X
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

দ্বীপের নাম ‘চর মুজিব’

আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ৮ ডিসেম্বরের ঘটনা।)

 

নোয়াখালী জেলার উপকূলবর্তী চর এলাকার জনগণ একটি চরের নাম বদলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামানুসারে রাখে ‘চর মুজিব’। বঙ্গবন্ধুর প্রতি ভালোবাসা শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা নিদর্শনস্বরূপ তারা এ নামকরণ করেছে বলে জানায়। চরের গুচ্ছগ্রামের জনগণ এ নামকরণ করতে পেরে আনন্দিত।

উল্লেখ্য, এ বছরের প্রথম দিকে গুচ্ছগ্রামের আটশ’ ভূমিহীন কৃষকের মধ্যে জমি বণ্টন করা হয়। সবাই পেয়েছে আড়াই একর করে। এতে থাকবে বাড়ি, পুকুর, সাধারণ খেলার মাঠ, গোচারণভূমি, মসজিদ ও জরুরি আশ্রয় কেন্দ্র। আরও উল্লেখ্য যে, সে বছর গ্রামের ফসলের ভালো ফলনও হয়েছিল।

 

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে রুশ প্রস্তাব গৃহীত

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে একটি সোভিয়েত প্রস্তাব গৃহীত হয়। প্রস্তাবটিতে শান্তি পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্য রাষ্ট্রকে তাদের সামরিক বাজেট শতকরা দশভাগ হ্রাস করার এবং এতে যে অর্থ বাঁচবে তার একটি অংশ উন্নয়নশীল দেশগুলোকে অর্থনৈতিক সাহায্য দান বাবদ ব্যয় করার আহ্বান জানানো হয়।

চীন ও আলবেনিয়া প্রস্তাবটির বিপক্ষে ভোট দেয়। এর আগে সাধারণ পরিষদে প্রস্তাব দিলে তার ওপর আলোচনার সময় চীনের প্রতিনিধি প্রস্তাবের নিন্দা করে বলেন এটা একটা ধাপ্পাবাজি এবং ভন্ডামি।

প্রস্তাবটির ওপর ভোট গৃহীত হওয়ার পর সোভিয়েত প্রতিনিধি অভিযোগ করেন, চীনের বিরোধিতা থেকে এটাই প্রমাণিত হয় যে, পিকিং উন্নয়নশীল দেশগুলোর স্বার্থের বিরুদ্ধে। অথচ উন্নয়নশীল দেশগুলো নিজেদের স্বার্থের কথা ভেবেই সোভিয়েত প্রস্তাবটিকে সমর্থন করেছে।

দৈনিক বাংলা, ৯ ডিসেম্বর ১৯৭৩

আকস্মিক সফরে বঙ্গবন্ধু দেখেন কোটি টাকার সামগ্রী অযত্নে

বন্দরনগরে আকস্মিক সফরে গিয়ে বঙ্গবন্ধু দেখেন কোটি টাকার সামগ্রী অযত্নে ফেলে রাখা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু দেশের সশস্ত্র বাহিনীর হাতে চট্টগ্রাম বন্দর এলাকার নিরাপত্তার দায়িত্বভার হস্তান্তরের নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই দিন সকালে এক আকস্মিক সফরে চট্টগ্রাম বন্দর পরিদর্শন করেন।

রাজধানী ঢাকা থেকে বঙ্গবন্ধু চট্টগ্রাম বন্দরে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি বিশেষ হেলিকপ্টারে। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে ছিলেন যোগাযোগমন্ত্রী মনসুর আলী, তথ্য ও বেতার প্রতিমন্ত্রী তাহেরউদ্দিন ঠাকুর এবং সেনা ও নৌবাহিনীর প্রধানরা। বঙ্গবন্ধু চট্টগ্রাম বন্দর এলাকা থেকে চোরাচালানে মাল পাচার এবং চুরি সম্পর্কে ব্যাপক ও চুলচেরা তদন্তের নির্দেশ দেন দুর্নীতি দমন বিভাগ ও প্রধানমন্ত্রীর তদন্তকারী দলকে।

ডেইলি অবজারভার, ৯ ডিসেম্বর ১৯৭৩

ঢাকা থেকে আকস্মিক চট্টগ্রাম বন্দর পরিদর্শনে এসে বন্দরে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তিনি দেখতে পান বৈদ্যুতিক জেনারেটরের মতো মূল্যবান মেশিনপত্র এবং কেবল খোলা অবস্থায় দীর্ঘদিন অযত্নে পড়ে আছে। বন্দর থেকে এসব মূল্যবান বৈদ্যুতিক জেনারেটর ট্রান্সফর্মার ও কেবল খালাস করে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব ছিল বিদ্যুৎ বোর্ড-এর একজন এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ারের। বন্দর এলাকা থেকে বিদ্যুৎ বোর্ড-এর গুদামে সময়মতো সেসব জিনিস সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে উক্ত ইঞ্জিনিয়ারকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এ ছাড়া আরও কয়েকজন অফিসারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও এই দিনে পত্রিকায় খবর প্রকাশ হয়।

/এফএ/
সম্পর্কিত
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
ফখরুল সাহেব একটা ‘কমিক’ করেছেন: তথ্যমন্ত্রী
ফখরুল সাহেব একটা ‘কমিক’ করেছেন: তথ্যমন্ত্রী
ইউক্রেন যুদ্ধ পরিস্থিতি

ঢাকাকে নিজেদের অবস্থান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া

আপডেট : ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২২:০১

ইউক্রেন সীমান্তে সেনা সমাবেশ করছে রাশিয়া। শুধু তা-ই নয়, পার্শ্ববর্তী দেশ বেলারুশেও রুশ সৈন্য মোতায়েন করা হয়েছে। যাতে প্রয়োজনে ওই দেশ থেকেও আক্রমণ করা যায়। পূর্ব ইউরোপের দেশ ইউক্রেনকে সহায়তা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোট একসঙ্গে কাজ করছে। এরকম যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যে বাংলাদেশের সঙ্গেও যোগাযোগ করছে ওয়াশিংটন ও মস্কো। ইতোমধ্যে আমেরিকা তাদের আনুষ্ঠানিক অবস্থান জানিয়ে ডিমারশে লেটার দিয়েছে বাংলাদেশকে। অন্যদিকে বুধবার (২৬ জানুয়ারি) রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ম্যানটিটস্কি পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে দেখা করে তার দেশের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব বাংলা ট্রিবিউনকে বুধবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘দুপক্ষই তাদের অবস্থান জানিয়েছে।’

এ প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ কী অবস্থান নেবে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘আমরা যেকোনও সংঘাতের বিরোধী। আমরা মনে করি আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ অবস্থানে পৌঁছানো সম্ভব। আমরা আশা করি সব পক্ষ সংঘাত পরিহার করে নিজেদের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধানে আসবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক বলেন, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর থেকে ওই অঞ্চলটিতে রাষ্ট্র গঠন প্রক্রিয়া আগেও স্থিতিশীল ছিল না, এখনও নেই। নতুন স্নায়ুযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ইউক্রেনে সংঘাতময় পরিস্থিতি বিশ্বকে আরও অস্থিতিশীল করতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ইউক্রেনের সঙ্গে বাংলাদেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক কম কিন্তু বহুপক্ষীয় ব্যবস্থায় বাংলাদেশকে এ বিষয়ে সম্পৃক্ত করার জন্য উভয়পক্ষ অনুরোধ করবে।

তিনি বলেন, নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বিষয়টি আলোচিত হবে না। কারণ, আমেরিকা ও রাশিয়া উভয়ই ভেটো ক্ষমতার অধিকারী। সেক্ষেত্রে সাধারণ অধিবেশনে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা বেশি। যার সদস্য বাংলাদেশ। আবার জেনেভাতে মানবাধিকার কাউন্সিলে ইউক্রেন বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করতে পারে। সেখানেও ৪৭ সদস্যবিশিষ্ট কাউন্সিলে সদস্য হিসেবে রয়েছে বাংলাদেশ।

রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলে বাংলাদেশের কী সমস্যা হতে পারে জানতে চাইলে আরেকজন কর্মকর্তা বলেন, রাশিয়ান প্রযুক্তিতে রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র তৈরি হচ্ছে। এর কাজ অনেকটা শেষ। এক্ষেত্রে কী প্রভাব পড়বে সেটি নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগে বলা মুশকিল।

/এসএসজেড/এমআর/এমওএফ/
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
ফখরুল সাহেব একটা ‘কমিক’ করেছেন: তথ্যমন্ত্রী
ফখরুল সাহেব একটা ‘কমিক’ করেছেন: তথ্যমন্ত্রী
বিতর্কিত নির্বাচন করতেই এই আইন করা হচ্ছে: সুজন
বিতর্কিত নির্বাচন করতেই এই আইন করা হচ্ছে: সুজন
© 2022 Bangla Tribune