X
সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪
১০ আষাঢ় ১৪৩১

দুই সংগীত কিংবদন্তির আসা-যাওয়ার দিন

কামরুল ইসলাম
০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০০:১০আপডেট : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৯:৩৬

এক বছর আগেও আজকের (৪ সেপ্টেম্বর) তারিখটি বাংলা সংগীতের জন্য একটি আনন্দের কারণে বিশেষ ছিল। তবে গত বছরের ৪ সেপ্টেম্বর আরও একটি কারণ যুক্ত হয়। সেটা বেদনার, বিদায়ের। তাই আগামীতে যতবার এই তারিখটি ক্যালেন্ডারে উঁকি দেবে, দেশীয় সংগীতে আনন্দ-বেদনা উভয় অনুভব নাড়া দিয়ে যাবে একসঙ্গে।

আজ সোমবার (৪ সেপ্টেম্বর) সেই মিশ্র অনুভূতির দিন। এই দিনেই পৃথিবীতে এসেছেন কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন। আর একই দিনে পৃথিবী ছেড়ে অনন্তলোকে পাড়ি জমিয়েছেন কিংবদন্তি গীতিকবি গাজী মাজহারুল আনোয়ার, যার হাতে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য কালজয়ী গান।

গেলো বছরের এই দিনে মারা গেছেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার। প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাকে পারিবারিক আয়োজনেই স্মরণ করা হবে। অন্যদিকে সাবিনা ইয়াসমিন জন্মদিনে আলাদা পরিকল্পনা রাখেন না। ঘনিষ্ঠজন নিয়ে পারিবারিক আবহেই কাটবে তার দিন।

১৯৪৩ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লার দাউদকান্দি থানার তালেশ্বর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার। ছোটবেলা থেকেই লেখালেখির চর্চা ছিল তার। ১৯৬৪ সালে শুরু করেন বেতারে গান লেখা। বাংলাদেশ টেলিভিশনের সূচনালগ্ন থেকেই তিনি গান ও নাটক রচনা করেছেন। এছাড়া সিনেমার গল্প, চিত্রনাট্য লেখা কিংবা পরিচালনা সবেতেই নিজের মুনশিয়ানার ছাপ রেখে গেছেন তিনি।

বলা বাহুল্য, বাংলা গানের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল গীতিকবি গাজী মাজহারুল আনোয়ার। তার লেখা কালজয়ী গানের মধ্যে রয়েছে ‘জয় বাংলা, বাংলার জয়’, ‘একতারা তুই দেশের কথা বল রে এবার বল’, ‘আছেন আমার মোক্তার’, ‘একবার যেতে দে না আমার ছোট্ট সোনার গাঁয়’, ‘আকাশের হাতে আছে একরাশ নীল’, ‘শুধু গান গেয়ে পরিচয়’, ‘ইশারায় শিষ দিয়ে’, ‘এই মন তোমাকে দিলাম’, ‘নীল আকাশের নিচে আমি’, ‘সুরের ভুবনে আমি আজও পথচারী’, ‘সবাইতো ভালোবাসা চায়’ ইত্যাদি।

গাজী মাজহারুল আনোয়ার জীবদ্দশায় ৪১টি সিনেমা নির্মাণ করেছিলেন। এরমধ্যে রয়েছে ‘নান্টু ঘটক’, ‘স্বাধীন’, ‘পরাধীন’, ‘রাগী’, ‘আর্তনাদ’, ‘লাল দরিয়া’, ‘এই যে দুনিয়া’ ইত্যাদি। 

এক জীবনে প্রায় সব অর্জন নিজের করে নিয়েছেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার। দেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা স্বাধীনতা পুরস্কার পেয়েছেন ২০২১ সালে। তারও আগে পেয়েছেন একুশে পদক। এছাড়া পাঁচবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। গাজী মাজহারুল আনোয়ার

এদিকে সাবিনা ইয়াসমিনকে বলা যায় দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল ও জনপ্রিয় গায়িকা। ১৯৫৪ সালের ৪ সেপ্টেম্বর ঢাকায় তার জন্ম। বাবার চাকরির সুবাদে বেড়ে উঠেছেন নারায়ণগঞ্জে। পরিবারে সংগীতের চর্চা ছিল, তাই ছোটবেলা থেকেই গানের সঙ্গে সখ্য তার। ১৯৬৪ সাল থেকে বেতারের শিশুতোষ অনুষ্ঠান ‘খেলাঘর’-এ অংশ নিয়েছেন তিনি। এর তিন বছর পর আমজাদ হোসেন ও নুরুল হক বাচ্চু পরিচালিত ‘আগুন নিয়ে খেলা’ সিনেমার মাধ্যমে প্লেব্যাক গায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন সাবিনা।

পরবর্তী চার দশকে রীতিমতো দাপটের সঙ্গে গান করে গেছেন সাবিনা ইয়াসমিন। সংখ্যা কিংবা জনপ্রিয়তা দুদিক দিয়েই তিনি বরাবর এগিয়ে ছিলেন। তার গাওয়া অসংখ্য শ্রোতানন্দিত গানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হলো- ‘তুমি আমার মনের মানুষ’, ‘তুমি আমার কত চেনা’, ‘কী দিয়া মন কাড়িলা’, ‘ও সাথীরে’, ‘এ জীবনে যারে চেয়েছি’, ‘তুমি যে আমার’, ‘সে যে কেন এলো না’, ‘তুমি চাঁদের জোছনা নও’, ‘এই মন তোমাকে দিলাম’, ‘কী জাদু করিলা’, ‘শুধু গান গেয়ে পরিচয়’, ‘আমার ভাঙা ঘরে ভাঙা চালা’, ‘এই পৃথিবীর পরে’। এছাড়া দেশাত্মবোধক গানেও তিনি সফলতম গায়িকা। তার কণ্ঠে কালজয়ী হওয়া দেশাত্মবোধক গানের মধ্যে রয়েছে ‘জন্ম আমার ধন্য হলো’, ‘সব কটা জানালা’, ‘সেই রেললাইনের ধারে’, ‘ও মাঝি নাও ছাইড়া দে’, ‘সুন্দর সুবর্ণ’, ‘একটি বাংলাদেশ’, ‘মাগো আর তোমাকে’ ইত্যাদি।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১৪ বার পুরস্কৃত হয়েছেন সাবিনা ইয়াসমিন। এছাড়া ১৯৮৪ সালে একুশে পদক এবং ১৯৯৬ সালে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মাননা স্বাধীনতা পুরস্কার পান তিনি। সাবিনা ইয়াসমিন

/এমএম/এমওএফ/
সম্পর্কিত
অস্ত্রোপচার ও থেরাপি শেষে দেশে ফেরা...
অস্ত্রোপচার ও থেরাপি শেষে দেশে ফেরা...
ফের ক্যানসার, সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন সাবিনা ইয়াসমিন
ফের ক্যানসার, সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন সাবিনা ইয়াসমিন
‘ফিরতে হবে গাজী মাজহারুল আনোয়ারদের কাছেই’
‘ফিরতে হবে গাজী মাজহারুল আনোয়ারদের কাছেই’
সাবিনাকন্যা বাঁধনের কণ্ঠে হিন্দি রবীন্দ্রসংগীত
সাবিনাকন্যা বাঁধনের কণ্ঠে হিন্দি রবীন্দ্রসংগীত
বিনোদন বিভাগের সর্বশেষ
‘ফ্ল্যাগ গার্ল’ প্রিয়তার নতুন অর্জন
‘ফ্ল্যাগ গার্ল’ প্রিয়তার নতুন অর্জন
কবিগুরুর আর্জেন্টিনা সফরের ১০০ বছর পর
কবিগুরুর আর্জেন্টিনা সফরের ১০০ বছর পর
সংগীতে ৬ দশক পেরিয়ে...
সংগীতে ৬ দশক পেরিয়ে...
সোনাক্ষী-জহিরের বিয়েতে মাঝরাতে হাজির ‘ঘটক’!
সোনাক্ষী-জহিরের বিয়েতে মাঝরাতে হাজির ‘ঘটক’!
বিশ্বজয়ের পথে ইন্দোনেশিয়ার নারী মেটাল ব্যান্ড
বিশ্বজয়ের পথে ইন্দোনেশিয়ার নারী মেটাল ব্যান্ড