আটার দাম নিয়ে দুশ্চিন্তায় পাকিস্তান

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১২:৪০, জানুয়ারি ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৩৮, জানুয়ারি ২০, ২০২০

পাকিস্তানে হঠাৎ করেই গমের আটার দাম বেড়ে গেছে। প্রতি কেজি আটা বিক্রি হচ্ছে ৬২ থেকে ৭০ পাকিস্তানি রুপিতে। এমন আকাশছোঁয়া দামে শঙ্কিত দেশের নিম্ন ও নিম্নমধ্যবিত্ত শ্রেণী। রুটি খাওয়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তারা। চিন্তায় পড়েছে ইমরান খানের সরকারও। মূল্যবৃদ্ধিকে কৃত্রিম সংকট আখ্যা দিয়ে লাগাম টানার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম বলছে, গত এক সপ্তাহেই আটার দাম কেজি প্রতি বেড়েছে পাঁচ রুপি। মাসখানেক আগেও করাচিতে ১০ কেজি আটার দাম ছিল ৪৫০ রুপি (কেজিপ্রতি ৪৫ রুপি)। এখন সেখানে ১০ কেজি আটার দাম ৬২০ থেকে ৭০০ রুপি। বিক্রেতারা বলছেন, গমের দাম হঠাৎই বেড়েছে। তাই আটার দামও বেড়েছে।

ফ্লোর মিল অ্যাসোসিয়েশন কেজি প্রতি আটার দাম ৬ রুপি বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। দাম কবে কমবে সে ব্যাপারেও কোনও স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যাচ্ছে না। তবে ইমরান খানের সরকার বলছে, গমের দাম বৃদ্ধির খবর ভুয়া। সরকারি গুদামে ৪০ লাখ টন গম মজুত রয়েছে। ফলে এমনভাবে লাফিয়ে দাম বাড়ার কোনও যুক্তি নেই।

এর আগে শনিবার ইমরান খান রাজ্য সরকারকে খাদ্যদ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধিতে লাগাম টানার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

এদিকে রেস্তোরাঁ ও ধাবা মালিকরা আজ থেকে আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। সরকারের কাছে তাদের দাবি, পুরনো মূল্যে আটা সরবরাহ করতে হবে। না হলে রুটি ও নানের দাম অস্বাভাবিক বাড়িয়ে দিতে বাধ্য হবেন তারা।

/বিএ/

লাইভ

টপ