X
মঙ্গলবার, ২১ মার্চ ২০২৩
৭ চৈত্র ১৪২৯

এরদোয়ানের বড় চ্যালেঞ্জ অভিবাসীবিরোধী মনোভাব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৯ মার্চ ২০২৩, ১৮:০৬আপডেট : ১৯ মার্চ ২০২৩, ২১:১৭

তুরস্কের মধ্য-বামপন্থী রিপাবলিকান পিপল’স পার্টি (সিএইচপি)-এর ৭৪ বছর বয়সী নেতা কেমাল কিলিজদারোগলু গত সপ্তাহে ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত হাতায় প্রদেশ সফর করেছেন। সফরে তিনি অঙ্গীকার করেছেন, তিনি যদি নির্বাচিত হন তাহলে দুই বছরের মধ্যে তিনি কিছু শরণার্থীদের সিরিয়া ফেরত পাঠাবেন।

মঙ্গলবার কেমাল বলেছেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলো আমি দুটি লক্ষ্য বাস্তবায়ন করব: প্রথমত সিরীয়দের তাদের মাতৃভূমিতে ফেরত পাঠাবো। দ্বিতীয়ত যারা ইরান হয়ে অবৈধভাবে তুরস্ক এসেছে তাদেরকে ইরান ফেরত পাঠাবো। আমাদের রাস্তা ও বাড়ির আশপাশের এলাকা আমরা মালিকদের কাছে ফিরিয়ে দিতে চাই। অবশ্য, এই ক্ষেত্রে আমাদের সংবেদনশীল হতে হবে। তাই বর্ণবাদ দ্বারা আমাদের জাতিকে কলঙ্কিত করা যাবে না। আমরা এই বিষয়ে কাজ করছি।

১৪ মে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে ঘিরে তুরস্কে প্রচার জোরদার হতে শুরু করেছে। সমর্থকদের কাছে কিলিজদারোগলু ‘কেমাল গান্ধী’ হিসেবে হিসেবে পরিচিত। তিনি দেশটির জাতীয়তাবাদী বলে পরিচিত ঘাঁটিগুলোতে ভোটের আহ্বান জানাচ্ছেন। দীর্ঘ সময় ধরে এই জাতীয়তাবাদীরা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান ও তার ক্ষমতাসীন দল জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (একে) পার্টিকে সমর্থন করে আসছিল।

অভিবাসী ইস্যুতে অসহিষ্ণুতা দীর্ঘদিন ধরে গড়ে উঠছে তুরস্কে। জনমত জরিপে নিয়মিত দেশটির জরুরি সমস্যা হিসেবে অভিবাসন ইস্যু উঠে আসছে।

কিন্তু সিরীয় শরণার্থীদের তুরস্কে আশ্রয় দেওয়া এরদোয়ান জনগণের এই ক্ষোভ নিরসন করতে হিমশিম খাচ্ছেন। তার সরকার অভিবাসীদের রক্ষায় বিকল্প পন্থা গ্রহণ করেছে এবং তাদের দৃশ্যমান হওয়ার সুযোগ সীমিত করতে নতুন আইন পাস করেছে।

গত বছর এরদোয়ান প্রায় দশ লাখ সিরীয় নাগরিককে তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর অঙ্গীকার করেছিলেন। এই নীতিকে অবাস্তব এবং বেআইনি হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছিল। কিন্তু তার এমন অঙ্গীকার সমালোচকদের এই বিষয়ে আরও পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান বন্ধে খুব একটা ভূমিকা রাখেনি।

জানুয়ারিতে এরদোয়ান বলেছেন, এখন পর্যন্ত প্রায় ৫ লাখ ৫০ হাজার শরণার্থীকে নিরাপদ মনে হওয়া তাদের নিজ এলাকায় ফেরত পাঠানো হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দুই মাসে জনমত জরিপে দেখা যাচ্ছে, এরদোয়ানের চেয়ে এগিয়ে আছেন কিলিজদারোগলু। এরদোয়ানের জনপ্রিয়তা ৪৪ শতাংশের বিপরীতে কিলিজদারোগলুর সমর্থন ৫৬ শতাংশ।

চড়া মূল্যস্ফীতি, ঋণ বৃদ্ধি এবং মুদ্রার দরপতনে একাধিক অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলা করছে তুরস্ক। এমন পরিস্থিতি আরও অবনতির দিকে গেছে গত মাসে ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর। এই দুর্যোগের ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে তুরস্ককে কয়েকশ’ কোটি ডলারের পুনর্গঠন প্রকল্প হাতে নিতে হচ্ছে। ২০ বছর ধরে তুরস্ককে নেতৃত্ব দেওয়া এরদোয়ানের জন্য তাই এবারের নির্বাচন কঠিন চ্যালেঞ্জের হতে পারে।

কিন্তু বিরোধী দলগুলোর বিভক্তি, স্বাধীন সংবাদমাধ্যমে হস্তক্ষেপ এবং আইন ও রাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থা প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের নিয়ন্ত্রণে থাকলেও নির্বাচনে তার সহজ জয় আশা করা যাচ্ছে না।

কিলিজদারোগলু একজন অর্থনীতিবিদ এবং সাবেক আমলা। তিনি দুর্নীতির বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। তাই তার সমর্থকরা তাকে মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে তুলনা করতে পছন্দ করেন। তিনি একজন আলেভি ধর্মীয় সংখ্যালঘুর মানুষ, যে গোষ্ঠীতি অতীতে পরিকল্পিত বৈষম্যের শিকার হয়েছে।

অবশ্য অনেকে প্রশ্ন তুলছেন তুরস্কের রাজনীতিতে কয়েক দশক ধরে প্রভাব বিস্তার করা ৬৯ বছর বয়সী এরদোয়ানকে পরাজিত করার মতো ক্যারিশমা তিনি দেখাতে পারবেন কিনা।

সব শ্রেণির ভোটারদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা করছেন কিলিজদারোগলু। এরদোয়ানের শাসনামলে কেন্দ্রীভূত ক্ষমতার বিরুদ্ধে প্রচার করছেন, গণতন্ত্র জোরদারের প্রতিশ্রতি দিচ্ছেন এবং মানবাধিকার ও আইনের শাসন ঊর্ধ্বে তুলে ধরার কথা বরছেন।

কিন্তু তুরস্কের নাগরিকরা অর্থনৈতিক সংকটে থাকায় তার আশা, প্রায় চল্লিশ লাখের মতো সিরীয় এবং অপর দেশগুলোর ৩ লাখের বেশি শরণার্থীকে ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়টি একটি জনপ্রিয় কৌশল হতে পারে।

তার মতে, আমাদের জন্য বিষয়টি একেবারে সরল: সীমান্ত নিরাপত্তা হলো জাতীয় সুরক্ষা। একটি সার্বভৌম জাতির জন্য সবচেয়ে মৌলিক ও প্রয়োজনীয় দায়িত্ব হলো সীমান্ত সুরক্ষা। যারা নিজেদের সীমান্ত রক্ষা করতে পারে না তারা সার্বভৌম হতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, সংক্ষেপে, আমরা দুই বছরের মধ্যে আমাদের সিরীয় অতিথিদের বিদায় জানাতে চাই। প্রেসিডেন্ট হলে প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই সব অবৈধ সীমান্ত ক্রসিং আমি বন্ধ করে দেব।

সূত্র: দ্য টেলিগ্রাফ

/এএ/
সর্বশেষ খবর
ইলিয়াস-বাবুলের প্রতিবেদনের নতুন দিন ধার্য
ইলিয়াস-বাবুলের প্রতিবেদনের নতুন দিন ধার্য
স্টেশনে ঢলে পড়ে মারা গেলেন হ্যারি পটার অভিনেতা পল
স্টেশনে ঢলে পড়ে মারা গেলেন হ্যারি পটার অভিনেতা পল
অবশেষে মুখ খুললেন ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ নির্মাতা
অস্ট্রেলিয়ায় শাকিব-কাণ্ডঅবশেষে মুখ খুললেন ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ নির্মাতা
এক্সপ্রেসওয়েতে গতিসীমা লঙ্ঘন করায় ৩৪ মামলা
এক্সপ্রেসওয়েতে গতিসীমা লঙ্ঘন করায় ৩৪ মামলা
সর্বাধিক পঠিত
প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবে চরমোনাই পীরের উদ্বেগ
প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবে চরমোনাই পীরের উদ্বেগ
মধ্যরাতে শাকিবের হোটেল কক্ষে ঐ নারী কী করছিলেন: বুবলী
মধ্যরাতে শাকিবের হোটেল কক্ষে ঐ নারী কী করছিলেন: বুবলী
ঢাকা সিটির সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে টঙ্গী সাভার কেরানীগঞ্জ
ঢাকা সিটির সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে টঙ্গী সাভার কেরানীগঞ্জ
মাছ ধরতে গিয়ে মিললো বস্তা, খুলতেই দেখা গেলো লাশ, সঙ্গে ৮টি ইট
মাছ ধরতে গিয়ে মিললো বস্তা, খুলতেই দেখা গেলো লাশ, সঙ্গে ৮টি ইট
হঠাৎ কাকের প্রশংসায় কেন তারকারা পঞ্চমুখ!
হঠাৎ কাকের প্রশংসায় কেন তারকারা পঞ্চমুখ!