X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

মিয়ানমারে সহিংসতায় উদ্বেগ থাইল্যান্ডের

আপডেট : ০৬ জুন ২০২১, ১৮:৩৩

মিয়ানমারের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে থাইল্যান্ড। একইসঙ্গে ১ ফেব্রুয়ারির অভ্যুত্থানের পর থেকে বার্মায় ছড়িয়ে পড়া সহিংসতার ইতি টানতে দেশটির জান্তা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ব্যাংকক। রবিবার থাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানানো হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকেই উত্তপ্ত হয়ে আছে মিয়ানমার। বিক্ষোভকারীদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর তাণ্ডবে নিহত হয়েছে অন্তত ৮৪৫ জন। সম্প্রতি রাজপথে বিক্ষোভ শিথিল হয়ে আসলেও সশস্ত্র প্রতিরোধ বাড়ছে। বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, গৃহযুদ্ধের দিকে ধাবিত হচ্ছে মিয়ানমার।

আসিয়ান সম্মেলনে অংশ নিতে গত এপ্রিলে ইন্দোনেশিয়া যান মিয়ানমারের জান্তা সরকারের প্রধান মিন অং হ্লাইং। ক্ষমতা দখলের পর এটিই তার প্রথম কোনও প্রকাশ্য বিদেশ সফর। আসিয়ানের ওই সম্মেলনে পাঁচটি বিষয়ে একমত জোটের অন্য নেতাদের সঙ্গে একমত হন বর্মি জান্তা প্রধান। এর মধ্যে অবিলম্বে সহিংসতা বন্ধ, মিয়ানমারে আসিয়ানের দূত পাঠানো, আসিয়ান প্রতিনিধির উপস্থিতিতে সামরিক ও বেসামরিক নেতাদের মধ্যে সংলাপ এবং দেশটিকে মানবিক সহযোগিতা দেওয়ার মতো বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত ছিল।

রবিবার থাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমরা ব্যাপক উদ্বেগের সঙ্গে মিয়ানমার পরিস্থিতির দিকে খুব গভীরভাবে নজর রাখছি। বিশেষ করে দেশটির বিভিন্ন জায়গায় সহিংসতার ঘটনাগুলোর প্রতি নজর রাখা হচ্ছে।

বিবৃতিতে সহিংসতার ইতি টানতে বর্মি জান্তা সরকারের প্রতি আহ্বান জানান থাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়েল মুখপাত্র তানি সানগ্রাত। এছাড়া বন্দিদের মুক্তি এবং আসিয়ান সম্মেলনে গৃহীত পাঁচ দফা যত দ্রুত সম্ভব বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে গত শনিবারও (৫ জুন) মিয়ানমারের এইয়ারওয়াদি নদী এলাকায় সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন নিহত হয়েছে। সেনাবাহিনী অস্ত্র উদ্ধারের নামে অভিযান চালালে গ্রামবাসী তীর ধনুক ও গুলতি নিয়ে প্রতিরোধ শুরু করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। প্রায় দুই মাসের মধ্যে এটাই দেশটিতে সহিংসতায় একদিনে সর্বোচ্চ প্রাণহানির ঘটনা।

শনিবার ভোরে মিয়ানমারের মূল শহর ইয়াঙ্গুন থেকে প্রায় দেড়শ’ কিলোমিটার দূরে হ্লাসোয়ে গ্রামে সেনাবাহিনী ও গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। স্থানীয় চারটি সংবাদমাধ্যম ও একজন স্থানীয় বাসিন্দার বরাতে সংঘর্ষের খবর দিয়েছে রয়টার্স। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বাসিন্দা বলেন, গ্রামবাসীর কাছে শুধু গুলতি আর তীর-ধনুক ছিলো, সেই কারণে তারাই বেশি হতাহত হয়েছে।

খিট থিট মিডিয়া এবং ডেল্টা নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন বেসামরিক নিহত এবং আরও অনেকে আহত হয়েছে। সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, সেনাবাহিনী অস্ত্র উদ্ধারের নামে অভিযান শুরু করলে প্রতিরোধ করে গ্রামবাসী।

মিয়ানমারে ধান উৎপাদনের জন্য বিখ্যাত এইয়ারওয়াদি নদী এলাকা। এই অঞ্চলে নৃতাত্তিক জনগোষ্ঠীর মানুষেরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। এছাড়া সেখানে কারেন সংখ্যালঘুদেরও বসবাস রয়েছে। এইয়ারওয়াদি নদী এলাকায় ২০ জন নিহতদের পরদিনই মিয়ানমার পরিস্থিতি নিয়ে নিজেদের উদ্বেগের কথা জানালো প্রতিবেশী থাইল্যান্ড। সূত্র: আল জাজিরা।

/এমপি/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
থানা হাজতে নারীকে ধর্ষণ, সাবেক পুলিশ পরিদর্শক কারাগারে
থানা হাজতে নারীকে ধর্ষণ, সাবেক পুলিশ পরিদর্শক কারাগারে
মাদকবিরোধী অভিযানের খবর শুনে পালাতে গিয়ে সাবেক চেয়ারম্যানের মৃত্যু
মাদকবিরোধী অভিযানের খবর শুনে পালাতে গিয়ে সাবেক চেয়ারম্যানের মৃত্যু
ভাড়া নিয়ে বিতর্কে রিকশাচালকের আঘাতে পুলিশসহ আহত ৪
ভাড়া নিয়ে বিতর্কে রিকশাচালকের আঘাতে পুলিশসহ আহত ৪
১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৫৫ শতাংশ, স্বাস্থ্য সেবায় বাস্তবায়ন ৩৯ শতাংশ
১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৫৫ শতাংশ, স্বাস্থ্য সেবায় বাস্তবায়ন ৩৯ শতাংশ
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
রাশিয়া ইস্যুতে মোদির সঙ্গে বৈঠকে বসছেন বাইডেন
রাশিয়া ইস্যুতে মোদির সঙ্গে বৈঠকে বসছেন বাইডেন
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির এমপি অর্জুন সিং তৃণমূলে
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির এমপি অর্জুন সিং তৃণমূলে