পর বাড়ির সামনে থেকে শিশুটি নিখোঁজ হয়। বিভিন্ন স্থান ও গ্রামের তিনটি পুকুরে ডুবুরি নামিয়েও তার সন্ধান মেলেনি। পুলিশ তিন দিন পর সোমবার বিকালে বড় চাচার ঘর থেকে শিশুটির বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে।

এ সময় অভিযুক্ত কিশোর ও তার বাবা-মাকেও গ্রেফতার করা হয়। রাতে ভুক্তভোগী শিশুটির বাবা ওই কিশোর এবং তার বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে হত্যা ও লাশ গুমের মামলা করেন। মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) ওই কিশোর আদালতে ১৬৪ ধারা স্বীকারোক্তি দেয়।

পুলিশ আরও জানায়, গ্রেফতার ওই কিশোর স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। জবানবন্দিতে সে বলেছে, গত শুক্রবার দুপুরে চাচাতো বোনকে টেলিভিশন দেখার কথা বলে নিজে ঘরে নিয়ে যায়। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে সে তাকে ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটি কান্নাকাটি করে ও তার হাতে কামড় দেয়। ধর্ষণের ঘটনা জানাজানির ভয়ে ওই কিশোর গলাটিপে ধরলে শিশুটি মারা যায়। 

এরপর ওই কিশোর মরদেহটি গুম করার উদ্দেশ্যে লাশ বস্তায় তুলে ঘরে কোনে রেখে দেয়। এদিকে পুলিশ নিখোঁজ শিশুটিকে খোঁজাখুঁজি শুরু করলে ওই কিশোর ভয় পায়। তখন সে তার চাচাতো বোনকে ধর্ষণের পর হত্যার কথা বাবা-মার কাছে স্বীকার করে। তখন তারা লাশটি গুম করার প্রস্তুতি নেয়। কিন্তু এর আগেই পুলিশ লাশ উদ্ধার করলে ওই পরিকল্পনা ভেস্তে যায়।

আদালতের নির্দেশে ওই কিশোরের বাবা ও মাকে বগুড়া জেল হাজতে এবং তাদের কিশোর ছেলেকে যশোরের পুলেরহাটে শিশু-কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে শিশুটির মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে দ্রুত আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হবে। মামলার বাদী হত্যার শিকার ওই শিশুটির বাবা বলেন, ভাতিজা তার ছোট মেয়েকে এভাবে ধর্ষণ ও হত্যা করবে তা তিনি স্বপ্নেও ভাবেননি। লাশ গুম করার জন্য বড় ভাই ও ভাবী সহযোগিতা করেছে। তার এ কষ্ট কখনও পূরণ হবে না।

তিনি আসামিদের দ্রুত বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন। এতে তার মেয়ের আত্মার শান্তি পাবে বলেও মনে করেন তিনি।

/ইউএস/
সম্পর্কিত
ড্যান্ডি সেবন থেকে পথশিশুদের বাঁচাবে কারা?
পোশাকশ্রমিককে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ
ওঠানামা করছে মুরগির দাম, বাড়ছে সবজির
সর্বশেষ খবর
ড্যান্ডি সেবন থেকে পথশিশুদের বাঁচাবে কারা?
ড্যান্ডি সেবন থেকে পথশিশুদের বাঁচাবে কারা?
লখনউর কাছে হারলো চেন্নাই
লখনউর কাছে হারলো চেন্নাই
পশ্চিমবঙ্গে প্রথম দফার ভোট শেষেই বিজয় মিছিল
পশ্চিমবঙ্গে প্রথম দফার ভোট শেষেই বিজয় মিছিল
পোশাকশ্রমিককে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ
পোশাকশ্রমিককে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ
সর্বাধিক পঠিত
আমানত এখন ব্যাংকমুখী
আমানত এখন ব্যাংকমুখী
বাড়ছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি, নতুন যোগ হচ্ছে স্বাধীনতা দিবসের ভাতা
বাড়ছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি, নতুন যোগ হচ্ছে স্বাধীনতা দিবসের ভাতা
ইরান ও ইসরায়েলের বক্তব্য অযৌক্তিক: এরদোয়ান
ইস্পাহানে হামলাইরান ও ইসরায়েলের বক্তব্য অযৌক্তিক: এরদোয়ান
উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীকে অপহরণের ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন প্রতিমন্ত্রী
উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীকে অপহরণের ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন প্রতিমন্ত্রী
ইরানে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল!
ইরানে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল!