ভাস্কর্যের জুতা ঘষলে পরীক্ষায় ভালো ফল!

Send
নওশীন মুবাশশিরা রোদেলা
প্রকাশিত : ২৩:৪০, জুন ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৪৭, জুন ২০, ২০২০

লোকে বলে, ভাগ্য সবসময় সাহসীদের পক্ষে থাকে। তবে জনশ্রুতি আছে, বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বিভিন্ন মূর্তি ও ভাস্কর্য স্পর্শ করলে যে কারও ভাগ্যের চাকা ঘুরে যেতে পারে! এগুলো নিয়ে তিন পর্বের আয়োজন। আজ রইলো তৃতীয় ও শেষ কিস্তি।

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে জন হার্ভার্ডের মূর্তিজন হার্ভার্ডের মূর্তি
যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস রাজ্যের ক্যামব্রিজ শহরে অবস্থিত হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়। এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা যাজক জন হার্ভার্ড। অভিজাত বিশ্ববিদ্যালয়টির কাছে হার্ভার্ড ইয়ার্ড পার্কে রয়েছে তার একটি মূর্তি। অনেকের বিশ্বাস, তার বাঁ পা সৌভাগ্য বয়ে আনে! তাই পরীক্ষায় ভালো ফল পেতে শিক্ষার্থীরা মূর্তির বাঁ পায়ের বুট ঘষে।

সাধারণ মানুষের মূর্তি
‘প্যারিসের জেন্টেলম্যান’ খ্যাত হোসে মারিয়া লোপেজ জেডিনের মূর্তিহাভানার ওল্ড টাউনে পর্যটন মৌসুমে গেলে জনসমাগমে ব্রোঞ্জের মূর্তিটি হয়তো চোখেই পড়বে না! পর্যটকদের ভিড়, পারফরম্যান্স আর্টিস্ট, আইসক্রিম ও ডাব বিক্রেতার ভিড়ে এটি তখন হারিয়ে যায়। হোসে মারিয়া লোপেজ জেডিন ওরফে ‘প্যারিসের জেন্টেলম্যান’ খ্যাত একজন ব্যক্তির অবয়বে অনুপ্রাণিত এই মূর্তি। বিংশ শতাব্দীতে হাভানার সড়কে এমন মানুষ ছিল চেনা। জনশ্রুতি আছে, কেউ মূর্তিটির দাড়ি ছুঁয়ে কোনও ইচ্ছে করলে তা সত্যি হয়!

রানি ভিক্টোরিয়ার পোষা কুকুরের মূর্তি
রানি ভিক্টোরিয়ার পোষা কুকুর কেয়ার্ন ইসলের মূর্তিঅস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে জর্জ স্ট্রিটে কুইন ভিক্টোরিয়া ভবনের বাইরে বেলেপাথরের ওপর একটি কুকুরের মূর্তি রয়েছে। এটি রানি ভিক্টোরিয়ার পোষা কুকুর কেয়ার্ন ইসলের একটি প্রতিরূপ। এর উচ্চতা ৬০ সেন্টিমিটার। বিশ্বের অন্য মূর্তিগুলোর চেয়ে এর আলাদা বিশেষত্ব হলো এটি কথা বলতে পারে! টাকা চেয়ে কুকুরটির একটি রেকর্ডিং ব্রোঞ্জের মূর্তিটির কাছাকাছি লাউডস্পিকারে নিয়মিত বিরতিতে বাজানো হয়। যাঁরা দান করেন তাদের চাওয়া পূরণ হয় বলে বিশ্বাস অনেকের।

ইল পোরচেল্লিনো
সিডনি হাসপাতালের বাইরে বুনো শূকরের মূর্তিইতালির ফ্লোরেন্স শহরে ইল পোরচেল্লিনো নামে বুনো শূকরের একটি মূর্তি আছে। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে আছে এর একটি রেপ্লিকা। সিডনি হাসপাতালের বাইরে ম্যাককোয়ারি স্ট্রিটের মুখোমুখি এটি অবস্থিত। ফ্লোরেন্সের মূর্তির মতোই এর মুখে কয়েন ঢুকানো একটি ঐতিহ্য, যার মাধ্যমে ভাগ্যের পরিবর্তন হতে পারে। টাকাগুলো হাসপাতালের সহায়তায় ব্যবহার হয়ে থাকে।

নেপোমুকের জনের মূর্তি
প্রাগের চার্লস ব্রিজে নিহত জনের মূর্তিচেক প্রজাতন্ত্রের রাজধানী প্রাগের চার্লস ব্রিজের দু’পাশে অনেক মূর্তি। তবে পর্যটকদের ভিড়ভাট্টা এবং স্ট্রিট আর্ট ও স্যুভেনির স্ট্যান্ডের কারণে এগুলো সবসময় চোখে পড়ে না। অবশ্য এর মধ্যে একটি মূর্তি মিস করা যায় না! ওল্ড টাউন থেকে প্রাগ ক্যাসেলের দিকে হাঁটতে থাকলে ডান দিক থেকে অষ্টম মূর্তিটি নেপোমুক শহরের জনের। চতুর্দশ শতকে রাজার নির্দেশে সেতুর ঠিক এখান থেকে সেন্ট জনকে ফেলে হত্যা করে হয়েছিল। স্থানীয়দের বিশ্বাস, মূর্তির ডান হাতের ফলক স্পর্শ করে মানুষ যা আশা করে তা সত্যি হয়ে যায়।

তথ্যসূত্র: ডেইলি মেইল

/জেএইচ/
টপ