মুক্তমনা মানুষদের রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার দাবি ঢাবির বর্তমান ও সাবেক ভিসির

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:৫৭, মার্চ ০৩, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:১২, মার্চ ০৪, ২০১৮

মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান ও আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকশাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলার  ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান এবং সাবেক উপাচার্য  অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। হামলাকারির দোসরদের চিহ্নিত করে তাদের গ্রেফতার ও দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান এই দুই শিক্ষাবিদ। শনিবার  রাতে বাংলা ট্রিবিউনকে তারা এ প্রতিক্রিয়া জানান।

ঢাবির উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘অনাকাঙ্ক্ষিত এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একইসঙ্গে এই হামলাকারী বা হামলাকারীদের আইনের আওতায় এনে দ্রুত বিচারের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

হামলাকারীদের চিহ্নিত করে তাদের নির্মূলের দাবি জানিয়ে সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিজ্ঞান লেখক, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালসহ যারা সমাজকে মুক্তচিন্তার নির্দেশনা দেন, এমন সব মানুষের জন্য রাষ্ট্রীয় সুরক্ষা দিতে হবে। আমরা আশা করবো, আক্রমণকারী ও তার দোসরদের আইনের আওতায় আনা হবে এবং অধ্যাপক জাফর ইকবালসহ তার মতো মানুষদের সুরক্ষার জন্য রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে যেন দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হয়। যারা সমাজকে দিক নির্দেশনা দেন, তাদের সুরক্ষায় রাষ্ট্রের সব রকম ব্যবস্থা নিতে হবে।’

অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ‘বিজ্ঞান লেখক ড. জাফর ইকবাল মুক্তমনা স্বাধীনচেতা মানুষ। এ ধরনের একজন মানুষের ওপর হামলার অর্থ হচ্ছে— সত্য ও ন্যায় নিষ্ঠার ওপর আক্রমণ। অন্ধকারের অপশক্তিই এই আক্রমণ করেছে। আজ তারা ড. জাফর ইকবালের ওপর আক্রমণ করেছে, যারা আগে অধ্যাপক হুমায়ুন আজাদের ওপর আক্রমণ করেছিল। দেশের বহু সাংবাদিক, লেখক, মুক্তমনা মানুষের ওপর যারা আক্রমণ করেছে, তাদের সহচর-দোসররাই এই আক্রমণকারী। যাকে ধরা হয়েছে, সে একা নয়, এর পেছনে তার গোষ্ঠী আছে, দোসর আছে। আমাদের সত্যনিষ্ঠ মুক্তমনা মানুষদের যদি রক্ষা করতে চাই, তাহলে পুরো গোষ্ঠীকে সমূলে চিহ্নিত করা ও নির্মূল করা আমাদের সবার দায়িত্ব।’

উল্লেখ্য, শনিবার বিকাল ৫টা ৪০ মিনিটে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠান চলাকালে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে পেছন থেকে মাথায় ছুরিকাঘাত করে ২৪-২৫ বছর বয়সী এক তরুণ। এরপর তাকে সিলেটের ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরই মধ্যে সেখানে অস্ত্রোপচার শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় আনা হয়েছে। এর আগে, তার শারীরিক অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন সিলেটের ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. দেবপদ রায়।

 আরও পড়ুন:

ওটিতে ড. জাফর ইকবাল

‘ড. জাফর ইকবাল শঙ্কামুক্ত’

জাফর ইকবালের চিকিৎসায় বোর্ড গঠন

শাবিতে ড. জাফর ইকবালের মাথায় ছুরিকাঘাত

জাফর ইকবালকে দেখতে শিক্ষামন্ত্রী হাসপাতালে

জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারীকে র‌্যাবে হস্তান্তর

জাফর ইকবালের পেছনেই দাঁড়িয়েছিল হামলাকারী যুবক

হামলাকারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে সিলেট যাচ্ছে সিটিটিসি

অস্থিতিশীলতার ইঙ্গিত বলছে আ. লীগ, বিএনপি’র দাবি চক্রান্ত

জাফর ইকবালের ওপর হামলার প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্ষোভ

জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতারে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

জাফর ইকবালকে হত্যার টার্গেটে রাখা হয়েছিল সবসময়: গণজাগরণ মঞ্চ

‘নিরাপত্তার মধ্যে তাৎক্ষণিক সুযোগ পেয়ে জাফর ইকবালের ওপর হামলা করা হয়’

/এসটিএস/এসএমএ/এপিএইচ/

লাইভ

টপ