X
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
২ বৈশাখ ১৪৩১

ইমরান খানের আপিল শুনানির জন্য বিশেষ বেঞ্চ গঠন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:০১আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:০১

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, তাঁর স্ত্রী বুশরা বিবি ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশির বিরুদ্ধে করা রাষ্ট্রীয় গোপন নথি ফাঁস (সাইফার) ও তোশাখানা দুর্নীতি মামলার আপিল শুনানি আগামীকাল সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি)। এই শুনানির জন্য শনিবার এক বিশেষ বেঞ্চ গঠন করেছে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট (আইএইচসি)। রবিবার পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন এ খবর জানিয়েছে।

প্রধান বিচারপতি আমের ফারুক ও বিচারপতি মিয়াঙ্গুল হাসান আওরঙ্গজেবের সমন্বয়ে গঠিত আইএইচসি ডিভিশন বেঞ্চ সোমবার আপিলের শুনানি করবেন।

রাষ্ট্রীয় গোপন নথি ফাঁস (সাইফার) মামলায় ইমরান ও কুরেশিকে দোষী সাব্যস্ত করে, ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। তবে এই সাজাকে চ্যালেঞ্জ করে আপিল করেছেন তারা।

আর তোশাখানা দুর্নীতি মামলার রায়কে চ্যালেঞ্জ করেছেন ইমরান খান ও বুশরা বিবি। এই মামলায় তাদের প্রত্যেককে ১৪ বছরের কারাদণ্ড ও ১৫৪ কোটি পাকিস্তানি রুপি জরিমানা করা হয়।

সাইফার মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর করা আপিলে উল্লেখ করা হয়, ২০২৩ সালের ১৬ আগস্ট ইমরান খানের গ্রেফতার ও রিমান্ড শুনানি সবচেয়ে আপত্তিকর ও গোপনীয় পদ্ধতিতে করা হয়েছিল। কোনো ধরনের যৌক্তিক কারণ ছাড়াই ইমরান খানের বিরুদ্ধে তাড়াহুড়ো করে রায় দেওয়া হয়েছিল।

আপিলে বলা হয়, ইমরানের বিরুদ্ধে ট্রায়াল কোর্টে উপস্থাপন করা সম্পূর্ণ রেকর্ড প্রসিকিউশন শেয়ার করেনি। বরং তাড়াহুড়ো করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে অভিযুক্ত করেছেন বিচারক।

আপিলে ইমরান খান দাবি করেন, তাদের কৌঁসুলিরা আদালতকে পূর্ণ সহায়তা দিলেও ন্যায়বিচার পাওয়ার ব্যাপারে মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করেই পরিচালিত হয়েছিলো তার মামলা।

আপিলে আরও অভিযোগ করা হয়, উন্মুক্ত বিচারের জন্য ইসলামাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশ থাকার পরও জনসাধারণ, মিডিয়া ইত্যাদিকে নির্দ্বিধায় বিচারের সাক্ষী হতে দেওয়া হয়নি, বরং সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি ও তাদের আইনজীবীদের না জানিয়েই আদালতের কক্ষ পরিবর্তন করে গোপনে কার্যক্রম পরিচালনা করে হয়েছিলো।

/এস/
সম্পর্কিত
কিছু আরব দেশ কেন ইসরায়েলকে সাহায্য করছে?
ইসরায়েলে হামলার আগে সতর্ক করার দাবি ইরানের
ইরান-ইয়েমেনের কয়েক ডজন ড্রোন ধ্বংস করেছে মার্কিন বাহিনী
সর্বশেষ খবর
ত্বকে নিয়মিত ফাউন্ডেশন ব্যবহার করলে কী হয়?
ত্বকে নিয়মিত ফাউন্ডেশন ব্যবহার করলে কী হয়?
ডেঙ্গু রোগীর স্যালাইনের সংকট হবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
ডেঙ্গু রোগীর স্যালাইনের সংকট হবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন আগামী মাসে
সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন আগামী মাসে
তুষারের সেঞ্চুরিতে উড়ে গেলো গাজী টায়ার্স
তুষারের সেঞ্চুরিতে উড়ে গেলো গাজী টায়ার্স
সর্বাধিক পঠিত
কেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বাড়াতে চায় বাংলাদেশ?
কেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বাড়াতে চায় বাংলাদেশ?
মোস্তাফিজের খরুচে বোলিং ছাপিয়ে চেন্নাইয়ের জয়
মোস্তাফিজের খরুচে বোলিং ছাপিয়ে চেন্নাইয়ের জয়
বান্দরবা‌নে বম পাড়া জনশূ‌ন্য, অন্যদিকে উৎসব
বান্দরবা‌নে বম পাড়া জনশূ‌ন্য, অন্যদিকে উৎসব
ইরানের বিরুদ্ধে পাল্টা হামলায় যুক্তরাষ্ট্র জড়াবে না: নেতানিয়াহুকে বাইডেন
ইরানের বিরুদ্ধে পাল্টা হামলায় যুক্তরাষ্ট্র জড়াবে না: নেতানিয়াহুকে বাইডেন
ইসরায়েলের সঙ্গে উত্তেজনা এড়াতে ইরানের প্রতি তুরস্কের আহ্বান
ইসরায়েলের সঙ্গে উত্তেজনা এড়াতে ইরানের প্রতি তুরস্কের আহ্বান