X
শনিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার পর জানা গেলো অর্থ আত্মসাৎ হয়নি

আপডেট : ১৯ নভেম্বর ২০২১, ১৬:৫৭

প্রকল্প পরিচালকসহ দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা শুরুর পর জানা গেলো ‘ঢাকা শহর সন্নিকটবর্তী এলাকায় ১০টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পে’ অর্থ আত্মসাৎ হয়নি। অবশ্য শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আগেই দুর্নীতি হয়নি বলে জাতীয় সংসদে বক্তব্য দিয়েছিলেন। কিন্তু মন্ত্রণালয়ের ‘বিতর্কিত’ একটি তদন্ত প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষা ক্যাডারের এই দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

আদালতে দেওয়া পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)-এর তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রকাশ্যে ও গোপন তদন্তে দালিলিক সাক্ষ্য-প্রমাণ না পাওয়ায় ৪২০, ৪০৬, ৪৬৭, ৪৬৮, ৫০৬, ১০৯ ধারার অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়নি। আদালতে জমা দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদন বাংলা ট্রিবিউনের হাতে রয়েছে।

পিবিআইর প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, সংশোধিত উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা (আরডিপিপি) আগেই স্থগিত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রকল্প স্টিয়ারিং কমিটি।  ২০২০ সালের ১০ মার্চ আরডিপিপি স্থগিত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

তবে ২০২০ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর স্বাক্ষরিত ও ২৩ সেপ্টেম্বর জমা দেওয়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘বিতর্কিত’ তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল—আর্থিক দুর্নীতি হয়নি, তবে দুর্নীতির সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না। প্রকল্প পরিচালক এবং সহকারী পরিচালক দায় এড়াতে পারেন না।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পটিতে ‘৩০০ কোটি টাকা লোপাটের আয়োজন করা হয়েছে’ মর্মে একটি সংবাদপত্রে প্রতিবেদন প্রকাশের পর তদন্ত কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের ওই সময়ের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক) মো. মমিনুর রশিদ আমিনকে সভাপতি করে গঠিত তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। ওই কমিটি প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পর প্রতিবেদনের সত্যতা নিয়ে বিতর্ক দেখা দেয়। তবে বিষয়টি পরিষ্কার করতে চলতি বছরের ৩০ জুন জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন,  ‘১০ স্কুল প্রকল্পে দুর্নীতি হয়নি।’

শিক্ষামন্ত্রীর কথায় গুরুত্ব না দিয়ে বিতর্কিত তদন্ত প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৯ আগস্ট প্রকল্প পরিচালক ড. আমিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ জারি করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের সহকারী পরিচালক দিল আফরোজ বিনতে অছিরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ জারি করা হয় গত ২ আগস্ট।

অপরদিকে প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ উত্থাপনকারী এবং অনুমতি না নিয়ে দুর্নীতি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আদালতে মামলা দায়েরকারী প্রকল্পের গবেষণা কর্মকর্তা প্রভাষক আব্দুর রাজ্জাকের ওএসডি প্রত্যাহার করে ‘সারপ্রাইজ পোস্টিং’ দেওয়া হয়েছে রাজধানীর একটি কলেজে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১০টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপনের খাস জমি অধিগ্রহণ করায় একটি বিশেষ মহল প্রকল্প পরিচালকের ওপর ক্ষুব্ধ হন। এরপর হঠাৎ করেই প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। প্রকল্পের গবেষণা কর্মকর্তা প্রকল্পের বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। অভিযোগ তোলেন, ৪৭৮ কোটি টাকার অতিরিক্ত বিল করে আরডিপিপি জমা দিয়েছেন প্রকল্প পরিচালক।

পিবিআইর তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, বাদী আব্দুর রাজ্জাক যে ৪৭৮ কোটি টাকার ভুয়া বিল জমা দেওয়ার কথা বলেছেন সেটি আসলে বিল নয়, পাঁচটি দফতর থেকে পাওয়া ভূমি, নির্মাণ এবং আসবাবপত্রের প্রাক্কলন। বিল আর প্রাক্কলন এক জিনিস নয়। তাছাড়া আরডিপিপি অনুমোদনের ফাইল মামলার বাদী আব্দুর রাজ্জাক নিজেই অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, আরডিপিপির নথি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, প্রকল্পের কর্মকর্তারা আরডিপিপি প্রস্তুত করে প্রকল্প পরিচালক, পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) এবং মহাপরিচালক স্বাক্ষর করে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিবের কাছে পাঠান। ২০২০ সালের ১০ মার্চ অনুষ্ঠিত প্রকল্প স্টিয়ারিং কমিটির সভায় আরডিপিপির অনুমোদন প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক, প্রকল্প পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালককে আসামি করে দুর্নীতি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ মামলা করেন প্রকল্পের গবেষণা কর্মকর্তা প্রভাষক আব্দুর রাজ্জাক। ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তদন্তের নির্দেশ দেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পটি ঘিরে বিভিন্ন অপতৎপরতা শুরু হয় প্রকল্পের ভেতর থেকেই। প্রকল্পের ‘ড্রয়িং ডিজাইন’ এবং ভূমি অধিগ্রহণ নিয়ে পক্ষ-বিপক্ষ শুরু হয়। ভূমি অধিগ্রহণে প্রকল্পের বিরুদ্ধে প্রভাবশালীদের পক্ষ নেন প্রকল্পের এক কর্মকর্তা। সে কারণে সরকারি খাস জমি এখনও বুঝে পাওয়া যায়নি।

গত ৮ নভেম্বর ওই সভার কার্যবিবরণীতে প্রকল্পের পিডি ড. মীর জাহীদা নাজনীন জানান, প্রকল্পের ১০টি জমির মধ্যে চারটির অধিগ্রহণ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে একটি জমি (পূর্বাচল, নারায়ণগঞ্জ) এখনও বুঝে পাওয়া যায়নি। বাকি ছয়টি স্কুলের জমি অধিগ্রহণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

কার্যবিবরণী সূত্রে জানা গেছে, গত অক্টোবর পর্যন্ত এ প্রকল্পের মোট ব্যয় হয়েছে ৬৯ কোটি ১৪ লাখ টাকা। এই ব্যয় মোট প্রাক্কলিত ব্যয়ের মাত্র ১০ দশমিক ২৭ শতাংশ।

প্রসঙ্গত, ‘ঢাকা শহরের সন্নিকটে ১০টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপন’ প্রকল্পের বাস্তবায়ন মেয়াদ ধরা হয়েছে ২০১৭ সালের ১ জুলাই থেকে ২০২২ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। এ হিসেবে প্রকল্পের মেয়াদ আছে মাত্র আট মাস। এই প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয় ৬৭৩ কোটি ৪৬ লাখ ৪৬ হাজার টাকা।

অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া দুই কর্মকর্তার এখন কী হবে জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক বলেন, ‘মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে।’

দুর্নীতির অভিযোগকারী প্রভাষক আব্দুর রাজ্জাকের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানতে চাইলে মহাপরিচালক বলেন, ‘আদালতে কী বলেন, তা দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

প্রকল্পের সাবেক পরিচালক ড. আমিরুল আসলাম বলেন, ‘বিতর্কিত তদন্ত প্রতিবেদনে একটি অংশের কারণে আমাকে প্রকল্প থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ওএসডি হয়ে আছি। বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে আমার এবং সহকারী পরিচালকের বিরুদ্ধে। পিবিআইর তদন্তে প্রমাণ হয়েছে আমি কোনও দুর্নীতি করিনি।’

তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযোগকারী ও প্রকল্পের সাবেক গবেষণা কর্মকর্তা প্রভাষক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘ওরা (পিবিআই) মিথ্যা লিখেছে। ওরা মূল কাজটা বাদ দিয়ে অন্য কাজ করেছে। দুর্নীতির বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন কাজ করবে। পিবিআইর এখতিয়ার নেই, তারা করতে পারে না। আমরা বিষয়টি নিয়ে হাইকোর্টে যাচ্ছি।’

/এমআর/ইউএস/এমওএফ/
সম্পর্কিত
নারায়ণগঞ্জে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে শিশু-শ্রমিক নিহত
নারায়ণগঞ্জে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে শিশু-শ্রমিক নিহত
সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত মাসুদ গ্রেফতার
সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত মাসুদ গ্রেফতার
বড় বড় শিল্পগ্রুপের অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ আত্মসাৎ, ব্যাংকারসহ গ্রেফতার ১০
বড় বড় শিল্পগ্রুপের অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ আত্মসাৎ, ব্যাংকারসহ গ্রেফতার ১০
প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়নের দাবি
প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়নের দাবি
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
নারায়ণগঞ্জে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে শিশু-শ্রমিক নিহত
নারায়ণগঞ্জে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে শিশু-শ্রমিক নিহত
সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত মাসুদ গ্রেফতার
সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত মাসুদ গ্রেফতার
বড় বড় শিল্পগ্রুপের অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ আত্মসাৎ, ব্যাংকারসহ গ্রেফতার ১০
বড় বড় শিল্পগ্রুপের অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ আত্মসাৎ, ব্যাংকারসহ গ্রেফতার ১০
প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়নের দাবি
প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড বাস্তবায়নের দাবি
© 2022 Bangla Tribune