X
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২
১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তারা বহিষ্কৃত, তবু দিলেন পরীক্ষা

চবি প্রতিনিধি
০৩ আগস্ট ২০২২, ১৮:৫১আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২২, ১৮:৫১

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় বহিষ্কৃত দুই ছাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান পরীক্ষা দিচ্ছে। শাস্তি ঘোষণার ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও চিঠি ইস্যু হয়নি। লিখিত পত্র না থাকায় তাদেরকে পরীক্ষা থেকে বিরত রাখতে পারছে না বিভাগও।

গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে দুই ছাত্রী নির্যাতনের শিকার হন। ওই ঘটনায় ১০ মাস পর গত ২৫ জুলাই চার জনকে এক বছরের জন্য বহিষ্কারের ঘোষণা দেয় প্রশাসন। এর মধ্যে রাকিব হাসান রাজু ও ইমন আহমেদ বুধবার (৩ আগস্ট) থেকে শুরু হওয়া দর্শন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রশাসনিক জটিলতার কারণে এখনও চিঠি ইস্যু করা হয়নি। তবে এ জন্য প্রশাসনের সদিচ্ছাকে দোষী করছেন ভুক্তভোগীরা।

ওই ঘটনায় ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এক হেনস্তার বিচার চেয়ে এখন আমরা বারবার হেনস্তার শিকার হচ্ছি। ১০ মাস থেকে ঘুরছি প্রশাসনের কাছে। তখন থেকেই বলছে প্রসিডিউরাল (প্রক্রিয়াগত) কারণে চিঠি দেরি হচ্ছে, দ্রুত যাবে। ১০ মাস পরে শাস্তি ঘোষণার পরও বলছে শিগগির চিঠি যাবে। প্রশ্ন হচ্ছে কখন চিঠি যাবে?’

জানতে চাইলে বাংলা ট্রিবিউনকেও একই কথা বলছেন প্রশাসনিক কর্মকর্তারা। প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, ‘প্রসিডিউরাল কারণে এখনও চিঠি পাঠানো যায়নি। শিগগিরই চিঠি পাঠানো হবে।’

ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান বলেন, ‘তাদের পরীক্ষা বাতিল হয়ে গেছে। আমরা জানতে পেরে বিভাগকে মৌখিকভাবে বলেছি। তবে চিঠি পাঠানো সম্ভব হয়নি। দ্রুত চিঠি যাবে বিভাগে।’

তবে মৌখিক নির্দেশে পরীক্ষা বাতিল করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন দর্শন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান। তিনি বলেন, ‘পরীক্ষা চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মৌখিকভাবে তাদের বিষয়ে জানিয়েছে। তাদের কাছে পরীক্ষার প্রবেশপত্র আছে, ব্যাংক রশিদ আছে। আমার কাছে তো অফিসিয়াল কোনও কাগজপত্র নেই। তাদেরকে কীভাবে বের করবো পরীক্ষার হল থেকে?’

তিনি আরও বলেন, ‘তবে তারা পরীক্ষা দিয়েছে, তার মানে এই না যে তাদের শাস্তি কার্যকর হবে না। প্রশাসন যদি পরীক্ষা শুরুর আগে থেকেই শাস্তি কার্যকর করে তাহলে এই পরীক্ষা দিয়ে কোনও লাভ নেই। অনেকের তো ৫/১০ বছর পরও সার্টিফিকেট বাতিল হয়ে যায়।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন সেলের সদস্য ড. লায়লা খালেদা আঁখি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘অপরাধী শাস্তি ভোগ না করলে সেটা আবার কেমন শাস্তি? অপরাধীদের অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে দুই ছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। এরই মধ্যে গত ১৭ জুলাই যৌন নিপীড়নের শিকার হন আরেক ছাত্রী। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করে। তাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে চলতি বছরের ঘটনায় জড়িত দুজনকে ২৫ জুলাই বহিষ্কারের ঘোষণা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ওই দিনই আগের বছরের ঘটনায় অভিযুক্ত চার শিক্ষার্থীকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

তারা হলেন— আরবি বিভাগের ছাত্র মো. জুনায়েদ, ইসলামের ইতিহাস, সংস্কৃতি বিভাগের রুবেল হাসান, দর্শন বিভাগের ইমন আহমেদ ও রাকিব হাসান রাজু। তারা সবাই ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র।

/এফআর/
ছেলেকে ঘরে থাকতে বলে ফিরতে পারলেন না রুবিনা
ছেলেকে ঘরে থাকতে বলে ফিরতে পারলেন না রুবিনা
বাংলাদেশের উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা নিয়ে প্রচার চালাবে সিএনএন
এফবিসিসিআইয়ের সমঝোতা চুক্তি সইবাংলাদেশের উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা নিয়ে প্রচার চালাবে সিএনএন
কেএসআরএম অষ্টম গলফ টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত
কেএসআরএম অষ্টম গলফ টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত
আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১২ 
আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১২ 
সর্বাধিক পঠিত
রিমান্ডে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে আবিরের মা-বাবা
আয়াত হত্যারিমান্ডে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে আবিরের মা-বাবা
শাহবাগে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় মৃত্যু দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড: রমনা ডিসি
শাহবাগে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় মৃত্যু দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড: রমনা ডিসি
আকাশছুঁই পারিশ্রমিক হাঁকছেন রাজ, দিলেন ব্যাখ্যা
আকাশছুঁই পারিশ্রমিক হাঁকছেন রাজ, দিলেন ব্যাখ্যা
চট্টগ্রামে ৩০ প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
চট্টগ্রামে ৩০ প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
ব্রাজিলকে হারিয়ে দিলো ক্যামেরুন
ব্রাজিলকে হারিয়ে দিলো ক্যামেরুন