করোনার ওষুধ নিয়ে রামদেবের প্রতিষ্ঠানের উল্টো সুর

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:৫৪, জুলাই ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৪, জুলাই ০১, ২০২০

ভারতের বিতর্কিত ধর্মগুরু রামদেবের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান পতঞ্জলি আয়ুর্বেদ লিমিটেড করোনাভাইরাসের ওষুধ আবিষ্কারের ঘোষণা দেওয়ার পর চারদিকে আলোচনার ঝড় উঠেছিল। করোনিল নামের ওষুধটি বাজারে আনার কথা জানিয়ে  ব্যাপক সমালোচনা এবং সরকারি পর্যবেক্ষণের আওতায় পড়ে প্রতিষ্ঠানটি। এখন  কোম্পানিটি প্রধান নির্বাহীর (সিইও) মুখে উল্টো সুর। তার দাবি, তারা কখনও বলেনি করোনিল করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি দিতে পারে বা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই এর প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের কোনও গ্রহণযোগ্য প্রতিষেধক কিংবা ভ্যাকসিন নেই। বিশ্বজুড়ে এ নিয়ে প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এর মধ্যেই গত মাসে পতঞ্জলির এক ঘোষণায় বলা হয় তাদের তৈরি ওষুধ করোনিল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীকে সাত দিনের মধ্যে সুস্থ করতে সক্ষম। রোগীদের ওপর ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় তাদের নতুন ওষুধ শতভাগ ইতিবাচক ফলাফল দিয়েছে বলেও দাবি করে রামদেবের প্রতিষ্ঠানটি। ওই ঘোষণার পর করোনার ওষুধ নিয়ে প্রপাগান্ডা ছড়ানোর অভিযোগে ভারতের জয়পুরে যোগগুরু রামদেব, পতঞ্জলির সিইও আচার্য বালকৃষ্ণসহ আরও চার জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের হয়।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই’কে দেওয়া সাক্ষৎকারে পতঞ্জলির সিইও আচার্য বালকৃষ্ণ দাবি করেন, করোনিল করোনা থেকে মুক্তি দেবে তা তারা বলেননি ‘আমরা বলেছিলাম একটা ওষুধ বানিয়েছি আর তা নিয়ন্ত্রিত ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় ব্যবহার করেছি। তাতে করোনা রোগী সুস্থ হয়ে গেছে। এ নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।’ দাবি করেন বালকৃষ্ণ।

গত ২৩ জুন পতঞ্জলির ঘোষণার পরই ভারতের আয়ুর্বেদ মন্ত্রণালয় ওষুধটির কার্যকারিতা পরীক্ষার আগ পর্যন্ত এর বিজ্ঞাপন বন্ধের নির্দেশ দেয়।

/জেজে/বিএ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ