X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

ইভ্যালি নিয়ে মুখ খুললেন তাহসান-মিথিলা, ফারিয়া চুপ!

আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:১৭

দিনভর দুই বাংলার গণমাধ্যম হয়ে নেটাগরিকদের মধ্যে তুমুল আলোচনার খোরাক জোগালেন দেশের অন্যতম তিন তারকা—তাহসান, মিথিলা ও শবনম ফারিয়া। খবরে প্রকাশ, তিন জনই পুলিশ নজরদারিতে আছেন, গ্রেফতার হতে পারেন যেকোনও সময়!

অথচ তিন শিল্পীর কেউ গণমাধ্যমে প্রকাশের (১০ ডিসেম্বর) আগে এমন একটি ভয়ংকর বিষয় সম্পর্কে জানতেনই না! জানলে তো আর মিথিলা ঢাকায় আগত স্বামী সৃজিতকে নিয়ে খেলার মাঠে ব্যস্ত থাকতেন না শতাধিক সাংবাদিকের মধ্যমণি হয়ে! শবনম ফারিয়া পিকনিক করতেন না ‌‘ফ্যামিলি ক্রাইসিস রিলোডেড’-এর সেটে বসে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসে আলতো রোদে অলস সময় পার করতেন না তাহসান খান।

ফলে গ্রেফতারের সংবাদ পড়ে তিন জনই মোটামুটি বিস্মিত ও ক্ষুব্ধ। এরমধ্যে ইভ্যালির প্রাক্তন দুই ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর তাহসান-মিথিলা প্রতিক্রিয়া জানালেও বরাবরের মতো এখনও চুপ আছেন প্রতিষ্ঠানটিতে সরাসরি কর্মরত প্রাক্তন কর্মকর্তা অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া।

শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) খবরে প্রকাশ পায়, গত ৪ ডিসেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় সাদ স্যাম রহমান নামে ইভ্যালির এক গ্রাহক একটি মামলা করেন। ইভ্যালির কর্মকাণ্ডে সহযোগিতার অভিযোগে তাহসান খান, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াসহ নয় জনের বিরুদ্ধে এই মামলা করা হয়। মামলা তদন্তের স্বার্থে যেকোনও সময় আসামিদের গ্রেফতার করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান।

এমন খবরে রাফিয়াত রশিদ মিথিলা বিস্ময় প্রকাশ করেন। বলেন, ‘৪ তারিখে একটা মামলা হলো। আজ ১০ তারিখে খবর পড়ে জানতে পারলাম আমি নজরদারিতে আছি। গ্রেফতার হতে পারি যেকোনও সময়! মামলা হতেই পারে। কিন্তু সেটা জানার অধিকার আমার নেই? আমাকে কেউ জানাবে না? আমি কেন মামলার এক সপ্তাহ পর পত্রিকা থেকে খবরটি জানলাম! এটাই মূলত আমাকে ভাবালো।’

মিথিলা আরও বলেন, ‘একটা মামলা হলে তো লিগ্যাল নোটিশ আসবে। তেমন কিছু পাইনি। তাহলে একটা মানুষ জানবে কীভাবে যে তার নামে মামলা হলো? আমি আসলে বুঝতে পারছি না কী বলবো, কী করবো। এমনিতে এই প্রতিষ্ঠানটিতে যুক্ত হওয়ার দুই মাসের মধ্যেই আমি কুইট করি। আমি অনুভব করি, এটাতে ঝামেলা আছে। অথচ সেই ঝামেলাটা এখনও আমাকে পোহাতে হচ্ছে।’

মিথিলা জানিয়েছেন, গত ১৫ মে ইভ্যালিতে শুভেচ্ছাদূত হিসেবে যোগ দেওয়ার দিনই তাহসানের সঙ্গে একটি বিশেষ লাইভে অংশ নেন তিনি। এর দুই মাসের মাথায় মিথিলা ইভ্যালির সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেন।

তিনি বলেন, ‌‌‘আমি এ পর্যন্ত অন্তত ৫০টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে এভাবে যুক্ত ছিলাম। কিন্তু এবারই একটা বাজে অভিজ্ঞতা হলো। আমরা যারা অ্যাম্বাসেডর হয়ে কাজ করি, তাদের পক্ষে আসলে একটা প্রতিষ্ঠানের পেটের খবর বের করা বা চেক করা সম্ভব হয় না। এটাও তেমন একটি ঘটনা। বাট এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কেউ প্রতারিত হলে, আমি খুবই দুঃখ প্রকাশ করছি। আবারও বলছি, এতে আমার কোনও হাত ছিল না।’

ইভ্যালি প্রসঙ্গে মিথিলা কথা বলেছেন বাংলা ট্রিবিউন লাইভ শোতে-ও:

এদিকে গ্রেফতার ও নজরদারির বিষয়ে এখনও টুঁ-শব্দটি করেননি শবনম ফারিয়া। যিনি চলতি বছরের ১ জুন থেকে ইভ্যালির মিডিয়া ও কমিউনিকেশনস প্রধান হিসেবে কর্মরত ছিলেন প্রায় শেষ পর্যন্ত।

তবে সবচেয়ে বেশি চটেছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রাক্তন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর তাহসান খান। তিনি পাল্টা মামলা করার হুমকি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র থেকে। এ বছরের মার্চে দুই বছরের জন্য ইভ্যালির শুভেচ্ছাদূত হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হন তাহসান। কিন্তু গ্রাহকের অভিযোগ ক্রমশ বাড়তে থাকায় তিন মাসের মধ্যে চুক্তি বাতিল করেন বলে জানান এই গায়ক ও অভিনেতা।

তাহসান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘একটা কোম্পানি তখন ভালো চলছে, সবাইকে পৃষ্ঠপোষকতা করছে। বাহ্যিকভাবে দেখে সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। এখন যেভাবে সেটার দায় মেটাতে হচ্ছে, তাহলে তো কোনও তারকাই আর কোনও ব্র্যান্ড এনডোর্স করতে রাজি হবে না। সব তারকাকে তো আর কোম্পানির ফিন্যান্সিয়াল বুকস দেখতে দেবে না। সারা পৃথিবীতে এমন কিছু হলেও তারকাদের হ্যারাস করা হয় না। আমাদের দেশে এমনটা কেন করা হচ্ছে? এটা তো আমার জন্য মানহানিকর। কারণ গত ছয়-সাত মাস আমার ওপর দিয়ে যা যাচ্ছে, এটা খুবই অস্বস্তিকর।’

পাল্টা মামলা করা প্রসঙ্গে তাহসান বলেন, ‘গত ছয়/সাত মাস ধরে অনেকভাবে নিগৃহীত হচ্ছি এই ইভ্যালির কারণে। কিন্তু আমি তো আমার দায়বদ্ধতার কারণে চুক্তি বাতিল করে বেরিয়ে এসেছিলাম। তাহলে এখন আমাকে কেন নিগৃহীত হতে হচ্ছে? গত ২০ বছরে বিনোদন অঙ্গনে সম্মানের সঙ্গে এত কাজ করলাম, আজ এই একটা কোম্পানির জন্য আমাকে যে পরিমাণ ভুগতে হচ্ছে, সেটা তো আসলে অনাকাঙ্ক্ষিত। যাদের কারণে আমি এই জায়গায় পৌঁছালাম এবং আমাকে এভাবে নিগৃহীত হতে হচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে মামলা করবো।’

আরও বলেন, ‘জানতাম ইভ্যালির ৪০ লাখ গ্রাহক। যে কোম্পানিতে আমি যুক্ত হওয়ার আগেই ৪০ লাখ মানুষ যুক্ত, যে কোম্পানির সঙ্গে দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের ইভেন্ট যুক্ত, দেশের প্রভাবশালী ব্যক্তিরা জড়িত, সেখানে আমি শুভেচ্ছাদূত হয়ে মাত্র দুটো ফেসবুক লাইভ করেছি। তাতেই আমি অপরাধী হয়ে গেলাম?’

এদিকে শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) সকালে ডিএমপি’র রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান বলেন, ই-কমার্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির একজন গ্রাহক আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। সেই মামলার প্রতিবেদন ধানমন্ডি থানায় এসেছে। সে মোতাবেক পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে। মামলায় অভিযুক্ত ৯ আসামি পুলিশের নজরদারিতে রয়েছে। যেকোনও সময় তাদের গ্রেফতার করা হবে।

আরও জানান, তিন লাখ ১৮ হাজার টাকা আত্মসাৎ এবং প্রতারণার অভিযোগে গত ৪ ডিসেম্বর ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাসেল ও চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন, প্রতিষ্ঠানটির শুভেচ্ছাদূত কণ্ঠশিল্পী ও অভিনেতা তাহসান, অভিনেত্রী মিথিলা এবং প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা শবনম ফারিয়ার নাম উল্লেখ করে ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেন সাদ রহমান নামে এক ভুক্তভোগী।

/এমএম/এমওএফ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
একাত্তরের গণহত্যা নিয়ে ভাস্কর্য প্রদর্শনী শুরু
একাত্তরের গণহত্যা নিয়ে ভাস্কর্য প্রদর্শনী শুরু
‘পাদুকা শিল্প অবহেলিত’
‘পাদুকা শিল্প অবহেলিত’
চাকরি গেলো পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর মেয়ের
শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি মামলাচাকরি গেলো পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর মেয়ের
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন জালিয়াতি, পাঁচ শিক্ষকসহ আটক ১৩
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন জালিয়াতি, পাঁচ শিক্ষকসহ আটক ১৩
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত