X
রবিবার, ১৯ মে ২০২৪
৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

মিয়ানমারে বিদ্রোহী-নিয়ন্ত্রিত শহরে কোণঠাসা জান্তা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১৩:৫৪আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১৯:২৮

মিয়ানমারের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক শহর মিয়াবতী। গত সপ্তাহেই জান্তা শাসকের কাছ থেকে এটি দখল করেছে দেশটির বিদ্রোহী যোদ্ধারা। সেখানে তুমুল লড়াইয়ের স্পষ্ট ছাপ রয়ে গেছে। সোমবার (১৫ এপ্রিল) বিদ্রোহী-নিয়ন্ত্রিত গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক এই অঞ্চলে বিরল প্রবেশাধিকার পেয়েছিল ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স। রয়টার্সের সাংবাদিকরা সেখানকার সাত জন প্রতিরোধ কর্মকর্তার দেওয়া সাক্ষাৎকারের পাশাপাশি সংঘর্ষের বিষয়ে ব্যাপক জ্ঞান আছে এমন তিন থাই কর্মকর্তা এবং চার নিরাপত্তা বিশ্লেষকের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে শহরটির একটি চিত্র তুলে ধরেছেন। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থাটি

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, তুমুল লড়াই হওয়া এই স্থানটি সীমান্ত শহরের উপকণ্ঠে অবস্থিত। সেখানে পরিত্যক্ত বাড়িগুলোর দেয়ালে বুলেটের গর্ত রয়ে গেছে। বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে গ্যাস স্টেশন। বিমান হামলায় মাটির সঙ্গে মিশে গেছে ভবনগুলো।

মিয়াবতীতে জান্তা সেনাদের বিরুদ্ধে লড়াই করা বিদ্রোহীরা রয়টার্সকে বলেছে, তারা এমন একটি আশাহত সামরিক বাহিনী সঙ্গে লড়েছেন, যারা ভূমি রক্ষায় কোনও আগ্রহ দেখাচ্ছিল না।

যুদ্ধের সঙ্গে জড়িত একটি বিদ্রোহী ইউনিটের কমান্ডার সাও কাও রয়টার্সকে বলেছেন, ‘খুব অল্প সময়ের মধ্যে আমরা তিনটি ঘাঁটি দখল করতে এবং এলাকাটি নিয়ন্ত্রণে নিতে সক্ষম হই। এরপরই তারা পালিয়ে যায়।’

সম্প্রতি সামরিক প্রশাসনের প্রতি অনুগত জাতিগত মিলিশিয়া প্রহরীরা শহরের রাস্তায় রাস্তায় টহল দিয়ে বেড়াত। এপ্রিলের শুরুতে কারেন ন্যাশনাল ইউনিয়ন (কেএনইউ)-এর নেতৃত্বে বিদ্রোহী বাহিনী অবরোধ করলে সেই সেনারা একপাশে দাঁড়িয়েছিল।

সাক্ষাৎকার দেওয়া ব্যক্তিরা রয়টার্সকে দীর্ঘস্থায়ী প্রতিদ্বন্দ্বিতাসহ সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে সূক্ষ্ম কূটনীতির বিষয়টি জানিয়েছিল। তারা বলছিলেন, মূল জনসংখ্যা কেন্দ্রগুলো ধরে রাখতে এবং জান্তার পতন ঘটাতে চায় বিদ্রোহীরা।

মিয়াবতীর পতন মানে মিয়ানমারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুটি স্থলসীমান্ত ক্রসিং প্রতিরোধ যোদ্ধাদের হাতে চলে যাওয়া। এর আগে,  গত বছর চীনা সীমান্তের কাছের মিউজ নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার দাবি করেছিল বিদ্রোহীরা।

জাতিসংঘের তথ্য অনুসারে, বিদ্রোহীরা বর্তমানে দেশটির প্রায় সব প্রধান স্থলসীমান্ত থেকে জান্তাকে বিচ্ছিন্ন করেছে।

একটি সমীক্ষায় থাইল্যান্ডভিত্তিক ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড পলিসি-মিয়ানমার (আইএসপি) থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক বলেছে, মিয়াবতীর পতনের পর ভূমিভিত্তিক শুল্ক রাজস্বের ৬০ শতাংশ থেকে বঞ্চিত হয়েছে জান্তা।

বিশ্লেষকদের মতে, ২০২১ সালে অং সান সু চি’র নির্বাচিত সরকারের বিরুদ্ধে সামরিক অভ্যুত্থানের পর এই প্রথম জান্তাকে তাদের সবচেয়ে দুর্বল অবস্থানে ফেলেছে বিদ্রোহীরা। অক্টোবরের পর থেকে বিদ্রোহী গোষ্ঠীর বড় ধরনের কোনও আক্রমণই প্রতিহত করতে পারেনি জান্তা।

জান্তার সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী থাইল্যান্ডের মতো প্রতিবেশীরা এখন সংঘাতের বিষয়ে তাদের অবস্থান পুনর্বিবেচনা করতে শুরু করেছে।

থাই ভাইস পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিহাস্ক ফুয়াংকেটকিও বুধবার রয়টার্সকে বলেছেন, থাই নিরাপত্তা কর্মকর্তারা কেএনইউ এবং অন্যান্য গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগাযোগ করছেন এবং তারা বিশেষ করে মানবিক ইস্যুতে ‘আরও সংলাপের জন্য উন্মুক্ত’ রয়েছেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, ‘মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে আমরা অন্ধভাবে সমর্থন করছি না। তবে আমরা যেহেতু শান্তি চাই, তাই তাদের সঙ্গে আমাদের কথা বলতে হবে।’

এ বিষয়ে জান্তার এক মুখপাত্রের কাছে মন্তব্যের জন্য অনুরোধ করা হলে তাৎক্ষণিকভাবে কোনও সাড়া পায়নি রয়টার্স।

সশস্ত্র বিদ্রোহের মাধ্যমে মিয়ানমারের ঐক্যকে ক্ষুণ্ন করার জন্য বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোকে অভিযুক্ত করেছেন জান্তাপ্রধান জেনারেল মিন অং হ্লাইং। এসময় প্রতিরোধ যোদ্ধাদের ‘সন্ত্রাসী’ বলেও অভিহিত করেছে তার সরকার।

জান্তা ত্যাগ করার পরও মিয়াবতী এবং এর আশপাশের কিছু অংশে টহল দিচ্ছে ডেমোক্র্যাটিক কারেন বৌদ্ধ আর্মি এবং কারেন ন্যাশনাল আর্মি (কেএনএ) বাহিনী। তবে দলগুলো প্রতিরোধ বিদ্রোহীদের কাছেও আনুগত্য স্বীকার করেনি।

/এএকে/এমওএফ/
সম্পর্কিত
গাজায় ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদনির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না মার্কিন শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
জম্মু ও কাশ্মীরে জোড়া হামলা, নিহত ১, দম্পতি আহত
খারকিভে বেসামরিক নাগরিকদের ওপর হামলা চালাচ্ছে রাশিয়া: ইউক্রেন
সর্বশেষ খবর
আবারও শেষ দিনের রোমাঞ্চে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
আবারও শেষ দিনের রোমাঞ্চে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
ভোটকেন্দ্রে আসতে বাধা দিলে ৯৯৯-এ জানালেই নেওয়া হবে ব্যবস্থা
যশোর জেলা প্রশাসনের সংবাদ সম্মেলনভোটকেন্দ্রে আসতে বাধা দিলে ৯৯৯-এ জানালেই নেওয়া হবে ব্যবস্থা
মেট্রোরেলে ভ্যাট বসানো ভুল সিদ্ধান্ত: ওবায়দুল কাদের
মেট্রোরেলে ভ্যাট বসানো ভুল সিদ্ধান্ত: ওবায়দুল কাদের
নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না মার্কিন শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
গাজায় ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদনির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না মার্কিন শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
সর্বাধিক পঠিত
মামুনুল হক ডিবিতে
মামুনুল হক ডিবিতে
৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি তৃতীয় শ্রেণির সরকারি কর্মচারীদের
৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি তৃতীয় শ্রেণির সরকারি কর্মচারীদের
‘নীরব’ থাকবেন মামুনুল, শাপলা চত্বরের ঘটনা বিশ্লেষণের সিদ্ধান্ত
‘নীরব’ থাকবেন মামুনুল, শাপলা চত্বরের ঘটনা বিশ্লেষণের সিদ্ধান্ত
ভারতীয় পেঁয়াজে রফতানি মূল্য নির্ধারণ, বিপাকে আমদানিকারকরা
ভারতীয় পেঁয়াজে রফতানি মূল্য নির্ধারণ, বিপাকে আমদানিকারকরা
মোবাইল আনতে ডিবি কার্যালয়ে মামুনুল হক
মোবাইল আনতে ডিবি কার্যালয়ে মামুনুল হক