যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে রেকর্ড ৫৩ হাজার মানুষের করোনা শনাক্ত

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৩:৪০, জুলাই ০৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৪৯, জুলাই ০৪, ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রে বৃহস্পতিবার একদিনেই নতুন করে ৫৩ হাজারেরও বেশি মানুষের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানিয়েছেন, এদিন দেশটিতে মোট ৫৩ হাজার ৬৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটি দেশটিতে এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

এ নিয়ে টানা দুই দিন ধরে করোনা আক্রান্তের নতুন রেকর্ড গড়লো যুক্তরাষ্ট্র। আগের দিন বুধবারও দেশটিতে নতুন করে ৫২ হাজার ৮৯৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়। বুধবার পর্যন্ত এটিই ছিল রেকর্ড। কিন্তু সে রেকর্ডও ছাড়িয়ে গেছে দেশটি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্টনি বলেছেন, রূপান্তর প্রক্রিয়ার (মিউটেশন) মধ্য দিয়ে করোনাভাইরাস তার সংক্রমণ ক্ষমতাকে আরও বাড়িয়ে তুলছে। বৃহস্পতিবার এক চিকিৎসা সাময়িকীকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সাম্প্রতিক গবেষণার সূত্রে  হোয়াইট হাউসের স্বাস্থ্য পরামর্শক ফাউচি বলেছেন, সম্ভাব্য মিউটেশন ও এর প্রভাবের বিষয়টি নিশ্চিত করতে গবেষণা চলছে। তবে এ নিয়ে সামান্য বিতর্ক রয়েছে।

ভাইরাস প্রাকৃতিকভাবে পরিবর্তিত হয়। বিজ্ঞানীরা এর আগে বলেছিলেন, তারা করোনার ছোটখাটো মিউটেশন পর্যবেক্ষণ করেছেন, যা থেকে রোগের বিস্তার বা রোগ সৃষ্টির ক্ষমতা খুব বেশি প্রভাবিত হয় না। তবে গত মাসেই ফ্লোরিডার স্ক্রিপস রিসার্চ সেন্টারের ভাইরোলজিস্টরা সম্ভাব্য মিউটেশনের বিষয়ে সতর্ক করে বলেছিলেন, এটি ভাইরাল ট্রান্সমিশন বাড়িয়ে দেয়। যদিও কোন পর্যায়ে রূপান্তর ঘটে সে বিষয়টি পরিষ্কার নয়।

বৃহস্পতিবার ‘সেল’ সাময়িকীতে প্রকাশিত লস অ্যালামস ন্যাশনাল ল্যাবরেটরির গবেষকদের এক নিবন্ধের প্রসঙ্গ টেনে দ্য জার্নাল অব দ্য আমেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের ড. হাওয়ার্ড বাচনারকে একটি সাক্ষাৎকার দেন ফাউচি। এতে তিনি বলেন, 'এখানে যে তথ্য পাচ্ছি, এতে একটি একক মিউটেশনের ফলে ভাইরাসটি আরও বেশি প্রতিরূপ বা প্রতিলিপি তৈরি করতে পারে এবং তাতে ভাইরাসের সক্ষমতা আরও বাড়ে।'

আমেরিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশন ডিজিজেসের পরিচালক ফাউচি বলেন, ‘এতে কোনও ব্যক্তির পরিস্থিতি আরও খারাপ হয় কি না, তা অবশ্য আমাদের জানা নেই। কেবল বোঝা যাচ্ছে, ভাইরাস আরও ভালোভাবে প্রতিলিপি তৈরি করতে পারে এবং আরও ছড়িয়ে পড়তে পারে।’ গবেষকেরা এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করছেন বলেও জানান ফাউচি।

আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারস-এর তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৮ লাখ ৬০ হাজার ৯৩২। মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৩১ হাজার ৮০৮ জনের।

/এমপি/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ