জাফর ইকবালকে হত্যার টার্গেটে রাখা হয়েছিল সবসময়: গণজাগরণ মঞ্চ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৪২, মার্চ ০৩, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:১৭, মার্চ ০৩, ২০১৮

শনিবার সন্ধ্যায় শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের বিক্ষোভ গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার বলেছেন, ‘সরকারের হেয়ালীপনার কারণে প্রশাসনের কঠোর বেষ্টনীকে পাশ কাটিয়ে প্রগতিশীল লেখক জাফর ইকবালকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। মৌলবাদীদের সবসময়ের টার্গেট প্রগতিশীল লেখকরা। জাফর ইকবালকে হত্যার টার্গেটে রাখা হয়েছিল সবসময়। কিন্তু সরকার তা আমলে নেয়নি। ফলে এর সম্পূর্ণ দায় নিতে হবে সরকারকেই।’

জাফর ইকবালের ওপর হামলার প্রতিবাদে শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় রাজধানীর শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চ বিক্ষোভ করে। পরে অনুষ্ঠিত সমাবেশে ইমরান এইচ সরকার এসব কথা বলেন।

বিক্ষোভ থেকে বলা হয়, জাফর ইকবালের উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, সন্ত্রাসীদেরকে দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে রবিবার বিকাল ৪টায় সমাবেশ করবে গণজাগরণ মঞ্চ।

ইমরান সরকার আরও বলেন, ‘অভিজিৎ রায় হত্যার সময় আমরা বুঝতে পেরেছিলাম সরকার জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করেছে। অভিজিৎ রায়ের হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দিতে ৩২ বার সময় পেছানো হয়েছে। এর আগে যতজন প্রগতিশীল লেখককে হত্যা করা হয়েছে। সেসব অপরাধীকে ধরতে ও তাদের বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে হেয়ালি করা হয়েছে। সবসময় তাদেরকে বাঁচানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘এ ঘটনাকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা হিসেবে দেখার কোনও সুযোগ নেই৷’

ইমরান এইচ সরকার বলেন, ‘দ্রুত অপরাধীদেরকে গ্রেফতার করে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হোক। সরকার যদি তা না করে অবহেলা করে তাহলে আরও কঠোর আন্দোলনে যাবো আমরা।’

ছাত্রইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি জিএম জিলানী শুভ বলেন, ‘জাফর ইকবাল প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিরুদ্ধে কঠোর প্রতিবাদী অবস্থানে ছিলেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিলেন। সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে তার শক্ত অবস্থান ছিল। আজ তাকে হত্যা চেষ্টা হলো। যারা তাকে হত্যার চেষ্টা করেছে, তারা মুক্ত চিন্তার বিরুদ্ধ শক্তি। তাদের ক্ষমা নেই। তাদেরকে কঠিন শাস্তির মুখোমুখি দাঁড় করাতে হবে।’

প্রগতিশীল লেখক রবিন আহসান বলেন, ‘একের পর এক প্রগতিশীল লেখক ও দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকে পেছন দিক থেকে আঘাত করা হচ্ছে। আজ পাঁচ জন পুলিশের পাহারার মধ্যে গুণী ব্যক্তিত্ব জাফর ইকবাল স্যারকে হত্যা চেষ্টা করা হয়েছে। যারা আজ স্যারকে হত্যাচেষ্টা করেছে, তারা দেশের শত্রু জাতির শত্রু। তাদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। তাদের কঠিন শাস্তির মুখোমুখি দাঁড় করাতে হবে। জাফর ইকবাল স্যারের শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে অতি দ্রুত দেশের বাইরে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হোক।’

বিক্ষোভ কর্মূচিতে স্লোগান একাত্তর, নাগরিক সমাজ, ছাত্রমৈত্রী পৃথকভাবে অংশ নেয় এবং জাফর ইকবালকে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদ জানায়।

এ সংক্রান্ত আরও খবর:

‘ড. জাফর ইকবাল শঙ্কামুক্ত’

জাফর ইকবালের চিকিৎসায় বোর্ড গঠন

শাবিতে ড. জাফর ইকবালের মাথায় ছুরিকাঘাত

জাফর ইকবালকে দেখতে শিক্ষামন্ত্রী হাসপাতালে

জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারীকে র‌্যাবে হস্তান্তর

জাফর ইকবালের পেছনেই দাঁড়িয়েছিল হামলাকারী যুবক
হামলাকারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে সিলেট যাচ্ছে সিটিটিসি

অস্থিতিশীলতার ইঙ্গিত বলছে আ. লীগ, বিএনপি’র দাবি চক্রান্ত

জাফর ইকবালের ওপর হামলার প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্ষোভ

জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতারে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

জাফর ইকবালকে হত্যার টার্গেটে রাখা হয়েছিল সবসময়: গণজাগরণ মঞ্চ

‘নিরাপত্তার মধ্যে তাৎক্ষণিক সুযোগ পেয়ে জাফর ইকবালের ওপর হামলা করা হয়’



/এসআইআর/আরএআর/এনআই/

লাইভ

টপ